হলি আর্টিজান ট্রাজেডির ৫ বছর আজ
হলি আর্টিজান ট্রাজেডির ৫ বছর আজ

হলি আর্টিজান ট্রাজেডির ৫ বছর আজ

Other

আজ পহেলা জুলাই। ৫ বছর আগে এই দিনে রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় ঘটেছিল ভয়াবহ নৃসংশ ঘটনা। হলি আর্টিজান হামলা মামলার ডেথ রেফারেন্স বা মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন এবং আপিল শুনানির জন্য পেপারবুক প্রস্তুত। প্রধান বিচারপতি বেঞ্চ নির্ধারণ করে দিলেই শুনানি শুরু হবে।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলছেন, করোনা পরিস্থিতি সাভাবিক হলেই মামলার গুরুত্ব বিবেচনায় শুনানির আবেদন করা হবে।

গুলশান ২ এর ৭৯ নম্বর সড়কের হলি আর্টিজান বেকারী বিদেশী নাগরিক ও উচ্চবিত্তদের পছন্দের রেস্তোরা ছিলো। আর তাই আন্তর্জাতিক মহলে সাড়া ফেলতে ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে এখানে হামলা চালিয়ে নারকীয় হত্যাযোজ্ঞ চালায় জঙ্গিরা। ওই ঘটনায় বিদেশি নাগরিকসহ প্রাণ হারান ২০ জন।

ওই ঘটনায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে গুলশান থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ। ২০১৮ সালের ২৬ নভেম্বর ৮ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করার মধ্য দিয়ে ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমানের আদালতে মামলার বিচারিক কার্যক্রম শুরু হয়। দীর্ঘ বিচার প্রক্রিয়া শেষে ২০১৯ সালের ২৭ নভেম্বর মামলার রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ে ৭ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও একজনকে খালাস দেয় আদালত।

এরপর নিয়ম অনুসারে মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স ও খালাস চেয়ে করা আসামিদের আপিল আবেদন শুনানির জন্য মামলার নথিপত্র বিচারিক আদালত থেকে হাইকোর্টে পাঠানো হয়। আপিল শুনানি জন্য পেপারবুক তৈরি করতে বিজি প্রেসে পাঠায় সুপিম কোর্টের ডেথ রেফারেন্স শাখা। অ্যাটর্নি জেনারেল বলছেন পেপারবুক প্রস্তুত পরিস্থিতি সাভাবিক হলেই তা শুনানীর আবেদন করা হবে।

আরও পড়ুন


চার চাকার গাড়ি উড়ছে আকাশে (ভিডিও)

সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি

বাগেরহাটে চলছে কঠোর লকডাউন

ভ্যাকসিনের নামে যেটি শরীরে ঢুকেছে সেটি অ্যামিকিসিন: মিমি


বলেন, সেদিনের মতো যেন আর কোন জঙ্গী হামলা না হয় সে লক্ষে বিচারিক আদালতের রায় বহাল রাখতে সব ধরনের আইনী পদক্ষে নিবে রাষ্ট্রপক্ষ।

এঘটনায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন হামলার মূল সমন্বয়ক আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ, অস্ত্র ও বিস্ফোরক সরবরাহকারী নব্য জেএমবি নেতা হাদিসুর রহমান,  রাকিবুল হাসান রিগ্যান, জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী, হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী আব্দুস সবুর খান, শরিফুল ইসলাম ও মামুনুর রশিদ।

news24bd.tv এসএম