ভিকারুননিসা স্কুলের অধ্যক্ষের ফোনালাপ ফাঁস: অধ্যক্ষ বললেন ‘এডিট করা’
ভিকারুননিসা স্কুলের অধ্যক্ষের ফোনালাপ ফাঁস: অধ্যক্ষ বললেন ‘এডিট করা’

ভিকারুননিসা স্কুলের অধ্যক্ষের ফোনালাপ ফাঁস: অধ্যক্ষ বললেন ‘এডিট করা’

অনলাইন ডেস্ক

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি ফোনালাপ ছড়িয়ে পড়েছে, যেটিকে রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহার (মুকুল) ও অভিভাবক ফোরামের নেতা মীর সাহাবুদ্দিন টিপুর মোবাইল কথোপকথনের অংশ বলে দাবি করা হচ্ছে। ওই ফোনালাপে অধ্যক্ষকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল ও হুমকি দিতে শোনা গেছে। যদিও ফাঁস হওয়া ফোনালাপকে ‘এডিট করা’ বলছেন অধ্যক্ষ কামরুন নাহার। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় চলছে।

ফোনালাপের এক পর্যায়ে অধ্যক্ষ বলেন, ‘আমি বালিশের নিচে পিস্তল রাখি। কোনো ... বাচ্চা যদি আমার পেছনে লাগে আমি কিন্তু ওর পেছনে লাগব। শুধু ভিকারুননিসা না, আমি তাকে দেশ ছাড়া করব। ’

অধ্যক্ষ ও ভিএনএসসির অভিভাবক ফোরামের নেতা মীর সাহাবুদ্দিন টিপুর মধ্যকার চার মিনিট ৩৯ সেকেন্ড ধরে চলা ওই কথোপকথন এখন আলোচনার শীর্ষে। সেই ফোনালাপে এমন কিছু অকথ্য ভাষা রয়েছে যা প্রকাশের অযোগ্য।

জানতে চাইলে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক কামরুন নাহার বলেন,গত সাত মাস আগে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক আমি এ প্রতিষ্ঠানে অধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করার পর থেকে অভিভাবক ফোরামের কয়েকজন দলবল নিয়ে এসে অনৈতিক সুবিধা দেয়ার প্রস্তাব দিয়ে আসছে। তাদের কথা না শুনলে আমি এখানে থাকতে পারবো না বলে হুমকি দেয়া হয়।

‘এ বছর প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির লটারির সময়ও ১২০ সিট খালি রয়েছে। এছাড়া কিছু শিক্ষার্থী ভর্তি হয়নি। সবমিলিয়ে প্রায় ১৫০-৬০ সিট খালি আছে। মূলত সেগুলোতে অবৈধ ভর্তি বাণিজ্য করতে অভিভাবক প্রতিনিধিরা আমাকে অনেক আগে থেকে চাপ দিচ্ছে।

আরও পড়ুন:


করোনায় জাবি অধ্যাপকের মৃত্যু

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত


 

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ আরও বলেন, ‘সম্প্রতি একাদশ শ্রেণিতে একজনকে ভর্তির জন্য অভিভাবক মীর সাহাবুদ্দিন টিপু আমাকে চাপ দিয়ে আসছিলেন। তার কাজ করে না দেয়ায় আমার সঙ্গে তার ফোনালাপ এডিট করে যোগাযোগ মাধ্যমে ছাড়া হয়েছে। ’

ফাঁস হওয়া ওই অডিও ভিএনএসসির দীর্ঘদিনের সুনাম ও ঐতিহ্যের ওপর আঘাত হেনেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রতিষ্ঠানটির গভর্নিং বোর্ডের সদস্যরা।  

তারা বলেন, অধ্যক্ষ কামরুন নাহার এ বছরের প্রথম দিন এই প্রতিষ্ঠানে যোগদান করেন। এরপর থেকে তিনি প্রতিষ্ঠানে আসেননি বললেই চলে। কেউতাকে প্রতিষ্ঠানে আসার বিষয়ে অনুরোধ করলে কামরুন নাহার সবাইকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন।

news24bd.tv/আলী

;