টঙ্গীতে বস্তিতে আগুন, শত শত ঘর পুড়ে ছাই

শেখ সফিউদ্দিন জিন্নাহ্ ,গাজীপুর

টঙ্গীতে বস্তিতে আগুন, শত শত ঘর পুড়ে ছাই

টঙ্গীতে একটি বস্তিতে আগুন লেগে শত শত ঘর পুড়ে গেছে। শনিবার রাত ৩টার দিকে মিলগেট এলাকায় চুড়ি ফ্যাক্টরির পিছনে টিনসেটে আগুন লাগে। মুহূর্তে আগুন পাশের বস্তিতে ছড়িয়ে পড়ে। এতে শত শত বসত ঘর ও কয়েকটি ঝুট গুদাম পুড়ে যায়।

টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার ইকবাল হোসেন জানান, মধ্য রাতে খবর পেয়ে টঙ্গী, উত্তরা ও সদর দপ্তর ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।

এসময় ৮টি ইউনিটের ৪ ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। মধ্য রাতে আগুন লাগায় স্থানীয়রা ঘর থেকে কোনো কিছুই সরিয়ে নিতে পারেননি। তাৎক্ষণিকভাবে আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানাতে পারেনি ফায়ার সার্ভিস।

ইকবাল হোসেন জানান, মধ্য রাতে খবর পেয়ে টঙ্গী ও উত্তরা ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। আগুন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে। এখন ডাম্পিং এর কাজ চলছে।

আরও পড়ুন


মূল বিষয়টি সবাই চাপা দিচ্ছে, স্বামীকে সমর্থন দিয়ে শিশিরের স্ট্যাটাস

সরকারের সমালোচনা এবং সরকারী বৃত্তি!

স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনের অপরাধে কানাডার ফেডারেল রাজনীতিক গ্রেপ্তার

ফ্লয়েডকে নির্যাতনের ভিডিও করা সেই কিশোরী পেলেন পুলিৎজার পুরস্কার


প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বস্তির বাসিন্দারা প্রথমে বালতি ও কলসিতে পানি ভরে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। এরপর যোগ দেয় ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট।

আগুনে সর্বস্ব পুড়ে যাওয়ায় কান্নায় ভেঙে পড়েন অনেকে। মধ্য রাতে আগুন লাগায় তারা ঘর থেকে কোনো কিছুই সরিয়ে নিতে পারেননি। থাকার শেষ আশ্রয়টুকু হারিয়ে রাত থেকেই খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

করোনা ও উপসর্গ নিয়ে বগুড়ায় আরও ১১ জনের মৃত্যু

আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া

করোনা ও উপসর্গ নিয়ে বগুড়ায় আরও ১১ জনের মৃত্যু

বগুড়ায় করোনায় আক্রান্ত এবং উপসর্গ নিয়ে আরও ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে করোনায় ৩ জন এবং উপসর্গে  ৮ জন মারা গেছেন।  সোমবার সকাল ৮টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় তাদের মৃত্যু হয়।

করোনায় মৃত ব্যক্তিরা  হলেন- সদরের শামীম আরা (৬০), দুপচাঁচিয়ার শ্রী মুক্তা (১৭) এবং সারিয়াকান্দির মওদুদ আহমেদ (৭০)। এর মধ্যে মওদুদ আহমেদ নিজ বাড়িতে মারা যান। 

এছাড়া বগুড়ার বাইরের জেলার ৪ জন বাসিন্দা চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনায় মারা গেছেন। তবে বাইরের জেলার মৃত্যুর সংখ্যা যোগ না হওয়ায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা বগুড়ার নতুন ৩ জন সহ ৫৮৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মোস্তাফিজার রহমান তুহীন মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে অনলাইন ব্রিফিংয়ে জেলার করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে এসব তথ্য জানান।

আরও পড়ুন

সুন্দরী ২০-২৫ জন রমণীকে নিয়ে জমজমাট আসর বসাতো পিয়াসা

ভয়াবহ দাবানল থেকে বাঁচাতে সমুদ্র সৈকতে নেয়া হচ্ছে গবাদিপশুদের

ফ্লোরিডায় অদ্ভুতদর্শন ‘সেসিলিয়ান’-এর খোঁজ

১৬ই আগস্ট ভারতে ‘খেলা হবে’ দিবস


তিনি জানান, বগুড়ায় সংক্রমণ কমেছে।  সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৪৯৯ নমুনায় নতুন করে আরও ৮১ জন শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তের হার ১৬ দশমিক ২৩ শতাংশ। এর মধ্যে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) এর পিসিআর ল্যাবে ২৮২ নমুনায় ৩২ জন, জিন এক্সপার্ট মেশিনে ১০ নমুনায় ৩, এন্টিজেন পরীক্ষায় ১৭৪ নমুনায় ৪০ জন এবং টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ৩৩ নমুনায় ৬ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে সদরের ৪১ জন সহ অন্যান্য উপজেলা রয়েছে। একই সময়ে করোনা থেকে ১৬৫ জন সুস্থ হয়েছেন।

ডা. তুহীন আরও জানান, জেলায় এ পর্যন্ত মোট ১৯ হাজার ২০১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ২১৯ জন। এছাড়া জেলায় ১ হাজার ৩৯৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামে করোনায় একদিনে মৃত্যু আরও ১০

অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রামে করোনায় একদিনে মৃত্যু আরও ১০

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৯৯৪ জনে।

একই সময়ে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ২৭৩ জন। ফলে জেলায় মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৫ হাজার ১৪৪ জনে।

গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে এসব তথ্য জানানো হয়।

সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি জানান, সোমবার চট্টগ্রামের বিভিন্ন ল্যাবে তিন হাজার ৪৫০ জনের নমুনা পরীক্ষায় এক হাজার ২৭৩ জনের দেহে করোনার জীবাণু শনাক্ত হয়। এদের মধ্যে নগরের ৮৩৫ ও উপজেলার ৪৩৮ জন।

আরও পড়ুন


৭৩টি ভুঁইফোড় সংগঠনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ

হেলেনা জাহাঙ্গীরের দুই সহযোগী গ্রেফতার

ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনা ইউনিটে একদিনে ১৭ জনের মৃত্যু

এবার নতুন রূপে হিরো আলম

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২৩৮ জন, ফৌজদারহাট বিআইটিআইডি ল্যাবে ২২৬ জন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ১৯৩ জন, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ইউনিভার্সিটি ল্যাবে ১০৫ জন ও ইমপেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৬৯ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়।

এছাড়া, একই সময়ে চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৩৮ জন, জেনারেল হাসপাতাল আরটিআরএল ল্যাবে ২৫ জন, মেডিকেল সেন্টার হাসপাতাল ল্যাবে ২৩ জন, ইপিক হেলথ কেয়ার ল্যাবে ১২০ জন এবং অ্যান্টিজেন টেস্টে ২৩০ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়।

news24bd.tv রিমু 

পরবর্তী খবর

ঝিনাইদহে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত্যু

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত্যু

ঝিনাইদহে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে সরকারি হিসাবে জেলায় করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাড়ালো ২১৩ জন। নতুন করে ৮৩ জন আক্রান্ত হয়েছে।

সিভিল সার্জন ডা: সেলিনা বেগম জানান, ঝিনাইদহ জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনায় ৪ জন মারা গেছে। করোনা ওয়ার্ডে ৫৫ ও আইসোলেশনসহ মোট ভর্তি ৮০ জন।

আজ মঙ্গলবার সকালে কুষ্টিয়া ও ঝিনাইদহ ল্যাব থেকে আসা ২৬২টি নমুনার ফলাফলের মধ্যে ৮৩ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে। আক্রান্তের হার ৩১ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

আরও পড়ুন

ইরানের নাগরিকদের আফগানিস্তান ত্যাগের নির্দেশ

টোকিও অলিম্পিকে দ্রুততম মানব মার্সেল জ্যাকবস

ফ্লোরিডায় অদ্ভুতদর্শন ‘সেসিলিয়ান’-এর খোঁজ

আবারও হামাস প্রধান ইসমাইল হানিয়াহ


এ নিয়ে জেলায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাড়ালো ৭ হাজার ৯৩১ জনে। এ পর্যন্ত করোনার সাথে লড়াই করে নতুন করে ৮ জনসহ মোট সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৭৫১ জন।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

খুলনায় করোনায় মৃত্যু আবারও ঊর্ধ্বগতি

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

খুলনায় করোনায় মৃত্যু আবারও ঊর্ধ্বগতি

খুলনা জেলায় করোনার মৃত্যুর সংখ্যা আবার বাড়তে শুরু করেছে। গত ৩১ জুলাই করোনায় মৃত্যু ৪ জনে নামলেও পুনরায় ঊর্ধগতি দেখা গেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় (মঙ্গলবার সকাল ৯টা) খুলনার পাঁচটি হাসপাতালে করোনায় চিকিৎসাধীন রোগীর মধ্যে ৮ জন মারা গেছেন।

এর মধ্যে ছয়জনের বাড়ি খুলনায়। বাকি একজনের বাড়ি ঝিনাইদহ ও অন্যজনের বাড়ি চট্টগ্রামে। এর আগে ২ আগষ্ট খুলনার হাসপাতালে ছয়জন, ১ আগষ্ট পাঁচজন ও ৩১ জুলাই চার জন করোনায় মারা যায়। এছাড়া ৩০ জুলাই খুলনার হাসপাতালে আট জন ও ২৯ জুলাই করোনায় ১৫ জন মারা যায়।

খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের ফোকাল পার্সন ডাঃ সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় নগরীর সোনাডাঙ্গা এলাকার সবুর মোড়ল (৫৫), খালিশপুরের সেলিনা বেগম (৫০) ও চট্টগ্রামের শিতাকুন্ডুর হাবিবুল্লাহ (৭০) মারা গেছেন। এই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১১৯ জন। যার মধ্যে রেড জোনে ৪১ জন, ইয়ালো জোনে ৪৬ জন, আইসিইউতে ১৯ জন এবং এইচডিইউতে ১৩ জন ভর্তি রয়েছেন।

আরও পড়ুন


সুন্দরী ২০-২৫ জন রমণীকে নিয়ে জমজমাট আসর বসাতো পিয়াসা

ভয়াবহ দাবানল থেকে বাঁচাতে সমুদ্র সৈকতে নেয়া হচ্ছে গবাদিপশুদের

‘ইসরাইলি জাহাজে হামলা: পরমাণু সমঝোতায় প্রভাব ফেলবে না’

টি স্পোর্টসে আজকের খেলা


এছাড়া আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে খুলনার সদর হাসপাতাল এলাকার শামসুল হক (৭৬), জেনারেল হাসপাতালে রূপসা রাজাপুর এলাকার শেখ আবুল হোসেন (৫৬), গাজী মেডিকেল হাসপাতালে নগরীর মুন্সিপাড়ার রহিমা খাতুন (৭২) ও ঝিনাইদহ সদরের মহিলা কলেজ রোডের মোসাম্মত রহিমা খাতুন (৬৪) করোনায় মারা গেছেন। এছাড়া পাইকগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আরও একজন করোনায় মারা গেছেন।

এদিকে বর্তমানে খুলনার ডেডিকেটেড হাসপাতাল, গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেনারেল হাসপাতাল, সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে রোগী ভর্তি রয়েছে ২৫৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ভর্তি হয়েছেন ৪৫ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৪ জন। গতকাল জেলায় ৭৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়। আক্রান্তের হার ১৭ শতাংশ।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

বরিশাল শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ডে আরও ১৪ জন রোগীর মৃত্যু

রাহাত খান, বরিশাল

বরিশাল শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ডে আরও ১৪ জন রোগীর মৃত্যু

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৪ ঘন্টায় ১৪ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলো ৩২৭ জন রোগী।

এদিকে মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্তের হার কিছুটা কমে ৪৩.১৫ শতাংশে নেমেছে।

হাসপাতালের পরিচালক কার্যালয় থেকে জানা যায়, আজ মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় চিকিৎসায় সুস্থ্য হয়ে করোনা ওয়ার্ড ত্যাগ করেছেন ২৫ জন রোগী। একই সময়ে নানা উপসর্গ নিয়ে ৫৫ জন রোগী করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছেন। আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৪ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৩ জনের করোনা ছিলো পজিটিভ। অন্যদের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট এখনও পায়নি কর্তৃপক্ষ।

গত ২৪ ঘন্টায় ১৪ জন সহ গত বছরের মার্চ মাস থেকে এ পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১ হাজার ১৩১ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনায় আক্রান্ত ছিলেন ৩২৬ জন।

আজ সকাল পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩২৭ জন রোগী। যার মধ্যে ১২৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। অন্যদের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এদিকে মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্তের হার আবার কিছুটা কমেছে। গতকাল সোমবার রাতে প্রকাশিত সব শেষ রিপোর্টে ১৯০ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৪৩.১৫ শতাংশ। এর আগে রবিবারের রিপোর্টে করোনা শনাক্তের হার ছিলো ৫৫.৮৫ শতাংশ এবং গত শনিবারের রিপোর্টে ৩১.৪১ শতাংশ করোনা শনাক্ত হয়।

গত বছরের ৮ এপ্রিল বরিশালে পিসিআর ল্যাব চালুর পর গত ৫ জুলাই সর্বাধিক ৭৩.৯৪ শতাংশ করোনা শনাক্ত হয়।

পরবর্তী খবর