দৌলতদিয়া ঘাটে ঘরমুখো যাত্রীর চাপ নেই
দৌলতদিয়া ঘাটে ঘরমুখো যাত্রীর চাপ নেই

দৌলতদিয়া ঘাটে ঘরমুখো যাত্রীর চাপ নেই

Other

পবিত্র ঈদ উল আযহার আর মাত্র এক দিন বাকী। তবুও ঘরমুখো যাত্রীদের চাপ নেই দৌলতদিয়া ফেরি ও লঞ্চঘাট এবং বাস টার্মিনালে। ফেরি ও লঞ্চে সহজে নদী পার হয়ে আসছে ঘরমুখো যাত্রীরা। দৌলতদিয়া ঘাটে পর্যাপ্ত গণপরিবহন থাকার কারণে সহজে গন্তব্য যেতে পারছেন যাত্রীরা।

তবে এখনও কিছু গরুবাহী ট্রাক ঢাকা মুখি হচ্ছে।   

সোমবার সকালে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় এমন চিত্র দেখা যায়।

দৌলতদিয়া লঞ্চ ঘাটের ম্যানেজার নুরুল আনোয়ার মিলন জানান, অর্ধেক যাত্রী নিয়ে লঞ্চগুলো পাটুরিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসছে। এবার ঈদে ঘরমুখো যাত্রী নেই বললেই চলে। যে যাত্রী আসছে তার চেয়ে গণপরিবহন বেশি রয়েছে। এছাড়া, পর্যাপ্ত লঞ্চও রয়েছে। যে কারণে ঘাটে এসে কোন যাত্রীর নদী পারের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া এবং আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে মোট ৩৪টি লঞ্চ চলাচল করছে।

ফরিদপুর গামী এক নারী যাত্রী বলেন, প্রতি বছর ঈদে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এবার এখন পর্যন্ত কোন দুর্ভোগ পায়নি।

রাজবাড়ী মটর শ্রমিক ইউনিয়নের'এর সভাপতি মোঃ শহীদ মোল্লা জানান, দৌলতদিয়া ঘাটে যাত্রী নেই, গাড়ী রয়েছে। যে সকল যাত্রী আসছে তারা নির্ধারিত কাউন্টার থেকে টিকিট নিয়ে চলে যাচ্ছে। যাত্রীদের ঘাটে কোন প্রকার সমস্যা হচ্ছে না। বিগত বছর গুলোর চেয়ে এবার অনেক শান্তিতে ঘরে ফিরতে পারছেন ঘরমুখো যাত্রীরা।

আরও পড়ুন:

ফাঁস হলো বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের স্মার্টফোনে আড়িপাতার ঘটনা

যে বাঙালি আলেম হজের খুতবা অনুবাদ করবেন

এবার হোয়াটসঅ্যাপে যুক্ত হচ্ছে নতুন সিস্টেম

ইউরোপে ভয়াবহ বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৮৮

দৌলতদিয়া বাস টার্মিনাল এলাকা ঘুরে এবং সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ঈদ উপলক্ষে দৌলতদিয়া ঘাটে ১৩টি মৌসুমী এবং ৩টি স্থায়ী সহ মোট ১৬টি কাউন্টার রয়েছে। এই কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করে ঘরমুখো লোকাল যাত্রীরা। কাউন্টারের পাশাপাশি ভাড়ায় চালিত প্রাইভেটকার-মাক্রোবাস, অটোরিক্সা, টেম্পু, মটরবাইক সহ বিভিন্ন প্রকার ইঞ্জিন চালিত যানবাহনে বাড়ি ফিরছে।

এদিকে, বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক মোঃ শিহাব উদ্দিন জানান, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৪টি ছোট বড় ফেরি চলাচল করছে। যানবাহন নদী পারাপারে কোন প্রকার সমস্যা হচ্ছে না। তিনি বলেন, এখন গরুবাহী ট্রাকে তেমন চাপ নেই। যাত্রীবাহী বাস ও পন্যবাহী ট্রাক গুলো ঘাটে এসে সহজে নদী পার হতে পারছে।

news24bd.tv রিমু