দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় গবেষণা অপরিহার্য : প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় গবেষণা অপরিহার্য : প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় গবেষণা অপরিহার্য বলে মন্তব্য করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

শনিবার (২৬ জুন) রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএলআরআই) কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন পোল্ট্রি গবেষণা ও উন্নয়ন জোরদারকরণ প্রকল্পের ইনসেপশন, অগ্রগতি ও পর্যালোচনা কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

মন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধিতে প্রাণিসম্পদ খাতের ব্যাপক ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছে। এ খাতের বর্তমান অবস্থাকে ছাড়িয়ে আরো সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। পোল্ট্রি খাতের উন্নয়ন জোরদার করার জন্য গবেষণাকে সম্প্রসারিত করতে হবে, আরো গভীরে যেতে হবে। বিজ্ঞানী ও গবেষকদের মেধাকে আরো বিকশিত করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিটি খাতে গবেষণায়ে জোর দেওয়ার কথা বলেন। গতানুগতিকতার বাইরে যখনই গবেষণায় গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে তখনই সারাদেশে পোল্ট্রি খাত বিকশিত হয়েছে। এতে পুষ্টি চাহিদা পূরণের মাধ্যমে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়েছে, গড় আয়ু বেড়েছে, মাতৃমৃত্যু কমেছে, শিশু মৃত্যু কমেছে। এমনকি করোনায় সৃষ্ট বেকাররা পোল্ট্রি খাতে নিজেদের সম্পৃক্ত করে তাদের বেকারত্ব দূর করছে, উদ্যোক্তা হচ্ছে। এতে গ্রামীণ অর্থনীতি সচল হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতার স্বপ্ন ও সাধনাকে বাস্তবায়নে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন উল্লেখ করে এসময় মন্ত্রী বলেন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উন্নয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসাধারণ দূরদৃষ্টি ছিল। যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ পুনর্গঠনে বঙ্গবন্ধু প্রাণিসম্পদ খাতকে গুরুত্ব দিয়েছিলেন। তাঁর দৃষ্টি অত্যন্ত পরিকল্পিত ও বিজ্ঞানসম্মত ছিল। তাঁর সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি মাংস, দুধ, ডিম সংক্রান্ত খাতকে সম্প্রসারণের লক্ষ্যে পোল্ট্রি গবেষণা ও উন্নয়ন জোরদারকরণ প্রকল্পসহ এ খাতের সকল প্রকল্পকে গুরুত্ব দিচ্ছেন।

বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মোঃ আবদুল জলিলের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ। সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ তৌফিকুল আরিফ এবং প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ শেখ আজিজুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য ও প্রকল্পের কার্যক্রম উপস্থাপন করেন প্রকল্প পরিচালক ড. মোঃ সাজেদুল করিম সরকার। মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, বিএলআরআই ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রাক্তন ও বর্তমান কর্মকর্তা ও বিজ্ঞানীগণ এবং পোল্ট্রি খাতের বিশেষজ্ঞ ও বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট পোল্ট্রি গবেষণা ও উন্নয়ন জোরদারকরণ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। জুলাই ২০১৯ থেকে জুন ২০২৪ মেয়াদে ১২৭ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। প্রকল্পটি রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ি, বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি, যশোর জেলার সদর উপজেলা, ফরিদপুর জেলার ভাংগা এবং নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরে বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য হচ্ছে পোল্ট্রি প্রজাতি সংগ্রহ, সংরক্ষণ, জাত উন্নয়ন এবং অধিক মাংস ও ডিম উৎপাদনশীল স্ট্রেইন উদ্ভাবন, অপ্রচলিত ও বিদ্যমান পোল্ট্রি খাদ্য উপাদানসমূহের পুষ্টিমান নিরূপণ এবং গবেষণার মাধ্যমে সাশ্রয়ী মূল্যে পোল্ট্রির মাংস ও ডিমের প্রক্রিয়াজাতকরণ ও মূল্য সংযোজন, গবেষণার মাধ্যমে নিরাপদ মাংস ও ডিমের উৎপাদন বৃদ্ধি, পোল্ট্রি খামারিদের প্রযুক্তিগত সহযোগিতা প্রদান ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং বিএলআরআই-এর পোল্ট্রি বিষয়ক গবেষণা কার্যক্রমের গুণগতমান বৃদ্ধির লক্ষ্যে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও ল্যাবের সাথে সমন্বিত গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনার সুযোগ সৃষ্টি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

চলমান লকডাউন বৃদ্ধির সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের

অনলাইন ডেস্ক

করোনা সংক্রমন রোধে চলমান লকডাউন বৃদ্ধির ইঙ্গিত দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. এবিএম খুরশিদ আলম।

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


 

আজ নিউজ টোয়েন্টিফোরকে তিনি জানান, করোনা সংক্রমণ রোধে চলমান লকডাউন অব্যাহত রাখার প্রস্তুাব দেয়া হয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

শ্রমিকদের কর্মস্থলে ফেরানোর সিদ্ধান্ত সোমবারের মধ্যে

অনলাইন ডেস্ক

শ্রমিকদের কর্মস্থলে ফেরানোর সিদ্ধান্ত সোমবারের মধ্যে

আগামী রোববার (১ আগস্ট) দেশের সকল শিল্প-কারখানা খোলার সিদ্ধান্তের পর শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান বলেছেন, শ্রমিকদের কর্মস্থলে ফেরানোর বিষয়ে রোববার অথবা সোমবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী  বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

কঠোর লকডাউনে ৫ আগস্ট পর্যন্ত গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকায় শ্রমিকরা গ্রাম থেকে কর্মস্থলে ফিরবেন কীভাবে এমন প্রশ্নে শ্রম ও কর্মসংস্থান বলেন, শ্রমিকদের কর্মস্থলে কীভাবে ফেরানো যায় সেই বিষয়ে মিটিং করা হবে। ভার্চ্যুয়ালি মিটিংয়ের চেয়ে সরাসরি মিটিংয়ে বসলে একটি সুষ্ঠু সমাধান পাওয়া যাবে। আগামী রোববার অথবা সোমবার শ্রম মন্ত্রণালয়ে শিল্প কারখানার মালিকদের সঙ্গে বৈঠক হতে পারে।

এছাড়া উচ্চপর্যায়ের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করা হবে। সেই আলোচনা অনযায়ী, কারখানার শ্রমিকদের কাজে ফেরানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, কঠোর লকডাউনে কোনো শ্রমিক যদি কারখানায় ফিরতে না পারে, সেই শ্রমিকের যাতে চাকরি চলে না যায়, সেজন্য কারখানার মালিকদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।

বেগম মন্নুজান সুফিয়ান আরও বলেন, আগামী ১ আগস্ট থেকে শিল্প কারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তটি সরকারের উচ্চপর্যায়ের।

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণ কমাতে সরকারের ঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধ আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত। এরমধ্যেই আজ শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. রেজাউল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে যে, আগামী রোববার (১ আগস্ট) থেকে সারাদেশে শিল্প-কারখানা খুলছে। এতে কর্মস্থলে ফেরা নিয়ে শ্রমিকদের মাঝে দুশ্চিন্তা তৈরি হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে চলমান বিধি-নিষেধের মধ্যে আগামী ১ আগস্ট থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে রপ্তানিমুখী সকল শিল্প ও কল-কারখানা খোলা থাকবে।

পরবর্তী খবর

গার্মেন্টস শ্রমিকদের কাজে যোগ দেওয়া নিয়ে যা বললেন বিজিএমইএর সভাপতি

অনলাইন ডেস্ক

গার্মেন্টস শ্রমিকদের কাজে যোগ দেওয়া নিয়ে যা বললেন বিজিএমইএর সভাপতি

আগামী রোববার থেকে (১ আগস্ট) কারখানার আশেপাশে বসবাসকারী শ্রমিকদের দিয়ে রফতানিমুখী শিল্প-কারখানার উৎপাদন কার্যক্রম চালু করা হবে। তবে এ সময়ের মধ্যে যেসব শ্রমিক কাজে যোগ দিতে পারবেন না তাদের চাকরি থেকে ছাঁটাই করা হবে না।

তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি ফারুক হাসান জানিয়েছেন এমন কথা।

তিনি বলেন, কঠোর বিধিনিষেধ শেষ হলে পর্যায়ক্রমে ঈদের ছুটিতে গ্রামে যাওয়া শ্রমিকরা কারখানায় কাজে যোগ দেবেন। এ সময়ে যেসব শ্রমিক কারখানায় আসতে পারবে না তাদের চাকরিতে কোনো সমস্যা হবে না।

তিনি বলেন, গত ২৬ জুলাইয়ের পর অধিকাংশ শ্রমিক গ্রাম থেকে ফিরেছেন। নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর এবং মানিকগঞ্জের আশেপাশে যে সব শ্রমিকরা বসবাস করছেন তাদের নিয়ে ১ আগস্ট থেকে কারখানা চালু করা হবে। যারা গ্রামে রয়েছেন তারা সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ শেষ হলে কাজে যোগ দেবেন। এজন্য কোনো শ্রমিকের চাকরি যাবে না। কোনো কারখানা থেকে তাদের ছাঁটাই করা হবে না। যদি ছাঁটায়ের কোনো তথ্য আমরা পাই তাহলে পুনরায় তার চাকরির ব্যবস্থা করা হবে।

উল্লেখ্য, আগামী ১ আগস্ট থেকে গার্মেন্টসসহ রপ্তানিমুখী শিল্প-কারখানা স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. রেজাউল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

পরবর্তী খবর

নিজেকে যেসব প্রতিষ্ঠানের সাংবাদিক পরিচয় দিতেন হেলেনা

অনলাইন ডেস্ক

নিজেকে যেসব প্রতিষ্ঠানের সাংবাদিক পরিচয় দিতেন হেলেনা

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপ-কমিটি থেকে সদ্য পদ হারানো হেলেনা জাহাঙ্গীর  জয়যাত্রা আইপি টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও। এটির কোনো ধরনের বৈধ কাগজপত্র নেই বলে জানিয়েছে র‌্যাব। নিজস্ব এই প্রতিষ্ঠান ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় দিতেন তিনি। 

যেগুলো নাম সর্বস্ব। এসব প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব না থাকলেও হেলেনা জাহাঙ্গীরের রয়েছে এসব প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ড। সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে তিনি গুরুত্বপূর্ণ স্থান সচিবালয়ে প্রবেশ করতেন।

গতকাল রাতে হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশানের বাড়িতে অভিযান চালায় র‌্যাব। প্রায় চার ঘণ্টা অভিযানে র‌্যাব তার বাসা থেকে বেশ কয়েকটি নাম সর্বস্ব পত্রিকার আইডি কার্ড জব্দ করে। এগুলোর মধ্য রয়ে‌ছে ‌‘ভোরের সময়’ ও ‘প্রাণের বাংলাদেশ’ নামের পত্রিকা। হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজেকে নাম সর্বস্ব পত্রিকা ভোরের সময়-এর স্টাফ রিপোর্টার এবং প্রাণের বাংলাদেশ পত্রিকার ফিনান্স রিপোর্টার পরিচয় দিতেন। 

আরও পড়ুন:


লকডাউন আরও যে কয়দিন বাড়াতে চায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হচ্ছে

মেঘনায় ট্রলার ডুবে জেলের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

পর্যটকদের জন্য খুলছে সৌদির দরজা


উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাত ৮টার পর হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশান-২ এর ৩৬ নম্বর রোডের বাসভবনে অভিযান শুরু করে র‍্যাব। দীর্ঘ চার ঘণ্টা অভিযান শেষে রাত ১২টার দিকে তাকে আটক করা হয় এবং পরে র‍্যাব সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়। আজ বিকেলে তাকে গুলশান থানায় হস্তান্তর করেছে র‌্যাব।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

হেলেনা জাহাঙ্গীরকে গুলশান থানায় হস্তান্তর

অনলাইন ডেস্ক

হেলেনা জাহাঙ্গীরকে গুলশান থানায় হস্তান্তর

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপ-কমিটি থেকে সদ্য পদ হারানো হেলেনা জাহাঙ্গীরকে রাজধানীর গুলশান থানায় হস্তান্তর করেছে র‌্যাব। তবে তার বিরুদ্ধে কী অভিযোগ আনা হয়েছে, সেটি এখনও স্পষ্ট নয়।

আওয়ামী লীগের নামের সঙ্গে মিল রেখে নামসর্বস্ব সংগঠন ‘চাকরিজীবী লীগ’ নিয়ে আলোচিত এই ব্যবসায়ীকে গত রাতে আটক করার পরদিন শুক্রবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে তাকে থানায় নিয়ে আসা হয়।

গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, র‌্যাব সদস্যরা হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছেন। তবে এখন পর্যন্ত লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। লিখিত অভিযোগ দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। 

আরও পড়ুন:


লকডাউন আরও যে কয়দিন বাড়াতে চায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হচ্ছে

মেঘনায় ট্রলার ডুবে জেলের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

পর্যটকদের জন্য খুলছে সৌদির দরজা


উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাত ৮টার পর হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশান-২ এর ৩৬ নম্বর রোডের বাসভবনে অভিযান শুরু করে র‍্যাব। দীর্ঘ চার ঘণ্টা অভিযান শেষে রাত ১২টার দিকে তাকে আটক করা হয় এবং পরে র‍্যাব সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর