বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৯ | আপডেট ৪৭ মিনিট আগে

পুলিশের অশোভন আচরণের শিকার সাংবাদিক

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

পুলিশের অশোভন আচরণের শিকার সাংবাদিক

মে দিবসে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শ্রমিকদের নিয়ে প্রতিবেদন করার সময় বৈশাখী টিভির প্রতিবেদক নাঈম আল জিকোর সঙ্গে অশোভন আচরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে দায়িত্বরত এক পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

বাশার নামের ওই কর্মকর্তা শাহবাগ থানার পেট্রোল ইন্সপেক্টর হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। আজ সকালে প্রেসক্লাবের সামনে তিনি সাংবাদিক জিকোর সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন।

সাংবাদিক জিকো বলেন, মে দিবস উপলক্ষে প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থানরত শ্রমিকদের বক্তব্য নিচ্ছিলাম। এ সময় একজন পুলিশ সদস্য এসে আমাকে সরতে বলেন। আমি তার কাছে একটু সময় চাইলে তিনি চলে যান।

তিনি বলেন, কিছুক্ষণ পর শাহবাগ থানার পেট্রোল ইন্সপেক্টর বাশার এসে আমাকে আবারো সরতে বলেন। আমি তাকে বলি বক্তব্য নেয়া শেষ হলেই সরে যাচ্ছি। এ সময় তিনি আমার কোমরে হাত দিয়ে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেন।

গায়ে হাত দেয়ার কারণ জানতে চাইলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘আপনি আমাকে চেনেন? আমি বলি- আপনাকে আমার চিনতে হবে কেন? আমি কাজ করছি, আপনি আমার গায়ে হাত দিলেন কেন? এ সময় তার সঙ্গে আমার কথা কাটাকাটি হলে তিনি আমার সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন এবং বাজে মন্তব্য করেন।’

এ বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা বাশারের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার বলেন, ‘এটি অনাকাঙ্ক্ষিত ও দুঃখজনক ঘটনা। আমি খোঁজ-খবর নিয়ে দেখছি।’

এর আগে গেল ২৩ এপ্রিল নয়াপল্টন এলাকায় বিএনপির মিছিলের সংবাদ সংগ্রহের সময় বাংলা টিভির রিপোর্টার আরমান ও ক্যামেরাপারসন মানিক পুলিশি নির্যাতনের শিকার হন। এতে নেতৃত্ব দেন পুলিশের মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার আনোয়ার হোসেন ও তার বাহিনী।

ওই হামলার প্রতিবাদে পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেন কর্মরত সাংবাদিকরা। পরে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত দাবি করে তা তদন্তের আশ্বাস দেন।

ওই ঘটনার এক সপ্তাহের মাথায় পুলিশের আরেক কর্মকর্তার অশোভন আচরণের শিকার হলেন আরেক সাংবাদিক।

অরিন/নিউজ টোয়েন্টিফোর

মন্তব্য