পদ্মাসেতুর পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কার ঘটনায় ফেরির মাস্টার আটক

বেলাল রিজভী, মাদারীপুর

পদ্মাসেতুর পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কার ঘটনায় ফেরির মাস্টার আটক

পদ্মা সেতুর একটি পিলারে ধাক্কা দেওয়ার ঘটনায় মাদারীপুরের বাংলাবাজার ও মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌপথে চলাচলরত রো রো ফেরি শাহ্ জালালের ইনচার্জ ইনল্যান্ড মাস্টার অফিসার আবদুর রহমানকে আটক করেছে শিবচর থানা পুলিশ। শনিবার সকালে বাংলাবাজার ঘাট এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিরাজ হোসেন।

পুলিশ ও ঘাট সূত্র জানায়, শুক্রবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে মাদারীপুরের বাংলাবাজারঘাট থেকে শিমুলিয়া যাওয়ার পথে রো রো ফেরি শাহ্ জালাল পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে ফেরিতে থাকা ৩৩টি যান একটি আরেকটির ওপর ধাক্কা দেয়। এতে অর্ধশত যাত্রী আহত হয়।

এ ঘটনায় ফেরিটির ফিটনেস ছিল কি না, চালকের যথাযথ যোগ্যতা, শারীরিক সুস্থতা বা অবহেলা ছিল কি না এইসব বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়ে শিবচর থানায় শুক্রবার সন্ধ্যায় সেতু বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেন। জিডিতে আব্দুল কাদের জানান, পিলারের সঙ্গে এর আগেও ফেরির সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বিষয়টি নিয়ে আগে পরে লিখিত ও মৌখিকভাবে সচেতনতার সঙ্গে ফেরি চলাচলের জন্য বিআইডব্লিটিসি কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। অথচ এরপরেও এমন ঘটনা আবার ঘটছে। শুক্রবারের ঘটনা ফেরির যাত্রীদের প্রাণহানি ও বড় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারতো। এ ছাড়াও পদ্মা সেতুর নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে।


আরও পড়ুন:

পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়ল পচেত্তিনোর

মুখ্যমন্ত্রীকে গরুর মাংস উপহারের ইচ্ছা পোষণ, নারী গ্রেপ্তার

হাইতি প্রেসিডেন্টের সৎকার অনুষ্ঠান থেকে পালিয়েছে মার্কিন প্রতিনিধিদল

মাছের ড্রামে যারা ঢাকা যাচ্ছে, তাদের নিয়ে ট্রল করাটা ঠিক হচ্ছে না


শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিরাজ হোসেন মুঠোফোনে বলেন, ‘থানায় ডিডি হওয়ার পরে আমরা বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছি। আর এই তদন্তের স্বার্থেই আমরা রো রো ফেরি শাহ্ জালালের ইনচার্জ ইনল্যান্ড মাস্টার অফিসার আবদুর রহমানকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করি। বর্তমানে তিনি আমাদের হেফাজতে আছেন। থানায় তাঁর জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।’

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

ডাকাতের হামলা, ট্রেনের ছাদ থেকে দুই লাশ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

ডাকাতের হামলা, ট্রেনের ছাদ থেকে দুই লাশ উদ্ধার

ঢাকা-জামালপুর কমিউটার ট্রেনে ডাকাতের হামলায় দুজন নিহত ও একজন গুরুতর আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার পর দেওয়ানগঞ্জগামী ট্রেনটি জামালপুর পৌঁছালে ছাদে রক্তাক্ত অবস্থায় তিন জনকে উদ্ধার করে জামালপুর জিআরপি থানা পুলিশ।

নিহতদের মধ্যে একজনের পরিচয় জানা গেছে। তিনি হলেন জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার মিতালী এলাকার মো. ওয়াহিদের ছেলে মো. নাহিদ (৪০)। নিহত অন্য পুরুষ ব্যক্তির বয়স আনুমানিক ৪০ বছর। লাশ দুটি জামালপুর সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। আহত রুবেল (২২) ইসলামপুর উপজেলার মাঝপাড়া গ্রামের হীরু মিয়ার ছেলে।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে রুবেল সাংবাদিকদের বলেন, গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশন থেকে পাঁচজনের একটি যুবক দল ট্রেনের ছাদে ওঠে। এক পর্যায়ে তারা দুই ব্যক্তির মুঠোফোন ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। বাধা দিলে দুর্বৃত্তরা ওই দুজনকে ছুরিকাঘাত করে। পরে ওই পাঁচ দুর্বৃত্ত ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশনে নেমে যায়।

রেলওয়ে পুলিশের সার্কেল ইন্সপেক্টর (ময়মনসিংহ) গুলজার হোসেন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ট্রেনটি জামালপুরে এলে ছাদ থেকে রক্ত পড়তে দেখে ভেতরে থাকা কয়েকজন যাত্রী পুলিশ এবং গার্ডকে জানায়। এরপর ছাদে উঠে তিনজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় পেয়ে জামালপুর সদর হাসপাতালে নিলে দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

রও পড়ুন:

প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী!

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

সংসার ভাঙার খুশিতে ডিভোর্স পার্টি!


কমলাপুর থেকে ট্রেনের ছাদে ওঠা ফারুক নামের এক যাত্রী জামালপুরে সাংবাদিকদের বলেন, গফরগাঁও রেলস্টেশন ছাড়ার পর ট্রেনের ছাদের যাত্রীরা ডাকাত দলের কবলে পড়েন। চার-পাঁচ জনের ডাকাত দলটি নাহিদসহ (পরে নিহত) অনেক যাত্রীর কাছ থেকে মানিব্যাগ ও মোবাইল ফোন নিয়ে ট্রেনের ইঞ্জিনের দিকে চলে যায়।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

নোয়াখালীতে অস্ত্র-গুলিসহ কিশোর গ্যাং সদস্য গ্রেপ্তার

নোয়াখালী প্রতিনিধি :

নোয়াখালীতে অস্ত্র-গুলিসহ কিশোর গ্যাং সদস্য গ্রেপ্তার

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলা থেকে অস্ত্রসহ কিশোর গ্যাং এর এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে ১টি পাইপ গান, ১ রাউন্ড কার্তুজ, ৯টি কিরিস উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত নুর উদ্দিন ওরফে আসিফ উপজেলার মুরাদপুর গ্রামের গোলাম মাওলার ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আটককৃত আসামিকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে নোয়াখালী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। 

রও পড়ুন:


সেই বাংলা ছবি থেকে সানি লিওনের অংশটি বাদ

অনলাইনে পণ্য ডেলিভারির সময় নির্ধারণ করে দিলো মন্ত্রণালয়

ভ্রুন নষ্ট না করলে তালাক দেয়ার হুমকি স্বামীর

মানবতাবিরোধী মামলার আসামি শহীদুল্লাহ ফকির গ্রেপ্তার


এর আগে বুধবার গভীর রাতে উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ খানপুর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ কামরুজ্জামান সিকদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় আটককৃত আসামির বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা হয়েছে। 

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

ভ্রুন নষ্ট না করলে তালাক দেয়ার হুমকি স্বামীর

নয়ন বড়ুয়া জয়

স্বামীর চাপাচাপিতে ভ্রুণ হত্যার প্রবণতা বাড়ছে। মাতৃত্বের স্বাদ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অসংখ্য নারী। চট্টগ্রামে একের পর এক ভ্রন হত্যার শিকার হয়ে এবার মাতৃত্বের অধিকার রক্ষা করতে এক প্রবাসী স্বামীসহ পরিবারের বিরুদ্ধে স্ত্রীর মামলা। ভ্রুন নষ্ট না করলে তালাক দেয়ার হুমকি স্বামীর।

আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশকে দ্রুত তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা বলছেন, আইনের প্রয়োগ সঠিকভাবে হলেই কমে আসবে ভ্রণ হত্যা। 

২০১৬ সালে রাঙ্গুনিয়ার খামারিপাড়া হোসনাবাদ এলাকার কাজী সফিউল আলমের সঙ্গে পারিবারিক পছন্দেই বিয়ে হয় উত্তর পদুয়া পশ্চিম খুরুশিয়ার সাজু আক্তারের। বিয়ের কিছু দিন পরই জানা যায় স্বামীর সঙ্গে পাশের গ্রামের এক নারীর প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। বিয়ের এক মাস পরে বিদেশ পাড়ি দেন স্বামী। 

রও পড়ুন:


জন্মদিনে সৃজিতের কাছে কী চাইলেন মিথিলা?

বায়ু দূষণের তালিকায় বাংলাদেশ প্রথম, ঢাকা তৃতীয়

৪৫ মিনিট পর হাসপাতালে অলৌকিকভাবে বেঁচে উঠলেন নারী!

গাড়ি সাইড দেয়ায় ব্যবসায়ীকে মারধর করলেন এমপি রিমন!


বিদেশ থেকে আসা-যাওয়ার মাঝে স্ত্রী সাজু সন্তান সম্ভবা হয়ে পড়লে  ভ্রুণ হত্যা করার জন্য উঠে পড়ে লাগে স্বামী। পরিবারের চাপে একের পর এক এভাবে ভ্রুণ নষ্ট করার পর এবার স্বামী বিদেশ থেকে আসলে আবারো এই গৃহবধুর পেটে সন্কান আসে। বয়স চারমাস হতেই স্বামী বুঝে যাওয়ায় শুরু হয় ভ্রুণ হত্যার চেষ্টা।

ভ্রুণ নষ্ট না করলে বিদেশে গিয়ে তালাক দেয়ার হুমকি দেয় স্বামী।তাই শেষমেষ আদালতের শরণাপন্ন হয়েছেন এই গৃহবধু।

নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা বলছেন, ভ্রুণ হত্যা বন্ধে আইনের শাসন আরো কঠোর হওয়া জরুরি।

ভ্রুন হত্যায় জড়িতরা শাস্তির আওতায় না আসায় এখনো এটিকে অপরাধ মনে করেন না অনেকে। অন্তত এ মামালায় আইনের প্রয়োগ হলে একটি উদাহরণ তৈরি হবে বলছেন সমাজবিজ্ঞানীরা।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

শেরপুরে র‌্যাবের অভিযানে বিদেশি মদসহ যুবক আটক

জুবাইদুল ইসলাম, শেরপুর:

শেরপুরে র‌্যাবের অভিযানে বিদেশি মদসহ যুবক আটক

শেরপুরের নালিতাবাড়িতে ১৬ বোতল বিদেশি মদসহ মো. শাহীন আলম (১৯) নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব-১৪ (জামালপুর-শেরপুর)। 

বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের বেপারীপাড়া এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। 

আটক শাহীন উপজেলার পোড়াগাঁও ইউনিয়নের ভুরুঙ্গা কালাপানি এলাকার মো. নওশেদ আলীর ছেলে। বৃহস্পতিবার সকালে মাদক আইনের মামলাসহ তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। 

রও পড়ুন:


জন্মদিনে সৃজিতের কাছে কী চাইলেন মিথিলা?

বায়ু দূষণের তালিকায় বাংলাদেশ প্রথম, ঢাকা তৃতীয়

৪৫ মিনিট পর হাসপাতালে অলৌকিকভাবে বেঁচে উঠলেন নারী!

গাড়ি সাইড দেয়ায় ব্যবসায়ীকে মারধর করলেন এমপি রিমন!


র‌্যাবের প্রেস বিজ্ঞপ্তি সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-১, জামালপুর ক্যাম্পের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মৃনাল কান্তি সাহার উপস্থিতিতে র‌্যাবের একটি দল শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার রাজনগর বেপারীপাড়া এলাকার জনৈক আব্দুল মজিদের ধানের চাতালের সামনে পাকা রাস্তায় অভিযান চালায়। 

এ সময় ১৬ বোতল বিদেশি মদসহ ও দুইটি মোবাইল ফোনসহ শাহীন আলমকে আটক করে র‌্যাব সদস্যরা। উদ্ধারকৃত বিদেশি মদের মূল্য অনুমান ৮ হাজার টাকা।

এ ব্যাপারে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-১, জামালপুর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার আশিক উজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় আটক শাহীনের বিরুদ্ধে নালিতাবাড়ী থানায় একটি মাদক আইনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আটক শাহীন দীর্ঘদিন যাবৎ শেরপুরের বিভিন্ন স্থানে মাদক ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। মাদকের মতো সামাজিক ব্যাধির বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

নাটোরে ১২ ইমো হ্যাকার আটক

নাটোর প্রতিনিধি:

নাটোরে ১২ ইমো হ্যাকার আটক

প্রতারণা করে প্রবাসীদের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে নাটোরের দুই উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ইমো হ্যাকার চক্রের ১২ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল ও আজ জেলার লালপুর ও বাগাতিপাড়ায় উপজেলায় অভিযান চালিয়ে এসব ইমো হ্যাকার চক্রের ১২ সদস্যকে আটক করা হয়।

রও পড়ুন:


জন্মদিনে সৃজিতের কাছে কী চাইলেন মিথিলা?

বায়ু দূষণের তালিকায় বাংলাদেশ প্রথম, ঢাকা তৃতীয়

৪৫ মিনিট পর হাসপাতালে অলৌকিকভাবে বেঁচে উঠলেন নারী!

গাড়ি সাইড দেয়ায় ব্যবসায়ীকে মারধর করলেন এমপি রিমন!


আজ দুপুরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, দীর্ঘ দিন ধরে ইমো হ্যাকার চক্রের সদস্যরা প্রবাসীদের টার্গেট করে ইমো হ্যাক করে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসছিল। বিভিন্ন সময় পুলিশের হাতে আটক হলেও পুণরায় তারা এই কাজে জড়িয়ে পড়ে।

সম্প্রতি বেশ কিছু গণমাধ্যমে ইমো হ্যাক চক্রদের নিয়ে সংবাদ প্রকাশ হলে গত ১৯ সেপ্টেম্বর 
নাটোরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাইদ সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের সূত্র ধরে স্বপ্রনোদিত হয়ে পুলিশকে মামলা রেকর্ড করে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন।

এ প্রেক্ষিতে লালপুর থানার এসআই হাসান তৈফিক বাদী হয়ে পরদিন একটি মামলা রেকর্ড করে 
তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় অভিযান চালিয়ে লালপুর থেকে ৮ জন ও বাগাতিপাড়া উপজেলা থেকে ৪ জনকে আটক করে।

এ সময় বড়াইগ্রাম সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খায়রুল আলম, লালপুর থানার ওসি ফজলুর রহমান সহ অন্যন্যরা।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর