রাঙামাটিতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের দুপক্ষের বন্দুকযুদ্ধ, নিহত ১
রাঙামাটিতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের দুপক্ষের বন্দুকযুদ্ধ, নিহত ১

রাঙামাটিতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের দুপক্ষের বন্দুকযুদ্ধ, নিহত ১

Other

রাঙামাটির কাপ্তাই পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি ও এমএন লারমা ওরফে সংষ্কারপন্তির মধ্যে দফায় দফায় বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নিহত হয়েছে একজন। নিহতের নাম-অংথোয়াই সিং মারমা (৫০)।

গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে কাপ্তাই উপজেলার রাইখালী ইউনিয়নের তিনছড়ি নোয়াপাড়া এলাকায় এঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুরো এলাকায় যৌথবাহিনীর টহল অব্যাহত রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, পাহাড়ে অধিপত্য বিস্তার নিয়ে রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার ২নং রাইখালী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে
তিনছড়ি নোয়াপাড়া এলাকায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) ও এমএন লারমা ওরফে সংষ্কারপন্তির সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপের মধ্যে বেশ কয়েক দফা বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

এতে অংথোয়াই সিং মারমা গুলি বিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হয়। তবে সে কোন দলের সদস্য তার কোনো সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। খবর পেয়ে দ্রত ঘটনাস্থলে যায় যৌথবাহিনীর বিশেষ দল। ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অংথোয়াই সিং মারমা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে এসময় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। যৌথবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে দ্রুত জঙ্গলে পালিয়ে যায় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা।

এ ঘটনার জন্য সংশ্লিষ্টরা পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির একাশ এমএন লারমা ওরফে সংষ্কারপন্তিকে দায়ী করলেও এ বিষয়ে কথা বলতে নারাজ সংগঠনগুলোর নেতারা।

কাপ্তাই চন্দ্রঘোনা থানার কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল বাহার চৌধূরী জানান, নিহত অংথোয়াই সিং মারমার স্ত্রী সানাই সিং
মারমা শুক্রবার বিকেলে বাদি হয়ে কাপ্তাই চন্দ্রঘোনা থাকায় অজ্ঞাত নামা একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। লাশ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। মামলার পর পুলিশ পুরো ঘটনা তদন্ত করে দেখছে।

একই সাথে এ হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে।

আরও পড়ুন:


রেকর্ড গড়া মৃত্যুর দিনে ৩৬,৫৮৬ নমুনা পরীক্ষা

২০ ঘণ্টা পর মিলল ৪৯ লাশের হাড় ও কংকাল

দুই হাজার অসহায় পরিবার পেল বসুন্ধরা গ্রুপের ত্রাণ

সুন্দরবনে তিন হরিণ শিকারী আটক


news24bd.tv / তৌহিদ