ভয়াবহ করোনা মোকাবেলায় জাসদের ৬ দফা প্রস্তাবনা
ভয়াবহ করোনা মোকাবেলায় জাসদের ৬ দফা প্রস্তাবনা

ভয়াবহ করোনা মোকাবেলায় জাসদের ৬ দফা প্রস্তাবনা

অনলাইন ডেস্ক

করোনা ভাইরাসের অতি বিস্তারের প্রেক্ষাপটে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকার যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করছে না বলে মন্তব্য করেছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি)।

সরকারের কোনো পদক্ষেপই দূরদর্শিতারতার পরিচায়ক নয় বলেও দাবি করেছে দলটি।

দলটির সভাপতি আসম আবদুর রব ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এমন অভিযোগ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ব্যাপক পরীক্ষা, রোগী সনাক্তকরণ, আইসোলেশন, কন্টাক্ট ট্রেসিং এবং কোয়ারেন্টাইনের কোনো ব্যবস্থা না করে শুধুমাত্র লকডাউনের  নামে একমাত্র গণপরিবহন বন্ধ রাখা কোনোক্রমেই করোনা মোকাবেলার সহায়ক হচ্ছে না।

আরও বলা হয়, ‘দেশে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি দ্রুত অবনতির দিকে যাচ্ছে। প্রতিদিনই নতুন নতুন রোগী শনাক্ত হচ্ছে এবং মৃত্যুও ঊর্ধ্বমুখী। দৈনিক রোগী শনাক্ত আবারও ৬ হাজার ছাড়িয়েছে। করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণে সারা দেশই এখন উচ্চ ঝুঁকিতে। ৫০টির বেশি জেলায় অতি উচ্চ সংক্রমণ রয়েছে বলে মত দিয়েছে করোনা সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। ’

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও বলেছে, দেশের ৬৪টি জেলার মধ্যে ৪০টিই সংক্রমণের অতি উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বা ডেল্টা ধরনের করোনা ভাইরাস সামাজিক সংক্রমণে চিহ্নিত হয়েছে বলে জানিয়েছে কমিটি। এই অবস্থায় শুধু পরিবহন বন্ধের নামে লকডাউন করোনা মোকাবেলায় অকার্যকর।

প্রতিদিন সংক্রমণ বাড়ছে এবং মানুষের মূল্যবান জীবনহানি ঘটছে। তারপরও সরকার বিষয়টাকে কোনোরকম গুরুত্ব না দিয়ে লোক দেখানো লকডাউন ঘোষণাকেই প্রাধান্য দিয়ে যাচ্ছে।

জাসদের পক্ষ থেকে করোনার ভয়াবহতা মোকাবেলায় ছয় দফা প্রস্তাবনা তুলে ধরা হয়।

১. অবিলম্বে করোনা মোকাবেলায় সকল সম্মুখ যোদ্ধা, সাংবাদিক, জ্ঞান, বিজ্ঞান, মেধা ও প্রজ্ঞার অধিকারী সকল পেশাজীবী, শ্রমজীবী ও কর্মজীবী অংশীজন প্রতিনিধি সমন্বয়ে জাতীয়  স্বাস্থ্য কাউন্সিল (National Health Council) গঠন করতে হবে।  

২. অবিলম্বে অব্যাহত টিকা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য টিকা সংগ্রহের জন্য বহুমুখী উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

৩. অবিলম্বে দেশে টিকা উৎপাদনের পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে।

৪. করোনা সংক্রমণ বিস্তাররোধে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল অনুসরণ করতে হবে।

৫.বহুমুখী দারিদ্র্যে জর্জরিত ৬ কোটিরও বেশি মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

৬. উচ্চাভিলাষী মেগা প্রজেক্ট এর বরাদ্দ বাতিল করে স্বাস্থ্য ও খাদ্য খাতে বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে।

news24bd.tv / তৌহিদ