সুন্দরবনের আয়তন বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার: সংসদে প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

সুন্দরবনের আয়তন বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার: সংসদে প্রধানমন্ত্রী

দেশের উন্নয়নে যেন কোনোভাবেই সুন্দরবন ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়ার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, দেশের উন্নয়নে যে পদক্ষেপই নেয়া হোক না কেন, সুন্দরবন এবং এর জীববৈচিত্র্য যেন কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হয় এ বিষয়টি গুরুত্ব দেওয়া হয়।

বুধবার (১৬ জুন) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তর পর্বে সংরক্ষিত আসনের বেগম সুলতানা নাদিরার প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিনের সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপিত হয়।

এ সময় সুন্দরবনের উন্নয়নে সরকারের নেওয়া নানান পদক্ষেপের কথা প্রধানমন্ত্রী তুলে ধরেন। তিনি বলেন, সুন্দরবনের আয়তন বাড়ানোর জন্য সরকার কৃত্রিম ম্যানগ্রোভ সৃষ্টির উদ্যোগ নিয়েছে। সমগ্র উপকূলীয় অঞ্চলে এর বিস্তৃতি ঘটানোর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সুন্দরবনের বৃক্ষাদি এবং বন্যপ্রাণী রক্ষার জন্য তথা বন অপরাধ দমনের জন্য স্মার্ট পেট্রোলিংসহ নানাবিধ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

সুন্দরবনের গাছপালা ও বন্যপ্রাণীকূলকে রক্ষার জন্য বনকর্মীদের যুগোপযোগী করে গড়ে তুলে তাদের সংখ্যা বৃদ্ধির পদক্ষেপের কথাও জানান সরকার প্রধান।

তিনি বলেন, সুন্দরবন সম্প্রসারিত হচ্ছে। ক্যামেরা ট্র্যাপিংয়ের মাধ্যমে ২০১৫ সালের বাঘশুমারি অনুযায়ী সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা ছিল ১০৬টি। ২০১৮ সালের শুমারিতে এর সংখ্যা ১১৪টি পাওয়া গেছে। সুন্দরবনের কার্বন মজুতের পরিমাণ ২০০৯ সালের ১০৬ মিলিয়ন টন থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ২০১৯ সালে ১৩৯ মিলিয়ন টন হয়েছে।

আরও পড়ুন:


স্বাধীনতার মূল শর্ত হচ্ছে বাক, চিন্তা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা: ফখরুল

এখনও খোঁজ মেলেনি আবু ত্ব-হা আদনানের, যা বলছে পুলিশ

রোনালদোকাণ্ডের পর এবার টেবিল থেকে বিয়ারের বোতল সরালেন পগবা


প্রধানমন্ত্রী জানান, জীব বৈচিত্র্যের আধার সুন্দরবনে এখন ৩৩৪ প্রজাতির উদ্ভিদ, ১৬৫ প্রজাতির শৈবাল, ১৩ প্রজাতির অর্কিড এবং ৩৭৫ প্রজাতির বন্য প্রাণী পাওয়া যায়। বন্য প্রাণীর মধ্যে ৪২ প্রজাতির স্তন্যপায়ী, ৩৫ প্রজাতির সরীসৃপ, ৮ প্রজাতির উভচর, ৩১৫ প্রজাতির পাখি, ২১০ প্রজাতির মাছ, ২৪ প্রজাতির চিংড়ি, ১৪ প্রজাতির কাঁকড়া আছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

৭৩টি ভুঁইফোড় সংগঠনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগের নাম ভাঙিয়ে ৭৩টি ভুঁইফোড় সংগঠনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছে আওয়ামী লীগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে ডিবি পুলিশের যুগ্ম কমিশনার হারুণ অর রশীদ বলেন, এর প্রেক্ষিতে পুলিশ দ্রুত তাদের গ্রেফতার করবে। 

তিনি জানান , এই  ৭৩টি সংগঠনের মধ্যে রয়েছে, আওয়ামী প্রচার লীগ, আওয়ামী তরুণ লীগ, আওয়ামী রিকশা মালিক শ্রমিক ঐক্য লীগ, আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ, আওয়ামী নৌকার মাঝি শ্রমিক লীগ। শুধু এগুলিই নয়, এমন আরও অদ্ভুত নাম জুড়ে সংগঠন খোলার তালিকায় রয়েছে ওলামা লীগ, চেতনায় মুজিব, ডিজিটাল ছাত্রলীগ, আমরা নৌকার প্রজন্ম। এই সব সংগঠনের কাজই হলো বিভিন্ন মানুষকে ভাঙ্গিয়ে নানাভাবে অথ উর্পাজন ও ব্ল্যাকমেইল করা।

আরও পড়ুন

চট্টগ্রামে করোনায় একদিনে মৃত্যু আরও ১০

রামেকে করোনা ওয়ার্ডে ১৯ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনা ইউনিটে একদিনে ১৭ জনের মৃত্যু

এবার নতুন রূপে হিরো আলম

নামে বেনামে এই সব সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও তাদের সাথে জড়িতদের দ্রুত আটক করা হবে।

আওয়ামী লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে অসাধু চক্রের তৈরি করা আরও রয়েছে সজীব ওয়াজেদ জয় লীগ, আওয়ামী অনলাইন লীগ, ডিজিটাল আওয়ামী ওলামা লীগ, আওয়ামী শিশু লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন।

news24bd.tv রিমু 

পরবর্তী খবর

মহামারিতেও তৎপর জঙ্গিরা, অনলাইনে চলছে প্রচারণা

মৌ খন্দকার

মহামারিতেও তৎপর জঙ্গিরা, অনলাইনে চলছে প্রচারণা

করোনাকালে বসে নেই জঙ্গিরা, বরং চলছে অনলাইনে সদস্য সংগ্রহ। গোয়েন্দা তথ্য বলছে, জঙ্গিদের আবার পুনর্গঠিত হওয়ার চেষ্টা আছে, তারা বিভিন্ন অ্যাপে চ্যানেল খুলে প্রচারণা চালাচ্ছে। তবে সামনে আসার মতো শক্তি জঙ্গিদের নেই বলে মনে করেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা। তাদের কঠোর সাইবার পেট্রোলিংয়ের কারণে চূড়ান্ত পরিকল্পনার আগেই ধরা পড়ে যাচ্ছে তারা। 

বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠীগুলো করোনাভাইরাসের এই সময়ে অনেকটাই আড়ালে চলে গিয়েছিল। কিন্তু থেমে থাকেনি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সূত্রগুলো বলছে, এ সময়টাকে জঙ্গিরা কাজে লাগিয়েছে অনলাইনে সদস্য সংগ্রহের কাজে। সাধারণ ছুটির পর জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোর মুখপাত্ররা বিভিন্ন গোপনীয়তা নিশ্চিত করা যায় যে অ্যাপগুলোয় চ্যানেল খুলে প্রচারণা চালাচ্ছে।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সূত্রগুলো বলছে, ভার্চ্যুয়াল যোগাযোগের একটা অংশ বিদেশ থেকে নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। তাঁরা নিজেদের তৈরি কনটেন্ট কিংবা বিদেশি ভাষা থেকে অনুবাদ করে বিভিন্ন কনটেন্ট আপলোড করছেন।

আরও পড়ুন:


করোনায় আক্রান্ত কনডেম সেলের ফাঁসির আসামি

টিকা নিলে কমে মৃত্যু ঝুঁকি: আইইডিসিআর

করোনা: কুষ্টিয়ায় একদিনে ৯ জনের মৃত্যু

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রয়োগ শুরু


 

র‌্যাব বলছে, ধারাবাহিক জঙ্গি বিরোধী অভিযানে জঙ্গিরা তাদের ক্ষমতা হারিয়েছে।

আগে যেভাবে একটা আস্তানা নিয়ে ট্রেনিং দিতো, আমির থাকতো, অপারেশন প্ল্যান ও অস্ত্র সংগ্রহ করতো, এখন সেই অবস্থায় নেই জঙ্গিরা।
এছাড়া র‌্যাব ফোর্সেসের সাইবার মনিটরিং টিমের পক্ষ থেকে তাদের নজরদারি বাড়ানোর কথাও জানান র‌্যাবের এই উর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

নামে কঠোর কিন্তু বাস্তবে ঢিলেঢালা লকডাউন

হাবিবুল ইসলাম হাবিব

নামে কঠোর লকডাউন কিন্তু বাস্তবে ঢিলেঢালা। রাজধানীর বেশীরভাগ সড়কে ব্যক্তিগত গাড়ির চাপ থাকলেও ছিল না কোন গণপরিবহন। তবে জরুরী প্রয়োজন মেটাতে রিক্সা ও মটরসাইকেল চলছে । সেক্ষেত্রে বাড়তি ভাড়া গুনতে হচ্ছে জরুরী প্রয়োজন মেটাতে বের হওয়া যাত্রীদের। আর সুনির্দৃষ্ট কারন ছাড়া বের হলেই জরিমানা করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তবে অসুস্থতা নিয়ে যারা বের হয়েছেন তাদের জন্য যানবাহন সংকট ছিলো বড় সমস্যা। 

লকডাউনের মাঝে গার্মেন্টস শিল্প চালু করfয় ঢাকা মুখি মানুষের যাত্রা এখনো চলছে। তবে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় দীর্ঘ পথের বাহন হয়েছে মটর বাইক, অটো কিংবা রিক্সা ভ্যান। ফলে রাজধানীর সড়কগুলো ছিলো জনাকীর্ণ।

তবে পেটের দায়ে যারা বের হয়েছেন তারা পড়ছেন বিপাকে। রিক্সা চালকদের আক্ষেপ নেই পর্যাপ্ত যাত্রী।  নিজে কিংবা পরিবারের কোন সদস্য অসুস্থ্ হলে তাদের জন্য নেই পর্যাপ্ত যানবাহন।

আরও পড়ুন:


বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত করোনার মতো বারবার রূপ পরিবর্তন করছে: বাহাউদ্দিন নাছিম

টিকা নেয়ার পরেও করোনা পজিটিভ ফারুকী

স্বামীর পর্নকাণ্ড: মানহানির মামলা নিয়ে শিল্পাকে আদালতের ভর্ৎসনা


 

ব্যক্তিগত গাড়ির চাপে কখনো কখনো জানযট তৈরী হতে দেখা গেছে নগরীর বিভিন্ন সড়কে। পুলিশ জানায় বেশীরভাগ গাড়ী জরুরী সেবায় নিয়োজিত। তবে বের হওয়ার যৌক্তিক কারন না দেখাতে পারলে তাকে জরিমানা করা হচ্ছে।

অবাধ বিচরন করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি বাড়ালেও অনেকেই এর তোয়াক্কা করছেন না। তাই সংক্রমন এড়াতে স্বাস্থ্যবিধি মানার উপর জোর তাগিদ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা

মাহমুদুল হাসান

রাজধানীতে প্রতিদিনই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টাতেই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২৮৭ জন। এডিস ও কিউলেক্স মশা দমনে দুই সিটি কর্পোরেশন বিশেষ অভিযান শুরু করলেও ফলাফল এখনও দৃশ্যমান হয়নি। ডেঙ্গুর বেশি ঝুকিতে রয়েছে শিশুরা, প্রতিদিনই আক্রান্ত শিশুদের হাসপাতালে ভর্তি করাচ্ছেন অভিভাবকরা।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ৪ বছরের শিশুকে  নিয়ে হাসপাতালে এসেছেন বাড্ডা এলাকার বাসিন্দা বিউটি বেগম। বলছিলেন, তার বাড়ির আশেপাশে মশার উপদ্রপের কথা, অনেকেই আক্রান্ত হচ্ছে ডেঙ্গু জ্বরে। ৪ বছর বয়সী সন্তানের অবস্থা খারাপ হওয়াতে ভর্তি করাতে হয়েছে হাসপাতালে।

এমনি আরও ৩৬ টি শিশু ভর্তি হয়েছে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের শিশু হাসপাতালটিতে। হাসপাতালের আইসিউতে ভর্তি ৫ জন, এই মধ্যে ডেঙ্গুতে মারা গেছেন ৪ শিশু। শিশুদের নিয়ে উৎকন্ঠায়  রাজধানীর অভিভাবকরা।

আরও পড়ুন:


বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত করোনার মতো বারবার রূপ পরিবর্তন করছে: বাহাউদ্দিন নাছিম

টিকা নেয়ার পরেও করোনা পজিটিভ ফারুকী

স্বামীর পর্নকাণ্ড: মানহানির মামলা নিয়ে শিল্পাকে আদালতের ভর্ৎসনা


করোনার মাঝে ক্রমেই ভয়াবহ হয়ে উঠছে ডেঙ্গু। চিকিৎসকরাও বলছেন, প্রতিদিনই বাড়ছে রোগীর চাপ।

পরিস্থিতি বিবেচনায় বিশেষ অভিযান শুরু করেছে দুই সিটি কর্পোরেশন। রাজধানীর মিরপুরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে অভিযানে নামেন উত্তরের মেয়র। এ সময় ডেঙ্গু প্রবণ এলাকা চিহ্নিত করতে নগরবাসীর সহায়তা চান তিনি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীকে পাকিস্তানের আম উপহার

অনলাইন ডেস্ক

রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীকে পাকিস্তানের আম উপহার

ফাইল ছবি

বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আম উপহার হিসেবে পাঠিয়েছে পাকিস্তান। 

সোমবার ঢাকায় নিযুক্ত পাকিস্তান হাইকমিশন এ তথ্য জানিয়েছে।

পাকিস্তান হাইকমিশন জানায়, গত বছরের মতো এবারও পাকিস্তান সরকার বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জন্য উপহার হিসেবে তাজা পাকিস্তানি আম পাঠিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


 

এর আগে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান‌কে শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে ১ হাজার কে‌জি হা‌ড়িভাঙ্গা আম উপহার হিসেবে পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হা‌সিনা।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর