পিপিপি মডেলে ‘নগদ’-এর অগ্রযাত্রা ফিনটেক বিশ্বের বিস্ময়

অনলাইন ডেস্ক

পিপিপি মডেলে ‘নগদ’-এর অগ্রযাত্রা ফিনটেক বিশ্বের বিস্ময়

বাংলাদেশ সরকারের সরকারি-বেসরকারি অংশীদারি (পিপিপি) ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’-এর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন আঞ্চলিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রথম সারির নেতারা। তারা বলেছেন, আর্থিক অন্তর্ভুক্তির বাইরে থাকা মানুষদের আর্থিক অন্তর্ভুক্তিতে আনতে ‘নগদ’ রোল মডেলের ভূমিকা পালন করতে পারে।

সম্প্রতি এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এআইটি) আয়োজিত ‘১১তম সিইও টক’ ওয়েবিনারের আয়োজন করে। ‘সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির জন্য উদ্ভাবনী প্রযুক্তি’ শীর্ষক ওয়েবিনারে আঞ্চলিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের নেতৃবৃন্দ ‘নগদ’-এর উদ্ভাবন অনুসরণ করে নিজ নিজ দেশে অর্থনৈতিক অন্তর্ভুক্তির গতি সঞ্চারের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

‘নগদ’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সহ-প্রতিষ্ঠাতা তানভীর এ মিশুক ওয়েবিনারে প্রধান বক্তা হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। 

তিনি বলেন, যদি বেসরকারি পর্যায়ে সঠিক যন্ত্রপাতি ও উদ্যোগ থাকে তাহলে বিভিন্ন ধরনের প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও সরকার পিপিপি দেওয়ার জন্য প্রস্তুত।

দেশের ফিনটেক শিল্পে আলোকবর্তিকাবাহী তানভীর এ মিশুক তাঁর পরবর্তী উচ্চাকাঙ্ক্ষার কথা ব্যক্ত করে বলেন, আগামী ২০২২ সালের মধ্যে দেশের নাগরিকদের জন্য ৩৬০ ডিগ্রি আর্থিক সেবা দেওয়ার জন্য ডিজিটাল ব্যাংক দেওয়ার পরিকল্পনার রয়েছে তার।

ওয়েবিনারে এআইটি-এর স্কুল অব ম্যানেজমেন্ট-এর ডিরেক্টর ড. সান্দার ভেঙ্কটেশের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য দেন এআইটি-এর নলেজ ট্রান্সফার বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট ড. নাভিদ আনোয়ার।

বাংলাদেশ রেটিং এজেন্সি লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. সৈয়দ আবদুল্লা আল মামুন ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে বলেন, তিনি ‘নগদ’-এর অবিশ্বাস্য অগ্রযাত্রা প্রত্যক্ষ করছেন এবং তিনি এই প্রতিষ্ঠানকে বাংলাদেশের স্টার্টআপ জগতে বেঞ্চমার্ক হিসেবে দেখছেন। তিনি বলেন, ‘আমি নগদ’-এর যাত্রাকে স্বাগত জানাই। বিশেষ করে তারা প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে উদ্ভাবন নিয়ে এসেছে, যেটি সামনে আরও বেগবান হবে।

নেপালের ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সিস্টেম লিমিটেডের ইন্টার্ন সিইও সঞ্জিব শুভ প্রথাগত ব্যাংকিং পদ্ধতির বিষয়ে বলেন, বড় জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানগুলো খুব কম সময়ের মধ্যে পড়ে যাবে। সেটা হতে পারে আগামী দশকের মধ্যে। আর এই প্রক্রিয়াটি তরান্বিত করবে এবং বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে ডিজিটাল স্টার্টআপগুলো। 

নেপালের ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সিস্টেম লিমিটেডের ইন্টার্ন সিইও সঞ্জিব আরও বলেন, ‘আমি নিশ্চিত যে ‘নগদ’-এর উদ্ভাবন ডিজটাল কেওয়াসি দারুণ করছে এবং আগামীতে এটি গেম চেঞ্জারের ভূমিকা পালন করবে। আমার দেশেও এই ডিজিটাল কেওয়াইসি অনুসরণ করা যেতে পারে, আমি মনে করি যার মাধ্যমে গ্রাহক পর্যায়ের ভাষাগত জটিলতা দূর করা সম্ভব।’ তিনি ‘নগদ’-এর আর্থিক অন্তর্ভুক্তি দেখে অভিভূত হয়েছেনে। বাংলাদেশে কয়েকবার ঘুরে তিনি এটা অনুভব করেছেন যে, সামনের দিনে পদ্ধতিগত পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রে ‘নগদ’-এর মতো প্রতিষ্ঠানগুলোর অনেক বড় ধরনের সম্ভাবনা আছে।

শ্রীলংকার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর ড. উইরাকুন বিজয়াবর্ধনে, বাংলালিংকের সাবেক চিফ কমপ্লেইন্ট অফিসার এম নুরুল আলম, শ্রীলংকার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সিপিএ করুনাতিলক ওয়েবিনারে অংশ নেন এবং উদ্ভাবন ও বিভিন্ন উদ্যোগের জন্য তানভীর এ মিশুকের প্রশংসা করেন। তারা সবাই বলেছেন ‘নগদ’-কে অনুসরণ করে আরও অন্যান্য দেশে এমন মোবাইল ব্যাংকিং পদ্ধতি চালু করা যেতে পারে।

আলোচনায় অংশ নিয়ে ‘নগদ’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক বলেন, ‘শুরুর দিকে আমরা আমাদের অংশীদারের কাছ থেকে অনেক প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়েছি। পরবর্তীতে তারাও আমাদের সহযোগিতা করেছে এবং সরকারের আন্তরিক সাহস পেয়ে আমরা প্রতিবন্ধকতা জয় করতে পেরেছি। এই অঞ্চলের অনেকেই লাল ফিতার দৌরত্বের বিষয়ে অভিযোগ করে, আসলে সঠিক সমাধান এবং কঠিন পরিশ্রমের মাধ্যমে এই প্রতিবন্ধকতা ভাঙা সম্ভব।’ 

তিনি আরো বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে ডাক বিভাগ একটি লস প্রোজেক্ট হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছিল। পরবর্তীতে আমরা আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির সাথে পার্টনারশিপ করি। প্রথম দিকে কিছু প্রতিবন্ধকতা ছিল। কিন্তু আমি জানি ডাক বিভাগের অবকাঠামো দিয়েই একটা পার্থক্য তৈরি করা সম্ভব।’

আরও পড়ুন:


বাব-মা-বোনকে হত্যার পর ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে যা বলেছিলো মেহজাবিন

দুর্লভ আবাসিক পাখি ‘জল ময়ূর’

কাপুরুষোচিত হামলা চালিয়ে ইসরাইলি সেনাদের মনোবল চাঙ্গা হবে না: হামাস

বিবস্ত্র করা ছবি তুলে ফাঁদে ফেলে প্রবাসীর স্ত্রী, মামলায় আ.লীগ নেতাও আসামি


এর আগে আরো ১২টি উদ্যোগ সফলভাবে তৈরি করা তানভীর এ মিশুক বলেন, এই পরিকল্পনা প্রস্তাবের সময় অনেক কঠিন লড়াই করতে হয়েছে। তিনি বলেন, ‘সত্যি বলতে, আমার বোর্ড মেম্বাররা প্রথম দিকে একটু সন্ধিগ্ধ ছিলেন! যা-ই হোক আমি আগে যা কিছুই অর্জন করেছি, সেসব উদ্যোগকে ধন্যবাদ। বোর্ড মেম্বারদের সবাই আমার অভিজ্ঞতার ওপর ভিত্তি করে রাজি হয়ে যান।’ 

২০১৯ সালে যাত্রা শুরু করা ‘নগদ’ এখন দেশের অন্যতম সেরা মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস)। ইতিমধ্যে সফল একটি ব্যবসায়িক মডেল হিসেবে ‘নগদ’ সর্বজন স্বীকৃত। আর প্রযুক্তিগত দক্ষতাই এর অন্যতম কারণ। যার ফলে খুব অল্প সময়ে নিজেদের এই অবস্থানে নিতে সক্ষম হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। যাত্রার ঠিক দুই বছরের মাথায় দেশের এক নম্বর ডাউনলোড অ্যাপের স্থানটিও দখল করেছিল ‘নগদ’ বলে উল্লেখ করেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক। (প্রেস বিজ্ঞপ্তি)

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

‘এ’ ক্যাটাগরিতে এনআরবিসি ব্যাংক

অনলাইন ডেস্ক

‘এ’ ক্যাটাগরিতে এনআরবিসি ব্যাংক

শেয়ারবাজারে ব্যাংক খাতে তালিকাভুক্ত এনআরবিসি ব্যাংক ‘এ’ ক্যাটাগরিতে উন্নীত হয়েছে। এর আগে কোম্পানিটি তালিকাভুক্তির পর থেকে ‘এন’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করেছে। 

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) থেকে কোম্পানিটি ‘এ’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করবে।

সোমবার (২ আগস্ট) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এনআরবিসি ব্যাংক ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য সাড়ে ১২ শতাংশ লভ্যাংশ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এর ফলে কোম্পানিটি ‘এন’ থেকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে স্থানান্তরিত হবে।

আরও পড়ুন:


করোনায় আক্রান্ত কনডেম সেলের ফাঁসির আসামি

টিকা নিলে কমে মৃত্যু ঝুঁকি: আইইডিসিআর

করোনা: কুষ্টিয়ায় একদিনে ৯ জনের মৃত্যু

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রয়োগ শুরু


বিএসইসির নির্দেশনা অনুযায়ী ক্যাটাগরি পরিবর্তনের ৩০ দিনের মধ্যে কোম্পানিটির কোনো ঋণ সুবিধা দেওয়া যাবে না।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

করোনায় আক্রান্ত মুহিতকে দেখতে গেলেন ছোট ভাই মোমেন

অনলাইন ডেস্ক

করোনায় আক্রান্ত মুহিতকে দেখতে গেলেন ছোট ভাই মোমেন

সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তার শারীরিক অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। সব সময় দুর্বলতা অনুভব করছেন। 

এর মাঝেই গতকাল রোববার মুহিতকে দেখতে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে যান তার ছোট ভাই পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। এ সময় এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে তার স্ত্রী সেলিনা মোমেনও ছিলেন। স্বাস্থবিধি মেনে তারা সেখানে কিছুক্ষণ সময় কাটান এবং সাবেক অর্থমন্ত্রীকে অভয় দেন। 

আগের দিনই পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, ৮৭ বছর বয়সী মুহিত এমন শারীরিক অবস্থার মধ্যেও বই-পত্রিকা পড়তে চাইছেন। ওই দিনই তাকে বেশ কয়েকটি বই ও পত্রিকা পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য, আবুল মাল আব্দুল মুহিত কভিড ভ্যাকসিনের দুই ডোজ নিয়েছেন। তার বাসার প্রায় সবাই করোনায় আক্রান্ত। যে কারণে তাকে বাসায় না রেখে হাসপাতালে রাখা হয়েছে। তার ফুসফুসে সংক্রমণ হয়েছে। এটা নিয়েই দুশ্চিন্তা করছেন ডাক্তাররা। ১৯৩৪ সালে জন্মগ্রহণ করেন মুহিত। তিনি স্বাধীন বাংলাদেশে প্রায় সব সরকারেই গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন।

আরও পড়ুন:


চট্টগ্রামে করেনা ও উপসর্গ নিয়ে ১১ জনের মৃত্যু

পিয়াসা ও মৌ উচ্চবিত্তদের বাসায় ডেকে ব্ল্যাকমেইল করত : হারুন

৯৯৯ এ ফোন কলেবারান্দার কার্নিশ আটকে পড়া কিশোরী উদ্ধার

পোশাকের নেমপ্লেট খুলে চাঁদাবাজির অভিযোগে এসআই স্ট্যান্ড রিলিজ


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

মাদারীপুরের সাদ্দামের ড্রাগন সাফল্য

বেলাল রিজভী, মাদারীপুর

মাদারীপুরে ড্রাগন ফলের চাষ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন সজিব হোসেন সাদ্দাম নামে এক ব্যক্তি। তার বাগানে এই ফলের আশানুরুপ উৎপাদন হয়েছে। স্বল্প খরচে লাভ বেশি হওয়ায় প্রতিবছরই এই জেলায় বাড়ছে এই ফলের আবাদ।

মাদারীপুর সদর উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের চরনাচনা গ্রামের সজিব হোসেন সাদ্দাম। চলতি বছরের জানুয়ারী মাসে নিজের ৫ একর জমিতে ৫ হাজার ড্রাগন ফলের চারা লাগান তিনি। গাছে ফুল ও ফল আসতে শুরু করেছে।

সাদ্দাম জানান, উৎপাদন খরচ ৩৫ লাখ টাকা হলেও বাজার দর ভাল থাকায় লাভের মুখ দেখছেন তিনি। 

তিনি শুধু নিজে স্বাবলম্বী হননি তার বাগানে কাজ করে কর্মসংস্থানও হয়েছে অনেকের।

ড্রাগন চাষে আগ্রহীদের সব ধরণের সহায়তা করা হচ্ছে বলে জানালেন কৃষি কর্মকর্তারা।  

আরও পড়ুন:


সঙ্কটে মানুষের পাশে দাঁড়ালে বঙ্গবন্ধুর আত্মা শান্তি পাবে: কাদের

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারির ফল প্রকাশ

বিশ্বাস করতে হবে আমরা টি-টোয়েন্টিতেও ভালো দল: ডমিঙ্গো


জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, একটি ড্রাগন গাছ থেকে কমপক্ষে ৩০ বছর পর্যন্ত ফল পাওয়া যায়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

১০০ টাকার প্রাইজবন্ডের ড্র অনুষ্ঠিত

অনলাইন ডেস্ক

১০০ টাকার প্রাইজবন্ডের ড্র অনুষ্ঠিত

১০০ টাকা মূল্যমানের প্রাইজবন্ডের ১০৪তম ‘ড্র’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (১ আগস্ট) ঢাকা বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার মো. খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার অফিসের সম্মেলন কক্ষে এ ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

ছয় লাখ টাকার প্রথম পুরস্কার বিজয়ীর নম্বর ০২১৮৪০৭। এছাড়া ৩ লাখ ২৫ হাজার টাকার দ্বিতীয় পুরস্কারের নম্বর ০৫৫১৯৮৫; এক লাখ টাকা করে তৃতীয় পুরস্কারের নম্বর ০৩৮৪৪৫৪ ও ০৯২৪১৩১ এবং প্রতিটি ৫০ হাজার টাকা করে দুটি চতুর্থ পুরস্কারের বিজয়ীর নম্বর ০২৭৬০৫৮ ও ০৯৫৫৮৪৮।

একক সাধারণ পদ্ধতিতে (অর্থাৎ প্রত্যেক সিরিজের জন্য একই নম্বর) এই ‘ড্র’ পরিচালিত হয় এবং বর্তমানে প্রচলনযোগ্য ১০০ (একশত) টাকা মূল্যমানের ৬৫টি (পঁয়ষট্টি) সিরিজ যথা- কক, কখ, কগ, কঘ, কঙ, কচ, কছ, কজ, কঝ, কঞ, কট, কঠ, কড, কঢ, কথ, কদ, কন, কপ, কফ, কব, কম, কল, কশ, কষ, কস, কহ, খক, খখ, খগ, খঘ, খঙ, খচ, খছ, খজ, খঝ, খঞ, খট, খঠ, খড,
খঢ, খথ, খদ, খন, খপ, খফ, খব, খম, খল, খশ, খষ, খস, খহ, গক, গখ, গগ, গঘ, গঙ, গচ, গছ, গজ, গঝ, গঞ, গট, গঠ এবং গড এই ‘ড্র’-এর আওতাভুক্ত।

উপরোক্ত সিরিজগুলোর অন্তর্ভুক্ত ৪৬টি সাধারণ সংখ্যা পুরস্কারের যোগ্য বলে ঘোষিত হয়। নিম্নে বর্ণিত সংখ্যার বন্ডগুলো সাধারণভাবে প্রতিটি সিরিজের ক্ষেত্রে পুরস্কারের যোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

আরও পড়ুন:


সঙ্কটে মানুষের পাশে দাঁড়ালে বঙ্গবন্ধুর আত্মা শান্তি পাবে: কাদের

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারির ফল প্রকাশ

বিশ্বাস করতে হবে আমরা টি-টোয়েন্টিতেও ভালো দল: ডমিঙ্গো


৫ম পুরস্কার প্রতিটি ১০,০০০ টাকার বিজয়ী প্রতিটি সিরিজের ৪০টি নম্বর হলো: ০০০৪৮৮৩, ০১৬৪৮৪৪, ০৪৬৮২৪৬, ০৭০৪৯৩৭, ০৮৬৭৬৮৬, ০০১৪৪৫৭, ০২১৮২৯৮, ০৪৮২২৪৬, ০৭৪০৫৯৬, ০৮৯৮৮৮৬, ০০৩৫৮০৭, ০২৫৯৮৫৮, ০৪৯৫১৫১, ০৭৪৫০৭৬, ০৯৩০২৯৯, ০০৮০২১৭, ০২৯৩৪৩৪, ০৫৩২৭৬১, ০৭৯৫১২৩, ০৯৩৯২৮৬, ০১০৮৬১৮, ০২৯৩৯৩৮, ০৫৪৭৯২২, ০৮০৭৬৯৫, ০৯৫৫৭১২, ০১৩৫৩৯৬, ০২৯৮৩৪২, ০৬২৪৭০৮, ০৮৩৭৬২১, ০৯৬৮৫৮৭, ০১৬২৪২৬, ০৩৭২৯৫৬, ০৬৪৮৯৯৮, ০৮৫৩৬৮৫, ০৯৭৭২৬৭, ০১৬২৭০৬, ০৪২১৩৬৭, ০৬৫৮৪৮৪, ০৮৬০৬৯৬ ও ০৯৮৬৪৪৪।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ব্যাংকের লেনদেন বন্ধ আজ

অনলাইন ডেস্ক

 ব্যাংকের লেনদেন বন্ধ আজ

মহামারী করোনা ভাইরাসের ভয়াবহ সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে নিতে সরকারের কঠোর বিধিনিষেধ চলছে। এ সময় ব্যাংকের কার্যক্রম সীমিত পরিসরে চলবে। তবে আজ লেনদেনসহ ব্যাংকের সকল কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

গত ২৮ জুলাই জারি করা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী, ১ ও ৪ আগস্ট রোববার ও বুধবার সকল ব্যাংক বন্ধ থাকবে।

আগামী ২, ৩ ও ৫ আগস্ট ব্যাংক লেনদেন সকাল ১০টা হতে দুপুর ২.৩০টা পর্যন্ত চলবে।

তাছাড়া গত ১৩ জুলাই বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব অফ-সাইট সুপারভিশন থেকে জারি করা নির্দেশনার অন্যান্য বিষয় অপরিবর্তিত থাকবে।

ওই নির্দেশনায় বলা হয়েছে, মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্য বিধি কঠোরভাবে পরিপালনপূর্বক সীমিত সংখ্যক লোকবলের মাধ্যমে ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের অত্যাবশ্যকীয় বিভাগসমূহসহ ব্যাংক স্বীয় বিবেচনায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক শাখা খোলা রাখতে পারবে।

বিধি-নিষেধ চলাকালে গ্রাহকদের হিসাবে নগদ/চেকের মাধ্যমে অর্থ জমা ও উত্তোলন, ডিমান্ড ড্রাফট/পে-অর্ডার ইস্যু ও জমা গ্রহণ, বৈদেশিক রেমিট্যান্সের অর্থ পরিশোধ, সরকারের বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমের আওতায় প্রদত্ত ভাতা/অনুদান বিতরণ, একই ব্যাংকের খোলা রাখা বিভিন্ন শাখা ও একই শাখার বিভিন্ন হিসাবের মধ্যে অর্থ স্থানান্তর, ট্রেজারি চালান গ্রহণ, অনলাইন সুবিধা সম্বলিত ব্যাংকের সকল গ্রাহকের এবং ওই সুবিধা বহির্ভূত ব্যাংকের খোলা রাখা শাখার গ্রাহকদেরকে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক চালু রাখা বিভিন্ন পেমেন্ট সিস্টেমস/ক্লিয়ারিং ব্যবস্থার আওতাধীন অন্যান্য লেনদেন সুবিধা প্রদান এবং জরুরি বৈদেশিক লেনদেন সংক্রান্ত ব্যাংকিং সেবা চালু রাখতে হবে।

বিধি নিষেধ চলাকালে ব্যাংকগুলোকে কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন ও ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা সার্বক্ষণিক চালু রাখতে হবে। একই সঙ্গে এটিএম বুথগুলোতে পর্যাপ্ত নোট সরবরাহসহ সার্বক্ষণিক চালু রাখতে হবে।

আরও পড়ুন


এবার পর্নোগ্রাফি শুটিংয়ের অভিযোগে অভিনেত্রী গ্রেপ্তার

সাকিবের সামনে রেকর্ড গড়ার হাতছানি, যেখানে তিনিই হবেন প্রথম

চিত্রনায়িকা একার বিরুদ্ধে হাতিরঝিল থানায় দুই মামলা

বরিশাল শেবাচিমে আরও ১৭ জনের মৃত্যু, শনাক্তের হার কমেছে


সমুদ্র/স্থল/বিমান বন্দর এলাকায় (পোর্ট ও কাস্টমস এলাকা) অবস্থিত ব্যাংকের শাখা/উপ-শাখা/বুথসমূহ সার্বক্ষণিক খোলা রাখার বিষয়ে আগের জারি করা নির্দেশনা অনুযায়ী, স্থানীয় প্রশাসনসহ বন্দর/কাস্টমস কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনাক্রমে মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্য বিধি কঠোরভাবে পরিপালন নিশ্চিতপূর্বক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

বিধি-নিষেধ চলাকালে যে সকল শাখা বন্ধ থাকবে সে সকল শাখার গ্রাহক সেবা কার্যক্রম খোলা রাখা শাখার মাধ্যমে সম্পাদনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। বন্ধ করা শাখার গ্রাহকগণের গ্রাহক সেবা প্রাপ্তি বিষয়ে অবহিত করতে ওই শাখার দৃশ্যমান স্থানে তা বিজ্ঞপ্তি আকারে প্রদর্শন নিশ্চিত করতে হবে।

বিধি-নিষেধ চলাকালে ব্যাংকের কর্মকর্তা/কর্মচারিদের অফিসে যাতায়াতের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। ব্যাংক কর্মকর্তা/কর্মচারীদেরকে চলাচলের সময় প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদত্ত পরিচয়পত্র বহন করতে হবে।

ব্যাংক কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারার প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর