সুনামগঞ্জে যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক

সুনামগঞ্জে যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে পূর্ব শত্রুতার জেরে মো. লেচু মিয়া (২৮) নামের এক যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। আজ দুপুরে উপজেলার ধলবাজারে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত লেচু মিয়া উপজেলার ভাটিধল গ্রামের মৃত হামিদ মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, ধল বাজারের একটি সেলুন চেয়ারে বসা থাকা অবস্থায় লেচু মিয়াকে একই গ্রামের আব্দুস শহীদেরর ছেলে ঝন্টু মিয়া ধারালো ছুরি দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করেন। গুরুতর অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে দিরাই উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

আরও পড়ুন: 


দেশে অক্সিজেনের কোনো সংকট নেই: ওবায়দুল কাদের

১৪ জুলাই পর্যন্ত বাড়ল বিধিনিষেধ

বিধিনিষেধ বাড়ল যে কারণে

আবারও শুরু হচ্ছে টিকার নিবন্ধন, কমছে বয়সসীমা


 

দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুর রহমান বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবকটিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাটির তদন্ত করা হচ্ছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ব্যক্তি পলাতক। তাকে ধরার চেষ্টা চলছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামে করোনায় আরও ৩ জনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রামে করোনায় আরও ৩ জনের মৃত্যু

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও তিনজন মারা গেছেন। এই সময়ে ৩৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। 

সোমবার সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে দুজন মহানগর এলাকার এবং একজন অন্য উপজেলার বাসিন্দা।

এদিন ১ হাজার ৭৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় সংক্রমণের হার ৩ দশমিক ৩৫ শতাংশ। 

নতুন শনাক্ত রোগীর মধ্যে ২৫ জন মহানগর এলাকায় এবং ১১ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি বলেন, করোনার সংক্রমণ আবারও ঊর্ধ্বমুখী হলে আমাদের যথেষ্ট প্রস্তুতি রয়েছে। এ ছাড়া করোনার টিকা কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

ময়মনসিংহ মেডিকেলের করোনা ইউনিটে আরও ৩ জনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

ময়মনসিংহ মেডিকেলের করোনা ইউনিটে আরও ৩ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আরও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে দুইজন করোনায় আক্রান্ত হয়ে ও একজন উপসর্গ নিয়ে ইউনিটটিতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. মহিউদ্দিন খান মুন।  

তিনি জানান, রোববার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ইউনিটটিতে করোনায় মারা যাওয়া দুইজনই ময়মনসিংহের। এছাড়াও একই সময়ের মধ্যে করোনা উপসর্গ নিয়ে জামালপুর সদরের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।  

আরও পড়ুন:


প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহরে হামলার মামলার আসামি গ্রেপ্তার

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনো পথ দেখছি না: শাকিল


এ নিয়ে চলতি সেপ্টেম্বর মাসে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে ১১৭ জনের মৃত্যু হলো। এর আগে গত জুলাই ও আগস্ট মাসে ৯০১ জনের মৃত্যু হয়েছিল।  

ডা. মুন আরও জানান, করোনা ইউনিটে নতুন করে ১৩ জন ভর্তিসহ ১০৫ জন রোগী চিকিৎসাধীন আছেন। এদের মধ্যে আইসিইউতে রয়েছেন ১০ জন। আর ওই সময়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৩ জন।  

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামে দারোয়ান-ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের হাতে ভবন মালিক খুন

জয় বড়ুয়া

চট্টগ্রামে দারোয়ান-ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের হাতে ভবন মালিক খুন

চট্টগ্রামের খুলশির জালালাবাদ টাওয়ার এলাকায় এক ভবন মালিককে খুন করা হয়েছে। আজ সকালে তথ্যসূত্রে এ খবর জানা গেছে।  

জানা গেছে, ভবন মালিকের দারোয়ানসহ ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত রয়েছে। 
 
এদিকে, ভবন মালিককে খুন করার পর ভবনের দারোয়ান হাসান পলাতক রয়েছে।    

বিস্তারিত আসছে ... 

আরও পড়ুন


বজ্রপাত থেকে বাঁচতে ৩০০ কোটি টাকার প্রকল্প, ২৩ জেলায় এক হাজার ছাউনি

আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’, দেশে ভারী বৃষ্টির আভাস

অবসান ঘটতে যাচ্ছে আঙ্গেলা ম্যার্কেলের

শিশু সন্তানকে জবাই করে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা, আটক মা

news24bd.tv রিমু 

পরবর্তী খবর

শিশু সন্তানকে জবাই করে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা, আটক মা

সাইদুল ইসলাম পাবেল, লক্ষ্মীপুর

শিশু সন্তানকে জবাই করে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা, আটক মা

লক্ষ্মীপুরে আয়ান রহমান নামে ৪ বছরের শিশু সন্তানকে জবাই করে হত্যার পর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন মা। এ ঘটনায় রবিবার মধ্যরাতে অভিযুক্ত মা সাবিনা ইয়াসমিনকে আটক করে থানা হেফাজতে নেওয়া হয়। এছাড়া শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

 এর আগে রবিবার রাত ১১ টার দিকে সদর উপজেলার লাহারকান্দি গ্রামে পারিবারিক কলহের জের ধরে ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়। নিহত শিশু স্থানীয় তেওয়ারীগঞ্জ এলাকার সৌদি প্রবাসী আজগর রহমান আজীমের ছেলে।

পুলিশ ও স্বজনরা জানান, সৌদি প্রবাসী আজগর রহমানের স্ত্রী সাবিনা ও তার ৪ বছরের শিশু আয়ানসহ যৌথ পরিবার লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার লাহারকান্দি গ্রামের হাফিজ খাঁ এর বাড়ীতে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছেন। সাম্প্রতিক সময়ে তাদের সংসারে আর্থিক সঙ্কট দেখা দেয়। স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কেও বিরোধ দেখা দেয়। সর্বশেষ রবিবার সন্ধ্যায় মুঠোফোনে স্বামী-স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া হয়। এর পর শিশুটিকে ধারালো বটি দিয়ে জবাই করে হত্যার পর নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

সাবিনার শশুর হুমায়ুন কবির ও দেবর আবির জানান, 'সাবিনার সঙ্গে তার স্বামী আজগরের সঙ্গে মুঠোফোনে বাক বিতন্ডা হয়। আমরা তাকে শান্তনা দেয়ার চেষ্টা করি। কিছুক্ষণ পর প্রতিদিনের মতো শিশু আয়ানকে নিয়ে নিজের শোয়ার রুমে গিয়ে দরজা বন্ধ করে ফেলেন সাবিনা। এসময় রুমের ভেতর বিকট শব্দ শুনতে পাই আমরা। এরপর চিৎকার করে দ্রুত দরজা ভেঙ্গে ভেতরে গিয়ে দেখি সিলিং ফ্যানের সঙ্গে উড়না পেঁচিয়ে সাবিনা আত্মহত্যার চেষ্টা করছেন।' 

এসময় রক্তমাখা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে দেখি খাটের উপর শিশু আয়ানের জবাই করা মরদেহ ও তার পাশে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো বটি পড়ে আছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সাবিনাকে আটক করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়। এবং শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। 

আরও পড়ুন


সোমালিয়ায় প্রেসিডেন্ট ভবনের কাছে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ৮

ট্রেনে ডাকাতি ও হত্যার ঘটনায় আটক ৫

আবদুল গাফফার চৌধুরী অসুস্থ, হাসপাতালে ভর্তি

কুমিরের পেট থেকে নিখোঁজ ব্যক্তির দেহাবশেষ উদ্ধার!


স্থানীয় ইউপি সদস্য মহব্বত জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে প্রবাসী স্বামীর সঙ্গে মুঠোফোনে সাবিনার বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে ডিভোর্স দেয়ার কথা সইতে না পেরে সন্তানকে হত্যা করে মা নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। 

সদর থানার ওসি জসীম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পাবিারিক কলহের জের ধরে সন্তানকে হত্যা করেছে মা। শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। মাকে আটক করে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

news24bd.tv রিমু  

 

 

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামে জনপ্রিয় হচ্ছে ড্রাগন ফলের চাষ

শেখ জায়েদ, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলায় ১০০ হেক্টরেরও বেশি জমিতে এবার ড্রাগনফলের আবাদ হয়েছে। রোগবালাই ও উৎপাদন খরচ কম এবং লাভ বেশি, তাই এফল চাষে বাড়ছে আগ্রহও। বাজারেও বিভিন্ন দামে পাওয়া যাচ্ছে স্থানীয় বাগানে উৎপাদিত এই ফল। 

কৃষি বিভাগ বলছে, চট্টগ্রামের মাটি বারি-১ ড্রাগন চাষের উপযোগী হওয়ায় উদ্যোক্তাদের সব ধরনের সহায়তাও দিচ্ছেন তারা।

চট্টগ্রামের ফলবাজারে হরহামেশাই চোখে পড়ছে বিদেশি ফল ড্রাগনের। দামও নাগালের মধ্যে। বড় সাইজ কেজি ৫০০ থেকে  ৬০০ টাকা। আর ছোট সাইজ বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা কেজি দরে।

কৃষি বিভাগ বলছে, গোটা চট্টগ্রামে ১০০ হেক্টরেরও বেশি জমিতে এবার ড্রাগনের আবাদ হয়েছে।

এটি চট্টগ্রামের ফটিকছড়িরর হালদাভ্যালি ড্রাগন বাগান। ২০০৬ সালে এ বাগানের মালিক নাদের খান থাইল্যন্ড থেকে ড্রাগনের চারা এনে ১ম চাষ করেন। পরে সেটি সংগ্রহ করে কৃষি গবেষণা কেন্দ্র এবং বারি -১ নামে সারা দেশে ছড়িয়ে দেয়। ১৫ একরের এ বাগান থেকে এবার ২৫টন ড্রাগন উৎপাদনের প্রত্যাশা উদ্যোক্তার।

আরও পড়ুন:


হংকংয়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মেয়েদের বড় জয়

তালেবান ক্ষমতায় আসায় বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত উৎফুল্ল: কৃষিমন্ত্রী

সৌদি আরবে বাংলাদেশির মৃত্যু

দুই ডোজ টিকা নিয়েও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত


কৃষি বিভাগ বলছে, চট্টগ্রামের মটি বারি-১ ড্রাগন চাষের উপযোগী হওয়ায় নতুন উদ্যোক্তা তৈরির চেষ্টা করছেন তারা।

বছরের যে কোনো সময় রোপন করা যায় ড্রাগনের চারা। এপ্রিলে ফুল আসে। মে থেকে পরবর্তী ছয়মাস ফল আহরণ করা যায়। বাণিজ্যিক উদ্যোগ ছাড়াও আঙ্গিনা এবং ছাদবাগানে চাষ হচ্ছে পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ড্রাগন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর