বর্ষায় শিশুর র‍্যাশ

অনলাইন ডেস্ক

বর্ষায় শিশুর র‍্যাশ

সারাদিন বৃষ্টি আর স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়ায় মাঝে মাঝেই সমস্য দেখা দেয় বাচ্চাদের। এর মধ্যে বাচ্চার শরীরে র‍্যাশ অন্যতম। ত্বকের র‌্যাশকে ডার্মাটাইটিস বা ত্বকে ইরিটেশন বলা হয়। আবহাওয়ার বিরুপ প্রভাব, ভাইরাল ইনফেকশন, ফুড অ্যালার্জির কারণে ত্বকে র‌্যাশ হতে পারে। জেনে নিন এর কারণ, লক্ষণ ও প্রতিকার।

র‍্যাশ ওঠার কারণঃ
বর্ষায় ফাঙ্গাস, ব্যাকটেরিয়া বা অন্যান্য অ্যালার্জির উপকরণ থেকে বাচ্চারা আক্রান্ত হয়। ঠাণ্ডা গরমের ওঠানামায় আবহাওয়া পরিবর্তনের জন্য এমনটা হয়।

লক্ষণ:  ত্বকের কোন কোন জায়গা লাল হয়ে যায়, চুলকায় এমনকি ফুলেও যেতে পারে। র‌্যাশের সঙ্গে ফুসকুড়িও হয়। তবে র‌্যাশের সঙ্গে জ্বর দেখা দিলে সেটা গুরুতর।

প্রতিকারঃ

• র‌্যাশ হলে ত্বক ভেজা রাখা যাবে না। ত্বক ভালো করে মুছে ময়েশ্চারাইজার ও গরমের সময় ল্যাক্টোক্যালামাইন ব্যবহার করতে পারেন।

• বাচ্চাকে সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। পরিষ্কার সুতির জামা-কাপড় পরাবেন। সিনথেটিক কিংবা আঁটসাঁট পোশাক পরানো থেকে বিরত থাকুন।

• বৃষ্টিতে ভিজলেই কাপড় বদলে দিতে হবে। সাথে সাথে সাধারণ পানি দিয়ে শরীর মুছে নিতে হবে। কোনভাবেই কাপড়ে যেন ভিজে ভাব না থাকে।

• অ্যান্টিসেপটিক না দিয়ে বরং সাধারণ সাবান দিয়ে গোসল করাবেন। র‌্যাশ হলে সব ধরনের প্রসাধনী ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

• বাচ্চার নখ নিয়মিত কেটে, নখ পরিষ্কার রাখুন। নখে ময়লা জমতে দেবেন না। কারণ নখ দিয়ে চুলকালে র‌্যাশ বাড়ে।

* পায়ে র‌্যাশ হলে বন্ধ জুতা না পরিয়ে খোলা স্যান্ডেল পরান। খালি পায়ে মাটিতে নামাবেন না।

• ঘরের বিছানার চাদর, বালিশের কাভার, কাঁথা, লেপ, তোষক ইত্যাদি শুকনো ও পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন। সপ্তাহে একদিন রোদে দিন। কারণ রোদে এগুলোতে থাকা ধুলাবালির জীবাণু মরে যায়। 

সতর্কতাঃ

বাচ্চাকে খুব বেশি গরম পানিতে গোসল করানো যাবেনা। স্বাভাবিক  তাপমাত্রা  পানিতে বাচ্চাকে গোসল করাতে হবে। আর ঠান্ডা লাগলে কুসুম গরম পানি দিতে পারেন। র‌্যাশের ধরন যেমন আলাদা চিকিৎসাও আলাদা হবে। র‍্যাশ দীর্ঘদিন থাকলে এবং জ্বর থাকলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

আরও পড়ুন

এবার চট্টগ্রাম ও সিলেটে করোনা সংক্রমণ উর্ধ্বগতি

জুলাই মাসে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ হতে পারে

আর্থিক প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে যে সময়

ফ্রান্সে সাইবার বুলিং এ ১১ জনকে দোষী সাব্যস্ত করে জরিমানা

কাউকে সাহায্য করার চেয়ে তাকে সহযোগিতা করায় অধিক মহত্ব

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

ভ্রমণের আগে যে বিষয়গুলোতে খেয়াল রাখবেন

অনলাইন ডেস্ক

ভ্রমণের আগে যে বিষয়গুলোতে খেয়াল রাখবেন

শুধু অনুকূল আবহাওয়া দেখেই হুট করে বেরিয়ে পড়লেই তো চলে না, বেড়ানোর আগে কিছু প্রস্তুতিও থাকা চাই। নিয়মিত ভ্রমণকারীদের জন্য প্রস্তুতিটা সহজ। কিন্তু যারা অনিয়মিত তাদের জন্য বেশ কঠিন হয়ে পড়ে।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় মাথায় রাখলেই ভ্রমণ সহজ ও উপভোগ্য হয়ে উঠে। অর্ডিনারি ট্রাভেলার ডটকম কিছু টিপস দিয়েছে আসুন সেগুলো একটু জেনে নেই।

স্বাভাবিক থাকা: ভ্রমণে ধৈর্য ধরতে হবে। বেশি ঢিলেমি বা তাড়াহুড়ো করা যাবে না। এতে কাজে ভুল করার আশঙ্কা থেকে যায়।

তালিকা তৈরি করা: যেকোনো ধরনের ভ্রমণের ক্ষেত্রেই পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে একটি তালিকা তৈরি করতে হবে। কী কী সঙ্গে নেবেন ও কী কী করবেন তার তালিকা করে সে অনুযায়ী কাজ করতে হবে। তালিকা করতে বসলে অনেক কিছুই বাদ পড়তে পারে। যখন কোনোকিছু মাথায় আসবে তখনই নোটবুকে টুকে রাখুন।

স্থানীয় কিছু শব্দ শিখে নেওয়া: যেখানে যাচ্ছেন ওই এলাকার সাধারণ কিছু শব্দ শিখে নিন। যেমন; ধন্যবাদ দেওয়া, অনুরোধ করা, দুঃখ প্রকাশ প্রভৃতি।

ক্যামেরার বাড়তি ব্যাটারি: দূরে কোথাও ঘোরাঘুরির সময় ক্যামেরা তো সঙ্গে থাকেই। ক্যামেরার জন্য বাড়তি ব্যাটারি নেবেন। এতে করে বিশেষ কোনো মুহূর্ত বা দৃশ্য ফ্রেমবন্দি করতে চার্জ না থাকার সমস্যায় পড়বেন না।

ট্রাভেল ইন্সুরেন্স: দীর্ঘ সময়ের জন্য দূরে কোথাও ঘুরতে যাওয়ার সময় অবশ্যই ট্রাভেল ইন্সুরেন্স করা উচিত। আকস্মিক বিপদের সময় জরুরি প্রয়োজনে কাজে লাগবে।

গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টের ফটোকপি: ভ্রমণের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র- যেমন; পাসপোর্টের ফটোকপি আলাদা ব্যাগে রাখুন। পাসপোর্ট বা অন্য কোনো কাগজ নিতে ভুল করলেও যাতে জরুরি মুহূর্তে ফটোকপি দিয়ে কাজ চালানো যায়।

সাজ-সরঞ্জাম: প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো আগেই প্যাকিং করতে হবে। যাতে আগ মুহূর্তে তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু নিতে ভুল না হয়।

ইলেকট্রিক ডিভাইস, ওষুধ ও টুথব্রাশ: দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় ইলেকট্রিক ডিভাইস, ওষুধ ও টুথব্রাশের মতো জিনিস সঙ্গে নিতে ভুলবেন না। প্রয়োজনে আগেই এগুলো ব্যাগে পুরে নিন। নয়তো নতুন করে কিনতে গিয়ে অর্থ ও সময় দুটোরই অপচয় হবে।

ভাড়া জেনে নিন: গন্তব্যের পরিবহন খরচ আগে থেকেই জেনে নেওয়া ভালো।

শরীর আর্দ্র রাখা: উড়োজাহাজে ভ্রমণের সময় শরীর আর্দ্র রাখতে হবে। দীর্ঘ সময় বিমানে চড়লে আর্দ্রতার ঘাটতি হয়।

হোটেলের রুম নাম্বার ও ঠিকানা: যেখানে থাকবেন সেই হোটেলের ঠিকানা ও রুম নাম্বার অবশ্যই মোবাইলে টুকে রাখতে হবে।

স্থানীয়দের সাহায্য: অপরিচিত জায়গায় ঘুরতে গেলে স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে ভালো রেস্টুরেন্ট, দর্শনীয় স্থান ও ভালো কফিশপের খোঁজ নিতে পারেন।

আরও পড়ুন:


ভ্যাকসিন নিয়ে উপহাস করা সেই ব্যক্তির করোনায় মৃত্যু

মাসে এক কোটি টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নামের সাথে লীগ জুড়ে আওয়ামী লীগের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ নেই: কাদের

করোনা: খুলনা বিভাগে একদিনে ৪৫ জনের মৃত্যু


আগেভাগেই টিকিট বুকিং: সুলভ মূল্য টিকিট পাওয়ার জন্য ফ্লাইটের অনেক আগেই বুকিং করতে হবে। বছরের কোন সময়টায় সুলভ মূল্যে ভ্রমণ করা যায় সেদিকে খেয়াল রাখুন।

নির্ধারিত সময়ের আগেই বের হোন: বাড়ি থেকে নির্ধারিত সময়ের আগেই বের হওয়ার চেষ্টা করবেন। এতে ভুল হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়।

পরিবারের সঙ্গে আলোচনা করা: এটা ভ্রমণের ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

ব্যক্তিগত জিনিস আলাদা করা: কোথাও ঘুরতে যাওয়ার সময় অবশ্যই আলাদা আলাদা ব্যাগে ব্যক্তিগত জিনিসপত্র রাখার চেষ্টা করবেন। যাতে কোনো একটি ব্যাগ হারিয়ে গেলেও সমস্যা কম হয়। নগদ টাকা ও ক্রেডিট কার্ড/ব্যাংক কার্ড আলাদা ব্যাগে রাখুন। এক ব্যাগে সব টাকা না রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ত্বকের যত্নে হলুদের উপকারিতা

অনলাইন ডেস্ক

ত্বকের যত্নে হলুদের উপকারিতা

সেই প্রাচীনকাল থেকে হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে নানাভাবে। ব্যথা থেকে সংক্রমণ কিংবা রূপ চর্চা, সকল কিছুতেই বেশ উপকারী হলুদ। এটি এমন একটি প্রাকৃতিক উপাদান যা ত্বকের জন্য প্রসাধনী হিসেবে খুবই ভালো। এতে কারকিউমিন নামক বায়ো অ্যাকটিভ উপাদান রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছ অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। চলুন জেনে নেই ত্বক চর্চায় হলুদের ব্যবহার- 

উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি :
হলুদের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটারি উপাদান ত্বক উজ্জ্বল রাখতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। ত্বকের স্বাভাবিক উজ্জ্বলতাকে বাড়িয়ে তোলাই হলো হলুদের প্রধান কাজ। এজন্য একটি হলুদ, মধু আর দই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে মুখে লাগিয়ে রাখুন। ১৫-২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।

ব্রণের দাগ পরিষ্কার :

ব্রণ ত্বকের সাধারণ সমস্যা হলেও এর জন্যই কালো দাগ থেকে যায়। ব্রণ দূর হলেও অনেক সময় এর জন্য দাগ বয়ে বেড়াতে হয়। হলুদে থাকা অ্যান্টিসেপটিক উপাদান অ্যাকনের জীবাণুকে বৃদ্ধি করতে দেয় না। এক চা চামচ হলুদগুঁড়োর সঙ্গে একটু দই আর এক চা চামচ মুলতানি মাটি ভালো করে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। তারপর এতে কয়েক ফোটা গোলাপ জল দিন। ত্বকে লাগানোর পর ২০ মিনিটের মতো রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ডার্ক সার্কেল দূর করতে:

অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদানে ভরপুর হওয়ায় ডার্ক সার্কেল দূর করতে বিশেষ অবদান রাখে হলুদ। এজন্য প্রথমেই দুই টেবিল চামচ হলুদগুঁড়ো, এক টেবিল চামচ দই ও দুই ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। ডার্ক সার্কেলে প্যাকটি লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিটের মতো রাখুন। এরপর ধুয়ে শুকনো তোয়ালে দিয়ে মুছে নিন।

সূত্র : নিউজ এইটটিন

news24bd.tv/এমিজান্নাত 

পরবর্তী খবর

কি আছে ভাগ্যে, দেখে নিন আজকের রাশিফল

অনলাইন ডেস্ক

কি আছে ভাগ্যে, দেখে নিন আজকের রাশিফল

আজ রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১। ভাগ্যরেখা অনুযায়ী আপনার আজকের দিনটি কেমন কাটবে, একবার পড়ে নিতে পারেন আজকের রাশিফল।

মেষ (২১ মার্চ - ২০ এপ্রিল) :
মেষ রাশির জাতক-জাতিকার দিনটি শুভ সম্ভাবনাময়। বাড়িতে ছোট ভাই-বোনের আগমন হবে। প্রতিবেশীর সাহায্য পেতে পারেন। সাংবাদিক ও মুদ্রণ ব্যবসায়ীদের কাজে সকালের দিকে কিছু ঝামেলা হবে। দুপর থেকে সাংসারিক কাজে ব্যস্ত হতে পারেন। আত্মীয়দের সাহায্য প্রাপ্তির যোগ প্রবল। যানবাহন ক্রয় করতে পারেন।

বৃষ (২১ এপ্রিল - ২১ মে) :
আর্থিক দিক খুব একটা ভালো যাবে না। হঠাৎ করেই কিছু আর্থিক সংকটের সম্মুখীন হতে পারেন। সঞ্চয়ের প্রচেষ্টায় বাধা-বিপত্তি দেখা দেবে। খুচরা ও পাইকারি বাণিজ্যে ভালো লাভের আশা করতে পারেন।

মিথুন (২২ মে – ২১ জুন) :
শরীর স্বাস্থ্য খুব একটা ভালো যাবে না। অফিশিয়াল কাজে কিছু ঝামেলা দেখা দিতে পারে। দাম্পত্য ক্ষেত্রে অহেতুক সন্দেহ ও কলহের আশঙ্কা প্রবল। মানসিক অস্থিরতার কারণে কোনো প্রকার ভুল সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। ঝুঁকিপূর্ণ বিনিয়োগে সতর্ক হতে হবে।

কর্কট (২২ জুন – ২২ জুলাই) :
আইনগত জটিলতার জন্য বহু অর্থ ব্যয় হতে পারে। প্রবাসীদের নতুন কর্ম লাভের সুযোগ আসবে। ট্রাভেল এজেন্টদের দিনটি লাভজনক নয়। আইনজীবী ও আয়কর উপদেষ্টাদের আজ ভালো আয় রোজগার হবার যোগ। ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ীদের যান্ত্রিক ত্রুটিতে ব্যয় বৃদ্ধি পাবে।

সিংহ (২৩ জুলাই - ২৩ আগস্ট) :
বড় ভাই-বোনের সাহায্য পেতে পারেন। চাকরিজীবীদের আয় রোজগার বৃদ্ধি পাবে। বন্ধুদের সাহায্যে কোনো বকেয়া টাকা আদায় হতে পারে। ব্যবসায়ীদের বকেয়া অর্থ লাভের যোগ প্রবল। বিদেশ থেকে অর্থ লাভের যোগ প্রবল।

কন্যা (২৪ আগস্ট – ২৩ সেপ্টেম্বর) :
রাজনীতিবিদ ও প্রশাসনিক ব্যক্তিদের ভালো কিছু সুযোগ আসতে পারে। বেকারদের চাকরি লাভের ক্ষেত্রে শনির প্রভাবে কিছু অনিশ্চয়তা দেখা দেবে। প্রতিযোগিতামূলক কাজে সাফল্য লাভের যোগ প্রবল।

তুলা (২৪ সেপ্টেম্বর – ২৩ অক্টোবর) :
ধর্মীয় ও আধ্যাত্মিক কাজে সাফল্য আসবে। জীবিকার জন্য বিদেশ যাত্রার সুযোগ পেতে পারেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক কোনো জটিলতার সম্মুখীন হবেন। ভাগ্য ক্ষেত্রে যেমন একাধিক সুযোগ আসবে আবার পরক্ষণেই কিছু না কিছু ঝামেলাও দেখা দেবে।

বৃশ্চিক (২৪ অক্টোবর – ২২ নভেম্বর) :
দিনটি সৌভাগ্যের। জীবিকা ক্ষেত্রে আপনার ভাগ্য উন্নতির সুযোগ আসবে। কর্মের জন্য বিদেশ যাত্রার সুযোগ পেতে পারেন। বৈদেশিক কাজে বন্ধুর সাহায্য আশা করা যায়। দুপুর থেকে কর্মস্থলে কোনো অগ্রগতি হবে। সরকারি কাজে সফল হতে পারেন।

ধনু (২৩ নভেম্বর – ২১ ডিসেম্বর) :
ব্যবসায়িক কাজে অংশীদারের সঙ্গে ঝামেলা দেখা দেবে। যৌথ ব্যবসায় কোনো পরিবর্তন করতে পারেন। দাম্পত্য ভুল বোঝাবুঝির আশঙ্কা রয়েছে। নব দম্পতিদের দিনটি ঝামেলাপূর্ণ হতে পারে। ঠিকাদারি বা কনস্ট্রাকশন কাজে সাফল্য পেতে পারেন।

মকর (২২ ডিসেম্বর – ২০ জানুয়ারি) :
কর্মস্থলে দায়িত্ব পরিবর্তন করে পদাবনতি হতে পারে। সহকর্মী ও অধীনস্থ কর্মচারীর দ্বারা উপকৃত হওয়ার সম্ভাবনা কম। শরীর স্বাস্থ্য কিছুটা ভোগাতে পারে। ব্যবসায়ীদের কাজের ঝামেলা বৃদ্ধি পাবে। সাপ্লাইয়ারের সঙ্তগের্ক-বিতর্কে জড়িয়ে যেতে পারেন। অনৈতিক কাজ থেকে সতর্ক হতে হবে।

আরও পড়ুন:

চীনে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫৮

টি-স্পোর্টসে আজকের খেলা

সিরাজগঞ্জে তিন দিনের ব্যবধানে একই পরিবারের তিন জনের মৃত্যু

কুম্ভ (২১ জানুয়ারি – ১৮ ফেব্রুয়ারি) :
সন্তানের কোনো আচরণে কষ্ট পেতে পারেন। পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষায় আশানুরূপ সাফল্য আসবে না। রোমান্টিক যোগাযোগে কিছু বাধা-বিপত্তির আশঙ্কা। সৃজনশীল পেশাজীবীদের দিনটি ভালো যাবে। কবি সাহিত্যিক ও অভিনয় শিল্পীদের দূর দেশ যাত্রার যোগ প্রবল।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি – ২০ মার্চ) :
দিনটি বকেয়া ধন আদায়ের। বাড়িতে কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারেন। খুচরা ও পাইকারি বাণিজ্যে ভালো লাভের আশা আছে। শ্যালক শ্যালিকার সাহায্য পাওয়ার সম্ভাবনা। দুপুর থেকে বৈদেশিক যোগাযোগ বৃদ্ধি পাবে। সাংবাদিক প্রকাশক ও মূদ্রণ ব্যবসায়ীরা ভালো আয়ের সুযোগ পাবেন।

news24bd.tv রিমু 

পরবর্তী খবর

গরুর মাংস নরম করার সহজ উপায়

অনলাইন ডেস্ক


গরুর মাংস নরম করার সহজ উপায়

গরুর মাংস নরম না হলে রান্না করতে হয় অতিরিক্ত সময় ধরে। এতে নষ্ট হতে পারে কাঙ্ক্ষিত স্বাদ। তাই মাংসের স্বাদ অটুট রাখতে ও দ্রুত নরম করতে চলুন জেনে নেয়া যাক সহজ কিছু কৌশল-

বেকিং সোডা

এক কেজি মাংসের জন্য তিন চা চামচ বেকিং সোডা দেড় কাপ পানিতে গুলে নিন। এরপর মাংসের টুকরো বা স্লাইসে ভালোমতো মেখে ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর ধুয়ে মেরিনেট করে নিন বা সরাসরি রান্না করুন।

আনারস

এ কাজে ব্যবহার করতে পারেন আনারসও। এতে মাংসে আসবে নতুন এক স্বাদ। আনারস ব্লেন্ড করে তাতে আধা ঘণ্টা মাংস মেরিনেট করতে পারেন। আনারসে থাকা ব্রোমিলেইন নামের এনজাইম দ্রুত মাংসের কোলাজেন ভেঙে সেটাকে নরম করে।

আরও পড়ুন:


স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাসব্যাপী আগস্টের কর্মসূচী ঘোষণা

জার্মানিতে বন্যায় প্রাণহানির ঘটনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক প্রকাশ

রেকর্ড গড়েই টোকিও অলিম্পিকের প্রথম সোনা জিতলেন চীনা তরুণী

বৃষ্টিপাতে ভারতের গোয়ায় ধস, ট্রেন লাইনচ্যুত (ভিডিও)


পেঁপে কিংবা পেঁপের পাতা

মাংস নরম করতে পেঁপের ব্যবহার অনেক দিনের। কেউ রান্নার সময় এক বা দুই টেবিল চামচ পেঁপে বাটা মিশিয়ে দিয়ে থাকেন, কেউ আবার মাংসটাকে সারারাত পেঁপে পাতায় মুড়েও রাখেন ফ্রিজে। মেরিনেট করার সময় খানিকটা পাকা কিংবা কাঁচা পেঁপে মিশিয়ে দিলেও মাংস নরম হয়ে আসবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

পুরুষের বন্ধ্যাত্ব: এসেছে নতুন আবিষ্কার

অনলাইন ডেস্ক

পুরুষের বন্ধ্যাত্ব: এসেছে নতুন আবিষ্কার

পুরুষদের বন্ধ্যাত্ব নতুন কিছু নয়। বিয়ের পর সন্তান না হলে সব দোষ বউয়ের ঘাড়ে চাপানোর যে সংস্কৃতি তা আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের মাধ্যমে অনেক কমে এসেছে। এখন কে সন্তান জন্মদানে অক্ষম তা চাইলে সহজেই জানা যায়। চিকিৎসা বিজ্ঞান প্রমাণ করেছে যে, বন্ধ্যাত্বের শিকার নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলেরই হতে পারে। পুরুষশাসিত সমাজে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পুরুষরা বন্ধ্যাত্বের কথা স্বীকার করেন না।

বর্তমানে বিজ্ঞানের প্রতিনিয়ত নতুন নতুন আবিষ্কারের ফলে মানবজীবনের অনেক তথ্য বেরিয়ে আসছে। সম্প্রতি পুরুষদের বন্ধ্যাত্ব নিয়ে নতুন তথ্য পেয়েছেন টোলেডো বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। শুক্রাণুর নতুন গতিবিধির পরীক্ষা করে পুরুষের বন্ধ্যাত্ব সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছেন তারা। তাদের এ গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে বিখ্যাত নেচার পত্রিকায়।

গবেষকদের দাবি, শুক্রাণু মাথা এবং লেজের সংযোগস্থল বা সেন্ট্রওলটির গতি কৃত্রিমভাবে বাড়িয়ে লেজের গতি বৃদ্ধি করা সম্ভব। আর এটি নিয়মিত নড়াচড়া করলেই শুক্রাণুর গতির বৃদ্ধি পাবে। আর দ্রুত গতি সম্পন্ন শুক্রাণু নারীদেহের ডিম্বাণুর সঙ্গে মিলে আরো বেশি সক্রিয় হবে। ফলে পুরুষরা অভিশপ্ত বন্ধ্যাত্বের হাত থেকে মুক্তি পাবেন। এমনকি গর্ভপাত কিংবা জন্মগত ত্রুটি ক্ষেত্রেও এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

শুক্রাণুর মাথা এবং লেজ যদি একই গতিতে না নড়ে তাহলে সেটি উর্বর ডিম্বাণুর কাছে সঠিক সময়ে পোঁছোতে পারে না। সেক্ষেত্রে সেন্ট্রিওলটি ত্রুটিপূর্ণ হয়। সেই সেন্ট্রিওলটিকেই কৃত্রিমভাবে গতি দিতে সক্ষম হয়েছেন বিজ্ঞানীরা। আর শুক্রাণুর এই অক্ষমতার কারণেই পুরুষের মধ্যে বন্ধ্যাত্ব দেখা যায়। বিজ্ঞানীদের নতুন এই আবিষ্কার পুরুষের দীর্ঘদিনের সমস্যার সমাধান করতে পারবে বলে আশা করা যায়।

সূত্র : এই সময়

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর