করোনার ভয়াবহতা দেখছে দেশ (ভিডিও)

শাহ আলী জয়

ভয়াবহ হয়ে উঠছে দেশের করোনা পরিস্থিতি। টানা আট দিন শতাধিক মৃত্যুর হিসেবে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন এক হাজারের বেশি মানুষ। এর মধ্যে সোমবার একদিনে সর্বোচ্চ ১৬৪ জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

আক্রান্তের সংখ্যা ৯৯৬৪ আর শনাক্তের হার প্রায় ৩০ শতাংশ। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কঠোন বিধিনিষেধ নিশ্চিত করা না গেলে মৃত্যুর হার কমানো সম্ভব হবে না। একই সঙ্গে দ্রুত সময়ের মধ্যে মোট জনগোষ্ঠীর বড় অংশকে টিকার আওতায় আনার পরামর্শ তাদের।

করোনা সংক্রমণ শুরুর পর থেকে বর্তমানে সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছে বাংলাদেশ। হাসপাতাল গুলোতে বাড়ছে রোগীর চাপ। তৈরি হচ্ছে আই সি ইউ সংকট।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসেরে গেল আট দিনে মৃত্যুর সংখ্যা ১ হাজার ৫৮। সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে রেকর্ড ১৬৪ জনের। শনাক্ত প্রায় দশ হাজার।  

ঈদুল ফিতেরের পর থেকে সীমান্তবর্র্তী জেলা‍গুলোয় রোগীর সংখ্যা হঠাৎই বাড়তে থাকে। পরে আশপাশের জেলাতেও তা ছড়িয়ে পরে। এর ফলে মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়তে থাকে লাফিয়ে লাফিয়ে। আক্রান্তের সংখ্যা আর সনাক্তের হার প্রতিদিনই গড়ছে নতুন রেকর্ড।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানদণ্ড অনুযায়ী, কোনো দেশে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে কি না, নির্ণয় হয় শনাক্তের হার বিবেচনায়। টানা দুই সপ্তাহের বেশি সময় পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্ত ৫ শতাংশের নিচে থাকলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে বলে ধরা যায়। সেখানে কয়েক দিন ধরে বাংলাদেশে রোগী শনাক্ত ২০ শতাংশের বেশি। সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হার ২৯ দশমিত তিন-শূন্য শতাংশ।

বর্তমানে দেশের অধিকাংশ জেলা করোনার ভয়াবহতার ঝুঁকিতে। নমুনা পরীক্ষা ও রোগী শনাক্তের হার বিবেচনায় নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাপ্তাহিক রোগতাত্ত্বিক বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ৬৪ জেলার মধ্যে ৪০টিই সংক্রমণের অতি উচ্চ ঝুঁকিতে।

আরও পড়ুনঃ

ঈদে অবশ্যই বিধিনিষেধ থাকবে: প্রতিমন্ত্রী

আপনি তো বাংলাদেশের মাল, তো আপনি কি বাদ কোয়ালিটির?

টিকা পাওয়ার অগ্রাধিকার তালিকায় যুক্ত হতে যাচ্ছেন আইনজীবীরা

ভয়াবহ ভবিষ্যতের দিকে যাচ্ছে করোনা পরিস্থিতি

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

কনক সারোয়ারের সাথে বিএনপি নেতার কথোপকথন (অডিও) ফাঁস!

অনলাইন ডেস্ক

কনক সারোয়ারের সাথে বিএনপি নেতার কথোপকথন (অডিও) ফাঁস!

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বিতর্কিত সাংবাদিক ড. কনক সারওয়ারের একটি অডিও কল রেকর্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। কল রেকর্ডে কনক সারওয়ারকে একজন অজ্ঞাত পরিচয়ধারী ব্যক্তির সাথে কথা বলতে শুনা গেছে।

ভাইরাল অডিও ক্লিপে দু’জনের কথোপকথনে উঠে আসে, লন্ডনে পলাতক বিএনপি নেতা তারেক রহমানের নির্দেশে সরকারবিরোধী প্রচারনায় কাজ করছেন কনক সারওয়ার। 

আরও পড়ুন:


সোমবার যে আমলটি করলে মনের আশা পূরণ হবে!

ট্রফি জয়ের ঘোষণা দিয়ে বিশ্বকাপে যাব: তামিম

ইউপি নির্বাচনী সহিংসতায় বৃদ্ধা নিহত, আহত ৩


বিনিময়ে পারিশ্রমিক হিসাবে নগদ অর্থও নিচ্ছেন তিনি। মূলত অডিও ক্লিপটিতে আর্থিক ঝামেলা নিয়ে দুজনকে কথোপকথন ফাঁস হয়েছে।

অডিও ক্লিপটি শুনুন:

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

ইভ্যালির মতো কমিটমেন্টে পূরণে ব্যর্থ হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

ইভ্যালির মতো কমিটমেন্টে পূরণে ব্যর্থ হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কমিটমেন্ট পূরণ না করলে আইন অনুযায়ী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ই-কমার্স সাইটগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, ইভ্যালিসহ আরও কয়েকটি ই-কমার্স মানুষের কাছ থেকে অনেক টাকা নিয়েছে। কীভাবে তারা তাদের কমিটমেন্ট পূরণ করবে সেটা আমার এখন জানা নেই। 

তিনি বলেন, ‘ইভ্যালি একটা, আরও কয়েকটা (ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান) মানুষের কাছ থেকে অনেক টাকা নিয়েছে। কীভাবে তারা তাদের কমিটমেন্ট পূরণ করবে, এটা আমার এখন জানা নেই। আমরা মনে করি, তারা যে কমিটমেন্ট জনগণকে দিয়েছে, তা যদি পূরণ না করে তবে আইন অনুযায়ী আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে এবং করতেই হবে।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি আপনাদের মাধ্যমে আবেদন করছি, যারা এই ব্যাপারে লগ্নি (বিনিয়োগ) করেন, ইনভেস্ট করেন তারা আগে থেকে বুঝেশুনে করবেন।’

ই-অরেঞ্জের প্রতারণায় কী ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘সেগুলো সিস্টেম অনুযায়ী চলে আসবেই। আমি যেটা বলতে চাইছি, যারা লোভনীয় মুনাফার কথা বলছেন, যে গাড়ির দাম ১০০ টাকা বলছে ৫০ টাকায় দেবে, এগুলো বাস্তবসম্মত কি না, সেগুলো দেখেশুনে আমরা ইনভেস্ট করার জন্য অনুরোধ করছি, যেন কেউ প্রতারিত না হয়।’ 

রও পড়ুন:

ধীর জীবন মানেই অলস জীবন নয়

একটি হটডগ আয়ু কমাতে পারে ৩৬ মিনিট পর্যন্ত!

ইভ্যালি ধরলেও সমস্যা, ছাড়লেও সমস্যা! কোথায় যাবেন ফারিয়া?

তৃতীয় স্বামীর কাছে শুধু বিচ্ছেদই নয়, খরচও চাইলেন শ্রাবন্তী


গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা প্রতারিত যাতে না হন, আপনারা নিজে চিন্তা করবেন, এই যে প্রলোভন আপনাদের দেখাচ্ছে, এটা বাস্তসম্মত কি না, সেটা নিজেরা চিন্তা করে ইনভেস্ট করবেন। আমি সবাইকে এই মেসেজটা দিতে চাই, ইনভেস্ট করার আগে আপনারা বুঝে নেবেন, আপনাদের ঝুঁকি কতখানি এবং আপনারা পাবেন কীভাবে। সেটা না জেনে আপনারা ইনভেস্ট করা থেকে বিরত থাকবেন।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

চড়তেন দামি গাড়িতে

ইভ্যালি থেকে রাসেল-শামীমা বেতন নিতেন ১০ লাখ টাকা

অনলাইন ডেস্ক

ইভ্যালি থেকে রাসেল-শামীমা বেতন নিতেন ১০ লাখ টাকা

ইভ্যালির কর্মচারীদের বেতন বন্ধ থাকলেও পদাধিকার বলে মাসে পাঁচ লাখ টাকা করে বেতন নিতেন রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিন।

ইভ্যালি থেকে কেনা অডি ও রেঞ্জ রোভার গাড়ি নিজেরা ব্যক্তিগতভাবে ব্যবহার করতেন। গত শুক্রবার দুপুরে র‌্যাব সদর দপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এ তথ্য দেন।

তিনি বলেন, বিপুল সংখ্যক গ্রাহক তৈরি করে একটি ব্র্যান্ডভ্যালু তৈরির পরিকল্পনা ছিল ইভ্যালির সিইও রাসেলের। ব্র্যান্ডভ্যালুকে কাজে লাগিয়ে কোনো আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের কাছে দায়সহ বিক্রি করে দিতেন। 

আরও পড়ুন:


সোমবার যে আমলটি করলে মনের আশা পূরণ হবে!

ট্রফি জয়ের ঘোষণা দিয়ে বিশ্বকাপে যাব: তামিম

ইউপি নির্বাচনী সহিংসতায় বৃদ্ধা নিহত, আহত ৩


এছাড়া, তিনবছর পূর্ণ হলে শেয়ার মার্কেটে অন্তর্ভুক্ত হয়ে দায় চাপানোর পরিকল্পনা নেন রাসেল। সর্বশেষ দায় মেটাতে ব্যর্থ হলে দেওলিয়া ঘোষণার পরিকল্পনাও ছিল তার।

সংবাদ সম্মেলনে খন্দকার আল মঈন বলেন, রাসেলের ব্যবসায়িক অপকৌশলের মধ্যে অন্যতম হলো নতুন গ্রাহকের ওপর দায় চাপিয়ে পুরনো গ্রাহকদের আংশিক অর্থ বা পণ্য ফেরত দেওয়া। যার তার এই দায় ট্রান্সফারের দুরভীসন্ধিমূলক অপকৌশল চালিয়ে তিনি এভাবে প্রতারণা করে আসছিলেন। 

প্রতিষ্ঠানটির নেটওয়ার্কে যত গ্রাহক তৈরি হয় তার দায় ততই বাড়তে থাকে। রাসেল জেনেশুনেই এই অপকৌশল চালিয়ে যাচ্ছিলেন। ইভ্যালি ছাড়াও রাসেলের আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে ই-ফুড, ই-খাত ও ই-বাজার অন্যতম।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রাসেল জানিয়েছে— বিদেশি একটি ই-কমার্সের কৌশল ১:২ আলোকে প্রথম তিনি তার ইভ্যালির কার্যক্রম শুরু করেন। প্রথম তিনি একটি ব্র্যান্ড তৈরির পরিকল্পনা করেছিলেন। 

পরবর্তী সময় কোনো আন্তর্জাতিক বা দেশীয় বড় প্রতিষ্ঠানে তার কোম্পানি দায়সহ বিক্রি করে দেওয়ার একটি পরিকল্পনা ছিল তার। একইভাবে তিন বছর পূর্ণ হলেই শেয়ার মার্কেটে অন্তর্ভুক্তি  হওয়ার পরিকল্পনা ছিল। সর্বশেষ দায় মেটাতে না পারলে নিজেকে দেউলিয়া ঘোষণা করার একটি পরিকল্পনা নিয়েছিলেন। 

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইভ্যালির সিইও রাসেল ও তার স্ত্রী-প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। 

তাদেরকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে ‌র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে চালু হওয়া ইভ্যালি এখনো কোনো লাভ করতে পারেনি। অথচ তার অফিস পরিচালনা ও স্টাফদের বেতন বাবদ ব্যয় ছিল প্রায় ৫ কোটি টাকা। যার পুরোটাই গ্রাহকের কষ্টার্জিত বিনিয়োগের অর্থে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

চলতি বছরে তিন লাখেরও বেশি বাংলাদেশিকে ভিসা দিয়েছে ভারত

অনলাইন ডেস্ক

চলতি বছরে তিন লাখেরও বেশি বাংলাদেশিকে ভিসা দিয়েছে ভারত

চলতি বছরের বিগত ছয় মাসে তিন লাখ বাংলাদেশিকে ভিসা ইস্যু করেছে ভারতীয় হাইকমিশন। এগুলোর বেশির ভাগই মেডিকেল ও মেডিকেল অ্যাটেনডেন্ট ভিসা।

চলতি বছরের শুরুর দিকে করোনা পরিস্থিতি সহনশীল থাকলেও মার্চের শেষ দিক থেকে পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকে।তবে করোনা ভাইরাস মহামারীর কারণে বর্তমানে পর্যটক ভিসা দেওয়া বন্ধ রেখেছে দেশটি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, এই মহামারীর মধ্যেও ছয় মাসে তিন লাখ ভারতীয় ভিসা থেকে ধারণা করা যায় কতসংখ্যক বাংলাদেশি চিকিৎসার জন্য ভারতে যায়। গত বছর মার্চ থেকে ভারত সারা বিশ্বে পর্যটক ভিসা দেওয়া স্থগিত রেখেছে। এখন বাংলাদেশ থেকে যারা ভারতে যাচ্ছে তাদের বেশির ভাগই মেডিকেল চিকিৎসার জন্য রোগী ও তাদের ‘অ্যাটেনডেন্ট’রা। 

আরও পড়ুন:


সোমবার যে আমলটি করলে মনের আশা পূরণ হবে!

ট্রফি জয়ের ঘোষণা দিয়ে বিশ্বকাপে যাব: তামিম

ইউপি নির্বাচনী সহিংসতায় বৃদ্ধা নিহত, আহত ৩


এদিকে, বর্তমানে পর্যটক ভিসা থাকলেও যেহেতু দেশটিতে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে, তাই এখন শর্ত সাপেক্ষে এই ক্যাটাগরির ভিসা দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছে ভারত।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ সরকার ঘোষিত কঠোর বিধি-নিষেধকালে ভারতীয় ভিসা আবেদনকেন্দ্রগুলোও বন্ধ ছিল। বিধি-নিষেধ প্রত্যাহারের পরপরই আবেদনকেন্দ্রগুলো খুলে দেওয়া হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভিসা আবেদনকেন্দ্রগুলো বন্ধ থাকার সময়ও জরুরি মেডিকেল ভিসা দেওয়া হয়েছে। জরুরি প্রয়োজনে ভিসার জন্য অনেকে ভারতীয় হাইকমিশনের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করেছে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে সেই ভিসা আবেদনগুলো দ্রুততম সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে হয়েছে। সেই সময় ভারতের সঙ্গে নিয়মিত ফ্লাইট বন্ধ থাকায় অনেক ক্ষেত্রে রোগীদের এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে করে নিয়ে যেতে হয়েছে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

স্থগিত ১৬০ ইউনিয়ন ও ৯ পৌরসভায় চলছে ভোটগ্রহণ

অনলাইন ডেস্ক

স্থগিত ১৬০ ইউনিয়ন ও ৯ পৌরসভায় চলছে ভোটগ্রহণ

দেশে প্রথম ধাপের স্থগিত ১৬০ ইউনিয়ন পরিষদ ও ষষ্ঠ ধাপের স্থগিত ৯ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ চলছে আজ। সকাল ৮টা থেকে এই ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে টানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত। 

অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। করোনার কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। 

আরও পড়ুন:


ঘরের মাঠে ২-১ গোলে পিএসজি'র জয়

পাকিস্তানের কাছ থেকে ১২টি জঙ্গিবিমান কিনবে আর্জেন্টিনা

রাজধানীর যেসব মার্কেট বন্ধ থাকবে আজ


ইসি জানিয়েছে, ১৬০ ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন ৪৪ জন, চেয়ারম্যান পদে মোট প্রার্থী রয়েছেন ৫০০ জন। সংরক্ষিত ওয়ার্ডে প্রার্থী ১ হাজার ৯৪৮ জন এবং সাধারণ ওয়ার্ডে প্রার্থী রয়েছেন ৬ হাজার ২৮৪ জন। এদিকে নয় পৌরসভার মধ্যে তিনটি পৌরসভায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। আর বাকি পৌরসভায় মেয়র পদের লড়াইয়ে রয়েছেন ২৭ জন। এর আগে প্রথম ধাপের ২১ জুন ২০৪টি ইউনিয়নে নির্বাচন হয়েছিল। এই ২০৪ ইউপিতে ২৮ জন আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

news24bd.tv রিমু 

পরবর্তী খবর