রপ্তানি হচ্ছে গরু-মহিষের নাড়ি-ভুঁড়ি

নয়ন বড়ুয়া জয়, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম বন্দর দিয়েই চীন, হংকং, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনামে রপ্তানি হচ্ছে ওমাসম বা গরু-মহিষের নাড়ি ভুঁড়ি। চট্টগ্রামের একদল তরুণ উদ্যোক্তা ওমাসম বিক্রি করেই এখন আয় করছে কোটি কোটি টাকা। কারণ এক টন ওমাসম বিশ্ববাজারে বিক্রি হয় আট হাজার ডলারে। 

একই সাথে গরুর পিজল যাচ্ছে আমেরিকাসহ চীনে ,যা ককুরের খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করছে তারা। প্রতি টন পিজল বিক্রি হয় আট থেকে সাড়ে আট হাজার ডলারে। আর গরুর হাড় ও শিং দিয়েই তৈরি হচ্ছে বোতামসহ বিভিন্ন ধরণের শোপিস। 

গরুর তৃতীয় পাকস্থলীর স্থানীয় নাম সাতপাল্লা। যা চীনসহ বিশ্ববাজারে ওমাসম নামে পরিচিত।গরু জবাইয়ের পর এক সময় নদী খালে ফেলে দেওয়া হতো এসব উচ্ছিষ্ট। যা পরিবেশও দূষণ করতো। কিন্তু বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এসব পণ্যের কদর রয়েছে জেনে এখন নিয়মিত রপ্তানি করছেন চট্টগ্রামের তরুণ উদ্যোক্তারা।

আরও পড়ুন:


করোনায় জাবি অধ্যাপকের মৃত্যু

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত


এক টন ওমাসম রপ্তানিতে আয় হয় আট হাজার ডলার। গরুর পেনিস বা পিজলের চাহিদাও বেড়েছে আমেরিকা ,চীনসহ আরো কয়েকটি দেশে। প্রক্রিয়াজাত  প্রতি টন পেনিস বিশ্ববাজারে বিক্রি হচ্ছে আট থেকে সাড়ে আট হাজার ডলারে।

এদিকে, গরুর হাড় শিং দিয়েই দেশে তৈরি হচ্ছে বোতামসহ নানান ধরণের শোপিস। এসব পণ্য রপ্তানি হওয়ার পাশাপাশি হাড় শিংও যাচ্ছে বিদেশে। করোনা সংকটেও গেল অর্থবছরে ৩২০ কোটি টাকার ওমাসম রপ্তানি করেছে বাংলাদেশ।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

কিছু অসাধু ব্যক্তির কারণে ই-কমার্স খাত নষ্ট হচ্ছে: অ্যাটর্নি জেনারেল

অনলাইন ডেস্ক

কিছু অসাধু ব্যক্তির কারণে ই-কমার্স খাত নষ্ট হচ্ছে: অ্যাটর্নি জেনারেল

অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন বলেছেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ই-কমার্স জনপ্রিয় হয়ে উঠলেও আমাদের দেশে কতিপয় কিছু অসাধু ব্যক্তির কারণে ই-কমার্স খাত নষ্ট হচ্ছে। তবে ই-কমার্স নিয়ে দেশে কোনো আইন হয়নি। এটাকে আইনের আওতাভুক্ত করতে হবে। একইসঙ্গে কোনো পণ্য অর্ডারের আগে ভালো-মন্দ ক্ষতিয়ে দেখে তারপর অর্ডার করবেন।

আজ রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন অ্যাটর্নি জেনারেল।

তিনি বলেন, ই-কামার্স ব্যবসা যারা করবে তাদের কাছ থেকে একটা সিকিউরিটি বাংলাদেশ ব্যাংক রেখে লাইসেন্স দেবে। এতে কোনো ব্যক্তি প্রতারণার শিকার হলে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের সিকিউরিটি মানি থেকে ক্ষতিপূরণ দেয়া যেতে পারে।

আরও পডুন


যে দেশে সর্বনিম্ন বেকারত্বের রেকর্ড

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!

আদালতের দ্বারস্থ জেমস


অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ই-কমার্সে প্রতারিত হলে দেওয়ানি ও ফৌজদারি মামলা করতে পারে। এছাড়া ক্রেতাকে সাবধান হতে হবে। আমি সবাইকে একটা পরামর্শ দেবো, কোনো ধরনের বিনিয়োগ করার আগে, কোনো পণ্য অর্ডার করার আগে দয়া করে এর ভালো-মন্দ দিকটা ক্ষতিয়ে দেখে তারপর অর্ডার করবেন।

তিনি বলেন, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্ন দেশে জনপ্রিয় মাধ্যম। তবে আমাদের দেশে নতুন। কিছু ব্যক্তির অসাধুতার কারণে দেশের এ খাতটি পিছিয়ে গেল।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

ভরা মৌসুমেও বঙ্গোপসাগরে দেখা মিলছে না ইলিশের

শেখ আহসানুল করিম

ভরা মৌসুমেও বঙ্গোপসাগরে দেখা মিলছে না ইলিশের। এমনকি ইলিশের ভান্ডারখ্যাত সোয়াস অব নো গ্রাউন্ডেও ইলিশের দেখা নেই। ফলে খালি হাতেই জেলেদের বাড়ি ফিরতে হচ্ছে। 

ইলিশ আহরণে পার হয়েছে প্রায় ছয় মাস। কিন্তু লাভের মুখ দেখেনি জেলে- মহাজন। আর এতে বাগেরহাটের মৎস্য পল্লীতেও নেই কর্মচাঞ্চল্য। মৎস্য বিভাগ বলছে, আবহাওয়া স্বাভাবিক হলেই মিলবে কাঙ্খিত ইলিশ। 

গভীর সাগর, সুন্দরবন ও উপকূলীয় নদীর মোহনা বলেশ্বর, পশুর, পানগুছি, মধুমতি, ভৈরব ও দড়াটানা নদীতে জালে ধরা পড়ছেনা ইলিশ।

আরও পডুন


যে দেশে সর্বনিম্ন বেকারত্বের রেকর্ড

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!

আদালতের দ্বারস্থ জেমস


ইলিশ না পেয়ে ফিরে আসা একেকটি ফিশিং ট্রলারে মাছ বিক্রি হয়েছে ৩০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ৬০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এতে তেল খরচও ওঠেনি তাদের। জেলে ও ট্রলার মালিকদের অভিযোগ, ইলিশের ভরা মৌসুমে ৬৫ দিনের নিষেজ্ঞা থাকায় পাশ্ববর্তীদের দেশের জেলেরা বাংলাদেশের জলসীমায় ঢুকে ইলিশ মাছ ধরে নিয়ে গেছে। তবে এমন অবস্থা সাময়িক, বললেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, ইলিশ মাছের সংখ্যা কমার পেছনে অনেক কারণের মধ্যে অন্যতম জলবায়ু পরিবর্তন। তাই এবিষয়ে সবাই সচেতন হবেন, এমনটাই প্রত্যাশা তার।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

অনলাইন ডেস্ক

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মোহাম্মদ রাসেল এবং চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন প্রতারণার অভিযোগে আটক হয়েছে। এতে প্রতিষ্ঠানটি থেকে পাওনা টাকা ফেরত পাওয়া নিয়ে আশঙ্কায় গ্রাহকরা। বিশ্লেষকরা বলছেন, বর্তমান অবস্থায় অর্থ ফেরত পাওয়া প্রায় শত ভাগই অনিশ্চিত।

কোনও পণ্যে ৫০ ভাগ ছাড়, আবার কোনও পণ্যে শতভাগ। এমনকি দেড়শ শতাংশ পর্যন্ত ক্যাশব্যাক অফার দিয়ে গ্রাহকদের আকৃষ্ট করে ইভ্যালি। বিভিন্ন নামে অফারের ফাঁদে ফেলে গ্রাহকের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয় শত শত কোটি টাকা।

গ্রাহকরা জানান যে, ইভ্যালির সিইও তাদের পণ্য অথবা টাকা ফেরত দেওয়ার কথা দিয়েছিল। তবে এখনো তা পায়নি বলে তাদের অভিযোগ।

বিভিন্ন অভিযোগে ইভ্যালির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করা হয়েছিল আগেই। প্রতিষ্ঠানটিতে প্রায় তিন লাখ গ্রাহক এবং ২৫ হাজার মার্চেন্টের পাওনাই প্রায় হাজার কোটি টাকা। তবে বাংলাদেশ ব্যাংক ও দুদকের তদন্তে এর মধ্যে ৩৩৯ কোটি টাকার কোনও হদিস নেই। সরানো হয়েছে অন্যত্র।


আরও পডুন

আদালতের দ্বারস্থ জেমস

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!


যদিও রাসেল-শামীমা দম্পতির শেষ রক্ষা হয়নি। গত বৃহস্পতিবার আটক হয় র‌্যাবের হাতে। প্রতারণাকারী প্রতিষ্ঠানের দুই কর্তা ব্যক্তি আটক হন। এবার গ্রাহকরা পাওনা বুঝে পাবেন কিনা সেটাই প্রশ্নবিদ্ধ!

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

আজ থেকে টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রি শুরু, কেজি ৩০ টাকা

অনলাইন ডেস্ক

আজ থেকে টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রি শুরু, কেজি ৩০ টাকা

দেশের নিত্যপণ্যের বাজার দর স্বাভাবিক রাখতে মাঝে মধ্যেই ট্রাকে করে নিত্যপণ্য বিক্রি করে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। এবার আজ রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) থেকে আবারও টিসিবির ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে।

পেঁয়াজের মূল্য ভোক্তাদের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখতে ৩০ টাকা কেজি দরে ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করবে প্রতিষ্ঠানটি।

টিসিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এসময় তিনি তিনি জানান, আজ রোববার থেকে টিসিবির ট্রাকে পেঁয়াজও বরাদ্দ থাকবে। প্রতিকেজি ৩০ টাকা। একজন ক্রেতার কাছে সর্বোচ্চ দুই কেজি পেঁয়াজ কিনতে পারবে। অন্যান্য পণ্য আগের মূল্যেই বিক্রি করা হবে।

news24bd.tv এসএম

আরও পড়ুন


১৬০টি ইউপিতে নির্বাচন সোমবার, বিনা ভোটে জয় ৪৩ আ.লীগ প্রার্থীর

হাতিয়ায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ৬

তৃতীয় স্বামীর কাছ থেকে মুক্তি পেতে মামলা করলেন শ্রাবন্তী

কুড়িগ্রামে ধর্ষণ মামলায় বিএনপি নেতা গ্রেপ্তার


 

পরবর্তী খবর

বাজারে দাম কমছে স্বর্ণের

অনলাইন ডেস্ক

বাজারে দাম কমছে স্বর্ণের

গত সপ্তাহজুড়ে স্বর্ণের বড় দরপতন হয়েছে বিশ্ববাজারে। এতে সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ৩০ ডলারের ওপরে কমেছে। টানা দুই সপ্তাহ ধরে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম কমছে। টানা এই দরপতনে দুই সপ্তাহে প্রতি আউন্সে দাম কমেছে ৭০ ডলারের ওপর।

তবে বিস্ময়কর ব্যপার হল - গত দুই সপ্তাহ ধরে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম কমলেও স্বর্ণের দামে কোনো পরিবর্তন আসেনি দেশের বাজারে। বিশ্ববাজারে দরপতনের ধারা অব্যাহত থাকলে আগামী সোমবার দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে জানা গেছে।

স্বর্ণের দাম নিয়ে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা গত দুই সপ্তাহ থেকে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম কমার চিত্র দেখেছি। আগামী সোমবার বিশ্ববাজারের চিত্র দেখবো। যদি সেদিন পর্যন্ত বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম কমার এ ধারা অব্যাহত থাকে তাহলে আমরাও দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নেবো।

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরু হওয়ার পর থেকেই বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে ব্যাপক অস্থিরতা দেখা দেয়। তারপর থেকে কখনও লাগামহীনভাবে দাম বেড়েছে আবারও কখনও কিছুটা কমেছে। তবে মাঝে কিছুটা দাম কমলেও এপ্রিল ও মে মাসজুড়ে স্বর্ণের দাম ঊর্ধ্বমুখী ধারায় থাকে।

বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম লাগামহীন হওয়ায় গত মে মাসে দেশের বাজারে দুই দফায় স্বর্ণের দাম ভরিতে চার হাজার ৩৭৪ টাকা বাড়ায় বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি। জুনের শুরুতে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে বড় পতন হয়। ফলে বাংলাদেশেও স্বর্ণের দাম কমানো হয়।

আরও পড়ুন


আজ নায়ক সালমান শাহ’র জন্মদিন, বেঁচে থাকলে বয়স হতো ৫০

রাজনীতি কারও চিরস্থায়ী জমিদারি নয়

সূরা বাকারা: আয়াত ৮০-৮৪, ইহুদীদের ধারণাকে আল্লাহর মিথ্যা ঘোষণা

বিদ্যুৎ উৎপাদনের মেগা হাব হচ্ছে মহেশখালীর মাতারবাড়ী


কিন্তু আগস্টের মাঝামাঝি বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে বেশ অস্থিরতা দেখা দেয়। কয়েক দফা উত্থান-পতনের মাধ্যমে এক পর্যায়ে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম একশ ডলারের মতো বেড়ে যায়। ফলে বাংলাদেশেও স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয়।

সর্বশেষ গত ২২ আগস্ট বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস) ভরিতে এক হাজার ৫১৬ টাকা বাড়িয়ে স্বর্ণের নতুন দাম নির্ধারণ করে। এতে সবচেয়ে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) স্বর্ণের দাম ৭৩ হাজার ৪৮৩ টাকা নির্ধারিত হয়।

এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণ ৭০ হাজার ৩৩৪ টাকা, ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণ ৬১ হাজার ৫৮৬ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ৫১ হাজার ২৬৩ টাকা নির্ধারিত হয়। এ দামেই বর্তমানে বাংলাদেশে স্বর্ণ বিক্রি হচ্ছে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর