হত্যার পর স্ত্রীর থানায় স্বামী নিখোঁজের মামলা!

অনলাইন ডেস্ক

হত্যার পর স্ত্রীর থানায় স্বামী নিখোঁজের মামলা!

স্বামী আরাফাত মোল্লাকে প্রথমে হত্যা করে স্ত্রী আকলিমা আক্তার। হত্যার পর সেই লাশ আবার  রান্না ঘরের মাটির নিচে পুতে রাখে স্ত্রী। এরপর থানায় হাজির হয়ে স্বামী নিখোঁজের অভিযোগে মামলাও করেন স্ত্রী! কিন্তু পুলিশের গোপন তদন্তে ২ মাস ১৪ দিন পর উদ্ধার হয় নিখোঁজ আরাফাত মোল্লার লাশ।

মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার পূর্ব শীলমন্দি এলাকা থেকে শুক্রবার (১৬ জুলাই) আরাফাতের লাশ উদ্ধার করে মুন্সিগঞ্জ সদর থানার পুলিশ। এই ঘটনার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে সন্দেহভাজন আকলিমা আক্তার ও রিয়াজ নামে আরেক জনকে।

আরাফাত পূর্ব শীলমন্দি এলাকার দুখাই মোল্লার ছেলে। ২২ বছর আগে আকলিমার সঙ্গে তার বিয়ে হয়। এই দম্পতির চার সন্তান। বড় মেয়ের বিয়ে হয়েছে। ছোট এক মেয়ে ও দুই ছেলে বাড়িতেই থাকে। এদের মধ্যে দুইজন শিশু ও একজন কিশোর।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার পুলিশ জানায়, চলতি বছরের ১৫ মে আরাফাতের নিখোঁজ হওয়ার তথ্য জানিয়ে সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন আকলিমা। সেখানে উল্লেখ করা হয়, ২ মে আরাফাত আর বাড়ি ফেরেননি।

নিখোঁজের ১৫ দিন পর আকলিমা ফের থানায় আরেকটি অভিযোগ করেন। সেখানে বলা হয়েছে, অজ্ঞাতপরিচয় মোবাইল নম্বর থেকে তার স্বামীর মেজো ভাইয়ের কাছে ১২ লাখ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হচ্ছে।

তবে আরাফাতের কল লিস্ট ঘেঁটে পুলিশ দেখতে পায় নিখোঁজের (জিডি অনুসারে) দিন আরাফাতের ফোন বাসাতেই ছিল। তখন পুলিশ আকলিমাকে সন্দেহ করে। তাকে ফাঁদে ফেলতে একজনকে কাজে লাগায়। ওই ব্যক্তি আকলিমারই প্রতিবেশী।

তদন্তের একপর্যায়ে শুক্রবার সকালে আকলিমার সঙ্গে ওই ব্যক্তির কথোপকথনের একটি ভিডিও রেকর্ড পুলিশের হাতে আসে। ওই ভিডিওতে দেখা যায়, আরাফাতকে হত্যা করে রান্নাঘরে পুঁতে রাখার বিষয়টি বলছেন আকলিমা।


স্বাভাবিক মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত কারাভোগ করতে হবে

২২ দিন পর আবার ট্রেন চলাচল শুরু

নৌপথে যাত্রী ও যানবাহনের প্রচণ্ড চাপ


 

আকলিমাকে আটক করে পুলিশ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি জানান, তার স্বামীর বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক ছিল। এ কারণে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে তাকে হত্যা করে রান্নাঘরে পুঁতে রেখেছেন।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুবকর সিদ্দিক বলেন, আকলিমাই তার স্বামীকে হত্যা করেছেন। এ জন্য আকলিমা ও রিয়াজ নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

শিশু কুতুব উদ্দিন হত্যার দায় স্বীকার

মাদারীপুর প্রতিনিধি:

শিশু কুতুব উদ্দিন হত্যার দায় স্বীকার

মাদারীপুরের শিবচরে শিশু কুতুব উদ্দিন হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন ওই শিশুর আপন চাচি নার্গিস বেগম। 

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন শিবচর থানার ওসি (তদন্ত) আমীর হোসেন সেরনিয়াবাদ। 

তিনি জানান, মাদারীপুরের শিবচরে অপহরণের ৩ দিন পর শরীয়তপুরের জাজিরায় আপন চাচার বাড়ির নির্মাণাধীন ভবনের টয়লেটের মেঝের নিচ থেকে বালু চাপা অবস্থায় শিশু কুতুব উদ্দিনের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। 

এ ঘটনায় তার আপন বড় চাচি নার্গিস আক্তার ও তার মেয়ে হাফসা আক্তারকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে মাদারীপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তাদের হাজির করা হয়। চাচি নার্গিস আক্তার হত্যার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। 

আরও পড়ুন:


অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

ছাত্রকে যৌন হয়রানি ২৭ বছরের তরুণীর, ২০ বছরের কারাদণ্ড

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


মাদারীপুর আদালতের পুলিশ পরিদর্শক রমেশ চন্দ্র দাস বলেন, ‘শিশু হত্যার দায়ে চাচি ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন আর মেয়েকে আদালতের জেলে রাখা হয়েছে। রোববার সকালে মেয়েকে আদালতে হাজির করলে তার বিষয় সিদ্ধান্ত হবে।’

উল্লেখ্য, মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের বাংলাবাজার এলাকার ইসমাইল বেপারীর আড়াই বছর বয়সী শিশু কুতুব উদ্দিনকে তার বড় চাচি নার্গিস আক্তার ও তার মেয়ে কৌশলে ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে বাড়ি থেকে নিয়ে হত্যা করে তাদের বাড়ির গর্তে চাপা দেয়। 

এ ঘটনায় শিশুর পিতা শিবচর থানায় ১৫ সেপ্টেম্বর অপহরণ মামলা করেন, পরে নার্গিস আক্তার ও তার মেয়েকে আটক করে পুলিশ। শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত তিনটার দিকে তাদের বাড়ি থেকে শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় হত্যামামলা করা হয়েছে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

রাজধানীর তেজগাঁও এলাকায় দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে বাঁধন (২৫) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। তার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জ জেলায়। বাঁধন রং মিস্ত্রি ছিলেন বলে জানা গেছে। আর ঢাকায় তেজতুরী বাজার এলাকায় থাকতেন।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে তেজগাঁও মহিলা কলেজের সামনে একটি চায়ের দোকানে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে আহত হন বাঁধন। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে রাত ১০টার দিকে সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কারওয়ান বাজার ওভার ব্রিজের পাশে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায় ওই যুবককে। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল্লাহ খান জানান, নিহত ওই যুবকের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে।

news24bd.tv এসএম

আরও পড়ুন


মধুমিতার জন্যে নিষিদ্ধ হলেন নুসরাতের প্রেমিক যশ!

বরিশালে বাস চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী ৩ বন্ধু নিহত

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

ছাত্রকে যৌন হয়রানি ২৭ বছরের তরুণীর, ২০ বছরের কারাদণ্ড


 

পরবর্তী খবর

প্রতারণা ফাঁদে নিঃস্ব লাখো মানুষ,অর্থ ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা কম

প্লাবন রহমান

ইভ্যালি-ইঅরেঞ্জের মত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করে এখন দিশা খুজে পাচ্ছেন না লাখ লাখ গ্রাহক। এসব ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মের বিভিন্ন প্রলোভনে সর্বস্ব হারিয়েছেন অসংখ্য মানুষ। ইভ্যালি-ইঅরেঞ্জের মালিকরা এখন আইনের কাঠগড়ায়। সরকারের সদিচ্ছা থাকলে- মালিকদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করাসহ বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় গ্রাহকদের অর্থ ফেরত দেয়া সম্ভব বলে মনে করে টিআইবি। আর আইনজীবিদের মতে-প্রতিষ্ঠানের আর্থিক সক্ষমতা না থাকলে গ্রাহকদের টাকা পাওয়া কঠিন। 

বিভিন্ন অফারের প্রলোভন দেখিয়ে লাখ লাখ গ্রাহকের কোটি কোটি বিনিয়োগ পায় ইভ্যালী-ইঅরেঞ্জের মত ইকমার্স প্রতিষ্ঠান। শহর থেকে গ্রাম সবজায়গায় অল্প সময়েই পৌছে যায় লোভনীয় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে।

আরও পড়ুন:


একবার বিদ্রোহী হলে আজীবন নৌকা থেকে বঞ্চিত

ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ পাঁচে নেই আর্জেন্টিনা

করোনায় স্কুল বন্ধ থাকায় শ্রেণিকক্ষে সপরিবারে বসবাস

রোহিঙ্গা ইস্যুতে কমনওয়েলথের সহায়তা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী


শেষমেষ-ইঅরেঞ্জের বিরুদ্দে ১১’শ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলা চলমান। মালিকরা কারাগারে। আর ইভ্যালীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মোহাম্মদ রাসেল ও তার স্ত্রী প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনও র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তারের পর আইনের কাঠগড়ায়। ইভ্যালির ১ হাজার কোটি দেনার বিপরীতে অ্যাকাউন্টে আছে মাত্র ৩০ লাখ। এ অবস্থায় বিপাকে দেশের লাখ লাখ ইকমার্স গ্রাহক। সর্বশান্ত হবার আশঙ্কতায় ঘুরছেন পথে পথে।

শুরু থেকেই সরকারের পক্ষ থেকেই এসব ইকমার্সকে উৎসাহিত করা হয়েছে বলেই অভিযোগ। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের গর্বিত স্পন্সর ছিল ইভ্যালি। অনেকে ইভ্যালিকে নিয়ে অ্যামাজন-আলিবাবার মত বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠান হয়ে ওঠার স্বপ্ন দেখেছিলেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়-ভোক্তা অধিকার সবার চোখের সামনেই এসব ব্যবসা করে এসেছে ইভ্যালি-ইঅরেঞ্জ। এখন গ্রাহকদের কি হবে? অর্থ ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনাও বা কতটুকু।

এর আগে ডেসটিনি, যুবকসহ অনেক প্রতারনামূলক ব্যবসার সাক্ষী দেশের লাখ লাখ গ্রাহক। এবার অন্তত স্থায়ী সুরাহা চান ভুক্তভোগীরা।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

খুলনার বটিয়াঘাটায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নিয়ে বিরোধে যুবক খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক

খুলনার বটিয়াঘাটায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নিয়ে বিরোধে যুবক খুন

খুলনার বটিয়াঘাটায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের পিটুনিতে এক যুবক নিহত।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন: 


সমুদ্রে নামতে মানতে হবে এই ১০ নির্দেশনা

হাতিয়ায় দেশীয় বন্দুক, তাজা গোলা ও পাইরোটেকনিক উদ্ধার

তিন কিউই ক্রিকেটারের করোনা শনাক্ত, পাকিস্তান সিরিজ বাতিল

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার অভিযোগে মেয়র তাপসের কুশপুত্তলিকা দাহ


news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ইজিবাইক চালককে প্রকাশ্যে পিটিয়ে হত্যা করল মোটরসাইকেল চালক

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ

ইজিবাইক চালককে প্রকাশ্যে পিটিয়ে হত্যা করল মোটরসাইকেল চালক

ঝিনাইদহের মহেশপুরে হাফিজুর রহমান (৩৮) নামে এক ইজিবাইক চালককে পিটিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত ইজিবাইক চালক উপজেলার চাপাতলা গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে।

আজ শুক্রবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার স্বরুপপুর ইউনিয়নের কেশবপুর মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন: 


সমুদ্রে নামতে মানতে হবে এই ১০ নির্দেশনা

হাতিয়ায় দেশীয় বন্দুক, তাজা গোলা ও পাইরোটেকনিক উদ্ধার

তিন কিউই ক্রিকেটারের করোনা শনাক্ত, পাকিস্তান সিরিজ বাতিল

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার অভিযোগে মেয়র তাপসের কুশপুত্তলিকা দাহ


জানা গেছে, রাস্তায় চলমান অবস্থায় ইজিবাইকের সাথে একটি মোটরসাইেকেলের ঘেঁষা লাগে। এ সময় ইজিবাইক চালক ও মোটরসাইকেল চালকের বাগবিতণ্ডা শুরু হয়। এরই এক পর্যায়ে ইজিবাইক চালককে লোহার রড দিয়ে প্রকাশ্যে পিটিয়ে হত্যা করে মোটরসাইকেল চালক পালিয়ে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি সাইফুল ইসলাম।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর