ইসরাইলি স্পাইওয়্যার পেগাসাস যে কারো ফোন দখলে নিতে পারে

অনলাইন ডেস্ক

ইসরাইলি স্পাইওয়্যার পেগাসাস যে কারো ফোন দখলে নিতে পারে

ইসরাইলি সাইবার গোয়েন্দা সংস্থা ও নিরাপত্তা সংস্থার (এনএসও) তৈরি স্পাইওয়্যার পেগাসাসের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে মানবাধিকারকর্মী, সাংবাদিক, আইনজীবী ও রাজনীতিকসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের ফোনে নজরদারি চালানোর ঘটনা সামনে এসেছে।

ইসরাইলের এই হ্যাকিং সফটওয়্যার কিনে বিভিন্ন দেশের ক্ষমতাসীন সরকারই এই নজরদারি চালাচ্ছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। 

পেগাসাস পৌরানিক এক পক্ষীরাজ ঘোড়ার নাম।ভারতীয় ও গ্রিক পুরানে উল্লেখ আছে এই পক্ষীরাজ ঘোড়ার। সেই পৌরানিক ঘোড়ার নামেই নিজেদের তৈরি এই হ্যাকিং সফটওয়্যারের নাম দিয়েছে এনএসও।

যেভাবে ফোন হ্যাক করে পেগাসাস
পেগাসাস খুব সহজেই যে কারো ফোনে প্রবেশ করানো যায়। কোনো লিংকের মাধ্যমে এই ম্যালওয়্যার আইফোন কিংবা অ্যান্ড্রয়েড ফোনে পাঠানো যায়। সেই লিংক ফোনের ব্যবহারকারী ক্লিক করলেই তার ফোনে সক্রিয় হয়ে যায় এই স্পাইওয়্যার। আবার ভয়েস কলের মাধ্যমেও এই সক্রিয় করা যায়। সংশ্লিষ্ট ফোনের ব্যবহারকারী তা টেরও পাবেন না।

এই ম্যালওয়ার আইফোন কিংবা অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ঢুকে ব্যবহারকারীর মেসেজ, ছবি, ইমেইল পাচার করতে পারে। একইসঙ্গে কল রেকর্ড এবং গোপনে মাইক্রোফোন চালুও রাখতে পারে এই ম্যালওয়ার।

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


 

ফোনের মাধ্যমে বলা কথা, বার্তা, ম্যাসেজ, ছবি, হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট, এমনকি ছবিও পেগাসাসের মাধ্যমে গ্রাহক পেতে পারে। ফোনের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি সম্পর্কে প্রতিটি তথ্যই ওই গ্রাহকের কাছে পৌঁছাতে পারে। 

২০১৯ সালে এই স্পাইওয়্যারের বিষয়টি সংবাদ শিরোনামে এসেছিল। ২০১৬ সাল থেকে এনএসওর গ্রাহকেরা এসব নম্বরে আড়ি পেতেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে ২০১৪ সালে পেগাসাসের প্রথম ব্যবহার করা হয়েছিল ।  এক আরব মানবাধিকার কর্মীর আইফোন হ্যাক করার সময় এই সফটওয়ার ব্যবহার করা হয়েছিল। এরই জেরে আইফোন প্রস্তুতকারক সংস্থা অ্যাপল ঘটনার কয়েক দিন পর তাদের অপারেটিং সিস্টেম আপডেট প্রকাশ করেছিল। 

 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশে ভ্যাকসিন ফাইন্ডার চালু করেছে ফেসবুক

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশে ভ্যাকসিন ফাইন্ডার চালু করেছে ফেসবুক

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে মিলিত হয়ে দেশে ভ্যাকসিন ফাইন্ডার চালু করেছে ফেসবুক। নতুন এই টুলটির মাধ্যমে বাংলাদেশিরা জানতে পারবে কারা টিকা নিতে পারে। 

একই সঙ্গে টুলটি তাদের নিকটস্থ টিকাদানকেন্দ্র খুঁজে পেতে সাহায্য করবে। 

আরও পড়ুন:


ব্যবসায়িক চুক্তিভঙ্গের অভিযোগে রাজ-শিল্পাকে জরিমানা

পবিত্র জুমার দিনের বিশেষ পাঁচটি বৈশিষ্ট্য

আজ বিকেলে ঢাকায় আসছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল

টেকনোলজি বিষয়ক অলাভজনক সংগঠন মিদান-এর ডিজিটাল হেলথ ল্যাবের সঙ্গে এই সপ্তাহে পার্টনারশিপ শুরু করেছে ফেসবুক জার্নালিজম প্রজেক্ট।

news24bd.tv রিমু 

 

পরবর্তী খবর

নতুন ডিজিটাল লেনদেন সেবা ‘ট্যাপ’

অনলাইন ডেস্ক

নতুন ডিজিটাল লেনদেন সেবা ‘ট্যাপ’

চালু হলো নতুন মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) ট্রাস্ট আজিয়াটা পে বা ‘ট্যাপ’।  

বুধবার ট্রাস্ট ব্যাংকের হেড অফিসে বাণিজ্যিক কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ট্রাস্ট আজিয়াটা ডিজিটাল লিমিটেড চেয়ারম্যান ও সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। 

সেবাটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সেনা প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেন, বর্তমান প্রযুক্তির যুগে মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস বা এমএফএস একটি অত্যাধুনিক ও উপযোগী প্রযুক্তি। তাই আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের একটি কোম্পানি ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড এবং এশিয়ার টেকনিক্যাল জায়েন্ট আজিয়াটা ডিজিটাল সার্ভিসের যৌথ উদ্যোগে আমরা চালু করতে যাচ্ছি ট্রাস্ট আজিয়াটা পে বা ট্যাপ। জাতির পিতার জন্মশত বার্ষিকী এবং আমাদের মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর এই শুভক্ষণে দেশে এমন একটি প্রযুক্তি চালু করতে পেরে আমি সত্যিই আনন্দিত এবং গর্বিত। আমি আশাকরি ট্যাপ’র এই সেবা আমরা দেশের জনগণের দোর গোড়ায় পৌঁছে দিতে সক্ষম হব।

সেবাটির আওতায় প্রাহকরা অর্থ জমা-লেনদেন, ইউটিলিটি বিল পরিশোধ, বিমার কিস্তি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ফি, তিন বাহিনীর নিয়োগ সংক্রান্ত ফি জমা দেওয়া, রেমিট্যান্স গ্রহণ, অনলাইন মার্চেন্ট পেমেন্ট এবং সকল মোবাইল ফোন অপারেটরের রিচার্জ সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

‘ট্যাপ’ এর বিশেষত্ব হচ্ছে শুধু জাতীয় পরিচয়পত্র ও সেলফির মাধ্যমে সেবাটি গ্রহণের জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন গ্রাহকরা। একমাত্র এই সেবাটির মাধ্যমে ৫৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ফি, তিন বাহিনীর নিয়োগ সংক্রান্ত ফি এবং জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্টের ফি পরিশোধ করা যাবে। 

টি-ক্যাশ (ট্রাস্ট ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং) এর সকল গ্রাহক এখন ট্যাপ’র গ্রাহকে পরিণত হবেন এবং পূর্ববর্তী সকল সুযোগ সুবিধা অক্ষুণ্ন রেখে আরও আকর্ষণীয় ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন।

ট্রাস্ট আজিয়াটা ডিজিটাল লিমিটেডের ভারপ্রাপ্ত সিইও দেওয়ান নাজমুল হাসান বলেন,“ডিজিটাল বাংলাদেশের ভিশনকে সামনে রেখে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর প্রাক্কালে ‘ট্যাপ’ চালু করতে পেরে আমরা আনন্দিত। আমাদের বিশ্বাস বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেডের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাবে সর্বস্তরের জনগণ। মোবাইলে অর্থ লেনদেনে আস্থার প্রতীক হয়ে উঠবে ট্রাস্ট আজিয়াটা পে বা ‘ট্যাপ’।”


কিশোরকে ধর্ষণ করে অন্তঃসত্ত্বা তরুণী!

দেশে আত্মহত্যা বেড়েছে ৪০ শতাংশ

মৃত্যু যন্ত্রণা থেকে বাঁচার দোয়া


 

অনুষ্ঠানে ট্রাস্ট ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও হুমায়রা আজম, আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এর ভাইস চেয়ারম্যান, মেজর জেনারেল সাকিল আহমেদ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবুল মনসুর মো. আশরাফ খান, আজিয়াটা ডিজিটাল সার্ভিসেস’র চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার খাইরিল আব্দুল্লাহ, চিফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসার এন্থনি শেয়ান্থা আবেকুন, বোর্ড অব ডিরেক্টরস সুব্বারমন বৈদ্যনাথন এবং চিফ স্ট্রাটেজি অফিসার তোমু মারুয়ামাসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এখন থেকে ফেসবুকেই জানা যাবে করোনা টিকা কেন্দ্রের ঠিকানা

অনলাইন ডেস্ক

এখন থেকে ফেসবুকেই জানা যাবে করোনা টিকা কেন্দ্রের ঠিকানা

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে মিলিত হয়ে দেশে ‘ভ্যাকসিন ফাইন্ডার’ টুল চালু করেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। এতে করে এখন থেকে ফেসবুকের মাধ্যমে জানা যাবে দেশের করোনা টিকা কেন্দ্রের ঠিকানা।

শুধু তাই নয় টিকা কারা নিতে পারবেন এবং নিকটস্থ টিকাকেন্দ্র কোথায় তাও বলে দেবে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি।

আজ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ফেসবুক এসব তথ্য জানায়। 

ফেসবুক বলছে, স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি, মানুষকে করোনা-সম্পর্কিত তথ্য পেতে সাহায্য করা এবং দেশে টিকাদান কার্যক্রম পরিচালনায় সহায়তা করার জন্য ফেসবুকের এ উদ্যোগ।

আরও পড়ুন:


এবার তিউনিসিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে বহিষ্কার করলেন প্রেসিডেন্ট

মাহফুজ আনামের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে সম্পাদক পরিষদ থেকে নঈম নিজামের পদত্যাগ

গ্রামীণফোনকে হু্মায়ূন পরিবারের আইনি নোটিশ


বিজ্ঞপ্তিতে ফেসবুক আরও জানিয়েছে, মহামারি চলাকালে স্বাস্থ্যসচেতনতা বাড়াতে এবং মানুষকে সর্বশেষ তথ্যের সঙ্গে সংযুক্ত করতে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে কাজ করছে ফেসবুক।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

১০০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে যমুনা গ্রুপ

ইভ্যালির পাশে যমুনা গ্রুপ

অনলাইন ডেস্ক

ইভ্যালির পাশে যমুনা গ্রুপ

দেশের শীর্ষ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালিতে এক হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় শিল্পগ্রুপ যমুনা গ্রুপ। প্রাথমিকভাবে ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে যমুনা। ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন পর্যায়ে মোট এক হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের কথা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয় ইভ্যালির পক্ষ থেকে। তবে ইকমার্স প্রতিষ্ঠানটির মূল বাজার দর (ভ্যালুয়শন) প্রকাশ করেনি কোন পক্ষ।

এমন বিনিয়োগকে স্বাগত জানিয়ে ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ রাসেল বলেন, একটি দেশীয় উদ্যোগ হিসেবে আমাদের পাশে আরেকটি দেশীয় প্রতিষ্ঠানকে পেয়ে আমরা সত্যিই আনন্দিত। যমুনার এই বিনিয়োগ ধারাবাহিক বিনিয়োগের অংশ এবং পরবর্তী ধাপেও তাদের বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে। এই বিনিয়োগ ইভ্যালির ভবিষ্যত উন্নয়ন এবং ব্যবসা পরিধি বৃদ্ধিতে ব্যয় করা হবে।

বিনিয়োগ নিয়ে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগ্রুপ যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম ইসলাম বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উন্নয়নে আমরা দেখছি যে, স্থানীয় ইকমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। যেমন যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেত্রে আমাজন, চীনের ক্ষেত্রে আলিবাবা। তেমনি বাংলাদেশে ইতোমধ্যে নিজের একটি অবস্থান তৈরি করেছে দেশীয় ইকমার্স ইভ্যালি। শুধু দেশের সাধারণ মানুষের স্বপ্নপূরণে কাজ করে যাচ্ছে। যমুনা গ্রুপ দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে দেশ ও দেশের জনগণের কল্যাণে কাজ করছে। এখন থেকে ইভ্যালি এবং যমুনা গ্রুপ সেই স্বপ্নপূরণে একে অপরের অংশীদার হলো।

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


 

ইভ্যালি ও যমুনা গ্রুপের এই অংশীদারিত্বকে স্বাগত জানিয়ে যমুনা গ্রুপের গ্রুপ পরিচালক মনিকা ইসলাম বলেন, দেশের বাজারে মানসম্পন্ন পণ্য ও সেবা নিয়ে যমুনা গ্রুপ ব্যবসা করে আসছে। বাংলাদেশে সবথেকে বড় অফলাইন মার্কেটপ্লেস যমুনা ফিউচার পার্ক। আর এখন সবচেয়ে বড় অনলাইন মার্কেটপ্লেস গড়ে তোলার জন্য ইভ্যালির সাথে থাকবে যমুনা। ডিজিটাল বাংলাদেশ এবং দেশের ই-কমার্স খাতকে একটা মজবুত অবস্থানে এগিয়ে নিয়ে যেতে ইভ্যালির সৎ ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যের প্রতি বিশ্বাস রেখে তাদের দুঃসময়ে আমরা পাশে এসে দাড়িয়েছি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আইসিটি সেক্টরে ভারতের সহযোগিতার বিষয়ে আমরা আশাবাদী : পলক

অনলাইন ডেস্ক

আইসিটি সেক্টরে ভারতের সহযোগিতার বিষয়ে আমরা আশাবাদী : পলক

ঐতিহাসিক সম্পর্কের ভিত্তিতে আগামী দিনগুলোতে বাংলাদেশের হাই-টেক পার্কগুলোতে বিনিয়োগসহ আইসিটি খাতে সহযোগিতা আরো প্রসারিত করবে ভারত  এমন আশাবাদের কথা জানিয়েছেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

আজ (২৭ জুলাই ২০২১) বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ কর্তৃক আয়োজিত ‘আইসিটিতে বাংলাদেশ-ভারত সহযোগিতা সম্প্রসারণ’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল সভায় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এই আশাবাদ ব্যক্ত করনে।  সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ভারতীয় হাই-কমিশনার শ্রী বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী। 

ভারতীয় হাই-কমিশনার দুই দেশের অত্যন্ত উন্নত সম্পর্ক আরো দৃঢ়করণ এবং আইসিটি সেক্টরসহ অন্যান্য খাতে বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারীত্ব বাড়ানোর বিষয়েও গুরুত্ব দিয়ে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি অদূর ভবিষ্যতে  বাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক আরো জোরদার হবে বলে  আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 

মতবিনিময় সভায় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে ভারতের অসামান্য অবদান কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন।

তিনি ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর সাম্প্রতিক বাংলাদেশ সফরের কথা উল্লেখ করে বলেন, নরেন্দ্র মোদীর সরকার ক্ষমতায় আসার পরে বিভিন্ন অমীমাংসিত সমস্যার দ্রুত নিষ্পত্তিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা আরো প্রসারিত হয়েছে। তিনি বলেন, বর্তমানে দুই দেশের বাণিজ্য ঘাটতি হ্রাস পেয়েছে এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ করে আইসিটি সেক্টরে ভারতের বিনিয়োগ বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে দেশের ১২টি জেলায় হাই-টেক পার্ক স্থাপন প্রকল্পে ভারত সরকার অর্থায়ন করছে। 

এছাড়া গত ২৭ মার্চ, ২০২১ ভারতের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ও বাংলাদেশের  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে ‘বাংলাদেশ-ভারত ডিজিটাল সার্ভিস এন্ড এমপ্লয়মেন্ট ট্রেনিং সেন্টার (বিডিসেট)’ নামক একটি প্রকল্প স্থাপনে ভারতীয় অনুদানের লক্ষ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। এই সমঝোতার আওতায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ ও আইসিটি শিল্পের বিকাশে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে ২৫.০০ (পঁচিশ কোটি ) টাকা ভারতীয় অনুদান দেয়া হবে।

এই প্রকল্পে মোট ৬১.০২৫৯ কোটি টাকা ব্যয় করা হবে যার বাকী অংশ (৩৬.০২৫৯ কোটি টাকা) বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে অর্থায়ন করা হবে। এখান থেকে আগামী দুই বছরে প্রায় আড়াই হাজার প্রশিক্ষণার্থী প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবে। ইন্টারনেট অব থিংস, মেশিন লার্নিং, রোবোটিক্স, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, এক্সটেনডেড রিয়ালিটি এবং অন্যান্য উচ্চতর বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে।  এ ছাড়াও ৩০ জনকে ৬ মাসের জন্য ভারতে আইসিটির উপর উচ্চতর প্রশিক্ষণের জন্য প্রেরণ করা হবে। অদূর ভবিষ্যতে ভারত বাংলাদেশে তাদের সহযোগিতার ক্ষেত্র আরো প্রসারিত করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 

ইলেক্ট্রনিক্স এন্ড কম্পিউটার সফটওয়্যার এক্সপোর্ট প্রোমোশন কাউন্সিল এর এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর মি. গুরমিত সিং এর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মি. স্বন্দীপ নারুলা এবং বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব বিকর্ণ কুমার ঘোষ। 

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


 

আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব জনাব এন এম জিয়াউল আলম এর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক । 

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বেসিস এর সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর, বাক্কোর সভাপতি ওয়াহিদ শরিফ, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি শহীদ উল মুনির, উই এর সভাপতি নাসিমা আক্তার নিশা প্রমুখ। শেষ পর্যায়ে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের মার্কেটিং কনসালটেন্ট তামজিদ বিন আহমেদ এর সঞ্চালনায় বিটুবি নেটওয়ার্কিং সেশনে দুই দেশের আইটি ইন্ডাস্ট্রির কোম্পানিগুলোর মধ্যে পারস্পরিক ব্যবসায়িক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে উন্মুক্ত আলোচনা হয়।

news24bd.tv/আলী

তিনি বলেন, ভারতীয় হাই-কমিশনার দুই দেশের অত্যন্ত উন্নত সম্পর্ক আরো দৃঢ়করণ এবং আইসিটি সেক্টরসহ অন্যান্য খাতে বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারীত্ব বাড়ানোর বিষয়েও গুরুত্ব দিয়ে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি অদূর ভবিষ্যতে  বাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক আরো জোরদার হবে বলে  আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 

 

পরবর্তী খবর