অভিনেত্রী ও সাংসদ মিমি চক্রবর্তী অসুস্থ

অনলাইন ডেস্ক

অভিনেত্রী ও সাংসদ মিমি চক্রবর্তী অসুস্থ

অভিনেত্রী-সাংসদ মিমি চক্রবর্তী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তার রক্তচাপ নেমে গিয়েছে। পেটে যন্ত্রণাও হচ্ছে সেইসঙ্গে শরীরে পানির অভাব দেখা দিচ্ছে। ডিহাইড্রেশনের ফলে শরীর অত্যন্ত দুর্বল হয়ে গেছে। 

কসবার ভুয়া ভ্যাকসিন নেওয়ার ফলেই এই সমস্ত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে কি না এই নিয়ে এখন প্রশ্ন উঠেছে।

শনিবার সকালে আনন্দবাজার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, খুবই দূর্বল মিমি, ভোর থেকে তার পেটে যন্ত্রণা হচ্ছে। ভোর ৬টায় তার বাড়িতে চিকিৎসক যান। আপাতত তাকে বিশ্রাম নেওয়ার কথাও বলা হয়েছে। ফোন দূরে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন চিকিৎসক।

গত বৃহস্পতিবার আনন্দবাজার অনলাইনকে মিমি বলেন, ‘‘পুরসভার ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের মুখে খবরটা পাওয়ার পরেই আমি চিন্তায় পড়ে যাই। চিকিৎসককে ফোন করি। তিনি বলেন, এটা এক ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক, যেটা পানিতে গুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। পেট এবং প্রসাবে সংক্রমণে এই ওষুধ দেওয়া হয়। এটা খুবই কড়া ওষুধ। পানি মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে সম্ভবত সে রকম ক্ষতি করবে না বলে জানালেন চিকিৎসক।’’

প্রতিষেধক নেওয়ার পর কসবা শিবিরের উদ্যোক্তাদের কাছে প্রশংসাপত্র চেয়েছিলেন মিমি। তখন তারা জানান, অভিনেত্রীর মুঠোফোনে প্রতিষেধক নেওয়ার প্রশংসাপত্র  যাবে। কিন্তু বেশ কয়েক ঘণ্টা কেটে যাওয়ার পরেও প্রশংসাপত্র না পাওয়ায় শিবিরের আয়োজকদের বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করেন মিমির সহকারী। তাতেও কোনও উত্তর না পেয়ে সাংসদ যোগাযোগ করেন কসবা থানায়। তার পরেই তৎপর হয় প্রশাসন।

আরও পড়ুনঃ


মহাকাশ স্টেশন থেকেই সরাসরি ইউরো দেখছেন নভোচারীরা

কানাডার পরিত্যক্ত স্কুলে পাওয়া গেলো সাড়ে সাতশ কবর!

আবারো থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ

সিলেটের ট্রিপল হত্যা: দুই সন্তানসহ স্ত্রীকে মাছ ভেবে কুপিয়ে হত্যা করে হিফজুর


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

ফকির আলমগীর আর নেই

অনলাইন ডেস্ক

ফকির আলমগীর আর নেই

বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও জনপ্রিয় গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীর আর নেই। করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


তার মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে রেখে গেছেন। 

ফকির আলমগীর স্বাধীনবাংলা বেতার কেন্দ্রের অন্যতম শিল্পী। তারও আগে থেকে তিনি শ্রমজীবী মানুষের জন্য গণসংগীত করে আসছিলেন। সঙ্গীতে অসামান্য অবদানের জন্য ১৯৯৯ সালে সরকার তাকে একুশে পদক দিয়ে সম্মানীত করে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

নিজেকেই চিনতে পারছেন না পরীমনি

অনলাইন ডেস্ক

নিজেকেই চিনতে পারছেন না পরীমনি

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমণি।তার ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টায় আনা অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় হয় বিনোদন জগত। এ ইস্যুতে মামলাও হয়েছে। যা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার রেশ এখনও কাটেনি। বিষয়টি নিয়ে বিপাকে পড়েছিলেন পরীমনি নিজেও। অনেক ঝড়-ঝাপটা বয়ে গেছে তার ওপর দিয়ে। সব পাশে রেখে ঢালিউডের গ্লামার গার্ল পরীমণি প্রীতিলতা চরিত্রে অভিনয় করছেন। এরই মধ্যে ‘প্রীতিলতা’ চলচ্চিত্রের এক কিস্তির শুটিংও করেছেন আলোচিত এই নায়িকা। 

প্রশ্ন উঠেছিল - এমন সব পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে রূপালি পর্দায় কেমন করে ফিরবেন পরীমনি? আগের সেই গ্ল্যামারে ফিরে যেতে পারবেন কি?

পরীমনি জানান দিলেন, তিনি পেরেছেন। শুধু পারেনই নি অবাক করে দিয়েছেন ভক্ত-অনুরাগীদের।

ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম শহীদ প্রীতিলতা রূপে হাজির হয়েছেন পরীমনি। পরীমনির সেই লুক প্রকাশ করেছে ‘প্রীতিলতা’ মুভির ফেসবুক পেজ।

২০ জুলাই রাত আটটায় প্রকাশিত সেই ছবি দেখে সবার চোখ ছানাবরা - এ কোন পরীমনি?  এমন রূপে আগে কখনো তাকে দেখেনি কেউ। অনেকের বক্তব্য,শত বছর আগের প্রীতিলতা যেমন ছিলেন, যেন সেই রূপে দেখা দিলেন পরীমনি। যেখানে গ্ল্যামারের ছিটেফোঁটাও নেই। আছে শতভাগ বাঙালি নারীর প্রতিচ্ছবি আর বিদ্রোহী এক নারীর গাম্ভীর্যতা।

ক্যারেক্টার প্রেজেনটেশন, আর্ট ডিরেকশন, স্টাইলিং ও কোরিওগ্রাফিতে ছিলেন বিপ্লব সাহা। ক্যানভাস স্টুডিওতে এই ফটোশুট করে অনিক চন্দ্র।

পরীমণি বলেন, ‘সত্যিই খুব শান্তি লাগছে। নিজেকে দেখে নিজেই চিন্তে পারছিলাম না। শুটের আগে কিছুটা টেনশনে ছিলাম। আমি একজন কিংবদন্তি বিপ্লবীকে নিজের মধ্যে ধারণ করে ঘুরে বেড়াচ্ছি। এই ফিল বলে বোঝানো যাবে না। মনে হচ্ছে প্রীতিলতার আত্মা ভর করেছে।’

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


 

গোলাম রাব্বানীর চিত্রনাট্য ও সংলাপে রাশিদ পলাশের পরিচালনায় আগস্ট থেকে ছবিটির শুটিং শুরু করার প্রস্তুতি চলছে। চট্টগ্রামের বিভিন্ন লোকেশনে হবে ছবির শুটিং। 

প্রীতিলতা বেশে নিজে দেখে মুগ্ধ ও অবাক পরীমনিও।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

ফকির আলমগীরের অবস্থার উন্নতি-অবনতি নেই

অনলাইন ডেস্ক

ফকির আলমগীরের অবস্থার উন্নতি-অবনতি নেই

বরেণ্য সংগীতশিল্পী ফকির আলমগীরের শারীরিক অবস্থার উন্নতি বা অবনতি—কোনোটাই নেই। তাঁকে নতুন করে কিছু ওষুধ দেওয়া হয়েছে। চিকিৎসকেরা অপেক্ষায় আছেন, কেমন সাড়া পাওয়া যায় এ ওষুধের। শুক্রবার বিকেলে সর্বশেষ পাওয়া তথ্য এটি।

এদিকে পরিবারের পক্ষে দোয়া চেয়েছেন ছেলে মাশুক আলমগীর রাজীব।

ভেন্টিলেশনে রাখা শুক্রবার ফকির আলমগীরের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে ছেলে মাশুক বলেন, ‘বাবার শরীরে ডি-ডাইমার কমেছে। রক্তে ও ফুসফুসে ইনফেকশন পাওয়া গেছে। রক্তচাপ খুবই নেমে গেছে। রক্তে ইনফেকশনের জন্য প্রায় প্রতিদিনই সকালে জ্বর আসছে। আজ থেকে বাবাকে নতুন অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া শুরু হচ্ছে। এই অ্যান্টিবায়োটিক না কাজ করলে খুবই বিপদ হয়ে যাবে। বাবার জন্য আপনারা সবাই দোয়া করবেন।’

এর আগে বৃহস্পতিবার মাশুক জানিয়েছেন, ফকির আলমগীরের অক্সিজেন স্যাচুরেশন শতভাগ। তাঁর ডান ফুসফুস সংক্রমণমুক্ত থাকলেও বাম ফুসফুস এখনো ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করছে। ফলে ডান পাশে কাত হলেই অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৭৫-এ নেমে আসে।

১৪ জুলাই ফকির আলমগীরের শরীরে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে । এরপর চিকিৎসকের পরামর্শে বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু পরদিন সন্ধ্যা থেকে তাঁর জ্বর ও শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়।

এরপর তাঁকে গ্রিন রোডের একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। ওই সময় নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) প্রয়োজন পড়লে সেখান থেকে তাঁকে গুলশানের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে ভর্তির পর দুই ব্যাগ প্লাজমা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু একপর্যায়ে অবস্থার আরও অবনতি হয়। অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৪৫-এ নেমে আসে। যার কারণে চিকিৎসকেরা তাঁকে ভেন্টিলেশন নেওয়ার পরামর্শ দেন।

আরও পড়ুন: 


বাংলাদেশকে টিকা দেওয়ার ব্যাপারে যা জানালেন ভারতীয় হাই কমিশনার

এদেশে সৎ মানুষ তৈরির সিস্টেমটাই নাই

গাজীপুরে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে হত্যা চেষ্টা


news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পর্ন ছবি তৈরি ও অ্যাপের মাধ্যমে সরবরাহ করতেন শিল্পা শেঠির স্বামী

অনলাইন ডেস্ক

পর্ন ছবি তৈরির অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রা। দুদিন ধরে বি-টাউনে হইচই পড়ে গেছে। কীভাবে এত ধনী হলেন রাজ? একের পর এক সামনে আসছে নানা তথ্য।

পর্নোগ্রাফিক চলচ্চিত্র তৈরি ও একটি অ্যাপের মাধ্যমে সেগুলো সরবরাহ করার অভিযোগে নামকরা বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠির স্বামী ও ব্যবসায়ী রাজ কুন্দ্রাকে গ্রেপ্তার করেছে মুম্বাই পুলিশ।

আদালত রাজ কুন্দ্রাকে ২৩ শে জুলাই শুক্রবার পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

পর্নোগ্রাফি মামলায় শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রা পুলিশ হেফাজতে প্রেরণের পরে। বেশ কয়েকজন মডেল এবং অভিনেতা কুন্ডার অশ্লীল ওয়েব ব্যবসায়ের সাথে তাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা প্রকাশে এগিয়ে এসেছেন।

বৃহস্পতিবার মডেল সাগরিকা সোনা সুমন দাবি, রাজ কুন্ডার বিরুদ্ধে অভিযোগ করায় তিনি হুমকি, আপত্তিজনক এবং অশ্লীল কল পাচ্ছেন।

শিল্পা শেঠীর স্বামী গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে তার আয় নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে বলি পাড়ায়।

রাজ কুন্দ্রার বাবা বালকৃষ্ণ ব্রিটেনে ছোটখাটো একজন বাস কন্ডাক্টর হিসেবে কাজ করতেন। মা কাজ করতেন কারখানায়। দারিদ্রকে দেখেছেন অনেক কাছ থেকে। দারিদ্রকে মনেপ্রাণে ঘৃণা করতেন রাজ। ১৮ বছর বয়সের পর কলেজে পড়াশোনার সুবাদে, নিজের জীবনকে নতুন রূপে পেতে গিয়েই ধনী হওয়ার লক্ষ্যে অবিচল হন তিনি।

পর্নো ছবি বানানোর অভিযোগে গত ১৯ জুলাই মুম্বাই পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন রাজ। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, পর্নো বানানোর পাশাপাশি তিনি তা বিশেষ অ্যাপের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতেন মুঠোফোনে।

এর আগে গেল ২০১২ সালে, রাজ কুন্দ্রা আইপিএল স্পট ফিক্সিংয়ের মামলায় অভিযুক্ত ছিলেন এবং তাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। আইপিএল দল রাজস্থান রয়্যালসে রাজ কুন্দ্রার একটি অংশীদারিত্ব ছিল।

পর্ন অ্যাপ মামলায় স্বামী রাজ কুণ্ড্রার গ্রেপ্তারের পর শিল্পা শেঠি শুক্রবার প্রথম ইনস্টাগ্রাম পোস্ট দেন, অভিনেত্রী ইনেস্টাতে প্রথম পোস্টে লেখেন বেঁচে থাকা চ্যালেঞ্জের মুখে। স্বামী পর্ন-কাণ্ডে জেলে, লজ্জায় মুখ দেখাতে পারছেন না শিল্পা, শুটিংও বন্ধ করলেন। বাড়ি থেকে বেরোনোও বন্ধ করেছেন অভিনেত্রী। শিল্পা এখন তুমুল সমালোচনার মুখে আছেন।

আরও পড়ুন: 


বাংলাদেশকে টিকা দেওয়ার ব্যাপারে যা জানালেন ভারতীয় হাই কমিশনার

এদেশে সৎ মানুষ তৈরির সিস্টেমটাই নাই

গাজীপুরে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে হত্যা চেষ্টা


news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মারা গেলেন ‘মুখ ও মুখোশ’ সিনেমার অভিনেত্রী জহরত আরা

অনলাইন ডেস্ক

মারা গেলেন ‘মুখ ও মুখোশ’ সিনেমার অভিনেত্রী জহরত আরা

বাংলাদেশ তথা তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য সবাক চলচ্চিত্র ‘মুখ ও মুখোশ’-এর অভিনেত্রী জহরত আরা মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহ ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

গত (১৯ জুলাই) লন্ডনের একটি হোম কেয়ারে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার বয়স হয়েছিলো ৮০ বছর। 

জহরত আরার পারিবারিক বন্ধু ফেরদৌস রহমান বলেন, দীর্ঘ দিন ধরেই জহরত বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছিলেন।

পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য সবাক চলচ্চিত্র ‘মুখ ও মুখোশ’। ১৯৫৩ সালে এই চলচ্চিত্র নির্মাণের কাজ শুরু হয়। ১৯৫৪ সালের ৬ আগস্ট হোটেল শাহবাগে চলচ্চিত্রটির মহরত অনুষ্ঠিত হয়। আবদুল জব্বার খান পরিচালিত এ চলচ্চিত্র ১৯৫৬ সালের ৩ আগস্ট মুক্তি পায়। ‘মুখ ও মুখোশ’-এর পথ ধরেই এগিয়ে যায় বাংলাদেশের চলচ্চিত্রশিল্প।

আরও পড়ুন:


নদীতে ভাসছিলো অজ্ঞাত যুবকের মরদেহ

ঝিনাইদহে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে দুইজনের মৃত্যু

বাগেরহাটে পিকআপের ধাক্কায় ৬ ইজিবাইক যাত্রী নিহত

কে এই অভিষিক্ত শামীম পাটোয়ারী


উল্লেখ্য, জহরত আরার জন্ম ঢাকায়। পঞ্চাশের দশকে বেতার ও মঞ্চে অভিনয় করতেন তিনি। এছাড়া একজন অ্যাথলেটও ছিলেন গুণী এই নারী। সিনেমার পাশাপাশি ভাষা আন্দোলনেও ছিল তার ভূমিকা।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর