‘সজীব ওয়াজেদ জয়ের হাত ধরেই বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘সজীব ওয়াজেদ জয়ের হাত ধরেই বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আশা প্রকাশ করে বলেছেন, উন্নয়ন ও অর্জনের স্থপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় আসন্ন চতুর্থ শিল্পবিপ্লবে সজীব ওয়াজেদ জয়ের হাত ধরেই বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সকালে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির উদ্যোগে ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অগ্রসরমান ডিজিটাল প্রযুক্তি: পথিকৃৎ মুজিব হতে সজীব’ শীর্ষক ওয়েবিনারে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এ আশা প্রকাশ করেন।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলার আধুনিক রূপই হচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের সদস্যপদ গ্রহনের মধ্য দিয়ে প্রযুক্তিমুখী অভিযাত্রা শুরু করেন। ১৯৭৫ সালে ১৪ জুন বঙ্গবন্ধু বেতবুনিয়া ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র স্থাপনের মধ্য দিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নের যাত্রা শুরু করেছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজকের ডিজিটাল বাংলাদেশ।

সততা, নিষ্ঠা এবং দক্ষতার সাথে সজীব ওয়াজেদ জয় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবতায়নের কাজ এগিয়ে নিচ্ছেন বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

মহামারি করোনায় যখন থমকে গেছে গেটা বিশ্ব তখন একের পর এক লকডাউনে স্থবির সরকারি সেবা আর ব্যবসা-বাণিজ্য উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এখন আমরা বুঝেছি ডিজিটাল বাংলাদেশ মানে কী? করোনাকালে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ব্যবসা বাণিজ্যসহ প্রতিটি খাতে তথ্যপ্রযুক্তির যাদুকরী স্পষ্ট অনুভব করেছে বাংলাদেশ। 

তিনি বলেন করোনাজনিত ছন্দপতনের মাঝেও ডিজিটাল সেবায় দেশের জনগণ পেয়ে যাচ্ছে গতিময় সেবা।কোন কিছুই থেমে নেই,এগিয়ে চলেছে ডিজিটাল সেবার আওতায়।

সজিব ওয়াজেদ জয়কে এক নির্মোহ, নিবেদিত প্রাণ, দেশপ্রেমিক এবং স্বপ্নবান বিজ্ঞানী বলে অভিহিত করে ওবায়দুল কাদের বলেন  যাকে নিয়ে আমরা প্রতিনিয়ত গর্ববোধ করি,আর আইসিটি খাতের এ পরিবর্তনের নীরব স্থপতি সজীব ওয়াজেব জয়।

২০০৮ সালে নির্বাচনের ম্যানিফেস্টোতে যখন ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন ঘোষণা করা হয়েছিলো তখন মানুষ এ নিয়ে নানান ব্যঙ্গ করেছিলো,- জনগণ ব্যঙ্গাত্বক করে বলতো ডিজিটাল বাংলাদেশ আবার কী? এমনটা জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন আজ মাত্র একযুের ব্যবধানে এদেশের মানুষকে বুঝাতে হয় না, মানুষ উল্টো বুঝিয়ে দিচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ মানে কী?

আজকের বাংলাদেশ আর একযুগের আগের বাংলাদেশ এক নয় জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা এখন নতুন বাংলাদেশের বাসিন্দা, বদলে যাওয়া বাংলাদেশ এখন পারমানবিক ও স্যাটেলাইট  বিশ্বের সদস্য।

তিনি বলেন বদলে যাওয়া বাংলাদেশ আজ জয় করেছে অসীম সম্ভাবনার সুনীল সমুদ্রসীমা, বাংলাদেশ আজ তলাবিহীন ঝুড়ির অপবাদ ঘুচিয়ে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে।

পিতার অর্জনের ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণের সুস্পষ্ট অভিলক্ষ্যে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন আর এ লক্ষ্য অর্জনের প্রভাবক হচ্ছে ডিজিটাল প্রযুক্তি। 

প্রযুক্তির বদলে যাওয়া হাওয়া যে জাতি ধরতে পেরেছে তারাই এগিয়েছে টেকসই উন্নয়নের গতিময় পথনকশা ধরে,আর এখানেই দক্ষতার প্রমাণ দিয়েছেন ভবিষ্যত বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, যিনি ডিজিটাল বিশ্বে বাংলাদেশকে প্রতিষ্ঠা করেছেন "রোয়ারিং টাইগার " হিসেবে। 

বিএনপি শেখ হাসিনা সরকারকে নিয়ে নানান মিথ্যাচার করছে কিন্তু শেখ হাসিনার পুত্র -কন্যা নিজ নিজ যোগ্যতা  ও অধিক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জানান তাঁরা হাওয়া ভবনের মতো বিকল্প কোথাও কোন ক্ষমতা কেন্দ্র বা সরকারের কোন কাজে হস্তক্ষেপ করে বাধা সৃষ্টি করেনি যা বিএনপির শাসনামলে ছিলো নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার।

আরও পড়ুন


৩০ হাজার টাকার জন্য ৩ বন্ধু মিলে গলা কেটে হত্যা করে উজ্জলকে

অক্সিজেন পাচার নয়, নতুন কৌশলে টাকা আত্মসাৎ করত তারা

পর্নগ্রাফিকাণ্ডে আগাম জামিন নিলেন শার্লিন চোপড়া

বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির ৭৩টি সুন্ধি কচ্ছপ আটকের পর খানজাহান দিঘিতে অবমুক্ত


আওয়ামী লীগের সাধারণ আবারও  বলেন এখন কোন রাজনীতি নেই,এখন রাজনীতি হচ্ছে মানুষকে বাঁচানো এবং তাদের পাশে দাঁড়ানো। দেশের মানুষকে বাঁচাতে মানুষের সুরক্ষায় এখন দলমত নির্বিশেষে সবাইকে এগিয়ে আসারও আহবান জানান তিনি।

দেশ ও জনগণের এই সংকট বিএনপি এখনও অসহায় মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে ধান ভানতে শীবের গীত গেয়ে যাচ্ছে অবিরাম, মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বিএনপির গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের বক্তব্য প্রসঙ্গে বলেন মানুষ বেঁচে না থাকলে কাকে দিয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে বিএনপি? 

ওবায়দুল কাদের আবারও বিএনপিকে এই সংকটকালে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানান।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপকমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডক্টর হোসেন মনসুরের সভাপতিত্বে  ওয়েবিনারে আরো সংযুক্ত ছিলেন উপকমিটির সদস্য সচিব ইন্জিনিয়ার আবদুস সবুর,ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় - ডুয়েটের উপাচার্য ডক্টর হাবিবুর রহমান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর মুনাজ আহমেদ নূর। ওয়েবিনারের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর মুহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

আজ আইনজীবীদের সঙ্গে মতবিনিময় করবে বিএনপির হাইকমান্ড

অনলাইন ডেস্ক

আজ আইনজীবীদের সঙ্গে মতবিনিময় করবে বিএনপির হাইকমান্ড

চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে আইনজীবীদের সঙ্গে আজ সোমবার মতবিনিময় করবে বিএনপির হাইকমান্ড। 

সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এই মতবিনিময়সভা হবে বলে জানান বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান।

আরও পড়ুন:


হংকংয়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মেয়েদের বড় জয়

তালেবান ক্ষমতায় আসায় বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত উৎফুল্ল: কৃষিমন্ত্রী

সৌদি আরবে বাংলাদেশির মৃত্যু

দুই ডোজ টিকা নিয়েও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত


 

তিনি বলেন, সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আইনজীবীদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। সেখানে বিএনপির মহাসচিবসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

সিরাজগঞ্জ-৬ আসনের উপনির্বাচন : জয় পাওয়া সহজ হবে ড. লিটন এর

অনলাইন ডেস্ক

সিরাজগঞ্জ-৬ আসনের উপনির্বাচন :  জয় পাওয়া সহজ হবে ড. লিটন এর

সিরাজগঞ্জ-৬ (শাহজাদপুর) আসনের উপনির্বাচনে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাজ্জাদ হায়দার লিটনকে নৌকার কাণ্ডারি করা হলে সহজ জয় পাওয়া যাবে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের বহু নেতাকর্মী এবং বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির নেতা হিসেবে বিভিন্ন মহলে ড. লিটনের ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

তিনি এলাকার জনসাধারণের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখেন। শাহজাদপুরের উন্নয়নেও ড. লিটন ও তাঁর বাবার অপরিসীম অবদান রয়েছে। সব মিলিয়ে আওয়ামী লীগ থেকে ড. লিটনকে মনোনয়ন দেওয়া হলে নৌকা সহজ জয় পাবে। এমনটাই জানিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শাহজাদপুরের উন্নয়নে সাজ্জাদ হায়দার লিটনের বাবা আব্দুল মতিন মোহন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। দুগ্ধ ও তাঁত শিল্প হলো শাহজাদপুরের অর্থনীতির প্রাণ। আর এ দুইটি শিল্পেরই অগ্রযাত্রা সূচনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা মোহন। তিনি ১৯৮৩ সালে শাহজাদপুরে সরকারের চার হাজার বিঘা জমি অধিগ্রহণ করে সেখানে গো চারণভূমি প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। তিনি তিন বছর শাহজাদপুর আপগ্রেড থানা উন্নয়ন কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। দুর্দিনে শাহজাদপুরে আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করার পেছনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল আব্দুল মতিন মোহনের। তিনি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর শাহজাদপুরে আওয়ামী লীগকে সক্রিয় রেখেছিলেন। এসব কারনে শাহজাদপুরের সাধারণ খেঁটে খাওয়া মানুষদের সঙ্গে ড. লিটনের পরিবারের একটি আত্মিক সম্পর্ক রয়েছে।

পোঁতাজিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বলেন, শাহজাদপুরে ড. সাজ্জাদ হায়দার লিটন ভাইয়ের ব্যাপক জনপ্রিয়তা আছে। তিনি পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির নেতা। উনাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে অবশ্যই জয়ী হতে পারবেন। তিনি এমপি হলে শাহজাদপুরের অসমাপ্ত উন্নয়ন কর্মকাণ্ডগুলোকে সফলভাবে এগিয়ে নিতে পারবেন।

শাহজাদপুর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক রাশিদুল হায়দার বলেন, শাহজাদপুরের প্রত্যেকটা মানুষের সঙ্গে লিটন ভাইয়ের ভাল সম্পর্ক রয়েছে। তিনি সবসময় এলাকার মানুষের পাশে থাকেন। তিনিই একমাত্র যোগ্য প্রার্থী। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুসারীরা সবাই চায় লিটন ভাই মনোনয়ন পান। তাঁকে মনোনয়ন দেওয়া হলে নৌকার জয় নিশ্চিত।
শাহজাদপুরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তুহিন রেজা বলেন, ‘নেতা হিসেবে লিটন ভাই সবচেয়ে যোগ্য। উনার শিক্ষা, সাংগঠনিক অভিজ্ঞতা সবই ভাল। উনার মানুষের সেবা করার মন মানসিকতা রয়েছে। উনার বাবারও অনেক অবদান রয়েছে এ অঞ্চলের মানুষের জন্য।’

যুবলীগ নেতা মাসুক রহমান সূর্য বলেন, এলাকার মানুষের যেকোনো বিপদে আপদে পাশে দাঁড়ান লিটন ভাই। সামাজিক, সাংস্কৃতিক যেকোনো আয়োজনে তিনি সহযোগিতা করেন। তিনি সব শ্রেণি পেশার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন। ফলে অন্য যেকোনো প্রার্থীর চেয়ে ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তাই লিটন ভাই এগিয়ে আছেন।

জানতে চাইলে সাজ্জাদ হায়দার লিটন বলেন, ‘পোঁতাজিয়া ইউনিয়নে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে আমি সক্রিয় ভূমিকা রেখেছি। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরদের জমিদারীর এলাকার মধ্যে থেকেই ৩শ বিঘা জমিতে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য আমি সংশ্লিষ্ট মহলকে বারংবার পরামর্শ দিয়েছি। এরই প্রেক্ষিতে কবিগুরুর জমিতেই রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন হয়।’

তিনি বলেন, প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে আমরা মানুষের সেবা করে যাচ্ছি। শাহজাদপুরের উন্নয়নে আমার বাবা অপরিসীম ভূমিকা রেখেছেন। আমিও দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় নানা উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছি। আমি মনে করি, আমাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে এবং আমি নির্বাচিত হলে জনসাধারণকে সঙ্গে নিয়ে শাহজাদপুরকে উন্নয়নের মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে পারব।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

বিএনপির সিরিজ বৈঠক সিরিজ ষড়যন্ত্রের অংশ: কাদের

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপির সিরিজ বৈঠক সিরিজ ষড়যন্ত্রের অংশ: কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির সিরিজ বৈঠক সিরিজ ষড়যন্ত্রের অংশ। আবারও বোধহয় জ্বালাও-পোড়াওয়ের ষড়যন্ত্র হচ্ছে। বোধ হয় আবারও সেই ধরণের কোনো দুরভিসন্ধি আছে। 

তিনি বলেন, বিএনপি যদি সহিংসতা করে দেশে কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়, শেখ হাসিনার উন্নয়ন ব্যাহত করতে চায়। তবে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দাঁতভাঙা জবাব দিতে আমরাও প্রস্তুত।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আজ দলের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির আবারও যদি সেই জ্বালাও-পোড়াওয়ের দুরভিসন্ধি থাকে তাহলে আওয়ামী লীগ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দাঁতভাঙা জবাব দিতে প্রস্তুত আছে।

‘প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে কোনো অর্জন নেই’- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ফখরুল সাহেব কোনো খবর রাখেন না, নিউ ইয়র্ক টাইমস আপনি পড়েননি। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের বক্তব্যসহ প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যেকটি বক্তব্য প্রশংসিত হয়েছে বিশ্ব নেতাদের কাছে। 

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনার ভ্যাকসিন বৈষম্য দূর করতে বলেছেন। সবার জন্য ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে বলেছেন। ফখরুল সাহেব এটা কি আপনি শোনেনি, নিউইয়র্ক টাইমস কি দেখেছেন? বলা হয়েছে- দারিদ্র দূর করার কথা বললে বাংলাদেশের দিকে তাকান, শেখ হাসিনার উন্নয়নের দিকে তাকান।

আরও পড়ুন:


বিমানবন্দরে শুরু আরটি-পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম

নির্মাণশৈলী ও রাতে নৈসর্গিক দৃশ্য দেখতে পায়রা সেতুতে পর্যটকদের ভিড়

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

জাপার ফিরোজ রশীদের বিরুদ্ধে সম্পত্তি দখলের অভিযোগ, হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত


ওবায়দুল কাদের বলেন, রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে নামি দামি দেশগুলো আমাদের জন্য কিছু করেনি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একথা সাহসের সঙ্গে তার বক্তব্যে বলেছেন। জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকায় বাংলাদেশ আরও এক ধাপ উঁচুতে উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও উচুতে উঠেছেন। আর আপনারা, বিএনপি আরও এক ধাপ নীচে নেমে গেছে। 

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

শেখ হাসিনা উন্নয়নের রাজনীতি করেন: শিল্পমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

শেখ হাসিনা উন্নয়নের রাজনীতি করেন: শিল্পমন্ত্রী

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন (এমপি) বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের রাজনীতি করেন। অসাম্প্রদায়িক রাজনীতি করেন। 

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত একটি প্রগতিশীল, গণতান্ত্রিক, আধুনিক ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

আজ দুপুরে নরসিংদীর মনোহরদী ডাকবাংলোতে মনোহরদী হিন্দুপাড়া সার্বজনীন দুর্গাবাড়ি মন্দির নির্মাণে শিল্পমন্ত্রীর অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার সবসময় অসাম্প্রদায়িক রাজনীতিতে বিশ্বাসী। প্রতিটি সম্প্রদায়ের মানুষের কল্যাণে সরকার সমানভাবে কাজ করছে। সরকার দেশে হাজার বছরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর।

আরও পড়ুন:


বিমানবন্দরে শুরু আরটি-পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম

নির্মাণশৈলী ও রাতে নৈসর্গিক দৃশ্য দেখতে পায়রা সেতুতে পর্যটকদের ভিড়

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

জাপার ফিরোজ রশীদের বিরুদ্ধে সম্পত্তি দখলের অভিযোগ, হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত


মনোহরদী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এস এম কাশেমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে নরসিংদী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মতিন ভূইয়া, নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শিবপুর-মনোহরদী সার্কেল) মেসবাহ উদ্দিন, মনোহরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াশিষ রায়, মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিচুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরে শিল্পমন্ত্রী মনোহরদী হিন্দুপাড়া সার্বজনীন দুর্গাবাড়ি মন্দির নির্মাণে ৫ লাখ টাকা অনুদান মন্দির কমিটির কাছে হস্তান্তর করেন। এর আগেও, শিল্পমন্ত্রী মন্দির নির্মাণে ৫ লাখ টাকা দিয়েছিলেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

জিয়ার মরণোক্তর বিচার করা হবে : তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান

অনলাইন ডেস্ক

জিয়ার মরণোক্তর বিচার করা হবে : তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনের মাস্টারমাইন্ড বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান, এমন মন্তব্য করে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, জিয়ার মরণোক্তর বিচার কার্যকর করা হবে।

কানাডা আওয়ামী লীগের আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে গতকাল শনিবার এ বক্তব্য দেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বিশ্বের নিপীড়িত ও বঞ্চিত মানুষের অনুপ্রেরণা ছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি বাঙালি জাতির হাজার বছরের পরাধীনতার গ্লানি দূর করেছেন। একটি স্বকীয় জাতিসত্তার পরিচয় দিয়েছেন, একটি মানচিত্র, একটা পতাকা ও একটি পাসপোর্ট দিয়েছেন।

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পরবর্তী সময়ে ১৯৭৫ সালের আগস্ট ১৫ আগস্ট ভোরে নৃশংসভাবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করে ঘাতক। খুব অল্প সময়ের মধ্যে বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারের ১৮ জনকে এই পৃথীবি থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে ঘাতকরা বাঙালির ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও অগ্রযাত্রাকে স্তব্দ করার অপপ্রয়াস চালায়। ঘাতকদের উদ্দেশ্যই ছিল অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক বাংলাদেশের রাষ্ট্রকাঠামাকে ভেঙে আমাদের কষ্টার্জিত স্বাধীনতাকে ভূলুণ্ঠিত করা। যে মহান নেতা নিজের জীবন বাজি রেখে, মানুষের ন্যায় অধিকার আদায়ে আন্দোলন করতে দিয়ে বার বার কারাগারে গিয়েছেন। সেই মহান নেতার হত্যাকারীদের বিচারের রায় কার্যকর করবই।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু বিএনপি সেই উন্নয়ন দেখতে পায় না।


আরও পড়ুন

২০ বছর ধরে ৫ জনকে খুন!

করোনায় আক্রান্ত রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের শিক্ষার্থী


প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, জিয়াউর রহমানের পরিবার বাংলাদেশের পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রেও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত। জিয়াউর রহমানের দুই ছেলের দুর্নীতির তথ্য পাওয়া গেছে। তারা দেশ থেকে অর্থ পাচারের মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছে।

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কানাডা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মাহমুদ মিয়া, বাংলাদেশ হাই কমিশন কানাডার রাষ্ট্রদূত ডা. খলিলুর রহমান প্রমুখ।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর