সম্পাদক পরিষদ থেকে পদত্যাগের কারণ জানালেন নঈম নিজাম

নিজস্ব প্রতিবেদক

সম্পাদক পরিষদ থেকে পদত্যাগের কারণ জানালেন নঈম নিজাম

গতকাল মঙ্গলবার সম্পাদকদের সংগঠন সম্পাদক পরিষদ থেকে পদত্যাগ করেছেন এর সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ প্রতিদিন এর সম্পাদক নঈম নিজাম। তাঁর এই পদত্যাগ নিয়ে দেশে বিদেশে চলছে নানা আলোচনা। বাংলাদেশ প্রতিদিন এর সম্পাদক নঈম নিজাম এক বিবৃতি দিয়ে সংবাদপত্র পরিষদ থেকে নিজের পদত্যাগের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন । বিবৃতিতে তিনি লিখেছেন,

প্রিয় সহকর্মী,

যে কারণে আমি পদত্যাগ করছি তা সবাইকে অবহিত করছি। আমরা পরস্পর ঐক্য ধরে রেখে একটি ইতিবাচক অবস্থান নিয়ে কাজ করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু কিছু কঠিন বাস্তবতা  হলো সরকারের বিরুদ্ধে মাঝে মাঝে বিবৃতি প্রদান ছাড়া সম্পাদক পরিষদ আর কোন কিছু নিয়ে কাজ করছে না। সম্পাদকদের একটি প্রতিষ্ঠান শুধু সরকার বিরোধী ভাব নিয়ে চলতে পারে না। পরিষদ পেশার মান উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারছে না। শুধুমাত্র সভাপতির ব্যক্তিগত ইচ্ছায় প্রতিষ্ঠান চলছে। প্রথম আলো, ডেইলি স্টারের স্বার্থ রক্ষা সম্পাদক পর্ষদের কাজ হতে পারে না।

এই সব তৎপরতা মিডিয়ার জন্য মঙ্গল বয়ে আনতে পারে না। কোন অপরাধ প্রমাণের আগে কোন মিডিয়া মালিকের বিরুদ্ধে সংবাদ পরিবেশন কোনোভাবে গ্রহনযোগ্য নয়। এই ব্যাপারে বারবার বলার পর তিনি নিজের অবস্থান থেকে সরেননি বিধায় সম্পাদক পরিষদ থেকে আমার সরে দাঁড়ানো ছাড়া বিকল্প ছিলো না।
এরপর সবার মঙ্গল কামনা করেছেন সম্পাদক নঈম নিজাম।

news24bd.tv/এমিজান্নাত 

পরবর্তী খবর

দেশের অর্থনীতি করোনাকালেও শক্তিশালী: খাদ্যমন্ত্রী

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

দেশের অর্থনীতি করোনাকালেও শক্তিশালী: খাদ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশের অর্থনীতি করোনাকালেও শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। দেশের মাথাপিছু আয় বেড়ে এখন ২ হাজার ২২৭ ডলার। শ্রীলংকাকে ঋণ দেওয়া আমাদের অর্থনৈতিক সামর্থের প্রমাণ বহণ করে বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি।

বুধবার নওগাঁর পোরশা উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় উপকারভোগীদের মাঝে প্রণোদনা সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল এখন সর্বত্র দৃশ্যমান। ডিজিটাল বাংলাদেশকে আরো জোরদারকরণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ল্যাপটপ বিতরণের কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুর শিক্ষার সূচনা হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, শিশুরা যাতে ছোটবেলা থেকেই তথ্য প্রযুক্তির সাথে
পরিচিত এবং দক্ষ হয়ে উঠতে পারে সেটা নিশ্চিত করা এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য।

তিনি বলেন, করোনাকালে দেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড কিছুটা ব্যাহত হয়েছে। করোনা সংক্রমণ কমে যাওয়ায় উন্নয়ন কর্মকাণ্ড আবার গতি পেয়েছে।

আরও পড়ুন:


পাঁচ বিভাগে বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টির আশঙ্কা

এই হচ্ছে বিএনপি, আর সব দোষ আওয়ামী লীগের?

রাজপথে নামার আহ্বান মোশাররফ-মান্নার

বাগেরহাটে ৩ ঘণ্টা পর প্লাইউড ফ্যাক্টরির আগুন নিয়ন্ত্রণে


নওগাঁ জেলার উন্নয়নে নওগাঁ জেলা উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, খুব শীঘ্রই এই প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু হবে। এটা বাস্তবায়ন হলে নওগাঁ জেলার দৃশ্যমান পরিবর্তন হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে উন্নয়নের রোল মডেল বাংলাদেশ উল্লেখ করে সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ২০৩০ সালের মধ্যে জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে নিজেদের অগ্রগতির স্বীকৃতি হিসেবে বিশেষ সম্মাননা ‘এসডিজি প্রগ্রেস অ্যাওয়ার্ড’ অর্জন করেছে বাংলাদেশ।

মন্ত্রী বলেন, দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য সামাজিক নিরাপত্তার আওতা বাড়ানো হয়েছে। বয়স্কভাতা, বিধবাভাতা এবং প্রতিবন্ধীভাতাসহ সবধরনের ভাতা ভোগীদের আর্থিক সহায়তার পরিমাণও বৃদ্ধি করা হয়েছে। অসহায় দরিদ্র আর কেউ এ সুরক্ষার বাইরে থাকবে না।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হামিদ রেজা এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন- পোরশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মঞ্জুর মোর্শেদ চৌধুরী।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম, কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার সরকার এবং মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা
সুলতান মাহমুদ বক্তব্য রাখেন। এর আগে মন্ত্রী পোরশা উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে করোনাকালে অসহায় দরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।

এ ছাড়াও উপজেলা পরিষদ ল্যাবরেটরি বিদ্যালয়ের শিক্ষা ভবন ও উপজেলা নির্বাহীকর্মকর্তার দ্বিতল বাসভবনের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। পরে তৃতীয় প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি-৩ এর আওতায় বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ল্যাপটপ বিতরণ, কৃষকদের মাঝে পেয়াজ বীজ বিতরণ এবং ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় দরিদ্র ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মাঝে ঢেউটিন বিতরণ করেন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

করোনায় বাড়লো মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

অনলাইন ডেস্ক

করোনায় বাড়লো মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আজ বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।


আরও পড়ুন

ইভার গান গাওয়া নিয়ে কী চান নতুন স্বামী?

ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের জেলখানায় পাঠিয়ে লাভ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

কেন মন ভাঙালো তরুণদের ক্রাশ রাশমিকার!


গতকাল মঙ্গলবার সারাদেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৬ জন এবং ও মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১৫৬২ জন।

বিস্তারিত আসছে . . .

news24bd.tv/এমি-জান্নাত    

পরবর্তী খবর

ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

অনলাইন ডেস্ক

ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

আগামী মাস থেকে ২২ দিনের জন্য ইলিশ আহরণ ও সংরক্ষণে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে যাচ্ছে সরকার। ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. ইফতেখার হোসেন এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, চলতি বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন ইলিশ প্রজনন ক্ষেত্রে ইলিশসহ সব ধরনের মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ সময় দেশব্যাপী ইলিশ আহরণ, বিপণন, পরিবহন, ক্রয়-বিক্রয়, বিনিময় ও মজুত নিষিদ্ধ থাকবে।


আরও পড়ুন

ইভার গান গাওয়া নিয়ে কী চান নতুন স্বামী?

ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের জেলখানায় পাঠিয়ে লাভ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

কেন মন ভাঙালো তরুণদের ক্রাশ রাশমিকার!


প্রতি বছর আশ্বিন মাসের পূর্ণিমার আগে-পরে মিলিয়ে মোট ১৫ থেকে ১৭ দিন হচ্ছে ইলিশের ডিম ছাড়ার মৌসুম। এ সময় ডিম পাড়তে সাগর থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ নদীতে ছুটে আসে। সেই বিবেচনায় নিয়ে প্রতিবছরের মতো এ বছরও মোট ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। এ সময় ইলিশকে ডিম ছাড়ার সুযোগ দিতেই সরকার দেশের সব নদ-নদীতে ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত    

পরবর্তী খবর

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর পণ্যপরিবহন মালিক-শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

অনলাইন ডেস্ক

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর পণ্যপরিবহন মালিক-শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

১৫ দফা দাবিতে কাভার্ডভ্যান-ট্রাক মালিক-শ্রমিকদের ডাকা কর্মবিরতি প্রত্যাহার করেছে বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান-ট্রাক-প্রাইমমুভার পণ্যপরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশন। 

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পণ্যপরিবহন মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে  বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

একই সাথে বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান-ট্রাক-প্রাইম মুভার পণ্যপরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুকবুল আহমদ ও বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি তালুকদার মো. মনির সাংবাদিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহারের কথা জানান।

আরও পড়ুন


প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার দেশের ইতিহাসে মাইলফলক: কাদের

চাকরি দেবে এসএমসি এন্টারপ্রাইজ

সাংবাদিকের ওপর হামলার প্রতিবাদে এসপির কার্যালয়ে অবস্থান ধর্মঘট

পার্বত্যাঞ্চলে চলছে জুম তোলার ধুম, ভাল ফলনের আশা


দুপুর ১২টার দিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে কাভার্ডভ্যান-ট্রাক-প্রাইম মুভার পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক অ্যাসোসিয়েশনের ১৮ জন নেতা অংশ নেন। বিকেল পৌনে ৩টায় বৈঠক শেষ হয়।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর)  ১৫ দফা দাবিতে সকাল ৬টা থেকে ৭২ ঘণ্টা ধর্মঘট শুরু করেন পণ্যবাহী পরিবহনের মালিক-শ্রমিকরা।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দেবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দেবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট হত্যাযজ্ঞের ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দেবে বলে প্রত্যাশা করছি। কারণ এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়াগুলো শেষ করার কাজ চলছে।

লোটে রয়্যাল হোটেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতকাল মঙ্গলবারের সার্বিক কর্মসূচির ওপর মিডিয়া ব্রিফিংকালে তিনি বলেন, আমরা আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে রাশেদ চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনবো বলে আশা করছি।

বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত এই খুনীকে দেশে ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টার ফলাফল সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এর আগে যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার রায়ে সাজাপ্রাপ্ত ১২ আসামির একজনকে ফিরিয়ে দেওয়ায় ঢাকা আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে রাশেদ চৌধুরীকেও ফিরে পাওয়ার আশা করছে।

আরও পড়ুন


ছাড়পত্র পেলেন তামিম, খেলতে যাবেন নেপাল

কুয়েত ও সুইডেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক

স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে স্বামীর ফাঁসির আদেশ


১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার দায়ে মত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রাশেদ চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরে আমেরিকায় অবস্থান করছেন। হত্যাকাণ্ডের ২৩ বছর পরে ১৯৯৮ সালে নিম্ন আদালতের রায়ে অন্য আসামিদের সঙ্গে পলাতক অবস্থায় তাকেও মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। 

২০০৯ সালে উচ্চ আদালত ১২ কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত ছয়জনের রায় কার্যকর হলেও রাশেদ চৌধুরীসহ বিদেশে পলাতক অন্যদের দণ্ড কার্যকর হয়নি। এসব ঘাতকদের বিদেশ থেকে দেশে নিয়ে নিয়ে দণ্ড কার্যকর করার জোরালো দাবি জানানো হচ্ছিল।

রাশেদ চৌধুরী ১৯৬৯ সালে সরকারি চাকরিতে যোগদান করার পর ১৯৭৬ সালে দ্বিতীয় সচিব হিসেবে জেদ্দায় বাংলাদেশ মিশনের দায়িত্ব পান।

তিনি নাইরোবি, কুয়ালালামপুর ও ব্রাসিলিয়া দূতাবাসে কর্মরত ছিলেন এবং ১৯৯৬ সালে তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। ওই বছরেই রাশেদ চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করে রাজনৈতিক আশ্রয়ের জন্য আবেদন করেন।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর