এন্ট্রাপ্রিনিউরশিপ, স্কিলস অ্যান্ড এমপ্লয়মেন্ট ক্যাম্পে প্রথম বাংলাদেশের ইমরান ফাহাদ

অনলাইন ডেস্ক

এন্ট্রাপ্রিনিউরশিপ, স্কিলস অ্যান্ড এমপ্লয়মেন্ট ক্যাম্পে প্রথম বাংলাদেশের ইমরান ফাহাদ

১২ জুন ২০২১ ঢাকা ওআইসি ইয়্যুথ ক্যাপিটাল ২০২০ এর অধীনে ভার্চুয়াল মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয় এন্ট্রাপ্রিনিউরশিপ, স্কিলস অ্যান্ড এমপ্লয়মেন্ট ক্যাম্পের সমাপনী অনুষ্ঠান।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জাহিদ আহসান রাসেল এমপি এর সভাপতিত্বে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী, জনাব এম. এ. মান্নান এমপি, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক কোঅপারেশন ইয়্যুথ ফোরাম (আইসিওয়াইএফ) এর মাননীয় প্রেসিডেন্ট তাহা আয়হান, এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জনাব মো: আখতার হোসেন এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর এর মহাপরিচালক, মো: আজহারুল ইসলাম খান।

প্রতিযোগিতার সামগ্রিক কার্যকলাপ তুলে ধরতে একটি অডিও-ভিজ্যুয়াল ভিডিও উপস্থাপন করার মাধ্যমে সমাপনী অনুষ্ঠানটি শুরু হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী, জনাব এম. এ. মান্নান, এমপি বলেন, “আমাদের দেশের আর্থসামাজিক বিকাশের চলমান ধারাটি ত্বরান্বিত করে একটি স্থিতিশীল এবং টেকসই ভবিষ্যত গঠনের জন্য আমাদের এই বিপুল সংখ্যক তরুণ-তরুণীদের সিদ্ধান্ত গ্রহণ, উদ্ভাবনের এবং বাস্তবায়নের সাথে জড়িত করা দরকার।”

অনুষ্ঠানটির সভাপতি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জাহিদ আহসান রাসেল এমপি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন, “বাংলাদেশের বর্তমান যুবসংখ্যা প্রায় ৫৩ মিলিয়ন যারা ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের জন্য আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দ্বারা নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের প্রধান চালিকাশক্তি।”

ইসলামিক কোঅপারেশন ইয়্যুথ ফোরাম (আইসিওয়াইএফ) এর মাননীয় প্রেসিডেন্ট তাহা আয়হান সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে বলেন, “আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সকল স্টেকহোল্ডারের জন্য সম্মিলিত দায়িত্ব তরুণদের জন্য একটি উদ্যোগী বাস্তুসংস্থান প্রদান করা। একটি যুব প্রতিষ্ঠান এবং সহযোগী হিসাবে, আইসিওয়াইএফ নিশ্চিত করবে সকল ওআইসি অঞ্চলে এবং তার বাইরেও তরুণদের সমৃদ্ধির দিকে আরও ভাল পৌঁছানোর জন্য তাদের সর্বোত্তম লক্ষ্যগুলো অর্জনে আমাদের যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে যাবো।”

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জনাব মো: আখতার হোসেন বলেন, “আমি আশা করি যে উন্নত ভবিষ্যত গড়তে এই ইভেন্টে অংশ নেওয়া যুবকরা প্রশিক্ষণ ও মেন্টরশিপ সেশনের মাধ্যমে শিখেছে যা তাদের উদ্ভাবনী ধারণা ও সমস্যা সমাধান ও পরিচালনায় অবদান রাখবে।”

এর আগে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর এর মহাপরিচালক, মো: আজহারুল ইসলাম খান তার উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, “এন্ট্রাপ্রিনিউরশিপ, স্কিলস অ্যান্ড এমপ্লয়মেন্ট ক্যাম্পের যে সকল উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে তাতে অংশগ্রহণকারীদের সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিয়েছে। বিভিন্ন পর্যায়ের স্টার্টআপগুলোকে প্রশিক্ষণ দিয়ে, অংশগ্রহণকারীদের বাজার ও ব্যবসায়িক মডেল সম্পর্কে জ্ঞান বৃদ্ধি করেছে এবং তাদের উপস্থাপনা, পরিচালনা এবং নেটওয়ার্কিং দক্ষতা বৃদ্ধি করেছে।”


আরও পড়ুন:


নাসির আমার বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে স্পর্শ করে: পরীমণি

জি-সেভেনের বিবৃতি চীনের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে মারাত্মক হস্তক্ষেপ: বেইজিং

‘আটলান্টিক মহাসাগরে ইরানি নৌবহরের উপস্থিতিতে উদ্বিগ্ন শত্রুরা’

এমন ফ্রি-কিকে গোল মেসির দ্বারাই সম্ভব (ভিডিও)


এরপর সমাপনী অনুষ্ঠানে তিন মাসব্যাপী এই প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন আইসিওয়াইএফ প্রেসিডেন্ট তাহা আয়হান, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জাহিদ আহসান রাসেল এমপি এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী, জনাব এম. এ. মান্নান এমপি।

ইন্সপায়ারিং বাংলাদেশ প্রজেক্টের জন্য বাংলাদেশ থেকে ইমরান ফাহাদ প্রথম স্থান অধিকার করেন, জর্ডান থেকে পোস্টহাব প্রজেক্টের জন্য দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন আলবারাসনেহ আলি এবং কার্বন অ্যাডন্স প্রজেক্টের জন্য তৃতীয় স্থান অধিকার করেন ইন্দোনেশিয়া থেকে মোহাম্মদ নওফাল।

সেরা তিনজন প্রতিযোগীকে অর্থপুরস্কারসহ আন্তর্জাতিক রাউন্ডের সকল অংশগ্রহণকারীকে সনদপত্র প্রদান করা হবে। 

উল্লেখ্য যে, ওআইসি অধিভুক্ত সংগঠন আইসিওয়াইএফ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় ও গতিশীল নেতৃত্ব এবং যুবকদের প্রতি তার সরকারের অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৯ সালের ২৫ ডিসেম্বর ঢাকা ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিটাল ঘোষণা করে।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

ইতিহাসে বিখ্যাত লোকদের ঘুম নিয়ে বিচিত্র স্বভাব

নিবিড় আমীন

শরীরের ক্লান্তি দূর করাই ঘুমের অন্যতম কাজ, এমনটা সকলেরই জানা। সাধারণত দৈনিক একজন প্রাপ্তবয়স্কের প্রয়োজন হয় আট ঘণ্টা ঘুম। তবে সভ্যতার ইতিহাসে বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য লোকেরই ছিল ঘুম নিয়ে অবাক করার মতো স্বভাব। 

ইতালীয় রেনেসাঁর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি লিওনার্দো দা ভিঞ্চির ঘুমের অভ্যাস ছিল বড়ই অদ্ভুত। একটানা কখনোই বেশিক্ষণ না ঘুমিয়ে সর্বোচ্চ দু ঘণ্টা ঘুমাতেন তিনি। তবে এমন ঘুম তার দেয়া হতো একদিনেই বেশ কয়েকবার। বলা হয়, বিচিত্র এই ঘুমের স্বভাবের কারণেই অনেক কাজ অসম্পূর্ণ থেকে গিয়েছিলো ভিঞ্চির।

বিখ্যাত ইংরেজ কবি-নাট্যকার উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের ২৭ সংখক চতুর্দশপদীতে ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছিলো, অনিদ্রায় ভুগতেন তিনি। আর তাই এই সমস্যার কথা দেখা যেত তার অনেক নাটকের সংলাপেও।

ফরাসি সম্রাট নেপোলিয়ন বোনাপার্টের ঘুমও ছিল বিচিত্র। পুরো রাত কখনোই ঘুমাতেননা তিনি। দিনের কিছু সময়, এমনকি যুদ্ধযাত্রায় ঘোড়ার পিঠে বসে ঝিমিয়ে নেয়ার অভ্যাস ছিল তার। তবে কোনো কোনো অভিযান শেষ করার পর টানা ১৮ ঘণ্টাও ঘুমিয়েছেন নেপোলিয়ন।

১৯ শতকের ইংরেজি সাহিত্যিক চার্লস ডিকেন্সের ঘুম নিয়েও রয়েছে অবাক করা তথ্য। এক সময় তার ধারণা ছিল, উত্তর দিকে মুখ করে শুলেই ঘুম আসে মানুষের। তবে কোনো পদ্ধতিতেই কাজ না হওয়ায় অনিদ্রা বেড়ে যায় তার। রাতে ঘুরে বেড়াতেন লন্ডনের পথে পথে। শুধুমাত্র সূর্যোদয়ের পরেই ঘুমাতে পারতেন তিনি।

আরও পড়ুন:


করোনায় জাবি অধ্যাপকের মৃত্যু

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত


বিবর্তনবাদের জনক চালর্স ডারউইনের ঘুমের অভ্যাসও সুবিধের ছিলো না। বিভিন্ন অসুখে ভুগার কারণে সারাটাজীবনই অনিদ্রায় ভুগতে হয়েছে তাকে। তবে সাধারণ মানুষের চেয়ে কিছুটা বেশিই ঘুমাতেন আলবার্ট আইনস্টাইন। অসামান্য মস্তিষ্ককে বিশ্রাম দিতে নিয়ম করেই প্রতি রাতে ১০ ঘণ্টা ঘুমাতেন কিংবদন্তি এই বিজ্ঞানী।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

‘নগদ’-এ কোরবানির পশু কেনার পেমেন্ট হবে স্বচ্ছন্দে

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘নগদ’-এ কোরবানির পশু কেনার পেমেন্ট হবে স্বচ্ছন্দে

করোনা মহামারির কঠিন সময়ে স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে গরুর হাটে ছোটাছুটির বদলে হাতের মুঠোয় কোরবানির সকল আয়োজন নিয়ে এসেছে ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’। দেশ সেরা অনলাইন পশুর হাটগুলো থেকে পছন্দের পশু কিনে সহজেই ‘নগদ’-এর মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারবেন গ্রাহকরা। আর এতে করে করোনার জরুরি সময়েও ঈদ-উল আজহা রাঙিয়ে দিতে পারে ‘নগদ’।

পশু কেনার পাশাপাশি হোম ডেলিভারি, মিট প্রসেসিং এবং প্রসেসিং পরবর্তী ডেলিভারির পেমেন্টও করা যাচ্ছে ‘নগদ’-এর মাধ্যমে। ফলে সম্পূর্ণ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখেই কোরবানি করতে পারবেন যে কেউ।

এবারের কোরবানিতে ‘নগদ’ যে অনলাইন হাটের পেমেন্ট পার্টনার হিসেবে কাজ করছে তাদের মধ্যে সাদিক অ্যাগ্রো, বেঙ্গল মিট, বাংলা কাট, প্রিয়শপ, মেঘডুবি এগ্রো, চেক লিস্ট, বেলওয়েথার এগ্রো এবং হাংরিনাকিসহ আরো কয়েকটি নাম উল্লেখযোগ্য।

সাদিক অ্যাগ্রোতে ‘নগদ’-এর মাধ্যমে মিট প্রসেসিং ফি পেমেন্ট করলে পেমেন্টের এই অংশের ওপর ১০ শতাংশ হারে আনলিমিটেড ডিসকাউন্ট পাবেন গ্রাহক। অন্যসব অনলাইন কোবারবানির হাটগুলোতে নানান ধরনের পশু কেনার সুযোগ থাকলেও হাংরিনাকিতে শুধু ছাগল কিনে ‘নগদ’ পেমেন্ট করতে পারছেন গ্রাহক।

অনলাইন হাটগুলোর সংশ্লিষ্ট লিংক বা ওয়েবসাইটে গিয়ে পশু পছন্দ করার পর গ্রাহকেরা বিক্রেতার নম্বরে কথা বলা বা কিছু ক্ষেত্রে ভিডিওতে পশু দেখার সুযোগও পাচ্ছেন। যাচাই বাছাইয়ের পর পশু নির্বাচন করে প্রতিষ্ঠানটির ‘নগদ’ মার্চেন্ট অ্যাকাউন্টে পেমেন্ট করা যাবে।

আরও পড়ুন


আজ প্রকাশ করা হবে ৫৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগের ফল

পরীক্ষা না হলে যেভাবে পাস করানো হবে এসএসসি ও এইচএসসি

খুলনার চার হাসপাতালে আরও ১৯ জনের মৃত্যু

ইরানের পরমাণু সমঝোতা না ফিরতে বাইডেনের প্রতি পম্পেও’র আহ্বান


‘নগদ’-এর এই আয়োজন সম্পর্কে ‘নগদ’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক বলেন, “আমরা সব সময়ই গ্রাহকদের জীবনকে আরো একটু সহজ করতে কাজ করছি। তার অংশ হিসেবেই নগদ-এর গ্রাহকদের ঈদের আয়োজনকে আরো একটু গুছিয়ে দিতে আমাদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা রয়েছে। তার অংশ হিসেবেই আমরা কোরবানির আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত হয়েছি। আশা করছি, জরুরি এই সময়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই সহজে ও নিরাপদে পছন্দের পশু কেনার সুযোগ নেবেন গ্রাহক। সে কারণেই গতবছরের মতো এবারও সেবাটি গ্রাহকদের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠেবে বলে আশা করি।”

বর্তমানে ‘নগদ’-এর পাঁচ কোটি ২০ লাখ গ্রাহক রয়েছে যারা প্রতিদিন গড়ে ৬৫০ কোটি টাকা লেনদেন করছে। সম্প্রতি- ‘দেশি নগদে বেশি লাভ’ স্লোগান নিয়ে কাজ করতে গিয়ে বাজারে চমৎকার সাড়া পেয়েছে, যেখানে মূলত ‘নগদ’ ব্যবহারে গ্রাহকের সার্বিক লাভের বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

সুস্থ গরু চেনার উপায়

অনলাইন ডেস্ক

সুস্থ গরু চেনার উপায়

দরজায় কড়া নাড়ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। এই ঈদকে আমরা অনেকেই কোরবানীর ঈদও বলে থাকি। কোরবানীকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে বসে পশুর হাট।

আমরা অনেকেই সুস্থ, সবল গরু কেনা নিয়ে বেশ চিন্তায় থাকি। কেননা কৃত্রিমভাবে নানা ওষুধ খাইয়ে মোটাতাজা গরুর ভিড়ে সত্যিকার স্বাস্থ্যবান ও সুস্থ গরু চেনা একটু কঠিনই বটে। তবে কিছু বিষয় খেয়াল করলে ভালো গরু চিনে নেয়া সম্ভব। তাহলে জেনে নিন সুস্থ গরু চেনার উপায় সম্পর্কে।

১. অতিরিক্ত মুনাফা লাভের আশায় কিছু কিছু অসাধু ব্যবসায়ী মোটাতাজাকরণ ওষুধ খাইয়ে স্বাভাবিকের চাইতে অতিরিক্ত মোটাতাজা করে হাটে নিয়ে আসেন। এসব গরু অন্যসব গরুর চাইতে অপ্রত্যাশিত ফোলা থাকে।  লক্ষ্য করুণ আপনার পছন্দের গরু চটপটে কি না? কারণ, স্টেরয়েড খাওয়ালে গরু নড়াচড়ার বদলে ঝিম মেরে থাকবে। এছাড়া স্টেরয়েড ট্যাবলেট খাওয়ানো গরুর ঊরুতে প্রচুর মাংস থাকে। 

২. শিং ভাঙা, লেজ কাটা, জিহ্বা, ক্ষুর, মুখ, গোড়ালি খত আছে কি না তা ভালো করে দেখে নিতে হবে। 

৩. সুস্থ গরু চিনতে হলে পাঁজরের হাড়েও খেয়াল করতে হবে। সুস্থ গরুর পাঁজরের হাড়ে উঁচু নিচু থাকে এবং চোখে নড়াচড়া করবে।

আরও পড়ুন:


বাবরের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরির পরও হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় পাকিস্তান

ইসরাইলের নয়া প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এরদোগানের ফোনালাপ

ঈদযাত্রা: আজ পাওয়া যাবে যে তারিখের টিকিট

যে কারণে এফডিসিতে এবার ছয়টি গরু কোরবানী দেবেন পরিমনি


৪. গরুর নাকের ওপরটা ভেজা ভেজা থাকে তাহলে বুঝতে হবে গরু সুস্থ। এছাড়া গরুর মুখের সামনে খাবার ধরলে যদি সঙ্গে সঙ্গে জিহ্বা দিয়ে টেনে নেয় তাহলেও বোঝা যায় গরুটি সুস্থ কারণ অসুস্থ পশু খাবার খেতে চায় না।

৫. গরুর কুঁজ মোটা ও টানটান থাকলে বুঝতে হবে গরুটি সুস্থ। 

৬. গরুর পাঁজরের হাড়ে যে তিন কোনা গর্ত থাকে, যাকে ফ্লায়েন্ট জয়েন্ট বলে। তাতে কোনা রয়েছে কিনা সেটি খেয়াল রাখতে হবে। যেসব গরুকে স্টেরয়েড জাতীয় খাবার খাওয়ানো হয় সেগুলোর পাঁজরের স্থান ফোলা থাকে এবং সেখানেও মাংস থাকে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে সাংবাদিকের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে সাংবাদিকের মৃত্যু

ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে আবুল কালাম আজাদ (বিপ্লব) নামে এক সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিন। তার বয়স হয়েছিল ৪৯ বছর।

আবুল কালাম আজাদ (বিপ্লব) প্রথম আলোর সম্পাদনা সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, বিপ্লবকে সোমবার সকালে রাজধানীর বিআরবি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর দুপুরে তিনি মারা যান। বুধবার সকালে তার মরদেহ রাজধানীর জুরাইন কবরস্থানে দাফন করা হবে।

আরও পড়ুন:


বাবরের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরির পরও হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় পাকিস্তান

ইসরাইলের নয়া প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এরদোগানের ফোনালাপ

ঈদযাত্রা: আজ পাওয়া যাবে যে তারিখের টিকিট

যে কারণে এফডিসিতে এবার ছয়টি গরু কোরবানী দেবেন পরিমনি


জুরাইনের বাসিন্দা আবুল কালাম আজাদ বাবা, স্ত্রী ও দুই সন্তান রেখে গেছেন। তাঁর এক ছেলে দশম শ্রেণি ও আরেক ছেলে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

কবি আবু বকর সিদ্দিক গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

অনলাইন ডেস্ক

কবি আবু বকর সিদ্দিক গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সাবেক অধ্যাপক কবি আবু বকর সিদ্দিক বার্ধক্যজনিত রোগে গুরুতর অসুস্থ হয়ে খুলনার একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কবির মেয়ে বিদিশা এরশাদ জানান, গত এক সপ্তাহ যাবত তার অবস্থা অবনতির দিকে। এ অবস্থায় মেয়ে বিদিশা এরশাদ কবি আবু বকর সিদ্দিকের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

কবি আবু বকর সিদ্দিক ১৯৩৪ সালের ১৯ আগস্ট বাগেরহাটের গোটাপাড়া মাতুলালয়ে জন্মগ্রহণ করেন আবু বকর সিদ্দিক।


আরও পড়ুনঃ

ওজন বাড়াতে হলে দুপুরে ঘুমাতে হবে

দেশে ফিরতেই মেসির উপর ঝাঁপিয়ে পড়লেন রোকুজ্জো! (ভিডিও)

তালেবান গোয়েন্দা প্রধানকে হত্যা করার কথা ঘোষণা আফগানিস্তানের

মাস্টারশেফ গ্রান্ড ফিনালে কিশোয়ারের পান্তা-আলুভর্তা


শিক্ষাজীবন শেষ করে চাখার ফজলুল হক কলেজ, দৌলতপুর বিএল কলেজ, বাগেরহাট পিসি কলেজ, ফকিরহাট কলেজ, কুষ্টিয়া কলেজ, কুষ্টিয়া গার্লস কলেজ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, কুইন্স ইউনিভার্সিটি ও নটরডেম কলেজে অধ্যাপনা করেছেন।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর