ঈদের সাজ-পোশাক

অনলাইন ডেস্ক

ঈদের সাজ-পোশাক

অনেকেই নতুন পোশাক কিনে ফেলেছে ঈদের জন্য। আর এই দিন কোন বেলায় কোন পোশাকটি পরা সেটা নিয়ে চলে বিস্তর পরিকল্পনা। অনেকেই সকালে ফ্রেশ হয়ে একটা হালকা পোশাক পরে ফেলেন আর দুপুর এবং রাতের জন্য থাকে পছন্দের  আলাদা পোশাক। সেই সাথে পোশাকের এর সঙ্গে মিলিয়ে সাজটা কেমন হবে, তা নিয়েও চলে জল্পনা কল্পনা। আর ঈদের তিনবেলায় তিন রকম সাজে হয়ে উঠুন অনন্যা।

সকালের সাজ:

এবার গরম এবং বৃষ্টি এরকম আবহাওয়ার দিকটা খেয়াল রেখে সকালের সাজটা হতে হবে আরামদায়ক, স্নিগ্ধ আর সতেজ। ঈদের দিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মেয়েরা একটু বেশিই ব্যস্ত থাকে রান্নাবান্না এবং অতিথি অাপ্যায়ন নিয়ে। তাই সকালের দিকে পোশাকটা হতে হবে খুব আরামদায়ক। সেই ক্ষেত্রে সুতির সালোয়ার কামিজ বা কুর্তি পরতে পারেন। অনেকেই সকালে শাড়ি পরতে পছন্দ করেন। তাই চাইলে পাতলা শাড়ি পরে ফেললেন। আর সকালের সাজটা হবে খুবই হালকা। বেস মেকআপে শুধু কমপ্যাক্ট পাউডার দিয়ে তার ওপর ফেস পাউডার লাগিয়ে নিন। কাজল না দিয়ে চিকন করে ওয়াটার প্রুফ আইলাইনার লাগাতে পারেন যেন দুপুর বা বিকেলের সাজে চোখের নিচে কালো ভাবটা না থাকে। সাথে একটু ভারি করে মাশকারা লাগান। গালে দিন হালকা গোলাপি ব্লাশন। ঠোঁটে হালকা করে লাগিয়ে নিন মিষ্টি গোলাপি, বাদামি, কফি বা ন্যাচারাল রঙের লিপস্টিক। কপালে পরতে পারেন ছোট্ট একটি টিপ। যেহেতু গরম তাই চুলের সাজটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। সকালে চুলটা ছেড়ে না রেখে খোঁপা বা বেণি করে বেঁধে ফেললে আরামদায়ক হবে। কেউ চাইলে একটা বেলী ফুলের মালাও গুজে দিতে পারেন। সকালের হালকা সাজের সঙ্গে ভালো লাগবে পার্ল, পুঁতি কিংবা স্টোনের ছোট গহনা। সব মিলিয়ে আপনাকে লাগবে পবিত্র, স্নিগ্ধ, ও সতেজ।

দুপুরের আমেজ:

ঈদের দুপুরের সাজে আপনি হয়ে উঠতে পারেন অনন্য। এই সময় পোশাকটি পরুন সুতি বা ভয়েলের লং কামিজ বা কুর্তি, শর্ট কুর্তি, শর্ট হাতা কামিজ বা কুর্তি, ফতুয়া এগুলো। রং হিসেবে বেছে নিন অফ হোয়াইট, বিস্কিট, হালকা গোলাপি, আকাশী, লেমন, হালকা নীল, বাঙ্গী, হালকা বাসন্তী এরকম হালকা যেকোনো রং। আমরা গরমে আরামের দিকটা মাথায় রেখে এই পোশাকগুলো রেখেছি বিভিন্ন কাটিং ও প্যাটার্নে। তবে হালকা কাজের অ্যামব্র‍্যয়ডারি, সুতার কাজ, ব্লক প্রিন্ট এরকম নকশা ও ডিজাইন করা পোশাকও পড়তে পারেন দুপুরে।  এতে পোশাক যেমন আরামদায়ক হবে তেমনি নতুনত্বও বজায় থাকবে। কেউ চাইলে লিনেনও পরতে পারেন। তবে অবশ্যই একটু ঢিলেঢালা পোশাক বেছে নিন যেন সেটা পরে এবং চলাফেরায় স্বাচ্ছন্দ্যবোধ হয়। আর মেকঅাপের ক্ষেত্রে বেসটা সকালের মত হলেই সতেজ লাগবে দেখতে।

রাতে জমকালো:

রাতের সাজটা একটু জমকালো করেই সুন্দর ও আকর্ষণীয় হয়ে উঠতে পারেন। এবারও ঈদটা প্রচন্ড গরমে পরে গেছে। ঈদ-উল-আজহায় সবাই বেরই হয় বিকেল বা সন্ধ্যায়। সেটা হতে পারে ঘুরতে বা কোনো দাওয়াতে। সেই ক্ষেত্রে সাজপোশাকটা একটু জমকালো হলে ভালো লাগে। তখন একটু গর্জিয়াস পোশাকটাই পরবে সবাই। এর মধ্যে গাউন, লং কুর্তি, বাহারি ডিজাইনের শাড়ি পরতে পারেন। এই পোশাকগুলোতে একটু গাঢ় রং ব্যবহার করা হয় যেটা পার্টি বা দাওয়াতে অনায়াসে মানিয়ে যাবে। এগুলো সুতি না হয়ে মসলিন, সিল্ক এবং জর্জেট হলে বেশ উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত লাগে। সকাল বা দুপুরে হালকা সাজপোশাকে থাকলেও বিকেলেই সবাই ঈদের জন্য কেনা মূল ড্রেসটি পরে বের হয়। সেই সাথে সাজটাও দিতে হয় পোশাকের সাথে সামঞ্জস্য রেখেই।

পোশাকে যেমনই হোক তার সাথে সাজ ও জুয়েলারির একটা সামঞ্জস্য থাকলে যেকোনো উৎসবে সবার নজর কাড়া যায়। পোশাকটা খুব বেশি গর্জিয়াস হলে সাজটা খুব বেশি ভারী না হলেই ভালো লাগবে। আর যদি পোশাকটা একটু হালকা কাজের মধ্যে হয় তখন মেকঅাপটা হতে পারে একটু ভারী। রাতের সাজে চুলটা ইচ্ছেমত ছেড়ে রাখতে বা বেঁধে ফেলতে পারেন। পোশাকের পাশাপাশি খেয়াল রাখুন কখন কোন মেকঅাপ মানাবে, কোন পোশাকের সাথে কোন গহনা পরবেন এবং সেই সাথে চুলের সাজটাও যেন হয় পোশাক এবং মুখের আদলের সাথে মানানসই।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

যে খাবার খেলে চুল পড়া বেড়ে যায়

অনলাইন ডেস্ক


যে খাবার খেলে চুল পড়া বেড়ে যায়

অল্প বয়সেই অনেকের চুল পড়ে যায়। চুল নানা কারণে পড়ে যেতে পারে। তবে এজন্য কিছু কিছু খাবারও দায়ী। চলুন জেনে নেয়া যাক সেই খাবারগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত- 

চিনি

প্রচুর চিনি বা মিষ্টিজাতীয় পদার্থ খান কি? তাহলে কিন্তু এটিই হতে পারে আপনার চুল পড়ার কারণ। অতিরিক্ত চিনি খাওয়ার কারণে টাকও হয়ে যেতে পারে। তাই মিষ্টি ভালবাসলেও পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে খান।

ময়দা

বাড়িতে লুচি-পরোটা হামেশাই খাচ্ছেন? ময়দা দিয়ে তৈরি এই লুচি বা পরোটাই কিন্তু আপনার চুলের ক্ষতি করছে। কারণ এতে থাকা গ্লাইসেমিক ইনডেক্স বা জিআই-এর পরিমাণ হরমোনের সমতা নষ্ট করে। ফলে তা থেকে চুল উঠে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়। কেবল ময়দা নয়, একই কারণে খাবারের তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে পাঁউরুটিও।

অ্যালকোহল 

তরল পানীয়তে চুমুক দেওয়ার সময়ে ভাবছেন কি তা থেকে চুলের এত বড় ক্ষতি হতে পারে? গবেষণা কিন্তু সেই রকমই বলছে। অতিরিক্ত মদ্যপান করলে হেয়ার ফলিকল নষ্ট হয়। কিন্তু পরিমিত মদ্যপানেও ক্ষতিগ্রস্ত হয় চুল। অ্যালকোহল চুলের স্বাভাবিক প্রোটিন কেরাটিনকে নষ্ট করে চুলকে দুর্বল করে দেয়।

ভাজাভুজি

ভাজাভুজি খেতে ভালোবাসে না এমন লোক পাওয়া সত্যিই মুশকিল! কিন্তু এ ধরনেরখাবার খেলে হৃদরোগের আশঙ্কা ও ওজন বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যাও দেখা দেয়। ভাজাভুজি খেলে মাথার ত্বক বেশি তৈলাক্ত হয়ে যায় এবং মাথার ত্বকের ছিদ্রগুলোও বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে চুল ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আজকের রাশিফল, কী আছে ভাগ্যে জেনে নিন

অনলাইন ডেস্ক

আজকের রাশিফল, কী আছে ভাগ্যে জেনে নিন

 

আজ বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর। বৈদিক জ্যোতিষে ১২টি রাশি- মেষ, বৃষ, মিথুন, কর্কট, সিংহ, কন্যা, তুলা, বৃশ্চিক, ধনু, মকর, কুম্ভ ও মীন-এর ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। একই রকমভাবে ২৩টি নক্ষত্রেরও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়ে থাকে। ভাগ্য রেখা অনুযায়ী আপনার আজকের দিনটি কেমন কাটবে, দেখে নিন।  

মেষ: 

শুভ যোগাযোগে মানসিক প্রফুল্লতা থাকবে। ভালো কাজে সুনাম বৃদ্ধি। ব্যবসায়ীদের আয়ের সুযোগ আসবে। দীর্ঘদিনের কোনো পরিকল্পনায় পরিবর্তন আনতে হবে। মন ভালো রাখুন।

বৃষ:

কাজের চাপ থাকবে। বিরূপ পারিপার্শ্বিকতায় বিষণ্ন থাকতে পারেন। সহজ কাজটি কঠিন হয়ে যেতে পারে। ব্যক্তিগত দায়িত্ব পালনে দৃঢ়তার পরিচয় দিতে হবে। প্রার্থনায় শান্তি পাবেন।

মিথুন:

কোনো প্রত্যাশিত কাজে অগ্রগতি হবে। আর্থিক অবস্থার উন্নতি হবে। ব্যবসায় মন্দাভাব কেটে যাবে। কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ অনুকূলে থাকবে। স্বকীয় জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধিতে সফলতা পাবেন।

কর্কট:

পেশাগত কাজে সাফল্য পাবেন। ব্যাবসায়িক সিদ্ধান্ত আপনাকে লোকসানের হাত থেকে রক্ষা করবে। গৃহ পরিবেশ অনুকূলে থাকবে। কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখুন। সুস্থ থাকুন।

সিংহ:

শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় অগ্রগতি। অর্থাগমের নতুন পথ পেতে পারেন। সামাজিক কর্মকাণ্ডে অনুকূল অবস্থা থাকবে। হাতছাড়া হয়ে যাওয়া সুযোগ ফিরে আসতে পারে। ভ্রমণ শুভ।

কন্যা:

কর্মক্ষেত্রে জটিলতা দূর হবে। সঠিক বুদ্ধির অভাবে সুযোগ কাজে না-ও লাগতে পারে। স্বজন বিষয়ে উদ্বেগ থাকবে। গুরুত্বপূর্ণ কাজ ফেলে রাখবেন না। প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখুন।

তুলা:

নতুন কাজের সুযোগ আসবে। বেকারদের রোজগারের রাস্তা হতে পারে। প্রত্যাশিত অর্থলাভে বিলম্ব। প্রিয়জনের স্বাস্থ্যের অবনতি। প্রেম-প্রণয় শুভ। অন্যদের সঙ্গে সম্পর্কের ক্ষেত্রে ধৈর্যশীল হতে হবে।

বৃশ্চিক:

কাজকর্মে উৎসাহ বাড়বে। কোনো ভুল-বোঝাবুঝির অবসান হবে। অস্থিরতা ও ধৈর্যহীনতার জন্য কাজে বিঘ্ন ঘটতে পারে। পদস্থ কর্মকর্তার সাহায্য পাবেন। সমস্যা থাকবে। সামলাতে হবে আপনাকেই।

ধনু:

কর্মক্ষেত্রে সুনাম বজায় থাকবে। অপ্রত্যাশিত প্রাপ্তির সম্ভাবনা। কোনো প্রতিবন্ধকতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়ী হবেন। কিছু ব্যাপারে মানিয়ে নেওয়ার চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। বিনোদন ও রোমান্স শুভ।

রও পড়ুন:

প্রবাসীর জ্যাকেটের হাতায় ২ কোটি টাকার সোনা!

অবশেষে বাদুড়ের মধ্যে মিলল করোনাসদৃশ

লক্ষ্মীপুরে ৪ মাদকসেবীর বিভিন্ন মেয়াদে সাজা

ফ্রান্সের পাশে ইউরোপীয় ইউনিয়ন


মকর:

কোনো স্থাবর সম্পত্তির আলোচনায় অগ্রগতি হবে। উন্নতির ক্ষেত্রে অন্যের সহযোগিতা পাবেন। মানসিক অস্থিরতা অনেকটা কমবে। ভুল সিদ্ধান্ত থেকে সাবধান। লক্ষ্যে স্থির থাকলে সুফল পাবেন।

কুম্ভ:

নতুন যোগাযোগ অর্থাগমের পথ দেখাবে। প্রত্যাশা পূরণে বাধা- বিপত্তি দূর হবে। অবহেলার কারণে কোনো সুযোগ নষ্ট হতে পারে। কাজে কোনো ভুল হতে পারে। ধৈর্য না হারালে ভালো থাকবেন।

মীন:

অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে। আয়ের ক্ষেত্র পূর্বের তুলনায় অনুকূলে। লেনদেনে আবেগ পরিহার করতে হবে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আলস্যের প্রশ্রয় দেবেন না। কথাবার্তায় সংযত থাকুন।

 

পরবর্তী খবর

হেঁচকি ওঠা বন্ধের ৮ ঘরোয়া উপায়

অনলাইন ডেস্ক

হেঁচকি ওঠা বন্ধের ৮ ঘরোয়া উপায়

হেঁচকি ওঠার সমস্যায় ভুগেননি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। অনবরত হেঁচকি উঠলে খাবার শ্বাসনালীতে আটকে যেতে পারে। যা মারাত্নক বিপদ ডেকে আনতে পারে। অনেক সময় বারবার পানি খাওয়ার পরও হেঁচকি ওঠা বন্ধ হয় না। 

তবে ঘরোয়া উপায়ে কয়েকটি নিয়ম অনুসরণ করলেই খুব দ্রুত হেঁচকি ওঠা বন্ধ হয়ে যাবে। চলুন জেনে নেয়া যাক হেঁচকি ওঠা বন্ধের কিছু ঘরোয়া উপায়-   

১. হেঁচকির শুরুতেই এক চামচ মাখন বা চিনি খেতে পারেন। সমস্যা দ্রুত চলে যাবে।

২. হেঁচকি উঠলেই প্রথমেই এক গ্লাস পানি খান বা গার্গল করুন। দ্রুত থেমে যাবে হেঁচকি।  

৩. বারবার হেঁচকি উঠলে জিভ বের করে আঙুল দিয়ে কিছুক্ষণ টেনে ধরুন। অদ্ভুত লাগলেও এই পদ্ধতিটি বেশ কার্যকর।

৪. হেঁচকি উঠলেই লম্বা নিঃশ্বাস নিন। এরপর হাঁটুকে বুকের কাছাকাছি এনে জড়িয়ে ধরুন। কয়েক মিনিট এভাবে থাকলে দেখবেন হেঁচকি বন্ধ হয়ে যাবে।

৫. কানে আঙুল দিয়ে চেপে ধরুন, যেন আপনি কিছুই শুনছেন না। অতিরিক্ত জোরে চেপে ধরবেন না। কিছুক্ষণ এভাবে থাকলেই হেঁচকি ওঠা বন্ধ হয়ে যাবে।

৬. একটি কাগজের ব্যাগের মধ্যে মুখ রেখে নিঃশ্বাস নিলেও হেঁচকি বন্ধ হয়ে যায়। এতে রক্তে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে যায়। ফলে হেঁচকি থেমে যায়।

আরও পড়ুন:


পাঁচ বছরে বাংলাদেশকে ১২০০ কোটি ডলার দেবে এডিবি

লোহাগড়ায় বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার

বিচারের কাঠগড়ায় অং সান সুচি

‘বিসমিল্লাহ’র ফজিলত


৭.হেঁচকি বন্ধ করতে তাৎক্ষণিক লেবুর রসের সঙ্গে একটু আদা কুচি মিশিয়ে খেতে পারেন। দ্রুত দেখবেন হেঁচকি বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়া হেঁচকি বন্ধের জন্য মুখে এক টুকরো লেবু রাখতে পারেন। এটি হেঁচকি বন্ধ করতে বেশ কার্যকর।

৮. হেঁচকি উঠলে দেরি না করে খেয়ে নিন এক চামচ পিনাট বাটার। হেঁচকি দ্রুত থেমে যাবে। হাতের কাছে অ্যান্টাসিড ট্যাবলেট থাকলে হেঁচকি থামাতে এটি খেতে পারেন। এতে প্রচুর ম্যাগনেসিয়াম আছে, যা নার্ভগুলোকে শান্ত করে। ফলে হেঁচকি থেমে যাবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আজকের রাশিফল, কী আছে ভাগ্যে জেনে নিন

অনলাইন ডেস্ক

আজকের রাশিফল, কী আছে ভাগ্যে জেনে নিন

আজ বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর। বৈদিক জ্যোতিষে ১২টি রাশি- মেষ, বৃষ, মিথুন, কর্কট, সিংহ, কন্যা, তুলা, বৃশ্চিক, ধনু, মকর, কুম্ভ ও মীন-এর ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। একই রকমভাবে ২৩টি নক্ষত্রেরও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়ে থাকে। ভাগ্য রেখা অনুযায়ী আপনার আজকের দিনটি কেমন কাটবে, দেখে নিন।  

মেষ: শুভ অপেক্ষা অশুভ ফলের মাত্রা বৃদ্ধি পাবে। বাড়িতে ইলেকট্রনিক্স সামগ্রীর পসরা সাজবে। সংকটকালে বন্ধুবান্ধব আত্মীয়-পরিজন সাহায্যের হাত বাড়িয়ে ধরবে। মামলা মোকদ্দমার ও কোর্ট কেসের রায় পক্ষে নাও আসতে পারে।

বৃষ: ডাকযোগে চেকমানিঅর্ডার বিকাশ এমনকি নগদ অর্থ আসতে পারে। বিদেশে অবস্থানরত স্বজনদের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের পথ খুলবে। নিঃসন্তান দম্পতিরা কোনো না কোনো শুভ সংবাদপ্রাপ্ত হবেন। মন সুর সংগীত ও ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে থাকবে।

মিথুন: কর্ম অর্থ সুনাম যশ প্রতিষ্ঠার পথ সুগম করবে। পিতা-মাতার কাছ থেকে ভরপুর সহযোগিতাপ্রাপ্ত হবেন। সন্তানদের সাফল্যে গৌরবান্বিত হবেন। প্রেমীযুগলের প্রেম-বিবাহের মাধ্যমে সমাজে স্বীকৃতি পাবে। দ্রুতগতির বাহন বর্জন করা শ্রেয়।

কর্কট: ভাগ্যলক্ষ্মী প্রসন্ন হওয়ায় সফলতা আপনার চরণ স্পর্শ করবে। দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্নসাধ বাস্তবায়িত হবে। শিক্ষার্থীদের হাতে থাকা কাজ সম্পন্ন হবে। দাম্পত্য সুখ-শান্তি প্রতিষ্ঠা বজায় রাখতে জীবনসাথীর মতামতকে গুরুত্ব দিন।

সিংহ: দুর্ঘটনা ও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ভিড়ভাড় তীব্রগতির বাহন বর্জন করুন। প্রেমীযুগলরা সতর্কতার সঙ্গে চলাফেরা করুন। অপরিচিত কাউকে আশ্রয় দেওয়া খাল কেটে কুমির আনার সমান হবে। রাগ জেদ অহংকার আবেগ বর্জন করার আবশ্যকতা রয়েছে।

কন্যা: জীবনসাথী শ্বশুরালয় থেকে ভরপুর সহযোগিতা পাবেন। ডাকযোগে প্রাপ্ত সংবাদ বেকারদের মুখে হাসির ঝলক ফোটাবে। প্রেমীযুগলের প্রেম-বিবাহের মাধ্যমে সমাজে স্বীকৃতি পাবে। লৌকিকতায় যেমন ব্যয় হবে তেমনি উপহারও প্রাপ্ত হবেন।

তুলা: সিজনাল রোগব্যাধির প্রকোপ বৃদ্ধি পাবে। অর্থকড়ির ব্যাপারে কাউকে অধিক বিশ্বাস করা ঠিক হবে না। গুপ্ত ও প্রকাশ্য শত্রুর চাপ বৃদ্ধি পাবে। দূর থেকে আসা কোনো অপ্রিয় সংবাদে মন বিষণ হয়ে পড়বে। মন সুর সংগীতের প্রতি আকৃষ্ট থাকবে।

বৃশ্চিক: পিতামাতার কাছ থেকে ভরপুর সহযোগিতা প্রাপ্ত হবেন। কর্ম ও ব্যবসা-বাণিজ্যে তরতাজা উন্নতি করে চলবেন। মামলা মোকদ্দমার রায় পক্ষে আসবে। শিক্ষার্থীদের হাতে নিত্যনতুন সুযোগ এসে হাজির হবে। সন্তানদের সাফল্যে গৌরবান্বিত হবেন।

ধনু: দীর্ঘদিনের দাম্পত্য ও পারিবারিক কলহ-বিবাদের মীমাংসা হবে। সহকর্মী ও অংশীদারদের কাছ থেকে ভরপুর সহযোগিতাপ্রাপ্ত হবেন। দূর থেকে আসা কোনো সংবাদ বেকারদের কর্মপ্রাপ্তির বাসনা পূরণ করবে। ভ্রমণ যোগ পরিলক্ষিত হবে।

রও পড়ুন:

নারী ক্ষমতায়নে আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বিচারের কাঠগড়ায় অং সান সুচি

ফ্রান্সের পাশে ইউরোপীয় ইউনিয়ন

৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ, আটক ৩


মকর: কর্মের সুনাম যশ পদোন্নতির পথ সুগম করবে। বিদেশগমন ও স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের পথ খুলবে। গৃহবাড়ি অতিথি সমাগমে মুখর হয়ে থাকবে। রাগ জেদ হটকারী সিদ্ধান্ত ঘাতক বলে প্রমাণিত হবে। দ্রুতগতির বাহন এড়িয়ে চলুন।

কুম্ভ: চতুর্দিক থেকে লাগাতার উন্নতি করে চলবেন। মামলা মোকদ্দমার রায় পক্ষে আসবে। গৃহবাড়ি ভূমি সম্পত্তি ও যানবাহন লাভের পথ খুলবে। অপরিচিত কাউকে আশ্রয় দেওয়া খাল কেটে কুমির আনার সমান হবে।

মীন: মনোবল জনবল অর্থবলের গ্রাফ চাঙা হয়ে উঠবে। গৃহবাড়ি ভূমি সম্পত্তি ও যানবাহন লাভের পথ প্রশস্ত হবে। হারানো পিতৃমাতৃ ধনসম্পদ সম্পত্তি প্রাপ্তির পথ খুলতে পারে। শিক্ষার্থীদের কঠোর শ্রম  মেধা প্রযুক্তির ফল পাবেন।

news24bd.tv রিমু 

 

পরবর্তী খবর

চুলের আগা ফাটা দূর করার ৫টি টিপস

অনলাইন ডেস্ক

চুলের আগা ফাটা দূর করার ৫টি টিপস

চুলের আগা ফাটা অনেকেরই সমস্যা। নিয়মিত যত্ন এবং সঠিক খাওয়াদাওয়া সহজেই এই সমস্যাকে কাবু করতে পারে। কিছু সাধারণ যত্ন ও ঘরে তৈরি হেয়ার মাস্কও হতে পারে সমাধান।

চলুন জেনে নেয়া যাক চুল ফাটা রোধে ঘরোয়া উপায়:

হট অয়েল ট্রিটমেন্ট:

অতীতেও চুলে তেলের ব্যবহার ছিল অপরিহার্য। চুলের দৈর্ঘ্য অনুযায়ী পর্যাপ্ত পরিমাণে অলিভ অয়েল অথবা নারকেল তেল গরম করে স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে, চুলের গোড়া থেকে আগার দিকে তেল মালিশ করবেন। খুব জোরে ঘষলে চুলের কিউটিকল ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। অন্তত এক ঘণ্টা চুলে তেল লাগিয়ে রাখা উচিত।

কলা:

কলাকে বলা হয় প্রাকৃতিক কন্ডিশনার। পাশাপাশি এটি চুলের ইলাস্টিসিটি বাড়ায় এবং চুল পড়া রোধ করে। কলা চটকে সরাসরি চুলে লাগানো যেতে পারে। আবার কলা, মধু ও টক দইয়ের পেস্টও ব্যবহার করা যায়।

মরোক্কান অয়েল:

চুল নরম ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করতে এই তেল দারুণ কার্যকর। এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই, ওমেগা-৩ এবং ওমেগা-৬-ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে, যা চুলের জন্য প্রয়োজনীয়। শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার ব্যবহারের পর চুলে তোয়ালে জড়িয়ে রাখুন, যাতে অতিরিক্ত জল শুষে নেয়। অল্প মরোক্কান অয়েল হাতে নিয়ে ভিজে চুলের মাঝামাঝি থেকে ডগা অবধি ম্যাসাজ করুন। প্রতিবার শ্যাম্পু করার পর এভাবে মরোক্কান অয়েল ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

মধু:

প্রাকৃতিক গুণে সমৃদ্ধ মধু চুলের আগা ফাটা রোধ করে। টক দই ও মধু মিশিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরি করে, মিশ্রণটি চুলের ডগায় লাগিয়ে আধা ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে হবে।

আর্গান অয়েল:

এটি ‘লিক্যুইড গোল্ড’ নামেও পরিচিত। আর্গান বীজ থেকে এই তেল তৈরি করা হয়। ভিটামিন ই, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ফ্যাটি অ্যাসিডসমৃদ্ধ আর্গান অয়েলও চুলের আগা ফাটা রোধ করে। শ্যাম্পু করার পর ভেজা চুলে আর্গান অয়েল লাগালে তা বেশি কার্যকর। যারা ঘন ঘন চুলে হিটিং টুলস বা স্টাইলিং পণ্য যেমন মুজ, জেল বা স্প্রে ব্যবহার করেন, তারা যদি এসব পণ্য ব্যবহার করার আগে বা পরে আর্গান অয়েল ব্যবহার করেন, তাহলে চুলের কম ক্ষতি হয়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর