বিশ্বে তীব্র তাপ ও শৈত্যপ্রবাহে বাড়ছে মৃত্যু

নাহিদ জিহান

পৃথিবীর কোথাও শরীর ঝলসে দেয়ার মতো তাপমাত্রা, আবার কোথাও হাড় হিম করার মতো ঠান্ডা। দুই ধরনের ঘটনাই বাড়ছে দিনকে দিন। 

বাড়ছে তীব্র তাপপ্রবাহ ও শৈত্যপ্রবাহে ম়ৃতের সংখ্যা। আবহাওয়ার এমন তীব্র প্রতিকূলতার পেছনে জলবায়ুর প্রভাব স্পষ্ট। সম্প্রতি ল্যানসেট প্ল্যানেটারি হেল্থ প্রকাশিত গবেষণাপত্রে দেখা গেছে, বৈরি আবহাওয়ার কারণে মানুষের মৃত্যু বেড়েছে ৯ দশমিক ৪ শতাংশ। 

প্রতিবছর বিশ্বের নানা প্রান্তে বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, তুষারপাত কিংবা তীব্র দাবদাহ মানুষকে মোকাবেলা করতে হয়। কিন্তু এসব প্রাকৃতিক দুর্যোগ ক্রমেই এর স্বাভাবিক সীমা হারিয়ে ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। 

শীতের সঙ্গে গরমের তীব্রতা বেড়েছে অনেকখানি। চলতি বছরই পূর্বের সব রেকর্ড ভেঙে শীতপ্রধান দেশ কানাডায় তাপমাত্রা উঠেছে ৫০ ডিগ্রীতে। মারা গেছে প্রায় পাঁচশো জন। অন্যদিকে নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চল ভারতে তীব্র শৈত্র্যপ্রবাহে প্রতিবছর প্রাণ হারায় শতাধিক মানুষ।  

বিশ্বে প্রতি বছর তীব্র তাপপ্রবাহ ও শৈত্যপ্রবাহে মৃতের সংখ্যা গড়ে প্রায় ৫০ লাখ। আন্তর্জাতিক চিকিৎসা গবেষণা পত্রিকা ‘ল্যানসেট প্ল্যানেটারি হেল্থ’-এ প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক উষ্ণতার কারণে গেলো ২০ বছরে শৈত্যপ্রবাহ অনেকটা কমে এসেছে। তবে বেড়েছে তীব্র তাপপ্রবাহ। আর এতে মৃতের সংখ্যাও বাড়ছে উদ্বেগজনকভাবে।

আরও পড়ুন:


এবার তিউনিসিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে বহিষ্কার করলেন প্রেসিডেন্ট

মাহফুজ আনামের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে সম্পাদক পরিষদ থেকে নঈম নিজামের পদত্যাগ

গ্রামীণফোনকে হু্মায়ূন পরিবারের আইনি নোটিশ


গবেষকরা জানিয়েছেন, বিশ্বে প্রতিবছর যত মানুষের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়, তাঁদের ৯.৪ শতাংশই শিকার হচ্ছেন তীব্র তাপপ্রবাহ ও শৈত্যপ্রবাহের। অর্থাৎ বলা চলে, প্রতি ১ লাখ মানুষের মধ্যে তীব্র ঠান্ডা ও গরমে মৃতের সংখ্যা আগের ২০ বছরের নিরিখে গড়ে ৭৪ জন করে বাড়ছে। ভয়াবহ এই আবহাওয়ার কারণে শুধু মানুষই নয়, সমুদ্রের একশ কোটির বেশি প্রাণীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন সামুদ্রিক জীববিজ্ঞানীরা।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

এক বছরের মধ্যে করোনা ভাইরাস মহামারি শেষ হবে: ব্যানসেল

অনলাইন ডেস্ক

এক বছরের মধ্যে করোনা ভাইরাস মহামারি শেষ হবে: ব্যানসেল

যুক্তরাষ্ট্রের টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান মডার্নার সিইও স্টেফানস ব্যানসেল ধরণা করে বলেছেন, আগামী এক বছরের মধ্যে করোনা ভাইরাস মহামারি শেষ হবে।

তিনি যুক্তি উল্লেখ করে বলেন, করোনার টিকার উৎপাদন ও সরবরাহ বৃদ্ধি। সুইজারল্যান্ডের একটি পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেছেন।

ব্যানসেল বলেছেন, গত ছয় মাসে টিকা উৎপাদন–সক্ষমতা বৃদ্ধির দিকে তাকালে দেখা যাবে, আগামী বছরের মাঝামাঝিতে পর্যাপ্ত পরিমাণ করোনার টিকা সহজলভ্য থাকবে। তাতে বিশ্বের প্রত্যেককে টিকা দেওয়া সম্ভব হবে। প্রয়োজনে বুস্টার ডোজও দেওয়া সম্ভব হবে। খবর রয়টার্সের।

তিনি আরও বলেন, নবজাতকদের জন্যও ‘শিগগিরই’ টিকাদান কর্মসূচি চালু করা সম্ভব হবে।

আরও পড়ুন:


অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


ব্যানসেল বলেন, ‘যারা টিকা পাবেন না, তাদেরও প্রাকৃতিকভাবে রোগ প্রতিরোধক্ষমতা গড়ে উঠবে। কারণ, করোনার ডেলটা ধরন অত্যন্ত সংক্রামক। আর এভাবেই আমরা করোনা মহামারিকে সাধারণ ফ্লু পর্যায়ে নামিয়ে আনতে সক্ষম হব। হয় আপনি টিকা নিয়ে ভালোভাবে শীতকাল পার করবেন, নাহয় আপনি অসুস্থ হবেন এবং শেষ পর্যন্ত হাসপাতালে যেতে হবে।’

এর অর্থ কি আগামী বছরের মাঝামাঝিতে স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরা যাবে—এ প্রশ্নের জবাবে ব্যানসেল বলেছেন, ‘আজকে থেকে এক বছরের মধ্যে আমরা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরব বলে আমি মনে করি।’

মডার্নার সিইও আরও বলেন, সরকারের তরফ থেকে বুস্টার ডোজের অনুমোদন দেওয়া হবে বলে তিনি প্রত্যাশা করছেন। কারণ, গত শরৎকালে যারা টিকা দিয়েছেন, তারা এখন ঝুঁকির মুখে পড়তে পারেন। তাই তাদের নতুন ডোজ দরকার।

ব্যানসেল বলেন, আমরা এখন করোনার ডেলটা ধরন প্রতিরোধ করতে পারে, এমন টিকার পরীক্ষা চালাচ্ছি। আগামী বছর তা বুস্টার ডোজে রূপ নেবে। এ ছাড়া আমরা ডেলটা প্লাস ও বিটা সংস্করণ নিয়েও কাজ করছি।

মডার্না জানিয়েছে, বর্তমান উৎপাদন পদ্ধতিতেই করোনার নতুন ধরনের জন্য টিকা তৈরি করা যাবে। এতে করোনার টিকার দাম একই থাকবে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

মাদাগাস্কারে গরু চুরি নিয়ে সংঘর্ষে ৪৬ জন নিহত

অনলাইন ডেস্ক

মাদাগাস্কারে গরু চুরি নিয়ে সংঘর্ষে ৪৬ জন নিহত

গরু চুরিকে কেন্দ্র করে আফ্রিকার দেশ মাদাগাস্কারে গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৪৬ জন নিহত হয়েছে। দেশটির দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। খবর বিবিসির।

গরু চুরির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দুটি গ্রামে ১২০ জনের মতো সশস্ত্র ব্যক্তি হামলা চালায়। এসময় পাল্টা হামলা চালায় স্থানীয়রা। দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত হয় অন্তত ৪৬ জন। 

প্রায়ই গরু চুরি করাকে কেন্দ্র করে এ অঞ্চলের গ্রামবাসীর মধ্যে এমন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

রও পড়ুন:

প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী!

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

সংসার ভাঙার খুশিতে ডিভোর্স পার্টি!


এ ব্যাপারে দেশটির মানবাধিকার কমিশন বলছে, তারা হামলার ঘটনার স্বাধীন তদন্ত করবে। স্থানীয়দের নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করার কথাও জানিয়েছে কমিশন।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

যুবতীকে ধর্ষণ শেষে গাড়ি থেকে ফেলে দেয় উবার চালক!

অনলাইন ডেস্ক

যুবতীকে ধর্ষণ শেষে গাড়ি থেকে ফেলে দেয় উবার চালক!

এক নারী তার বন্ধুর বাড়ি থেকে নিজের বাড়ি ফিরছিলেন ভোর রাতে। কিন্তু এত রাতে বাড়ি ফেরার সময়ে ওই নারী যাত্রীকে একা পেয়ে গাড়ির ভেতরেই ধর্ষণের অভিযোগ এক উবার চালকের বিরুদ্ধে।

অভিযোগের সূত্রে জানা যায়, এইচএসআর লেআউট থেকে মুরুগেশ পাল্যা ফেরার জন্য উবার ভাড়া করেছিলেন তিনি। গন্তব্যে পৌঁছনোর আগে গাড়ির দরজা বন্ধ করে দিয়ে তার ওপর অত্যাচার চালায় উবার চালক। পরে তাকে গাড়ি থেকে ফেলে দেওয়া হয়।

অভিযুক্ত চালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এমন খবর দিয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

আরও পড়ুন:

অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


 

বেঙ্গালুরুর অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মুরুগান গণমাধ্যমকে বলেছেন, নির্যাতিত ওই নারীর বাড়ি ঝাড়খণ্ডে। বেশ কয়েক বছর ধরেই বেঙ্গালুরুতে বসবাসের পাশাপাশি সেখানকার একটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরি করেন তিনি। অভিযুক্ত উবার চালকের বাড়ি দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য অন্ধ্রপ্রদেশে। গত দু’বছর ধরে তিনি বেঙ্গালুরু শহরে উবার চালক হিসেবে কাজ করছিলেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

সংসার ভাঙার খুশিতে ডিভোর্স পার্টি!

অনলাইন ডেস্ক

সংসার ভাঙার খুশিতে ডিভোর্স পার্টি!

অদ্ভুত এই বিশ্বের নানা প্রান্তে প্রতিদিন কতই না বিচিত্র সব ঘটনা ঘটে। এমনই এক বিচিত্র ঘটনা হলো ডিভোর্সের খুশিতে পার্টির আয়োজন। যুক্তরাষ্ট্রের এক নারী বিয়ে থেকে মুক্তি পাওয়ার খুশিতে ডিভোর্স পার্টি দিয়েছেন। আর এতেই তিনি ইতি টেনেছেন ১৭ বছর পর বিবাহিত জীবনের।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম মিরর বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা সোনিয়া গুপ্ত নামে ৪৫ বছর বয়সী ওই নারী নিজের বিবাহিত জীবনের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি উপলক্ষে ডিভোর্স পার্টিতে মজেছেন। সেখানে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদের।

এক ছবিতে দেখা যায় দুই সন্তানের জননী ওই নারী ঝলমলে রঙিন পোশাকের ওপর লিখেছেন ’ফাইনালি ডিভোর্স।’পার্টিতে আগত অতিথিদের ঝলমলে ও উজ্জ্বল পোশাক পরে আসতে বলেছেন সোনিয়া।

তিনি নিজেকে একজন খোলামনের মানুষ হিসেবে অভিহিত করেছেন। কিন্তু তার স্বামী ছিলেন পুরোপুরি তার বিপরীত।

২০০৩ সালে ভারতে বিয়ে হয় সোনিয়ায়। বিয়ের পরই তিনি অনুধাবন করেন, তার বিবাহিত জীবন সুখের নয়। এরপর বহু বছর ধরে বিয়ে টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করেন তিনি। অবশেষে তিনি চূড়ান্ত বিচ্ছেদের পথেই হেঁটেছেন। শুধু ডিভোর্স দিয়েই থামেননি তিনি। তাইতো খুশিতে দিয়েছেন ডিভোর্স পার্টি।

পরবর্তী খবর

বিশ্বে প্রতি বছর শুধু বায়ুদূষণেই অকাল মৃত্যু হচ্ছে ৭০ লাখ মানুষের

আসমা তুলি

বিশ্বে প্রতি বছর শুধু বায়ুদূষণেই ৭০ লাখ মানুষের অকালমৃত্যু হচ্ছে। ১৬ বছর পর বুধবার এয়ার কোয়ালিটি গাইডলাইনস –একিউজিএস প্রকাশ করে এই তথ্য জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সেইসঙ্গে সব দেশের প্রতি একিউজিএসের নির্দেশিকা মানার আহ্বান জানিয়েছেন সংস্থার মহাপরিচালক টেড্রস আধানম গেব্রিয়েসাস।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-সবশেষ একিউজিএস প্রকাশ করে ২০০৫ সালে। এরপর ১৬ বছর ধরে সংগ্রহ করা তথ্য–উপাত্ত পর্যালোচনা বলছে, অবিলম্বে বায়ুদূষণ প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া জরুরি। এ সংকট নিরসনে বিশ্বজুড়ে বায়ুর মান উন্নত করতে এয়ার কোয়ালিটি গাইডলাইনস -একিউজিএস জোরদারেরও বিকল্প নেই।

বায়ুর মানের নতুন গাইডলাইন বায়ুদূষণের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে লাখো মানুষকে সুরক্ষা দেবে। একই সঙ্গে এটি বিভিন্ন দেশকে বায়ুদূষণের বিরুদ্ধে লড়তে মানবিষয়ক আইনি সীমা নির্ধারণে সহায়ক হবে।

তবে ডব্লিউএইচও প্রধান বলেন, গাইডলাইনগুলো কোনো নির্দিষ্ট দেশ কিংবা অঞ্চলভেদে নয়, পুরোবিশ্বের জন্য প্রযোজ্য। সতর্ক করেন, বিশ্বজুড়ে বায়ুর মানের সব সূচক এখন নিম্নমুখী। জনস্বাস্থ্যে এর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। এমনকি অস্বাস্থ্যকর খাবার ও ধূমপানের চেয়েও বায়ুদূষণ বেশি স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি তৈরি করেছে।

এসব তথ্য ও নির্দেশিকা চলতি বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় জাতিসংঘের জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলন কপ-২৬ সামিটেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছে সংস্থাটি।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর