বাবার লাশ আটকে রেখে সম্পত্তি নিয়ে দ্বন্দ্ব ৫ সন্তানের

অনলাইন ডেস্ক

বাবার লাশ আটকে রেখে সম্পত্তি নিয়ে দ্বন্দ্ব ৫ সন্তানের

ইয়াছিন মোল্লার (৮৫) মৃত্যু হয় মঙ্গলবার বিকাল ৩টায়। কিন্তু বাড়ির উঠানে বাবার লাশ রেখেই সম্পত্তির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্বে লিপ্ত  হয়েছেন তার ৫ সন্তানরা। এমনকি সম্পত্তির সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত লাশ দাফনেও বাধা দেন ৪ সন্তান। বুধবার দুপুর ১টা পর্যন্ত বাড়ির উঠানেই পড়ে থাকে লাশ। 

এদিকে লাশ নিয়ে অবস্থান করায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এবং গণ্যমান্যরা দফায় দফায় সালিশের মাধ্যমে দীর্ঘ ২২ ঘণ্টা পর সন্তানরা লাশ দাফনের সিদ্ধান্তে উপনীত হন। কিন্তু ততক্ষণে খবর পেয়ে থানা থেকে পুলিশ এসে ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি থানায় নিয়ে যায়।

সম্পত্তির  জন্য বাবার লাশ নিয়ে সন্তানদের এমন কীর্তিতে হতবাক হয়ে গেছেন স্থানীয়রা। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের দক্ষিণ চর পাঁচুরিয়ার অম্বলপুর গ্রামে।

 মৃত ব্যক্তির নাম ইয়াছিন মোল্লা (৮৫)। তার ২টি ছেলে ও ৩টি মেয়ে রয়েছে। কিন্তু ইয়াসিন মোল্লা ইতোপূর্বে তার বসতবাড়ি ও মাঠের জমিজমাসহ মোট ৬০ শতাংশ জমি তার ছোট ছেলের নামে লিখে দেন।
    
স্থানীয়রা জানান, জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ইয়াছিন মোল্লার ৫ সন্তানের মধ্যে বড় ছেলে বাবলু মোল্লা, ফুলবড়ু বেগম, রাবেয়া বেগম ও মমতাজ বেগমের সঙ্গে ছোট ছেলে রহমান মোল্লার দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বিরোধের কারণে রহমান বাড়িতেও টিকতে পারেননি। তিনি গোয়ালন্দ পৌর এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকতেন।

এ বিরোধের জেরেই মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন না করে আটকে রাখার ঘটনা ঘটেছে।
 
এদিকে দীর্ঘ ২২ ঘণ্টা পর দেবগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাফিজুল ইসলামের হস্তক্ষেপে সালিশের মাধ্যমে বিষয়টির সুরাহা হলেও স্থানীয়দের খবরে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে জিডি মূলে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠায়।

মৃত ইয়াছিন মোল্লার বড় ছেলে বাবলু মোল্লা, মেয়ে ফুলবড়ু বেগম, রাবেয়া বেগম ও মমতাজ বেগম  অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমাদের বাবা ছোটভাই রহমান মোল্লার কাছে থাকেন। সেই সুযোগে সে বাবাকে ফুঁসলিয়ে তার সব সম্পত্তি নিজের নামে লিখে নিয়েছে। 

এ নিয়ে রাজবাড়ীর আদালতে আমরা একটা মামলাও করি। সেই মামলায় গত ৫ জুলাই আদালত বাবাকে হাজির হতে নির্দেশ দিলেও অসুস্থতার কারণে তিনি উপস্থিত হতে পারেননি।

অসুস্থতার খবরে আমরা বাবাকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করাতে চাইলেও ছোটভাই আমাদের কথা না শুনে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা করায়। আমাদের ধারণা, ছোটভাই রহমান ঘুমের ওষুধ খাইয়ে বাবাকে মেরে ফেলেছে।

এ প্রসঙ্গে মৃত ব্যক্তির ছোট ছেলে রহমান মোল্লা বলেন, গত শুক্রবার হঠাৎ করে বাবা অসুস্থ হলে তাকে গোয়ালন্দে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে ডাক্তার দেখাই। এ সময় ডাক্তার কিছু টেস্ট ও ওষুধ লিখে দেন এবং বাবাকে বাসায় রেখে চিকিৎসা করাতে বলেন। আমি সেই অনুযায়ী বাবাকে বাসায় রেখে চিকিৎসা করাচ্ছিলাম। 

গত মঙ্গলবার বেলা আড়াইটার দিকে বাবা বেশি অসুস্থ হয়ে পড়লে আমি তাকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক বাবাকে মৃত ঘোষণা করেন। অসুস্থতাজনিত কারণে তার স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। আমার ভাই-বোনেরা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছেন। আমার বাবা সুস্থ অবস্থায়-সজ্ঞানে আমার নামে বাড়ি ও জমি লিখে দিয়ে গেছেন।
 
এ প্রসঙ্গে দেবগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাফিজুল ইসলাম বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা। এ ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গেই আমি ঘটনাস্থলে যাই।  লকডাউনের পরে তাদের জমি-জমার বিষয়টির সমাধান করে দেব বলে আশ্বস্ত করি। পরে স্ট্যাম্পে ৫ ভাই-বোনের স্বাক্ষর নিয়ে মৃত ইয়াছিন মোল্লার দাফনের সিদ্ধান্ত নেই। এ সময় ঘটনাস্থলে থানা পুলিশ উপস্থিত হয়ে মৃত ব্যক্তির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

কাকরাইলে গ্যারেজের আগুন নিয়ন্ত্রণে

অনলাইন ডেস্ক

কাকরাইলে গ্যারেজের আগুন নিয়ন্ত্রণে

ফাইল ছবি

রাজধানীর কাকরাইল এলাকায় একটি গ্যারেজে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট ঘটনাস্থলে কাজ করছে।

বুধবার (৫ আগস্ট) দিবাগত রাত ১২টা ২৬ মিনিটের দিকে আগুন লাগার খবর পায় বলে ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ডিউটি অফিসার মাসুদ রিবেন নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, কাকরাইলে একটি গ্যারেজে আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আমাদের ১০টি ইউনিট গেছে।  পরে  ফায়ার সার্ভিসের চেষ্টায় ১২টা ৫৮ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। 

প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

কুষ্টিয়ায় ঠিকাদারকে হাতুরি দিয়ে পেটানোর ঘটনায় আটক তিনজন

অনলাইন ডেস্ক


কুষ্টিয়ায় ঠিকাদারকে হাতুরি দিয়ে পেটানোর ঘটনায় আটক তিনজন

কুষ্টিয়া শহরে রাইফেল ক্লাবের কাছে প্রকাশ্যে এক ঠিকাদারকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে র‌্যাব । সোমবার বেলা ১২টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

এতে গুরুত্বর আহত হয়েছেন শহিদুর রহমান মিন্টু নামের ওই ঠিকাদার। সোমবার বেলা ১২টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে। পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় হামলার ভিডিও ভাইরাল হলে বিষয়টি জানাজানি হয়। গুরুতর আহত ঠিকাদার শহিদুল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে নিরাপত্তাহীনতা বোধ করায় বাসায় ফিরে যান।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

করোনার টিকা না নিয়ে ঘোরাফেরা করলেই শাস্তি

অনলাইন ডেস্ক

করোনার টিকা না নিয়ে ঘোরাফেরা করলেই শাস্তি

দেশে মহামারী করোনার টিকা না নিয়ে বাইরে ঘোরাফেরা করলে আগামী ১১ আগস্ট থেকে তাদের শাস্তির আওতায় আনা হবে। এক্ষেত্রে রাস্তাঘাটে, গণপরিবহন, ট্রেনে হোক- কেউ আইন না মানলে সরকার অধ্যাদেশ জারি করে শাস্তি দেওয়ার কথা ভাবছে।

মঙ্গলবার (০৩ আগস্ট) সচিবালয়ে সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এ তথ্য জানান।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ১১ আগস্টের পর ভ্যাকসিন (টিকা) ছাড়া কেউ মুভমেন্ট করলে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। অবশ্যই ভ্যাকসিন নিতে হবে। ১৪ হাজার কেন্দ্রে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। আইন না করলেও অধ্যাদেশ জারি করে হলেও শাস্তি দেওয়ার ক্ষমতা দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন:


১১ তারিখ থেকে যানবাহন চলবে যে নিয়মে

৭, ৮, ৯ আগস্ট ভ্যাকসিন নেওয়ার সুযোগ দিচ্ছি: মোজাম্মেল হক

১১ আগস্টের পর ভ্যাকসিন ছাড়া ঘোরাফেরা করলে শাস্তি


 

তিনি বলেন, আগামী ১ সপ্তাহে ১ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিনেটেড করবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। ওয়ার্ড-ইউনিয়নে ৫ থেকে ৭টা কেন্দ্র করে ১ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। মানুষকে ভ্যাকসিন নিতে দৌড়াতে হবে না, আমাদের লোকজনই তাদের কাছে পৌঁছে যাবে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এবার ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ২৮ দিন ধরে কলেজছাত্রীর অবস্থান

অনলাইন ডেস্ক

এবার ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ২৮ দিন ধরে কলেজছাত্রীর অবস্থান

বিয়ের আশ্বাসে সিঁথিতে সিঁদুর দিয়ে ছাত্রলীগ নেতা বঙ্কিম চন্দ্র এক কলেজছাত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে। কিন্তু সম্প্রতি সে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়ে অন্যত্র বিয়ের জন্য পাত্রী দেখা শুরু করে দেয় । এ ঘটনা জানতে পেরে বিয়ের দাবিতে ৭ জুলাই থেকে ২৮ দিন ধরে বঙ্কিমের বাড়িতে অবস্থান নেয় ওই কলেজ ছাত্রী। অবস্থান নিয়ে প্রেমিকাটি জানায়, হয় তার সঙ্গে বিয়ে হবে, না হয় মৃত্যুর পথ বেছে নিবে। 

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জের বড়ভিটা ইউনিয়নের মেলাবর পশ্চিমপাড়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা বঙ্কিম চন্দ্র ওই গ্রামের দিলীপ চন্দ্রের ছেলে ও বড়ভিটা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। অবস্থানকারী শিক্ষার্থী ডিমলা উপজেলার বাসিন্দা ও জলঢাকার একটি কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী।

সোমবার সন্ধ্যায় ওই ছাত্রীকে পুলিশ থানায় নিয়ে গিয়ে মঙ্গলবার সকালে আদালতে পাঠিয়েছে। 

স্থানীয়রা জানান, মেয়েটির অবস্থানের বিষয়টি বুঝতে পেরে ছাত্রলীগ নেতা বাড়ি থেকে সটকে পড়েন। রাতে উভয় পরিবারের লোকজন বৈঠকে বসেন। ৮ লাখ টাকা যৌতুকের বিনিময়ে বঙ্কিমের পরিবার বিয়েতে সম্মত হয়। এ সময় ছাত্রীর পরিবারের নিকট থেকে অগ্রিম ৪০ হাজার টাকাও নেয়। পরে বঙ্কিম ও তার পরিবার টালবাহানার আশ্রয় নেয়।

আরও পড়ুন


শেখ কামাল: বহুমাত্রিক প্রতিভাবান সংগঠক

বিচার চাওয়ার অধিকার পর্যন্ত জিয়াউর রহমান কেড়ে নিয়েছিলেন: কাদের

বরিশাল শেবাচিমে অক্সিজেনের দাবীতে বাসদের বিক্ষোভ


 

এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আউয়াল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পারিবারিকভাবে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য কালক্ষেপণ করা হয়েছে। অবশেষে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে ওই ছাত্রীকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

সরকারি তদন্তেও পটিয়ায় অবৈধভাবে টিকা দেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেলো

ডেস্ক রিপোর্ট

এবার সরকারি তদন্তেও চট্টগ্রামের পটিয়ার শোভনদণ্ডী ইউনিয়নে অবৈধভাবে টিকা দেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেলো। সোমবার রাতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। সেখানে আড়াই হাজারের বেশি টিকা প্রদানের প্রমাণ পেয়েছে তদন্তকারিরা। পাশাপাশি ভ্যাকসিনের অন্তত ২শ কার্ড পাওয়া গেছে যেগুলো কয়েকমাস আগেই রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। অথচ সব কার্ডই পূরণ করা হয়েছে দুই দিনের টিকা কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর। কমিটির কাছে উপস্থাপন করা ২৬শ কার্ডের ২২শ-ই ভূয়া বলে সন্দেহ করছেন তদন্ত সংশ্লিষ্টরা।

সব অভিযোগের তীর চট্টগ্রাম-১২ আসনের এমপি ও হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ সহযোগি, পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইপিআই রবিউল হোসাইনের বিরুদ্ধে। 

পটিয়ার শোভনদণ্ডী ইউনিয়নে সরকারি সিদ্ধান্তের এক সপ্তাহ আগে টিকা দেয়ার যে পোস্টার ডিজাইন হয়, তাতে স্পষ্টভাবে এই কার্যক্রম আয়োজনের জন্য হুইপ সামশুল হককে ধন্যবাদ জানান তার সাঙ্গপাঙ্গরা। সরকারি আদেশের মতো মোবাইলে যে মেসেজ পাঠানো হয়, তাতেও সামশুল হকের নির্দেশনায় টিকা দেয়া হচ্ছে বলে উল্লেখ করা হয়।

তদন্তের সময় ২৬শ টিকা কার্ড কমিটির সামনে উপস্থাপন করা হয়। ২শ কার্ডে যে এনআইডি নম্বর পাওয়া যায়, সেগুলো কয়েকমাস আগেই রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। আরো ২ হাজার মানুষ, যারা বিভিন্ন সময়ে ইউনিয়ন পরিষদে রেজিস্ট্রেশন করতে এসে ফিরে গেছেন, তাদের নামেও কার্ড করা হয়েছে।

এতে দুটি প্রশ্ন উঠে আসছে স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের কাছে।

১. যারা আগেই রেজিস্ট্রেশন করেছেন, কিন্তু টিকা নেননি, পরবর্তীতে তারা কিভাবে টিকা নেবেন?

২. যারা রেজিস্ট্রেশন করতে এসেও নানা কারনে তা পারেননি, তারা পুনরায় রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন কিনা? তদন্ত কর্মকর্তারা বলছেন, অবৈধ এই টিকা কর্মসূচিতে কোনো নিয়মনীতিই মানা হয়নি।

আরও পড়ুন


শেখ কামাল: বহুমাত্রিক প্রতিভাবান সংগঠক

বিচার চাওয়ার অধিকার পর্যন্ত জিয়াউর রহমান কেড়ে নিয়েছিলেন: কাদের

বরিশাল শেবাচিমে অক্সিজেনের দাবীতে বাসদের বিক্ষোভ


পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সিসি ক্যামেরা থাকলেও ঘটনার দিনের কোনো ফুটেজ পায়নি তদন্ত কমিটি।

অভিযোগ আছে, শোভনদণ্ডী ইউনিয়নে হুইপের বাড়ি লাগোয়া ক্যাম্পে, হুইপের ভাইও টিকা প্রদান করেছেন। মাত্র দুই দিনে ২৬শ টিকা প্রদান কোনোভাবেই স্বাভাবিক নয়। এতে চরম স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হয়েছে বলে ধারণা স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্টদের।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর