সে রাতে উত্তরা বোট ক্লাবে পরীমনির সঙ্গে কী ঘটেছিল!

অনলাইন ডেস্ক

সে রাতে উত্তরা বোট ক্লাবে পরীমনির সঙ্গে কী ঘটেছিল!

দেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমণিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে এবং তাকে ধর্ষণ করতে না পেরে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয়েছে এ অবস্থায় তিনি জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। রোববার (১৩ জুন) রাতে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। সেদিন তাঁর সঙ্গে কী ঘটেছিল সেটাও জানিয়েছেন পরীমনি।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চেয়ে দেওয়া স্ট্যাটাসে অভিযুক্তদের নাম প্রকাশ না করলেও পরে সাংবাদিকদের সামনেই অভিযুক্তের নাম ও কখন, কোথায় তাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করা হয় সেসবের বিস্তারিত বর্ণনা দেন।

রাত সাড়ে ১০টায় বনানীর বাসায় সাংবাদিকদের পরীমনি জানান, গত ১০ জুন রাতে পারিবারিক বন্ধু অমি ও ব্যক্তিগত রূপসজ্জাশিল্পী জিমির সঙ্গে বাইরে বের হয়েছিলেন তিনি। রাত তখন ১২টা পেরিয়েছে। বন্ধুটি তাদের নিয়ে যান আশুলিয়ার একটি ক্লাবে। ক্লাবটির নাম উত্তরা বোট ক্লাব। সেখানে মদ্যপানরত কয়েকজন ব্যক্তির সঙ্গে পরীমনির পরিচয় করিয়ে দেন অমি। ওই ব্যক্তিদের মধ্যে একজনের নাম নাসিরউদ্দিন আহমেদ।

তিনি নিজেকে ক্লাবটির সাবেক প্রেসিডেন্ট পরিচয় দেন। নাসিরউদ্দিনসহ উপস্থিত ব্যক্তিরা তার সঙ্গে বাজে আচরণ করেন। মাধুরী দিক্ষিত বলে নাচতে বলে। এক সময় তাদের একজন হঠাৎ জোর করে পরীমনির মুখে পানীয়র গ্লাস চেপে ধরে এবং শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এ সময় মারধর পরীমনির সঙ্গে থাকা কস্টিউম ডিজাইনার জিমিকেও মারধর করে তারা।

নাসির উদ্দিন তার সঙ্গে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা করেন বলেও অভিযোগ করেন পরীমনি।

পরীমনি বলেন, বুধবার রাত ১২ টার দিকে অমি নামের একজন পরিচিত ব্যক্তির সঙ্গে উত্তরা বোট ক্লাবে যাই। সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত রূপসজ্জাশিল্পী জিমিও ছিলেন। তবে পরে সেখানে নাসিরউদ্দিন আহমেদ নামে এক ব্যক্তি আসেন। তিনি নিজেকে উত্তরা বোট ক্লাবের সাবেক প্রেসিডেন্ট পরিচয় দেন। সেদিন তিনিসহ চারজন মদ্যপ ব্যক্তি আমাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করেন। চড়-থাপ্পড় মারেন। গায়ে আঘাত করেন। এক পর্যায়ে একজন আমাকে নেশাদ্রব্য খাইয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে।

এই ঘটনার পর পরীমনি বনানী থানায় অভিযোগ করতে গিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে তিনি কোনো সহযোগিতা পাননি। দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা তারা অভিযোগ রেকর্ড করেননি। এরপর হাসপাতাল পর্যন্ত গিয়েও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগে চিকিৎসা না নিয়েই বাড়ি ফিরে যান।

পরীমণি বলেন, ‘এমন ঘটনায় সাধারণ মেয়েরা প্রথমে কোথায় যায়? থানায় যায়। আমিও থানায় গিয়েছি। আমি বারবার বলেছি, ঘটনাটা যদি নিজের সঙ্গে না ঘটে তাহলে কেউ বুঝবে না। ওইদিন পর্যন্ত কি তবে অপেক্ষা করবেন?’

অভিযুক্তদের বিষয়ে বিস্তারিত জানতে চাইলে পরীমনি বলেন, ‘আমার মুখটা সাদা কাপড়ে ঢাকা পড়লেই কেবল বুঝতেন। আমি চার দিন ধরে কারও সাপোর্ট পাইনি। আপনারা সত্যিটা খোঁজেন। সাধারণ কোনো মেয়ের হলে সে খবর হয়তো আপনাদের কাছে পৌঁছায় না। সাংবাদিকদের কাছে খবর পৌঁছানো হয় না। আমার মতো যখন কোনো মেয়েকে ভয় দেখানো হয় তখন সাধারণ মেয়ের খবর তো পাবেন না!’

কাঁদতে কাঁদতে সাংবাদিকদের উদ্দেশে পরীমনি বলেন, ‘আপনারা আমাকে ৫ মিনিট কাঁদতে দেখছেন। কিন্তু আমি গত চারদিন ধরে কাঁদছি। ওই লোক আমাকে কি সব বিশ্রি কথা বলেছিলো। আমি বলতে পারছি না। আমি পাগল হয়ে যাচ্ছি। আমার জায়গায় আপনারা থাকলে হয়ত কথাও বলতে পারতেন না। আমি ওইখানে অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলাম। ওয়েটাররা ধরে আমাকে নামিয়ে দেয়। সিসি ক্যামেরায় সব রেকর্ড আছে। আমার মনে হয়েছে বিষয়টি তাদের পূর্বপরিকল্পিত।’

একপর্যায়ে অঝরো কাঁদতে কাঁদতে পরীমনি চিৎকার করে বলেন, ‘আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তবে আপনারা জেনে রাখুন, আমি আত্মহত্যা করার মতো মেয়ে নই। যদি মরে যাই তবে বুঝবেন, আমাকে মেরে ফেলা হয়েছে। আমার সঙ্গে অন্যায় করা হয়েছে। আমি এর বিচার চাই। মরলে আমি আমার বিচার নিয়ে মরব।’

আরও পড়ুন:


ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা সম্পর্কে যা জানালেন পরীমণি

নেইমার জাদুতে কোপায় উদ্বোধনী ম্যাচে ব্রাজিলের জয়

চতুর্থ বিয়ের মধুচন্দ্রিমায় পাহাড়ে যেতে চান শ্রাবন্তী?


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

গভীর রাতে আটক হলেন মডেল মৌ

অনলাইন ডেস্ক

গভীর রাতে আটক হলেন মডেল মৌ

রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার বাবর রোড থেকে ইয়াবাসহ মডেল মৌ আক্তারকে আটক করে করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

রোববার (১ আগস্ট) গভীর রাতে নিজ বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। 

ডিবি উত্তরের যুগ্ম কমিশনার হারুন-অর রশীদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

 

পরবর্তী খবর

সনু-মিথিলা জম্পেশ আড্ডায়

অনলাইন ডেস্ক

সনু-মিথিলা জম্পেশ আড্ডায়

গতমাসে কাঁটাতার পেরিয়ে সৃজিতের কাছে ফিরেছেন মিথিলা ও আইরা। আপাতত আছেন সেখানেই। এরই মধ্যে ‘মায়া’ নামের কলকাতার একটি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন মিথিলা।

অন্যদিকে, নতুন কয়েকটি সিনেমা আর সিরিজের প্রস্তুতি নিচ্ছেন টলিউডের নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি।

কাজ ও সংসার মিলিয়ে ভালোই কাটছে এই দুই তারকার সময়। এর সঙ্গে যোগ হলো বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক সোনু নিগমের আড্ডা। সঙ্গে ছিল জম্পেশ নৈশভোজও।

আড্ডারত সেই ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন সৃজিত। ছবিতে সোনু এবং তার স্ত্রী মধুরিমা নিগমের সঙ্গে দেখা যাচ্ছে সৃজিত এবং তার স্ত্রী মিথিলাকে। চারজনের পোশাকেই কম-বেশি নীলের ছোঁয়া।

ছবির ক্যাপশনে সৃজিত লিখেছেন, ‘প্রিয় সোনুর সঙ্গে স্মরণীয় সংগীত, দারুণ আড্ডা এবং অসামান্য নৈশভোজ।’

কবে, কে কার বাড়িতে অতিথি হয়েছিলেন, সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানাননি সৃজিত। তবে গত ৩০ জুলাই ৪৮-এ পা রাখেন সোনু। অনেকেই মনে করছেন, এই উপলক্ষেই বিশেষ এ আয়োজন হয়েছিল।

এদিকে, সৃজিতের সঙ্গে সোনু নিগমের সখ্যতা নতুন নয়। একাধিকবার জুটি বেঁধেছেন তারা। ২০১৩ সালে সৃজিতের ‘মিশর রহস্য’ সিনেমার একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছিলেন সোনু। ২০১৯ সালে ‘গুমনামি’ সিনেমায় সোনুর কণ্ঠে শোনা যায় ‘সুভাষজি’ শিরোনামের গানটি। স্বাভাবিক কারণে নেটিজেনরাও মন্তব্য করে জানতে চেয়েছেন, তারা কি আবারো একসঙ্গে কাজ করতে যাচ্ছে? যদিও এ প্রশ্নের উত্তর এখনো মিলেনি।

আরও পড়ুন:


