হাঁড়িভাঙা আসছে

রেজাউল করিম মানিক,রংপুর থেকে

হাঁড়িভাঙা আসছে

রংপুরের বাজারে উঠতে শুরু করেছে হাঁড়িভাঙা আম। ২০ জুনের পর এ আম বিক্রির সরকারি নির্দেশনা থাকলেও এখনই তা মিলছে হাট-বাজারে। কৃষি বিভাগের আশা, এবার ২০০ কোটি টাকার ওপরে আম বাণিজ্য হবে রংপুরে। কারণ আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার আমের ফলন হয়েছে ভালো। হাঁড়িভাঙা আম বিদেশে রপ্তানিতে সহযোগিতার কথা জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

হাঁড়িভাঙা আমের সবচেয়ে বড় হাট মিঠাপুকুরের খোড়াগাছ ইউনিয়নের পদাগঞ্জ হাটে সরেজমিন দেখা যায়, মূল সড়কের পাশেই বড় বড় আমগাছের নিচে বসেছে বিশাল আমের হাট। এ আম বিক্রিকে কেন্দ্র করে দেখা দিয়েছে নানা ধরনের অর্থনৈতিক কার্যক্রম। ২০ জুন আসার আগেই ভ্যানে করে বাগান থেকে পরিপক্ক আম এনে হাটে তুলেছেন চাষি ও ব্যবসায়ীরা। আমচাষিরা সকাল-সকাল আম বিক্রি করেই বাড়ি ফিরে গেছেন।

আম ঘিরে নানা অর্থনৈতিক কার্যক্রম: বেচাকেনার জন্য পদাগঞ্জ আমের হাটে খোলা হয়েছে ইসলামী ব্যাংক ও মেঘনা ব্যাংকের শাখা। ‘

ফলে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা বড় বড় ব্যবসায়ী ও কৃষকরা ঝামেলামুক্তভাবে বড় ধরনের লেনদেন করছেন। আমের হাট ঘিরে বিভিন্ন কুরিয়ার সার্ভিসের শাখাও খোলা হয়েছে। প্রিয়জনের কাছে আম পরিবহনে স্থানীয় স্বজনরা কাজে লাগাচ্ছেন এগুলো। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আম পাঠানোর উপযোগী বাঁশের খাঁচা, প্লাস্টিকের ক্যারেট বিক্রি করছেন স্থানীয় অনেকে। ট্রাকে আম ওঠানামার কাজ করছেন শ্রমজীবীরা। এতে বাড়তি আয়ের সুযোগ হয়েছে তাদের।

আম বহনের খাঁচা বিক্রেতা আবুল হোসেন বলেন, আমের বাজার জমে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে খাঁচার চাহিদা বাড়ে। দামও ভালো পাই। প্লাস্টিকের খাঁচা ১০০ টাকা ও বাঁশের তৈরি খাঁচা ৪০ থেকে ৬০ টাকা দরে বিক্রি করছি।

আম ঘিরে নানা অর্থনৈতিক কার্যক্রম গড়ে উঠলেও কষ্টার্জিত হাঁড়িভাঙা আমে কাঙ্ক্ষিত লাভ করতে পারছেন না বলে জানাচ্ছেন উৎপাদক কৃষকরা। 

প্রতি বছর মধ্যস্বত্বভোগীরা বড় বড় আড়ত গড়ে তুলে বাজারে আম ওঠার সঙ্গে সঙ্গে সিন্ডিকেট করে দাম কমিয়ে দেয়। ফলে কৃষকরা অনেকটা বাধ্য হয়েই কম দামে মধ্যস্বত্বভোগী-ফড়িয়াদের কাছে হাঁড়িভাঙা বিক্রি করতে বাধ্য হন। এ সমস্যা দূর করে আমের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের পাইকারদের সঙ্গে চাষিদের ব্যবসায়িক সংযোগ স্থাপন বিষয়ে বিপণন অধিদপ্তরকে নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

প্রতিদিন হাটে উঠছে ১০০-১৫০ মণ আম: হাটে আম বিক্রি করতে আসা চাষি রফিকুল ইসলাম বলেন, অনেক বাগানের আম আগেই পেকে গেছে। তাই সেগুলো ভ্যানে করে হাটে নিয়ে এসেছি। রংপুরের ব্যবসায়ীরা এসব কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। এখন আকারভেদে এসব আম বিক্রি হচ্ছে এক হাজার থেকে এক হাজার ৬০০ টাকা মণ। সরকারের বেঁধে দেওয়া ২০ জুনের পর বাইরে থেকে ব্যবসায়ীরা এলে দাম দুই হাজার টাকা মণ হবে, আশা করছি। আমচাষি আফজালুল বলেন, হাটের অবস্থা তো খুব খারাপ। কোটি কোটি টাকার আম বিক্রি হয়, অথচ হাটের কোনো উন্নয়ন নেই। সামান্য বৃষ্টিতেই প্রচুর কাদা হয়ে যায়। তাই আম বেচতে অনেক দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

পদাগঞ্জ ও পাইকারহাটের ইজারাদার আইয়ুব আলী বলেন, হাটে প্রতিদিন ১০০-১৫০ মণ আম উঠছে। তবে বিক্রি শুরু হবে ২০ জুন থেকে। তাই ক্রেতা-বিক্রেতা কম। আমি দীর্ঘ ২১ বছর ধরে হাটগুলো ইজারা নিয়ে আসছি। প্রতি বছর সরকারকে মোটা অংকের রাজস্ব দিলেও হাটের কোনো উন্নয়ন হয় না।

আমের ক্রেতা শাহীন ইসলাম বলেন, আমের চেয়ে পাঠানো খরচই বেশি। আধা মণ আম পাঠাতে কেজিপ্রতি ১০ টাকা কুরিয়ার খরচ; খাঁচা, লেবারসহ সব মিলিয়ে ২০০ টাকা খরচ হয়। এতে আমাদের কষ্টই হয়। কুরিয়ার সার্ভিস খরচ একটু কমালে ভালো হতো। এ জন্য সরকারি-বেসরকারিভাবেও পরিবহনের ব্যবস্থা করা যেতে পারে।

চাষের আওতায় ১৮৬৫ হেক্টর জমি: রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, রংপুরের আট উপজেলায় এক হাজার ৮৬৫ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে সুস্বাদু, আঁশবিহীন হাঁড়িভাঙা আম। এর মধ্যে মিঠাপুকুর ও বদরগঞ্জ উপজেলার সিংহভাগ জমিতে আবাদ হয়েছে এ আম। এবার আমের গড় ফলন হয়েছে হেক্টরপ্রতি ১৫ টন, যার বাজারমূল্য প্রায় ১২৭ কোটি টাকা। গত বছর করোনার কারণে আম বিপণনে কৃষকদের সমস্যা চিহ্নিত করে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে কৃষি বিভাগ ও প্রশাসন। আম বিক্রির জন্য অ্যাপ তৈরি, পরিবহনের জন্য বিশেষ বাস কিংবা ট্রেন সুবিধা নিয়ে রংপুরের মিঠাপুকুরের পদাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে চাষিদের সঙ্গে আলোচনা সভা করা হয়েছে। এ ছাড়া রংপুরের আট উপজেলায় এক হাজার ৪১৫ হেক্টর জমিতে আম্রপালি, বারি-৪, ফজলি, আশ্বিনা, কেরোয়া, সাদা ল্যাংড়া, কালো ল্যাংড়া ও মিশ্রিভোগের চাষ হয়েছে।

এসব আমের গড় ফলন হেক্টরপ্রতি ১৩ টন, যার বাজারমূল্য প্রায় ৬৭ কোটি টাকা।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক ওবায়দুর রহমান মন্ডল বলেন, এবার কিছুটা খরা ছিল। তবে হাঁড়িভাঙা আমের আবাদ ভালো হয়েছে। কৃষকরা সহজে যাতে আম বিপণন করতে পারেন, সে জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। প্রতি বছরের মতো এবারও কৃষকদের পাশে রয়েছি।

তৎপর প্রশাসন : রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, আম পরিবহনের জন্য গাড়িগুলোতে আমরা স্টিকার সহযোগিতা করছি। এতে আম ব্যবসায়ী-চাষিরা তাদের আম দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঝামেলা ছাড়াই সরবরাহ করতে পারবেন। পরিবহন সমস্যা এড়াতে মতবিনিময় সভা করে কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। তারা আম বিক্রির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কাজ করছেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এমপি বলেন, রংপুরের কৃষিতে গত ২০ বছরের অভূতপূর্ব উন্নয়ন হলো হাঁড়িভাঙা আম। এ আম দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রপ্তানি করা সম্ভব। কিন্তু একে খুব যত্নসহ রপ্তানি করতে হবে। এ ধরনের আম প্রক্রিয়াজাত করার সুযোগ এখনও দেশে হয়নি। যদি কেউ রপ্তানি করতে চান, তাহলে আমরা তাদের সহযোগিতা দেব। হাঁড়িভাঙা আমের ব্যাপক প্রচারও প্রয়োজন।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

আজ থেকে ফের টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু

অনলাইন ডেস্ক

আজ থেকে ফের টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু

আজ থেকে আবারও শুরু হচ্ছে টিসিবির পণ্য বিক্রি কার্যক্রম। রোববার (২৫ জুলাই) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা লতিফ বকসীর সই করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর শোকাবহ আগস্টে মাসে কঠোর লকডাউন পরিস্থিতিতেও ভোক্তা সাধারণের কাছে ভর্তুকি মূল্যে কতিপয় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী ভ্রাম্যমাণ ট্রাকে দেশব্যাপী বিক্রয় করবে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে— সয়াবিন তেল, মশুর ডাল এবং চিনি।’

আরও পড়ুন:


ভ্যাকসিন নিয়ে উপহাস করা সেই ব্যক্তির করোনায় মৃত্যু

মাসে এক কোটি টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নামের সাথে লীগ জুড়ে আওয়ামী লীগের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ নেই: কাদের

করোনা: খুলনা বিভাগে একদিনে ৪৫ জনের মৃত্যু


সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও  বলা হয়, ‘সোমবার ২৬ জুলাই থেকে ২৬ আগস্ট পর্যন্ত (সরকারি ছুটির দিন ব্যতীত) উল্লিখিত নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১০০ টাকা, মশুর ডাল প্রতি কেজি ৫৫ টাকা এবং চিনি প্রতি কেজি ৫৫ টাকা দরে বিক্রি করা হবে।’

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আজ থেকে ব্যাংক লেনদেনের সময় পরিবর্তন

অনলাইন ডেস্ক

আজ থেকে ব্যাংক লেনদেনের সময় পরিবর্তন

ফাইল ছবি

করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে চলমান কঠোরতম বিধিনিষেধের মধ্যেও আজ থেকে সীমিত সময়ের জন্য খোলা থাকবে ব্যাংক। এই বিধিনিষেধের মধ্যে সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে বেলা দেড়টা পর্যন্ত ব্যাংক লেনদেন চালু থাকবে। ব্যাংকিং সেবা চালু রাখা নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক গত ১৩ জুলাই এক প্রজ্ঞাপন জারি করে।

এতে বলা হয়, সাপ্তাহিক ছুটির দিন ব্যতীত বিধিনিষেধ চলাকালে সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালিত হবে। এই সময়ে মাস্ক পরিধানসহ সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে পরিপালন করে সীমিত সংখ্যক লোকবলের মাধ্যমে ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের জরুরি বিভাগসহ প্রয়োজনীয় সংখ্যক শাখা খোলা রাখতে পারবে ব্যাংকগুলো। শাখা খোলা রাখার ব্যাপারে বলা হয়েছে, নিজ বিবেচনায় খোলা রাখা যাবে। এই সময়ে ব্যাংকে লেনদেন সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে বেলা দেড়টা পর্যন্ত চলবে।

বিধিনিষেধ চলাকালে হিসাবে নগদ/ চেকের মাধ্যমে অর্থ জমা ও উত্তোলন, ডিমান্ড ড্রাফট/ পে-অর্ডার ইস্যু ও জমা গ্রহণ-এসব সেবার পাশাপাশি বৈদেশিক রেমিট্যান্সের অর্থ পরিশোধ, সরকারের বিভিন্ন সামাজিক কর্মসূচির ভাতা/ অনুদান বিতরণ ইত্যাদি সেবা মিলবে।

এ ছাড়া একই ব্যাংকের খোলা রাখা বিভিন্ন শাখা ও একই শাখার বিভিন্ন হিসাবের মধ্যে অর্থ স্থানান্তর, ট্রেজারি চালান গ্রহণ, অনলাইন সুবিধা–সংবলিত ব্যাংকের সব গ্রাহকের এবং এসব সুবিধা–বহির্ভূত ব্যাংকের খোলা রাখা শাখার গ্রাহকেরা বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক চালু রাখা বিভিন্ন পেমেন্ট সিস্টেমস/ ক্লিয়ারিং ব্যবস্থার আওতাধীন অন্যান্য লেনদেন সুবিধা ও জরুরি বৈদেশিক লেনদেন–সংক্রান্ত সেবা পাবেন গ্রাহকেরা।


আরও পড়ুন:

এনএসও'র দাবি পেগাসাস স্পাইওয়্যার ব্যবহারে বিশ্বের লাখো মানুষ ঘুমাতে পারছে

চীনে গুদামে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪

পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়ল পচেত্তিনোর

হাইতি প্রেসিডেন্টের সৎকার অনুষ্ঠান থেকে পালিয়েছে মার্কিন প্রতিনিধিদল


এই সময়ে কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন ও ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা সার্বক্ষণিক চালু রাখার নির্দেশনা দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এটিএম বুথগুলোতে পর্যাপ্ত নোট সরবরাহসহ সার্বক্ষণিক সেবা চালু রাখতে হবে।

প্রসঙ্গত, ঈদুল আজহা উপলক্ষে ১৫ জুলাই থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত ৮ দিনের জন্য শিথিল করা হয় কঠোর লকডাউন। এই শিথিলতা কাটিয়ে গত ২৩ জুলাই থেকে আবারও কঠোর লকডাউন শুরু হয়। তবে শুক্রবার ও শনিবার দুইদিন সাপ্তাহিক বন্ধের পর আজ থেকে খুলছে ব্যাংক।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

নওগাঁয় সিন্ডিকেটের ফাঁদে চামড়া: দাবি ব্যবসায়ীদের

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

নওগাঁয় সিন্ডিকেটের ফাঁদে চামড়া: দাবি ব্যবসায়ীদের

নওগাঁয় গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর কোরবানীর পশুর চামড়া একেবারে কম দামে বেচাকেনা হয়েছে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, ট্যানারী মালিকদের সিন্ডিকেটের কারণেই  চামড়ার এই দরপতন। এতে লোকসান গুণতে হচ্ছে তাদের।  

প্রতি বছর ঈদুল আযহার দিনে নওগাঁয় কোরবানীর পশুর চামড়ার বিশাল বাজার বসে। শহরের বিভিন্ন এলাকা ও গ্রামাঞ্চল থেকে চামড়া কিনে এনে বিক্রির জন্য ভীড় করে মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ীরা।  করোনা ও বকেয়া টাকা না পাওয়ায় এবার পাল্টে গেছে সে চিত্র।

মৌসুমী ব্যবসাযীদের অভিযোগ, গেল বছরের তুলনায় চামড়ার দাম একেবারে কম। ধার দেনা করেও চামড়া কিনে লোকসান গুণতে হচ্ছে তাদের।
  
ট্যানারী মালিকদের দুটি সংগঠন সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দাম নির্ধারণ করে দেয়ায় চামড়ার এই দর পতন হয়েছে এমন দাবি ব্যবসায়ী সমিতির এই নেতার।

আরও পড়ুন:


স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাসব্যাপী আগস্টের কর্মসূচী ঘোষণা

জার্মানিতে বন্যায় প্রাণহানির ঘটনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক প্রকাশ

রেকর্ড গড়েই টোকিও অলিম্পিকের প্রথম সোনা জিতলেন চীনা তরুণী

বৃষ্টিপাতে ভারতের গোয়ায় ধস, ট্রেন লাইনচ্যুত (ভিডিও)


এ বছর নওগাঁয় ৫০ হাজার গরু, ৪০ হাজার খাসি ও ১৫ হাজার ভেড়ার চামড়া কেনাবেচা হয়েছে। যা আনুমানিক মূল্য ৪ থেকে ৫ কোটি টাকা।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

কাল থেকে ব্যাংক খোলা নিয়ে যা জানাল বাংলাদেশ ব্যাংক

অনলাইন ডেস্ক

কাল থেকে ব্যাংক খোলা নিয়ে যা জানাল বাংলাদেশ ব্যাংক

কঠোর লকডাউনের মধ্যে সীমিত পরিসরে চলবে ব্যাংকিং কার্যক্রম। ঈদের ছুটি শেষে রোববার থেকে প্রয়োজনীয় সংখ্যক শাখা নিয়ে ব্যাংক খোলা থাকবে। লেনদেন চলবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত। আনুষঙ্গিক কার্যক্রম বিকাল ৩টার মধ্যে শেষ করতে হবে। 

১৩ জুলাই এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব অফ-সাইট সুপারভিশন।

বিধিনিষেধ চলাকালে গ্রাহকদের হিসাবে নগদ, চেকের মাধ্যমে অর্থ জমা ও উত্তোলন, ডিমান্ড ড্রাফট, পেঅর্ডার ইস্যু ও জমা গ্রহণ, বৈদেশিক রেমিট্যান্সের অর্থ পরিশোধ, সরকারের বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমের আওতায় দেওয়া ভাতা, অনুদান বিতরণ, একই ব্যাংকের খোলা রাখা বিভিন্ন শাখা ও একই শাখার বিভিন্ন হিসাবের মধ্যে অর্থ স্থানান্তর, ট্রেজারি চালান গ্রহণ, অনলাইন সুবিধা সংবলিত ব্যাংকের সব গ্রাহক এবং ওই সুবিধাবহিভর্‚ত ব্যাংকের খোলা রাখা শাখার গ্রাহককে বিভিন্ন পেমেন্ট সিস্টেমস ও ক্লিয়ারিং ব্যবস্থার আওতাধীন অন্যান্য লেনদেন সুবিধা প্রদান এবং জরুরি বৈদেশিক লেনদেন সংক্রান্ত কার্যাবলী চলবে। 

এছাড়া কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন ও ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা সার্বক্ষণিক চালু রাখতে হবে। এটিএম বুথগুলোতে পর্যাপ্ত নোট সরবরাহসহ সার্বক্ষণিক চালু রাখতে হবে। 

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


 

সমুদ্র, স্থল ও বিমানবন্দর এলাকায় (পোর্ট ও কাস্টমস এলাকা) অবস্থিত ব্যাংকের শাখা, উপশাখা ও বুথ সার্বক্ষণিক খোলা থাকবে। এছাড়া স্থানীয় প্রশাসনসহ বন্দর ও কাস্টমস কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনাক্রমে মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে পরিপালন নিশ্চিতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আজ থেকে বেনাপোলে আমদানি-রপ্তানি শুরু

অনলাইন ডেস্ক

আজ থেকে বেনাপোলে আমদানি-রপ্তানি শুরু

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে মঙ্গলবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত টানা চার দিন বন্ধ ছিলো বেনাপোল স্থলবন্দর। এসময় ভারতের সাথে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যিক কার্যক্রম পুরোপুরি বন্ধ ছিলো। 

ছুটি শেষ হয়ে যাওয়ায় আগামীকাল থেকে আবারও দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু হবে। 

বেনাপোল বন্দরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুল জলিল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন:


নদীতে ভাসছিলো অজ্ঞাত যুবকের মরদেহ

ঝিনাইদহে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে দুইজনের মৃত্যু

বাগেরহাটে পিকআপের ধাক্কায় ৬ ইজিবাইক যাত্রী নিহত

কে এই অভিষিক্ত শামীম পাটোয়ারী


তিনি বলেন, ২০ জুলাই থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ঈদের ছুটি থাকায় আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ ছিলো। ২৪ জুলাই থেকে আবারও দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু হবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর