শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৯ | আপডেট ০২ মিনিট আগে

বজ্রপাতে আট জেলায় ১৫ জনের মৃত্যু

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

বজ্রপাতে আট জেলায় ১৫ জনের মৃত্যু

সারাদেশে বজ্রপাতে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত ১৩ জন। রোববার সকাল ও দুপুরে বজ্রপাতে তাদের মৃত্যু হয়। প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ:

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, সিরাজগঞ্জের কাজিপুর, শাহজাদপুর ও কামারখন্দে বজ্রপাতে বাবা-ছেলেসহ পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে।

নিহতরা হলেন- কাজিপুরের চরাঞ্চল ডিগ্রি তেকানী গ্রামের মৃত পারেশ মন্ডলের ছেলে শামছুল মন্ডল (৫৫) ও তার ছেলে আরমান (১৪), শাহজাদপুর উপজেলার ছয়আনি গ্রামের ফারুক খানের ছেলে নাবিল (১৭) ও রাশেদুল ইসলাম ছেলে পলিন (১৫) এবং কামারখন্দের পেস্তক কুড়া গ্রামের মৃত আহের মন্ডলের ছেলে কাদের হোসেন (৩৭)।

কাজিপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ জানান, সকালে ডিগ্রী তেকানী চরে ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে বাদাম তুলছিলেন শামছুল। এ সময় বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাত হয়ে দুজনেই ঝলসে যান। তাদের উদ্ধার করে কাজিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে উভয়েই মারা যান।

অপরদিকে, কামারখন্দের পেস্তককুড়া গ্রামের কৃষক কাদের হোসেন বাড়ির পাশেই ক্ষেতের ধান কাটছিলেন। এ সময় বজ্রপাতে তার শরীর ঝলসে যায়। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

অন্যদিকে, শাহজাদপুর যুবলীগ নেতা আশিকুর রহমান দিনার জানান, দুপুরের দিকে দুই বন্ধু নাবিল ও পলিন ছয়আনি গ্রামের একটি তাল গাছের নীচে দাঁড়িয়ে ফোনে কথা বলছিল। এ সময় বজ্রপাতে দুজনেই ঘটনাস্থলে মারা যায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় বজ্রপাতে আব্দুর রহিম (৪০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। রোববার সকাল নয়টার দিকে উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের দরুইন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৃত রহিমের বাড়ি মৌলভীবাজার জেলায় বলে নিশ্চিত করেছেন আখাউড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন তরফদার।

নওগাঁ: নওগাঁর সাপাহারে বজ্রপাতে সোনাভান (২৪) নামে এক গৃহবধূ মারা গেছেন। এ ঘটনার তিনজন আহত হয়েছেন। রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলা শিরন্টি ইউনিয়নের শিমলডাঙ্গা রামাশ্রম গ্রামে এ বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন- নিহতের স্বামী রুবেল হোসেন (২৮), সালেহা বিবি (৪২) ও শিশু রাজু (১২)।

সাপহার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আলম শাহ নিহতের এ তথ্য নিশ্চিত করেন। আহতদের সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মাটিকাটা এলাকায় বজ্রপাতে জাফরুল ইসলাম (২০) নামে পোশাক কারখানার এক চেকম্যানের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় নারীসহ পাঁচ শ্রমিক আহত হয়েছেন।

রোববার সকাল আটটার দিকে মাটিকাটা এলাকায় ইনক্রেডিবল ফ্যাশন লিমিটেড কারখানার সামনে এ ঘটনা ঘটে। কালিয়াকৈর শিল্প পুলিশের সহকারী উপ-পরির্দশক (এএসআই) ফারুক হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রাঙ্গামাটি: বাঘাইছড়ি উপজেলায় বজ্রপাতে মনছুরা বেগম (৩৫) নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। মনছুরা বেগম বাঘাইছড়ি উপজেলার মুসলিম ব্লক এলাকার বাসিন্দা।

বাঘাইছড়ি থানার ওসি আমির হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন। রোববার দুপুর একটার দিকে রাঙ্গামাটির উপজেলার মুসলিম ব্লক এলাকার বাসিন্দা মনছুরা বেগম বজ্রপাতে মারা যান।

নোয়াখালী: নোয়াখালী সদর উপজেলায় সহপাঠীদের সঙ্গে ফুটবল খেলতে গিয়ে বজ্রপাতে পিয়াল (১৩) নামে এক ছাত্র ও এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে।  রোববার দুপুর ১২টার দিকে নোয়াখালী পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের লক্ষ্মী নারায়ণপুর গ্রামের বশিরার দোকানের পার্শ্ববর্তী খেলার মাঠে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত পিয়াল নোয়াখালী পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের লক্ষ্মী নারায়ণপুর গ্রামের সোহেল রানার ছেলে। তিনি নোয়াখালী জিলা স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। আর নিহত কৃষক শাহীনের (২৬) গ্রামের বাড়ি ভোলাতে। সুধারাম থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) লিটন দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামে বজ্রপাতে লিটন মিয়া (৩০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। রোববার সকাল সাড়ে আটটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কৃষক লিটন সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান মিয়ার ছেলে। সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে আবাসিক চিকিৎসক ডা. রফিকুল ইসলাম কৃষকের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/প্রতিনিধি/তৌহিদ)

মন্তব্য