ঘরে ফিরতেই মাকে জড়িয়ে হাউমাউ করে কেঁদে উঠল মেয়ে

পর্নো ভিডিওর প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন


 news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

কারাগারে পাঠানো হলো নায়িকা একাকে

অনলাইন ডেস্ক

কারাগারে পাঠানো হলো নায়িকা একাকে

গৃহকর্মীকে নির্যাতন ও মাদক আইনের দুই মামলায় ঢাকাই সিনেমার নায়িকা একাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তাকে রিমান্ড নেওয়ার আবেদনও নামঞ্জুর করা হয়।

আজ রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসিম এ আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হাতিরঝিল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. ফয়সাল অভিনেত্রী একাকে আদালতে হাজির করেন।

উভয় মামলায় ছয় দিনের রিমান্ড আবেদন করেন তিনি। রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, গৃহকর্মী হাজেরা বেগম মাসিক তিন হাজার টাকা বেতনে গত তিন মাস ধরে কাজ করে আসছিলেন। কাজ শেষে গত ৩১ জুলাই বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে একার কাছে দুই মাসের পাওনা বেতনের ৬ হাজার টাকা চান।

তখন একা তাকে বলেন, ‘তোকে দিয়ে আর কাজ করাব না এবং হাজেরা বেগমকে গলা ধাক্কা দেন। পাওনা টাকা না দিলে যাবে না জানালে হাজেরা বেগমকে এলোপাতাড়ি মারধর ও বটি দিয়ে মাথায় কোপ দেন।’ এ সময় হাজেরা বেগম হাত দিয়ে ঠেকাতে গেলে তার বাম হাত জখম হয়। ওই সময় ভুক্তভোগী চিৎকার দিলে একা তার মুখ চেপে ধরে বিভিন্ন ভয় দেখান।

অন্যদিক, মাদক মামলার রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, পুলিশ হাজেরা বেগমকে উদ্ধার করতে গিয়ে একার বাসায় অভিযান চালায়। একার বিছানার ওপর থেকে পাঁচ পিস ইয়াবা, ৫০ গ্রাম গাঁজা, ৫৫০ মিলি মদ উদ্ধার করে।

মাদকদ্রব্য সংক্রান্ত বিষয়ে একাকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে ইয়াবা, গাঁজা ও মদ নিজের কাছে রাখেন একা। আসামি মামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে জানা যায়। মাদক মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হলে সহযোগী মাদক ব্যবসায়ীদের নাম ঠিকানা সংগ্রহ, গ্রেপ্তার ও মাদক দ্রব্য ক্রয় বিক্রয়ের তথ্য পাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু, অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল দুই মামলায় রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থনা করে শুনানি করেন।

আসামি একার পক্ষে অ্যাডভোকেট হুমায়ন কবির রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত রিমান্ড ও জামিনের উভয় আবেদন নামঞ্জুর করে একাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত শনিবার ৯৯৯-এ কল পেয়ে রাজধানীর হাতিরঝিলের উলন এলাকায় বন্ধু নিবাসের ৯ তলায় একার অ্যাপার্টমেন্টে অভিযান চালিয়ে আহত গৃহকর্মী হাজেরা বেগমকে (৩০) উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় একাকে আটক করা হয়।

আরও পড়ুন:


ঘরে ফিরতেই মাকে জড়িয়ে হাউমাউ করে কেঁদে উঠল মেয়ে

পর্নো ভিডিওর প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন


 news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

৬ কোটিতে অ্যাপার্টমেন্ট কিনলেন দিশা

অনলাইন ডেস্ক

৬ কোটিতে অ্যাপার্টমেন্ট কিনলেন দিশা

বলিউড তারকারা কিন্তু নিজেদের নতুন বাড়ি-গাড়ি কিনতে পিছিয়ে নেই। এবার এই তালিকায় নাম লেখালেন বলিউড অভিনেত্রী দিশা পাটানি। এখন শোনা যাচ্ছে, মুম্বাইয়ের খারে একটি হাই-এন্ড রিয়েল এস্টেট প্রোজেক্টে নতুন অ্যাপার্টমেন্ট কিনে ফেললেন দিশা পাটানি। 

মুম্বাইয়ের খারে রুস্তমজি প্যারামাউন্টের ১৬ তলায় ১,১১৮.৯ স্কোয়ার ফিটের একটি অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন দিশা পাটানি। যার মূল্য ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৬ কোটি।

রুস্তমজি প্যারামাউন্টের এই প্রোজেক্ট আবাসনের ভিতরেই বিলাশবহুল জীবনযাত্রার সবধরণের রসদ মজুত রয়েছে। মিনি থিয়েটার, স্পা, স্যালোঁ, ব্যাঙ্কোয়েট হল, স্কাই লজ, বিজনেস সেন্টার, জিমখানা সবই থাকছে আবাসনের ভিতরেই।

অনেকেই ধারণা, নতুন সংসার সাজাতেই নাকি দিশার এই অ্যাপার্টমেন্টটি নেওয়া। 

টাইগার শ্রফের সঙ্গে দিশা পাটানির সম্পর্ক ও বিয়ে নিয়ে বলিউডে কম কানাঘুষা হয়নি। তবে দুজনেই বরাবরই নিজেদের সম্পর্কের ব্যাপারে প্রকাশ্যে কিছু না বললেওনিজেদের ‘ভালো বন্ধু’ হিসেবেই দাবি করে এসেছেন বরাবর। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস    

আরও পড়ুন:


বাড়ানো হয়েছে লঞ্চ চলাচলের সময়

এবার পর্নোগ্রাফি শুটিংয়ের অভিযোগে অভিনেত্রী গ্রেপ্তার

সাকিবের সামনে রেকর্ড গড়ার হাতছানি, যেখানে তিনিই হবেন প্রথম

চিত্রনায়িকা একার বিরুদ্ধে হাতিরঝিল থানায় দুই মামলা


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

এবার পর্নোগ্রাফি শুটিংয়ের অভিযোগে অভিনেত্রী গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

এবার পর্নোগ্রাফি শুটিংয়ের অভিযোগে অভিনেত্রী গ্রেপ্তার

ভারতের মিডিয়া পাড়ায় ক’দিন থেকেই আলোচনার শীর্ষে বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রার পর্নকাণ্ড। এ নিয়ে চলছে তুমুল সমালোচনা। সেই রেশ না কাটতেই এবার কলকাতার বালিগঞ্জেও পর্নোগ্রাফির শুটিং হতো বলে জানা গেছে। পর্নোগ্রাফি শুটিংয়ের অভিযোগে ফটোগ্রাফার মৈনাক ঘোষ ও নন্দিতা দত্ত নামের এক মডেল-অভিনেত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে কলকাতার নিউটাউন থানা পুলিশ।

ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, পর্নোগ্রাফি কাণ্ডে অভিযুক্ত ফটোগ্রাফার মৈনাক ঘোষকে জেরার পর বালিগঞ্জের ওই শুটিং স্টটের সন্ধান পায় পুলিশ। পরে শনিবার (৩১ জুলাই) বালিগঞ্জের গড়চা এলাকার শরৎ পার্ক রোডের একটি বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়। সেখান থেকে পর্নোগ্রাফির শুটিংয়ের জন্য ব্যবহৃত ক্যামেরা এবং যন্ত্রপাতি উদ্ধার করা হয়।

এদিকে এই ঘটনায় বাড়ির মালিক মৈনাক ঘোষ এবং পর্নোগ্রাফি কাণ্ডে গ্রেপ্তারকৃত অভিনেত্রী নন্দিতাকে মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরিকল্পনা করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কিছুদিন আগে এক তরুণী নিউটাউন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তা থেকে পুলিশ জানায়, মডেলিং জগতে বড় সুযোগ দেওয়ার নামে তার ‘বোল্ড’ ছবি তুলে এখন তা পর্নো সাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। পুলিশ তার সঙ্গে কথা বলে জানতে পারে, ফেসবুকে এক ফটোগ্রাফারের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় হয়। সেখান থেকেই ফটোশুটের প্রস্তাব আসে। গ্ল্যামার দুনিয়ার হাতছানিতে সাড়া দিয়ে ওই তরুণীও ছবি তুলতে রাজি হন। এরপরই বালিগঞ্জের একটি বাড়িতে ছবি তোলার ব্যবস্থা করা হয়।

আরও পড়ুন


সাকিবের সামনে রেকর্ড গড়ার হাতছানি, যেখানে তিনিই হবেন প্রথম

চিত্রনায়িকা একার বিরুদ্ধে হাতিরঝিল থানায় দুই মামলা

বরিশাল শেবাচিমে আরও ১৭ জনের মৃত্যু, শনাক্তের হার কমেছে

শিমুলিয়া ঘাটে আজও ঢাকামুখী মানুষের ঢল


এই তরুণীর অভিযোগ, সোশ্যাল মিডিয়াতে অভিযুক্তদের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এরপরই তাকে নিউটাউনের একটি তিন তারা হোটেলে যেতে বলা হয়। সেখানে আটতলার একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে জোর করে পর্নোগ্রাফির ভিডিও করানো হয়। সম্প্রতি তিনি দেখেন, সেসব ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। এরপরই পুলিশের দ্বারস্থ হন তিনি।

শুটিংয়ের পর এসব ভিডিও পাঠানো হতো সিঙ্গাপুরে যশ ঠাকুর ওরফে অরবিন্দ শ্রীবাস্তবের কাছে। এই যশ একটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে যুক্ত। সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য হলো—যশ ঠাকুরের সঙ্গে শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রার নামও জড়িয়েছে। যদিও যশ রাজের সঙ্গে যুক্ত নন বলে দাবি করেছেন।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর