পেগাসাস স্পাইওয়্যার: গুপ্তচর যখন পকেটে

অনলাইন ডেস্ক

পকেটে এখন গুপ্তচর ঢোকাতে বেশি কিছুর প্রয়োজন নেই। একটা স্মার্ট ফোন, একটি ম্যাসেজ এবং একটি ক্লিকই যথেষ্ট। এসবের মাধ্যমেই নিজের ব্যক্তিগত অডিও, ভিডিও, ছবি সব পৌঁছে যাবে গুপ্তচরদের কাছে।

সম্প্রতি এই ডিজিটাল গুপ্তচর নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। কারণ ইসরায়েলি সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান-পেগাসাস স্পাইওয়্যার নামের এক সফটওয়্যার বিশ্বের অন্তত ৫০ হাজার ফোন নম্বর হ্যাক করেছে। 

আরও পড়ুন:


করোনায় জাবি অধ্যাপকের মৃত্যু

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত


একটি আন্তর্জাতিক কনসোর্টিয়ামের অনুসন্ধানে এমন তথ্যই এসেছে। এই প্রতিষ্ঠানটির দাবি, পেগাসাস স্পাইওয়ারের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে লাখ লাখ মানুষ নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পারছে। কারণ সেগুলো বিশ্বজুড়ে গোয়েন্দা সংস্থা ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে অপরাধ, সন্ত্রাসবাদ ও শিশু যৌন নিপীড়ক চক্রকে প্রতিরোধ বিষয়ে তাদের অনুসন্ধানে সাহায্য করছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

স্ত্রীর ২২তম জন্মদিনের উপহার ৬ কোটি টাকার গাড়ি!

অনলাইন ডেস্ক

স্ত্রীর ২২তম জন্মদিনের উপহার ৬ কোটি টাকার গাড়ি!

ভালোবাসার নিদর্শনস্বরূপ দামি উপহার আদানপ্রদান বেশ প্রচলিত একটি পদ্ধতি। স্ত্রীর ২২তম জন্মদিনে তাই ছয় কোটি টাকার 'রোলস রয়েস' উপহার দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের পাশাপাশি সংবাদমাধ্যমেরও নজর কেড়েছেন এক ভারতীয় স্বামী। 

দুবাই ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দুবাইয়ে বসবাসকারী ভারতীয় ব্যবসায়ী আমজাদ সিতারা বিসিসি গ্রুপের সিইও। তার স্ত্রী মারজানার জন্মদিনে ছয় কোটি টাকা দামের একটি ‘রোলস রয়েস’ গাড়ি উপহার দেন তিনি। উপহার দেওয়ার সময়ে ভিডিও ধারণ করা হয়। পরে আমজাদ ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করলে তা ভাইরাল হয়।

খালিজ টাইমসকে মারজানা বলেন, আমাদের সন্তানের বয়স মাত্র একমাস। আমার কোন ধারণাই ছিল না সে আমাকে এই গাড়িটা উপহার দেয়ার চিন্তা করছে। এটা অনেক বড় একটা সারপ্রাইজ ছিল। আমি গাড়ি খুবই ভালোবাসি, আর এটা ছিল আমার স্বপ্নের গাড়ি। এর আগেই সে (সিতারা) আমাকে একটা মার্সিডিজ ই-ক্লাস উপহার দিয়েছিল।

আরও পড়ুন:

মেয়াদ-বেতন দুটোই বাড়ছে টাইগার কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর

পরের দুই ম্যাচ জিতলেও মূল পর্ব অনিশ্চিত টাইগারদের

নবীর ভবিষ্যদ্বাণী, বৃষ্টির মতো বিপদ নেমে আসবে

ডেলিভারি বয় থেকে বিশ্বকাপে অঘটনের নায়ক


প্রসঙ্গত, ২০২০ সালে ৪ জানুয়ারি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। স্ত্রীর জন্মদিনের পাশাপাশি এ বছর ছিল তাদের প্রথম বিবাহবার্ষিকী। করোনা মহামারির কারণে এবার তারা বিবাহবার্ষিকী উদযাপন করতে না পারলেও স্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে চমক দিতে ভুলেননি এই ভারতীয় ধনকুবের।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

লাফিয়ে বাড়ছে ডলারের দাম

অনলাইন ডেস্ক

লাফিয়ে বাড়ছে ডলারের দাম

রপ্তানি আয়ে ধীরগতি ও প্রবাসী আয়ের নিম্নমুখী প্রবণতার মধ্যে বিভিন্ন পণ্যের আমদানি চাহিদা বাড়ায় ব্যাংকগুলোতে মার্কিন ডলারের সংকট দেখা দিয়েছে। ঘাটতি মেটাতে তারা কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে মার্কিন ডলার কিনছে। এ কারণে প্রায় প্রতিদিনই বাড়ছে ডলারের দাম। বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাণিজ্যিক ব্যাংক সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, গত রবিবার ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমেছে প্রায় পাঁচ পয়সা। অর্থাৎ ডলারের দাম বেড়েছে। গতকাল সোমবার আন্ত ব্যাংক মুদ্রাবাজারে প্রতি ডলার বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকা ৬৫ পয়সায়। এর প্রভাব পড়েছে খোলাবাজারেও। খোলাবাজারে প্রতি ডলার কিনতে এখন খরচ হচ্ছে প্রায় ৮৯ টাকা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যানুযায়ী, গত ৫ আগস্ট আন্ত ব্যাংক মুদ্রাবাজারে প্রতি ডলার ৮৪ টাকা ৮০ পয়সায় বিক্রি হয়। ওই মাসে খোলাবাজারে ডলার বিক্রি হয়েছে ৮৭ টাকা ৪০ পয়সা থেকে ৮৭ টাকা ৫০ পয়সায়। আড়াই মাসেরও কম সময়ে ডলারের বিপরীতে টাকা ৮৫ পয়সা দর হারিয়েছে। আর খোলাবাজারে কমেছে প্রায় দেড় টাকা।

ডলারের দাম নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখতে বাজারে ডলার বিক্রি বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। চলতি অক্টোবর মাসের প্রথম ১৩ দিনে বিক্রি করা হয়েছে প্রায় ৩৫ কোটি ডলার। এটি আগস্ট মাসের পুরো সময়ের চেয়ে চার কোটি ডলার বেশি। সব মিলে গত আড়াই মাসে প্রায় ১২৯ কোটি ডলার বিক্রি করা হয়েছে। দেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ১১ হাজার কোটি টাকা।

সাধারণত ডলারের দাম বাড়লে প্রবাসী ও রপ্তানিকারকরা লাভবান হন। আর ক্ষতিগ্রস্ত হন আমদানিকারক ও সাধারণ মানুষ। কারণ ডলারের দাম বাড়লে পণ্যমূল্যও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘ব্যবসা-বাণিজ্য স্বাভাবিক হওয়ায় এখন আমদানি বেশ বাড়ছে। আবার বিলম্বে পরিশোধ শর্তে যেসব পণ্য আমদানি করা হয়েছিল, সেগুলোও পরিশোধ করতে হচ্ছে। করোনার টিকা আমদানির অর্থও পরিশোধ করতে হচ্ছে। সব মিলিয়ে ডলারের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় দামও বাড়ছে।’ তবে সংকট সামাল দিতে বাজারে প্রয়োজনীয় ডলার সরবরাহ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

করোনা পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ার পর দেশে আমদানির গতি বাড়ছে। মূলধনী যন্ত্রপাতি, শিল্পের কাঁচামাল, শিল্পের মধ্যবর্তী পণ্য, খাদ্যপণ্য, জ্বালানি তেলসহ সব পণ্যের আমদানিই এখন বেশ ঊর্ধ্বমুখী।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে (জুলাই-আগস্ট) এক হাজার ৭৬ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি করা হয়েছে। এই অঙ্ক গত অর্থবছরের (২০২০-২১) একই সময়ের চেয়ে ৪৫.৩১ শতাংশ বেশি। অন্যদিকে একই সময়ে এক হাজার ২১৩ কোটি ডলারের বিভিন্ন পণ্য আমদানির ঋণপত্র (এলসি) খোলা হয়েছে। এই অংশ গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪৮.৬০ শতাংশ বেশি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) বলেন, বাজারের সরবরাহের চেয়ে ডলারের ঘাটতি রয়েছে। বেশির ভাগ ব্যাংকেই চলছে ডলারের সংকট। এর কারণ রপ্তানি আয়ের ধীরগতি ও প্রবাসী আয় কমে যাওয়া। কিন্তু আমদানি বাড়ছে বেশ গতিতে। তিনি আরো বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংক খুব প্রয়োজন ছাড়া কোনো ব্যাংকের কাছে ডলার বিক্রি করছে না।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, গত জুন থেকে প্রবাসী আয় কমছে। সেপ্টেম্বর মাসে দেশে যে পরিমাণ প্রবাসী আয় এসেছে, তা আগের মাসের চেয়ে প্রায় সাড়ে ৪ শতাংশ এবং গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে প্রায় ২০ শতাংশ কম। এ ছাড়া চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাসের হিসাবে প্রবাসী আয়ের প্রবাহ কমেছে প্রায় সাড়ে ১৯ শতাংশ। আর চলতি অক্টোবর মাসের প্রথম ১৪ দিনে দেশে এসেছে মাত্র ৮৮ কোটি ডলার।

অন্যদিকে চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে রপ্তানি আয় বেড়েছে মাত্র ১১.৩৭ শতাংশ।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে দেশে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে একই জায়গায় ‘স্থির ছিল ডলারের দর। গত ৫ আগস্ট থেকে টাকার বিপরীতে ডলারের দাম বাড়তে শুরু করে। এখন প্রায় প্রতিদিনই বাড়ছে দাম।

আরও পড়ুন


যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল মারা গেছেন

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ, আরও দুদিন বৃষ্টির সম্ভাবনা

চিকিৎসকের আত্মহত্যা, লাশের পাশে পড়ে থাকা চিঠিতে যা লেখা ছিল

আরেক দফায় বেড়েছে ভোজ্য তেলের দাম, সয়াবিন লিটার প্রতি ১৬০ টাকা


বাজার স্থিতিশীল রাখতে গত আগস্ট মাসে রেকর্ড পরিমাণ ডলার বিক্রি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই মাসে ৬৪ কোটি ১০ লাখ ডলার বিক্রি করা হয়। তবে সেপ্টেম্বর মাসে বিক্রির পরিমাণ কিছুটা কমে হয় ৩০ কোটি ৫০ লাখ ডলার। আর অক্টোবর মাসের প্রথম ১৩ দিনে বিক্রি করা হয়েছে ৩৪ কোটি ৭০ লাখ ডলার। সব মিলে চলতি অর্থবছরের আগস্ট থেকে ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত ১২৯ কোটি ৩০ লাখ ডলার বিক্রি করা হয়েছে। অথচ চাহিদা না থাকায় চলতি অর্থবছরের প্রথম মাসেও কোনো ডলার বিক্রি করতে হয়নি বাংলাদেশ ব্যাংককে। উল্টো জুলাইয়েও ব্যাংকগুলো থেকে ২০ কোটি ৫০ লাখ ডলার কিনেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। গত অর্থবছরে প্রায় ৮০০ কোটি ডলার কেনা হয়েছিল।

নিয়ম অনুযায়ী, ব্যাংকগুলো চাইলেও বাড়তি ডলার নিজেদের কাছে রাখতে পারে না। বাংলাদেশ ব্যাংকের নীতিমালা অনুযায়ী, একটি ব্যাংক তার মূলধনের ১৫ শতাংশের সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা নিজেদের কাছে রাখতে পারে। এর অতিরিক্ত হলেই তাকে বাজারে ডলার বিক্রি করতে হবে।

সূত্র: কালের কণ্ঠ 

 

পরবর্তী খবর

যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল মারা গেছেন

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল মারা গেছেন

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল মারা গেছেন। কোভিড পরবর্তী জটিলতায় ৮৪ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সাবেক এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় সোমবার (১৮ অক্টোবর) পাওয়েলের পরিবারের এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করে। 

কলিন পাওয়েল ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বিশ শতকের শেষ দিকে ও একুশ শতকের প্রথম ভাগে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রনীতি নির্ধারণে ভূমিকা ছিল তাঁর। কলিন পাওয়েল আমেরিকান সেনাবাহিনীর হয়ে ভিয়েতনাম যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। উপসাগরীয় যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন জোটের বিজয়ের পর যুক্তরাষ্ট্রে জনপ্রিয়তা বাড়ে তার।

আরও পড়ুন


বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ, আরও দুদিন বৃষ্টির সম্ভাবনা

চিকিৎসকের আত্মহত্যা, লাশের পাশে পড়ে থাকা চিঠিতে যা লেখা ছিল

আরেক দফায় বেড়েছে ভোজ্য তেলের দাম, সয়াবিন লিটার প্রতি ১৬০ টাকা

বঙ্গবন্ধুর ছোট ছেলে শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন আজ


 ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের সরকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন প্রয়াত এই সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

news24bd.tv রিমু  

পরবর্তী খবর

২০ বছর আগের মামলায় রাম রহিম সিং এর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

২০ বছর আগের মামলায় রাম রহিম সিং এর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

২০ বছর আগের মামলায় ভারতীয় কথিত ধর্মগুরু রাম রহিম সিংকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। ২০০২ সালের একটি হত্যা মামলায় তাকে এ সাজা দেওয়া হয়। খবর টাইমস অফ ইন্ডিয়ার।

প্রতিবেদনে টাইমস অফ ইন্ডিয়া জানায়, রাম রহিম ছাড়াও এই মামলায় তার চার সহযোগীকেও যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। এছাড়া রাম রহিমকে ৩১ লাখ রুপি জরিমানা এবং তার সহযোগীদের ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

রাম রহিমের আশ্রমের ব্যবস্থাপক ও তার অনুসারী ছিলেন রঞ্জিত সিং। ২০০২ সালে রঞ্জিতকে গুলি করে হত্যা করেন রাম রহিম। মূলত রাম রহিম কীভাবে নারীদের অসহায়ত্বের সুযোগ নেন, সে সময় এমন একটি চিঠি ছড়িয়ে পড়ে। চিঠিটি রঞ্জিত লিখেছেন সন্দেহে তাকে হত্যা করেন তিনি।

আরও পড়ুন:

মেয়াদ-বেতন দুটোই বাড়ছে টাইগার কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর

পরের দুই ম্যাচ জিতলেও মূল পর্ব অনিশ্চিত টাইগারদের

নবীর ভবিষ্যদ্বাণী, বৃষ্টির মতো বিপদ নেমে আসবে

ডেলিভারি বয় থেকে বিশ্বকাপে অঘটনের নায়ক


প্রসঙ্গত, ২০১৭ সাল থেকে কারাগারে বন্দি রয়েছেন কথিত ধর্মগুরু রাম রহিম সিং। দুই অনুসারিকে ধর্ষণের অপরাধে ২০ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি এক সাংবাদিক হত্যার ঘটনাতেও যাবজ্জীবন দেয়া হয়েছে ৫৪ বছর বয়সী রাম রহিমকে।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

নিজ পরিবারের নাতিসহ ৭ জনকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারলেন বাবা!

অনলাইন ডেস্ক

নিজ পরিবারের নাতিসহ ৭ জনকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারলেন বাবা!

পরিবারের অমতে বিয়ে করার জন্য দুই মেয়ে ও এক জামাই  এবং চার সন্তানকে পুড়িয়ে মারলো স্বয়ং বাবা। এমনই  অভিযোগ উঠেছে বাবার বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকেই পলাতক আছেন অভিযুক্ত ওই বাবা মনজুর হোসাইন। নিহতরা হলেন, ফৌজিয়া বিবি (১৯), তার ৪ মাস বয়সী সদ্যজাত আহমদ, খুরশিদা বিবি, তার স্বামী মোহাম্মদ ফারুক এবং তাদের শিশুসন্তান সরফরাজ, ইয়াকুব ও শাহনেওয়াজ।

পাকিস্তানি দৈনিক ডন এক প্রতিবেদনে এমন কথা জানিয়েছে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাতে পাকিস্তানের পাঞ্জাবে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটে।  বাড়ির বাকি সদস্যদের মৃত্যু হলেও প্রাণে বেঁচে যান ফৌজিয়ার স্বামী মেহবুব। উক্ত ঘটনায় ফৌজিয়ার বাবা মনজুর হোসাইন ও তার বড়ছেলে সাবির হোসাইন বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ফৌজিয়ার স্বামী মেহবুব দৈনিক ডনকে জানান, ঘটনার সময় তিনি বাইরে ছিলেন। কাজ শেষে সকালে বাড়ি ফিরে আগুন দেখতে পান।

আরও পড়ুন:


ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি’র পদোন্নতি


 

জানা যায়, মুজাফফরগড়ের পীর জাহানিয়ান এলাকায় একই বাড়িতে স্বামী-সন্তানসহ থাকতেন দুই বোন ফৌজিয়া বিবি ও খুরশিদা বিবি। ১৫ মাস আগে ফৌজিয়া ভালোবেসে বিয়ে করেন মেহবুব আহমেদকে। এই বিয়ে নিয়ে শুরু থেকেই ক্ষিপ্ত ছিলেন ফৌজিয়ার বাবা মনজুর হোসাইন।

এই কারণেই এ নৃশংস হত্যাকাণ্ড বলে পুলিশের ধারণা। এই বিষয়ে পুলিশ তদন্ত করছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর