অটোরিকশার ভেতরেই ওই তরুণীকে ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

অটোরিকশার ভেতরেই ওই তরুণীকে ধর্ষণ

বিয়ের বাজারের কথা বলে সিলেটের শহরতলীতে বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে প্রেমিকাকে দলবেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে প্রেমিকের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় এরইমধ্যে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) মিডিয়া শাখা থেকে এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গণমাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়। এর আগে গত সোমবার (১৪ জুন) রাত ১০টার দিকে সিলেট মহানগরে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশের ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ৩ দিন আগে জালালাবাদ থানার ইসলামপুর মানসিনগর গ্রামের কাপ্তান মিয়ার ছেলে তাজউদ্দিনের (২২) সঙ্গে মোবাইলে পরিচয় হয় ধর্ষণের শিকার ওই তরুণীর। এরপর তাদের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। একপর্যায়ে ওই তরুণীকে বিয়ের আশ্বাস দেন তাজউদ্দিন। পরে সোমবার (১৪ জুন) রাতে বিয়ের বাজার করবে বলে বাড়ি থেকে তরুণীকে বের হতে বলেন।

কথামতো ওই তরুণী বাড়ি থেকে বের হয়ে তাজউদ্দিনের সঙ্গে দেখা করেন। পরে তাজউদ্দিন তাকে নিয়ে সিএনজি অটোরিকশায় করে রওয়ানা দেন। এরপর দুই সহযোগীকে নিয়ে অটোরিকশার ভেতরেই ওই তরুণীকে ধর্ষণ করেন তাজউদ্দিন। সহযোগী দুইজন হলেন-জালালাবাদ থানার ইসলামপুর মানসিনগর গ্রামের রজন মিয়ার ছেলে এখলাছুর রহমান (২৭) ও একই থানার নলকট গ্রামের ফুল মিয়া (২৭)।

আরও পড়ুন


বাংলাদেশ সফরে অস্ট্রেলিয়ার চূড়ান্ত দল ঘোষণা

রোনালদোকাণ্ডের পর এবার টেবিল থেকে বিয়ারের বোতল সরালেন পগবা

নায়িকা পপির বিয়ে ও অন্তঃসত্ত্বার গুঞ্জন নিয়ে যা জানালেন ফেরদৌস

সিলেটে দুই শিশুসহ একই পরিবারের ৩ জনকে গলাকাটে হত্যা


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি আরও বলা হয়, ঘটনার পর ভুক্তভোগীকে সিলেট নগরীর দিকে নিয়ে আসলে তরুণীর কান্না শুনে স্থানীয়রা সিএনজি অটোরিকশাকে আটক করে। পরে ঘটনা শুনে তাজউদ্দিন ও এখলাছুর রহমানকে আটকে রাখে স্থানীয়রা। তবে অটোরিকশাচালক ফুল মিয়া পালিয়ে যান।

এই সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ভুক্তভোগী তরুণীকে উদ্ধার এবং তাজউদ্দিন ও এখলাছুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে। মঙ্গলবার (১৫ জুন) এ ঘটনায় ওই তরুণী জালালাবাদ থানায় মামলা দায়ের করেন।

জালালাবাদ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নাজমুল হুদা খান বলেন, ভুক্তভোগীকে চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি বিভাগে প্রেরণ করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

কিশোরগঞ্জে ডোবার পানিতে ডুবে ভাই-বোনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

কিশোরগঞ্জে ডোবার পানিতে ডুবে ভাই-বোনের মৃত্যু

কিশোরগঞ্জে ডোবার পানিতে পড়ে সানাতুল্লা (২) ও মোফাসসিরা (১৭ মাস) নামের দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। তার সম্পর্কে চাচাতো ভাই বোন। 

আজ বিকেল ৫ টার দিকে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বৌলাই ইউনিয়নের ছয়না গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মারা যাওয়া দুই শিশু হলো:- সানাতুল্লা ছয়না গ্রামের সোহরাবের ছেলে। আর মোফাসসিরার বাবার নাম মোহাম্মদ শাহজাহান।

আরও পড়ুন:


ভ্যাকসিন নিয়ে উপহাস করা সেই ব্যক্তির করোনায় মৃত্যু

মাসে এক কোটি টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নামের সাথে লীগ জুড়ে আওয়ামী লীগের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ নেই: কাদের

করোনা: খুলনা বিভাগে একদিনে ৪৫ জনের মৃত্যু


বৌলাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আওলাদ হোসেন জানান, দুটি শিশু বিকেলে বাড়ির উঠানে খেলা করছিল। এক পর্যায়ে সবার অজান্তে বাড়ির পাশের ডোবায় পড়ে যায় তারা। কিছুক্ষণ পর তাদের লাশ ভেসে উঠে। পরে পরিবারের লোকজন গিয়ে তাদের লাশ উদ্ধার করে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

নওগাঁ হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডার, ফ্লো-মিটার ও হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা দিলো এফবিসিসিআই

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

নওগাঁ হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডার, ফ্লো-মিটার ও হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা দিলো এফবিসিসিআই

নওগাঁ হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডার, ফ্লো-মিটার ও হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা দিয়েছে এফবিসিসিআই।

রোববার দুপুরে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ১০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার, ১০টি ফ্লো-মিটার ও ৩টি হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা প্রদান করেছে দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী সংগঠন এফবিসিসিআই।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারের গৃহিত কর্মকাণ্ডকে আরো ত্বরান্বিত করার লক্ষে এফবিসিসিআই-এর পক্ষে সভাপতি জসিম উদ্দীনের নির্দেশনা ও পরিচালনা পর্ষদের সার্বিক সহযোগিতায় দেশের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে করোনা ভাইরাস রোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থাকে সহজলভ্য করার লক্ষে এফবিসিসিআই-এর পক্ষ থেকে এসব উপকরণ বিতরণ করা হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় জেলা সদর হাসপাতাল প্রাঙ্গনে সিভিল সার্জন ও সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক (ভারপ্রাপ্ত) ডা. এবিএম আবু হানিফের কাছে এই উপকরণগুলো হস্তান্তর করা হয়।

উপকরণগুলো হস্তান্তর করেন এফবিসিসিআই-এর পরিচালক ও নওগাঁ চেম্বারের সভাপতি ইকবাল শাহ্রিয়ার রাসেল।

এ সময় নওগাঁ চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ড্রাস্ট্রির সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান টুনু, পরিচালক এমএ খালেক, নওগাঁ চেম্বার ও হাসপাতালের অন্যান্য কর্মকর্তা এবং গনমাধ্যকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:


ডিএমপির ৯ পুলিশ কর্মকর্তার পদায়ন 

ফুলবাড়িয়ায় হাতকড়াসহ পালানো আসামি সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা পর গ্রেপ্তার

পিরোজপুরে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ২

 news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

যশোরে বিটি বেগুন চাষে আগ্রহ বেড়েছে

রিপন হোসেন, যশোর

যশোরে বিটি বেগুন চাষে আগ্রহ বেড়েছে

যশোরে বিটি বেগুন চাষে কৃষকদের আগ্রহ বেড়েছে কয়েকগুণ। কৃষকরা জানান, এ জাতের বেগুনে পোকার আক্রমণ কম হয়। স্বল্প খরচে লাভও বেশি হয়। এ কারণে অনান্য জাতের বেগুনের চেয়ে এ জাতের বেগুন চাষ করছেন তারা। 

বেগুন চাষের সময় ডগা ও ফল ছিদ্রকারী পোকার আক্রমণে ৭০-৮০ ভাগ বেগুন মাঠেই নষ্ট যায়। এজন্য প্রতি বছর ১৭-২০ লাখ মেট্রিক টন কীটনাশক ব্যবহার করতে হয়। ফলে বেগুন চাষের খরচ বেড়ে যায় এবং কৃষকরা এ থেকে লাভবান হতে পারেন না। 

তবে কৃষকদের এ থেকে পরিত্রাণ দিতে বিটি-১,২,৩, ও ৪ নামে চারটি নতুন জাত উদ্ভাবন করে কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট। এ জাতের বেগুন আবাদ করলে স্বল্প খরচে লাভও বেশি হয়।

আরও পড়ুন:


ভ্যাকসিন নিয়ে উপহাস করা সেই ব্যক্তির করোনায় মৃত্যু

মাসে এক কোটি টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নামের সাথে লীগ জুড়ে আওয়ামী লীগের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ নেই: কাদের

করোনা: খুলনা বিভাগে একদিনে ৪৫ জনের মৃত্যু


সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বেগুনের সাধারণ যে জাতগুলো রয়েছে তাতে প্রচুর পরিমানে পোকা লাগে। এজন্য কৃষক অতিরিক্ত কীটনাশক স্প্রে করে। ফলে বেগুনের উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পায়। তবে বিটি বেগুন চাষ করলে এসব থেকে রেহাই পাওয়া যাবে। তাই এই বেগুন চাষে কৃষকদের বিভিন্ন পরামর্শ দিচ্ছেন তারা।

২০১৪ সালে বিটি বেগুনের জাত উদ্ভাবিত হয়। মাত্র ২০ জনা চাষি এই বেগুন চাষ শুরু করে। বর্তমানে সারাদেশে ৬৫ হাজর চাষি ৩০ হাজার হেক্টার জমিতে বিটি বেগুন চাষ করছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

পাওনা টাকা চাওয়ায় ধর্ষণ চেষ্টার মামলা, অভিযোগ আসামির

শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট

পাওনা টাকা চাওয়ায় ধর্ষণ চেষ্টার মামলা, অভিযোগ আসামির

বাগেরহাটের শরণখোলায় কিশোরীকে (১৬) ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ফুফাতো ভাই আমিনুল মোল্লার (৩০) বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। রোববার সকালে ফুফু (কিশোরীর মা) বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ভাইপোর বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। পুলিশ আসামিকে গ্রেপ্তার করে সন্ধ্যায় বাগেরহাট আদালতে পাঠিয়েছে।

উপজেলার রায়েন্দা ইউনিয়নের উত্তর রাজাপুর গ্রামের কাঞ্চন মোল্লার ছেলে আসামী আমিনুল মোল্লা মীরপুর-রায়েন্দা রুটে চলাচলকারী চাপাই পরিবহনের মালিক। শনিবার রাত ৯টার দিকে ধানসাগর ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের কিশোরীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

গ্রেপ্তার আমিনুল মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, ফুফুর কাছে আমার চাষের জমি মেয়াদী দেওয়া সংক্রান্ত তিন বছর আগের এক লাখ ১০ হাজার টাকা পাওনা রয়েছে। এই টাকা চাওয়া নিয়ে পারিবারিক দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়। 

শনিবার (২৪জুলাই) রাত ৯টার দিকে রাজাপুর বাজারে বসে টাকার বিষয়ে জানতে চাইলে ফুফার সঙ্গে আমার কথা কাটাকাটি হয়। এই ঘটনার পরই তারা টাকা না দেওয়ার কৌশল হিসেবে মেয়েকে ভিকটিম বানিয়ে আমার বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ তোলেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দিন রাতে মেয়েকে বাড়িতে একা রেখে তার মা পার্শ্ববর্তী রাজাপুর বাজারে একটি শালিস-বৈঠকে যান। এই সুযোগে আমিনুল ইসলাম ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে কিশোরীর মুখ চেপে ধরে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এরই মধ্যে বাদীর ছেলে বাড়িতে গিয়ে কড়া নাড়া দিলে আসামি দরজা খুলে দৌড়ে পালিয়ে যায়। এসময় কিশোরী তার ভাইকে ঘটনা জানায়।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইদুর রহমান জানান, কিশোরী ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগের মামলা দায়ের পর আমিনুল মোল্লাকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে এবং ভিকটিমকে ২২ধারায় জবানবন্দির জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:


ডিএমপির ৯ পুলিশ কর্মকর্তার পদায়ন 

ফুলবাড়িয়ায় হাতকড়াসহ পালানো আসামি সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা পর গ্রেপ্তার

পিরোজপুরে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ২

 news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

গুরুদাসপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মামা ও ভাগ্নের মৃত্যু

নাসিম উদ্দীন নাসিম, নাটোর

গুরুদাসপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মামা ও ভাগ্নের মৃত্যু

নাটোরের গুরুদাসপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মামা ও ভাগ্নের মৃত্যু হয়েছে। আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার চাপিলা ইউনিয়নের ধানুড়া ভিটাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।  

মারা যাওয়া দুইজন হলেন-ভিটাপাড়া গ্রামের মৃত কিতাব আলীর ছেলে আব্দুর সাত্তার (৬৫) ও একই গ্রামের সাঈদ আলী ছেলে মকবুল হোসেন (২২)।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আয়ূব আলী জানান, মামা সাত্তারের বাড়ির পাশেই ভাগ্নে মকবুল হোসেনের বাড়ি। দুপুরে মামার সাথে কথা বলতে তার বাড়িতে যান। উঠান দিয়ে বিদ্যুতের নরমাল তার রান্না ঘরের সাথে সংযোগ ছিল। উঠানে দাঁড়িয়ে থেকে মামা ভাগ্নে গল্প করার সময়ে ছিদ্র তার তাদের দুজনের হাত স্পর্শ করলে দুইজন বিদ্যুতায়িত হন।

আরও পড়ুন:


ভ্যাকসিন নিয়ে উপহাস করা সেই ব্যক্তির করোনায় মৃত্যু

মাসে এক কোটি টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নামের সাথে লীগ জুড়ে আওয়ামী লীগের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ নেই: কাদের

করোনা: খুলনা বিভাগে একদিনে ৪৫ জনের মৃত্যু


পরে এলাকাবাসী ও আত্বীয় স্বজন তাদের উদ্ধার করে আহম্মদপুর রাহেলা ক্লিনিকে নিয়ে যায়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাদের দুজনকেই মৃত ঘোষণা করেন। 

গুরুদাসপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর