২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত

অনলাইন ডেস্ক

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। একইসঙ্গে গুচ্ছভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদনের সময়সীমা ২৫ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

শুক্রবার (১১ জুন) গুচ্ছভুক্ত ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের ভার্চুয়াল বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার সদস্য সচিব প্রকৌশলী মো. ওহিদ্দুজ্জামান বলেন, ১৯ তারিখের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে এবং প্রাথমিক আবেদনের সময়সীমা বৃদ্ধি করে ২৫ জুন করা হয়েছে।

এর আগে সমন্বিত ভর্তি কমিটির প্রাথমিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ১৯ জুন মানবিক বিভাগের, ২৬ জুন বাণিজ্যের ও ৩ জুলাই বিজ্ঞান বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার আবেদন আগামী ২৫ জুন পর্যন্ত করা যাবে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

শিক্ষার্থীরা টিকা নেওয়ার পর খোলা হবে বিশ্ববিদ্যালয়: শিক্ষামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

শিক্ষার্থীরা টিকা নেওয়ার পর খোলা হবে বিশ্ববিদ্যালয়: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, টিকা দেওয়ার পর শিক্ষার্থীদের সরাসরি উপস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাকার্যক্রম শুরু হবে। আজ বৃহস্পতিবার স্পিকার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে এ সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা জানান।


আরও পড়ুন

আবু ত্ব-হাকে খুঁজে বের করার দাবিতে সমাবেশ

ক্লাবে ঢুকে মদ না পেয়ে তারা ভাংচুর চালায় : ক্লাব কর্তৃপক্ষ (ভিডিও)

টিকা সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে: চীনের আশ্বাস

জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে পরীমণিকে


তিনি আরও জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকলকে অগ্রাধিকারভিত্তিতে খুব তাড়াতাড়ি করোনাভাইরাসের টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে। টিকা প্রদানের কর্মসূচি শুরু হবে হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের দিয়ে। টিকা প্রদানের পর হলগুলো খুলে দেওয়া হবে। এরপরই বিশ্ববিদ্যালয়ের সরাসরি পাঠদান শুরু হবে।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

বশেমুরবিপ্রবির ভিসি-রেজিস্ট্রারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে মাস্টারোল কর্মচারীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

বশেমুরবিপ্রবির ভিসি-রেজিস্ট্রারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে মাস্টারোল কর্মচারীরা

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে মাস্টাররোলের কর্মচারীরা।

আজ সকাল ১১টার দিকে আন্দোলনরত কর্মচারীরা উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারের দপ্তরের ফটকে তালা লাগিয়ে দেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধি ও পুলিশ বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান করছে।

উপাচার্যকে অবরুদ্ধের বিষয়ে মাস্টাররোল কর্মচারী রিপন গাজী বলেন, আমরা গত তিন বছর যাবৎ অস্থায়ী ভিত্তিতে কাজ করছে। মাঝে প্রায় ১৩ মাস আমাদের বেতন বন্ধ ছিলো। নতুন উপাচার্য আসার পর চাকরি স্থায়ীকরণের আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু আমরা এখনও আশ্বাসের কোনো বাস্তবায়ন দেখিনি। এখন আমাদের একটাই দাবি নীতিমালা প্রণয়ন করে চাকরি স্থায়ীকরণ করতে হবে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত গেট আটকানো থাকবে এবং অবরোধ চলবে।

আরও পড়ুন:


স্বাধীনতার মূল শর্ত হচ্ছে বাক, চিন্তা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা: ফখরুল

এখনও খোঁজ মেলেনি আবু ত্ব-হা আদনানের, যা বলছে পুলিশ

রোনালদোকাণ্ডের পর এবার টেবিল থেকে বিয়ারের বোতল সরালেন পগবা


এ বিষয়ে উপাচার্য ড. এ কিউ এম মাহবুব বলেন, আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য হিসেবে আসার আগে মাস্টাররোলে প্রায় দেড় শতাধিক কর্মচারী নেওয়া হয়েছে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ে এত সংখ্যক কর্মচারীর পদ নেই। ইউজিসির কাছে সম্প্রতি কিছু পদে লোক নিয়োগের আবেদন করা হয়েছে। এক্ষেত্রে হয়ত ১২-১৩টি কর্মচারীর পদ আসতে পারে। ইউজিসি অনুমতি না দিলে আমাদের চাকরি স্থায়ীকরণের সুযোগ নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য খন্দকার নাসিরউদ্দিন নিয়ম না মেনে মাস্টাররোলে এইসব কর্মচারীদের নিয়োগ দিয়েছিলেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

অটোপাস পাচ্ছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব শিক্ষার্থীরা

অনলাইন ডেস্ক

অটোপাস পাচ্ছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব শিক্ষার্থীরা

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতাধীন অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের অটোপাস দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।  এ ছাড়া স্নাতক দ্বিতীয় ও তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের মৌখিক অথবা অনলাইন পরীক্ষার মাধ্যমে পরবর্তী বর্ষে উত্তীর্ণ করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মশিউর রহমান বলেন, আমরা শর্তসাপেক্ষে প্রথম বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের অটোপাস দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা সশরীরে পরীক্ষা নেব। তখন অটোপাস পাওয়া শিক্ষার্থীদের সেসব পরীক্ষায় পাস করতে হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতাধীন কলেজের শিক্ষার্থীরা ৩ বছর আগে অনার্স প্রথম বর্ষে ভর্তি হলেও করোনাভাইরাসের কারণে পরীক্ষা না হওয়ায় দ্বিতীয় বর্ষে উত্তীর্ণ হতে পারেনি। এই অবস্থায় শর্তসাপেক্ষে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের অটোপাস দিয়ে দ্বিতীয় বর্ষে উত্তীর্ণ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ওই শিক্ষার্থীদের অনার্স শেষ করার আগে প্রথম বর্ষের বিষয়গুলোর পরীক্ষায় পাস করতে হবে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

ফাইল ছবি

করোনা পরিস্থিতি দেখে চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা হবে কি না বিবেচনা করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। মঙ্গলবার (১৫ জুন) দুপুরে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, ২০২১ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য আমরা চেষ্টা করছি সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে পরীক্ষা নেওয়ার। এখন সেটিও যদি না হয়, আমরা তার বিকল্প নিয়েও চিন্তা করছি। কিন্তু এখন পরীক্ষা আমরা নিতে পারব কিনা, পরীক্ষা নিতে না পারলে বিকল্প কোনো ব্যবস্থা থাকলে- তার সবকিছু নিয়েই কিন্তু আমাদের চিন্তাভাবনা আছে।

গত রবিবার (১৩ জুন) চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নেওয়া সম্ভব না হলে বিকল্প ব্যবস্থার চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী।


আরও পড়ুন:


 

হেফাজত নেতা আজহারুল ইসলাম গ্রেপ্তার

সিলেটের জকিগঞ্জে দেশের ২৮তম গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান!

পরীমণিকে বোট ক্লাবে নিয়ে যাওয়া কে সেই অমি?

আবারও চুপি চুপি ‘রোমাঞ্চকর’ ভ্রমণে নুসরাত-যশ


উল্লেখ্য, গত বছরের ১৭ মার্চ দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়। চলতি বছরে কয়েক দফায় স্কুল ও কলেজ খোলার তারিখ নির্ধারণ এবং প্রস্তুতি নেওয়ার কথা বলা হলেও মহামারি পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় তা সম্ভব হয়নি।

সর্বশেষ ১৩ জুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে ৩০ জুন পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

বেরোবি উপাচার্যের যোগদান

সংকট নিরসনের আশ্বাস

রেজাউল করিম মানিক, রংপুর

বেরোবি উপাচার্যের যোগদান

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. হাসিবুর রশীদ যোগদান করেছেন। আজ সোমবার সকাল ১০টা নাগাদ তিনি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেন এবং উপাচার্য দপ্তরে গিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজের দায়িত্ব বুঝে নেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে তাকে বরণ করে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

যোগদানের পরেই নিজ দপ্তরে বসে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন ড. হাসিবুর রশীদ। এ সময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সমস্যার নিরসন করে বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি অনন্য বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

আলাপকালে সাবেক উপাচার্য ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর সময়ে বহুল আলোচিত ঢাকাস্থ লিয়াজোঁ অফিসকে বন্ধ ঘোষণা করে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল একাডেমিক এবং প্রশাসনিক সভা, সেমিনার থেকে শুরু করে যাবতীয় কার্যক্রম এখন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসেই অনুষ্ঠিত হবে। সার্বক্ষণিক বিশ্ববিদ্যালয় ক্যম্পাসে উপস্থিত থাকবেন বলেও সাংবাদিকদের জানান তিনি।

শিক্ষার্থীদের সেশনজট এবং পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য বলেন, যোগদান করলাম। এখন সকল শিক্ষকদের নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে পরীক্ষার বিষয়ে সুদূরপ্রসারী এবং কার্যকর একটা পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আর সেশনজট যেহেতু অনেক আগে থেকেই হয়ে আসছে তাই এটা সমাধানে সময় দরকার। আশা করি খুব দ্রুতই সেটারও সমাধান করা সম্ভব হবে।

আরও পড়ুন:


ঢাকা বোট ক্লাবের সদস্য হতে লাগে ১৮ লাখ টাকা

নাসিরের বাসায় উঠতি বয়সী তরুণীদের দিয়ে চলত অনৈতিক কার্যকলাপ

মাত্র ৫ হাজার টাকা পেয়েই হত্যার মিশনে নামে খুনিরা

ময়মনসিংহে বাসচাপায় নিহত ২


বিশ্ববিদ্যালয়ে নির্মাণাধীন ভবন এবং বিভিন্ন প্রকল্পের বিষয়ে তিনি বলেন, ইউজিসি এবং সরকারের সাথে আলোচনা করে বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্ধ থাকা সকল প্রকল্পের কাজ নতুন করে শুরু করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে নিতে তিনি সকলের কাছে সহযোগিতা কামনা করেন।

সকল সমস্যা কেটে উঠে নতুন উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়কে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তাবিউর রহমান প্রধান। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে একাডেমিক বিষয়ে যে সকল সমস্যা আছে সেগুলো কাটিয়ে উঠতে তিনি দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন এই প্রত্যাশায় সবচেয়ে বেশি। বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে নিতে নিয়মের মধ্যে থেকে যা কিছু করার প্রয়োজন বা সম্ভব তার সবকিছুই করার দাবি করছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার এখন নতুন করে উপাচার্য হিসেবে যোগদান করায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. সরিফা সালোয়া ডিনা।

তিনি বলেন, নিয়মের মধ্যে থেকে কাজ করে সবাই মিলে অংশগ্রহণের ভিত্তিতে এই বিশ্ববিদ্যালয়কে যতদূর এগিয়ে নেওয়া যায় সেটাই যেন করেন এই আশাটাই আমরা করছি। শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমরা গত বছর ডিসেম্বর-জানুয়ারিতে সমন্বিতভাবে পরীক্ষা নিয়েছি। পরবর্তীতে সরকারের ঘোষণার কারণে কিছু পরীক্ষা বাকি আছে। আমরা একাডেমিক কাউন্সিল এবং শিক্ষকদের সাথে কথা বলে স্যারের নির্দেশনায় প্রত্যাশা রাখতে পারি যে এই সমস্যা থেকে উত্তোরণ হতে পারব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড সরিফা সালোয়া ডিনা, অর্থ ও হিসাব দপ্তরের পরিচালক ড. আর এম হাফিজুর রহমান সেলিম, প্রক্টর গোলাম রাব্বানী, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

প্রসঙ্গত, গত ৯ জুন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপণ জারির মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের অধ্যাপক বেরোবির ট্রেজারার ড. হাসিবুর রশীদকে ৪ বছরের জন্য উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর