পুরুষদের দাড়ি রাখতেই হবে, একা বের হতে পারবেন না নারীরা
পুরুষদের দাড়ি রাখতেই হবে, একা বের হতে পারবেন না নারীরা

পুরুষদের দাড়ি রাখতেই হবে, একা বের হতে পারবেন না নারীরা

অনলাইন ডেস্ক

মার্কিন সৈন্যরা আফগান ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই অস্থিরতা দেখা দিয়েছে দেশটিতে। উত্তর-পূর্ব আফগানিস্তানের তাকহার প্রদেশে দখল করা অঞ্চলগুলোতে নতুন আইন চালু করেছে দেশটির সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী তালেবান।

ওই অঞ্চলে আফগান পুরুষদের দাড়ি রাখতে, নারীদের পুরুষ অভিভাবক ছাড়া বাড়ির বাইরে যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা এবং বিয়ের দেনমোহর ও যৌতুক সংক্রান্ত বিধিনিষেধ জারি করেছে গোষ্ঠীটি।

এ খবর দিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম আরিয়ানা নিউজ।

আফগানিস্তানে ৯০ দশকের তালেবান শাসনের সময় চুরির জন্য হাত কেটে দেওয়া হতো। পাথর নিক্ষেপ করে মানুষ হত্যা এবং নারীদের ওপর ছিল নানা রকম বিধিনিষেধ।

তালেবানরা যখন প্রথম দেশটিতে ক্ষমতায় আসে তখনই এমন আইন জারি করে দেশটিতে।  

তখন সেখানে নারীদের চাকরি তো দূরের কথা, কোনো পুরুষ আত্মীয় ছাড়া বাইরে বের হওয়াও নিষেধ ছিল। এমনকি এই নিয়ম না মানলে কঠোর শাস্তিও ভোগ করতে হতো। রাস্তা থেকে ঘরের ভেতরে যেন নারীদের দেখা না যায় এজন্য তারা জানালায় পর্দা টাঙানোর নির্দেশও দিয়েছিল।

সম্প্রতি যুদ্ধ বিধ্বস্ত আফগানিস্তান থেকে ধীরে ধীরে সরে যাচ্ছে মার্কিন সেনারা। এরই মধ্যে ফের সক্রিয় হতে শুরু করেছে তালেবান। এরই মধ্যে দেশটির ৪২১টি জেলার মধ্যে ১৪০টি জেলা দখলে নিয়েছে এই সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীটি।

তাকহার প্রদেশে গভর্নর আবদুল্লাহ কারলুক বলেন, তালেবানরা তাদের দখলকৃত এলাকায় বহু সরকারি স্থাপনা ধ্বংস করে ফেলেছে। তালেবান অবশ্য এসব অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন:


তার শরীরী আবেদনে কুপোকাত ভক্তরা

ভারতের সঙ্গে গোপন যোগাযোগ নেই: পাকিস্তান

 

news24bd.tv / তৌহিদ