নাগরিক সমাজ-চট্টগ্রাম'র কমিটি গঠন

সিআরবি রক্ষায় আমরণ অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের

অনলাইন ডেস্ক

সিআরবি রক্ষায় আমরণ অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের

সিআরবি রক্ষায় আমরণ অনশনের ঘোষণা দিয়েছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সমাজবিজ্ঞানী প্রফেসর ড. অনুপম সেন। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম শহর আজ পরিণত হয়েছে ‘ইটের পরে ইট’ বিশিষ্ট একটি নগরে।

বুধবার (২৮ জুলাই) নাগরিক সমাজ, চট্টগ্রামের কমিটি ঘোষণা উপলক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে প্রকৃতির অসীম দানে-ঋদ্ধ সিআরবির মতো এ রকম বড় উন্মুক্ত স্থান চট্টগ্রামে আর নেই। শতবর্ষী বৃক্ষরাজি পাহাড়, টিলা ও উপত্যকায় ঘেরা বাংলাদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যমণ্ডিত অনন্য প্রাকৃতিক স্থান সিআরবি ধ্বংসের পাঁয়তারা কোনো ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। সিআরবি থেকে এই বেনিয়া গোষ্ঠীকে তাড়াতে প্রয়োজনে দিনের পর দিন অনশন করতেও প্রস্তুত আমি।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও গবেষক ডা. মাহফুজুর রহমান, নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদ, চট্টগ্রামের সভাপতি ডা. এ কিউএম সিরাজুল ইসলাম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মফিজুর রহমান, বিজয়মেলা পরিষদের মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউনুস, কবি কামরুল হাসান বাদল, চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির পরিচালনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নাট্যজন সাইফুল ইসলাম বাবু, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কবি শুকলাল দাশ, সাংবাদিক আলীউর রহমান, সংস্কৃতি সংগঠক স্বপন মজুমদার, আবৃত্তিশিল্পী রাশেদ হাসান, রাজনীতিবিদ ও পরিবেশ সংগঠক শরীফ চৌহান, বিএফইউজে’র যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী ও আবৃত্তি শিল্পী প্রণব চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য দেন কবি ও সাংবাদিক ঋত্বিক নয়ন।
        
সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সমাজবিজ্ঞানী প্রফেসর ড. অনুপম সেনকে চেয়ারম্যান ও অ্যাডভোকেট ইব্রাহীম হোসেন বাবুলকে সদস্যসচিব করে ১০০১ সদস্যের কমিটি গঠিত হয়।  

কমিটির কো-চেয়ারম্যান হিসেবে আছেন- শহীদজায়া বেগম মুশতারী শফী, কবি ও সাংবাদিক আবুল মোমেন, মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও গবেষক ডা. মাহফুজুর রহমান, অধ্যাপক ডা. একিউএম সিরাজুল ইসলাম, রাজনীতিবিদ খোরশেদ আলম সুজন, সাংস্কৃতিক সংগঠক ও রাজনীতিবিদ মফিজুর রহমান, পরিবেশবিজ্ঞানী ড. ইদ্রীস আলী, ইঞ্জিনিয়ারস ইনস্টিটিউশনের চেয়ারম্যান প্রবীর কুমার সেন, স্থপতি আশিক ইমরান, মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউনুচ, রাজনীতিক মাজহারুল হক শাহ প্রমুখ।

আরও পড়ুনঃ


দ. কোরিয়ার কোন গালিও দেয়া চলবে না উত্তর কোরিয়ায়

তালেবানের হাত থেকে ২৪ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবি

কাছাকাছি আসা ঠেকাতে টোকিও অলিম্পিকে বিশেষ ব্যবস্থা


 

যুগ্ম সদস্যসচিব হিসেবে আছেন কবি ও সাংবাদিক কামরুল হাসান বাদল, নাট্যজন সাইফুল আলম বাবু, আবৃত্তি শিল্পী রাশেদ হাসান, সাংবাদিক মহসীন কাজী, সংগঠক শরীফ চৌহান, সংগঠক স্বপন মজুমদার প্রমুখ।

কার্যকরী সদস্য হিসেবে আছেন অ্যাডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, এএইচএম জিয়াউদ্দিন, সাংবাদিক হাসান আকবর, সাংবাদিক তপন চক্রবর্ত্তী, সাংবাদিক আসিফ সিরাজ, সাংবাদিক চৌধুরী ফরিদ, কবি ও সাংবাদিক নাজিমুদ্দিন শ্যামল, সাংবাদিক শুকলাল দাশ, শিক্ষকনেতা ও আবৃত্তিশিল্পী অঞ্চল চৌধুরী, সংস্কৃতি সংগঠক সুনীল ধর, সংস্কৃতি সংগঠক অধ্যাপিকা শীলা দাশগুপ্তা, সাংবাদিক আলীউর রহমান, আবৃত্তি শিল্পী প্রণব চৌধুরী, সাংবাদিক ঋত্বিক নয়ন, শিল্পী আলাউদ্দিন তাহের, দীপেন চৌধুরী, সুজিত চক্রবর্ত্তী, রাজনীতিক হাসান মনসুর, রাজনীতিক মিঠুল দাশগুপ্ত, সাংবাদিক রমেন দাশগুপ্ত, সাংবাদিক মহরম হোসাইন, সাংবাদিক আসমা বীথি, সাংবাদিক মিঠুন চৌধুরী, সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম মুন্না, সাংবাদিক পার্থ প্রতীম বিশ্বাস, টিটু দত্ত, রাহুল দত্ত, কবি আ ফ ম মোদাচ্ছের আলী, সাংবাদিক মিনহাজ উদ্দিন, সাবেক ছাত্রনেতা শিবু প্রসাদ চৌধুরী, হাবিবুর রহমান তারেক, নূরুল আজম রনি, অ্যাডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন জিকু, সাংবাদিক সুজিত সাহা, সাইদুল ইসলাম, রাহুল দাশ নয়ন, সুবল বড়ুয়া, উমর ফারুক, নারীনেত্রী হাসিনা আক্তার টুনু, জেসমিন সুলতানা পারু, সাহেলা আবেদীন লিমা, আবৃত্তিকার মিলি চৌধুরী, সাবের শাহ, দিলরুবা খানম, সালাউদ্দিন শামীম, শফিউল আজম জিফু, শাহরিয়ার মুনির জিসান, শাহাবুদ্দিন, নইমুল আবেদীন, মাহমুদুল করিম, সংস্কৃতি সংগঠক অহিদ সিরাজ স্বপন, নজরুল ইসলাম জয়, যন্ত্রশিল্পী প্রবীর দত্ত সাজু, অসীম বরণ চন্দ, চারুশিল্পী বিজন মজুমদার, দীপক দত্ত, শ্রীকান্ত আচার্য, চলচ্চিত্র সংগঠক শৈবাল চৌধুরী প্রমুখ।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

শেখ হাসিনার জন্মদিনে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর উষ্ণ শুভেচ্ছা

অনলাইন ডেস্ক

শেখ হাসিনার জন্মদিনে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর  উষ্ণ শুভেচ্ছা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।  শুভেচ্ছা বার্তায় মোদি বঙ্গবন্ধুকন্যার সুস্বাস্থ্য কামনা করেছেন। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশে ভারতের হাইকমিশন তাদের ভেরিফায়েড ফেসবুকে এ তথ্য জানিয়েছে।

হাইকমিশন ফেসবুকে জানায়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তার জন্মদিনে উষ্ণ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি তার সুস্বাস্থ্য ও বাংলাদেশের মানুষের সেবায় সাফল্য কামনা করেন।

আরও পড়ুন:


দুই মেয়েসহ মা নিখোঁজ উৎকন্ঠায় পরিবার

রশি দিয়ে বাধা প্রতিবন্ধী শহিদের বন্দী জীবন

বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ক্রিকেটার রিদু নিহত

স্কুল খোলার পর যেভাবে চলবে প্রাথমিকের ক্লাস!


 

এদিকে গতকাল (সোমবার) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেচ্ছা বার্তায় মমতা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সফলতা কামনা করেন।

এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জন্মদিনে ৭১টি গোলাপ পাঠিয়ে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন শেখ হাসিনা।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বাইকে আগুন দেওয়া কে এই শওকত?

অনলাইন ডেস্ক

বাইকে আগুন দেওয়া কে এই শওকত?

শওকত আলমের বাড়ি ঢাকার কেরাণীগঞ্জের আটিবাজারে। তার দুই ছেলে এক মেয়ে। কেরাণীগঞ্জে তার একটি হার্ডওয়্যারের দোকান ছিল। কিন্তু লকডাউনের কারণে তার ব্যবসায় লোকসান হয়। এরপর তিনি ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন। মাঝে বেশকিছু দিন বেকার থাকার পর নিজের মোটরসাইকেলটা নিয়ে গত দেড় মাস ধরে রাইড শেয়ারিং করছেন।

প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ১০-১১টা পর্যন্ত রাইড শেয়ারিং করেন তিনি।

‘মামলা দেওয়ায়’ সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রাজধানীর বাড্ডা লিংক রোডে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে প্রতিবাদ জানান শওকত আলম সোহেল।

বাইকটি আগুনে পুড়ে যাওয়ার ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। যা মুহূর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়।

ভিডিওতে দেখা যায়, মোটরসাইকেলটিতে দাউ দাউ আগুন জ্বলছে। পাশের লোকজন ছুটে এসে পানি দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করছেন। কিন্তু ততক্ষণে পুড়ে গেছে বাইকটি।

সূত্র জানায়, আগে থেকেই ওই মোটরসাইকেলটিকে একটি মামলা দেওয়া ছিল। কাগজপত্রে ‘সামান্য ত্রুটি’ থাকায় পুলিশ ফের মামলা দেওয়ায় মনের কষ্টে এ বাইকে আগুন দেন বাইকার শওকত।

পরবর্তী খবর

সেই শওকত বললেন, ‘চাইলে ১০টি মোটরসাইকেল নিতে পারি’

অনলাইন ডেস্ক

সেই শওকত বললেন, ‘চাইলে ১০টি মোটরসাইকেল নিতে পারি’

সম্প্রতি রাজধানীর বাড্ডায় ‘মামলা দেওয়ায়’ নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে প্রতিবাদের ঘটনা এখন দেশজুড়ে আলোচনায়।

সোমবারের (২৭ সেপ্টেম্বর) ওই ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে।

এরপর তা গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। ঘটনার পর পুড়ে যাওয়া মোটরসাইকেল ও চালক শওকত আলম সোহেলকে বাড্ডা থানায় নিয়ে যায় পুলিশ হয়। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এরপর থেকেই সেই মোটরসাইকেল চালককে ‘ক্ষতিপূরণ হিসেবে’ এবং ‘মানবিকতার জায়গা’ থেকে মোটরসাইকেল উপহার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন অনেকে। এরমধ্যে আছেন শিক্ষক, প্রকৌশলী এবং ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর সাবেক জিএস গোলাম রাব্বানী।

তারা সবাই শওকত আলমের সাথে যোগাযোগও করেছেন। কিন্তু শওকত আলম কারো কাছ থেকেই মোটরসাইকেল নিতে চান না। শুধু মোটরসাইকেল না, কোনো প্রকার সহযোগিতাই তিনি নিতে চান না। প্রতিবাদের অংশ হিসেবে তিনি তার মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে জ্বালিয়ে দিয়েছেন বলে সময় সংবাদকে জানান।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় শওকত আলম সোহেলের সাথে কথা হয় এ প্রতিবেদকের।

এসময় তিনি বলেন, ‘ওই ঘটনার পর অনেকেই আমার সাথে যোগাযোগ করেছেন। তারা মোটরসাইকেল দিতে চেয়েছেন। কিন্তু আমি তো মোটরসাইকেল পাওয়ার জন্য আগুন দেইনি। আমি আগুন দিয়েছি প্রচলিত সিস্টেমকে বদলাতে। পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে রাইড শেয়ার অ্যাপসভিত্তিক যে অরাজকতা চলছে, আমি এই সিস্টেমের পরিবর্তন চাই।’

তিনি বলেন, ‘আজকে আমি যদি মোটরসাইকেল নেই তাহলে দেশের কোনো পরিবর্তন হবে না। আজকে আমি ভুক্তভোগী হয়েছি, কালকে আরেকজন হবে। কিন্তু এভাবে তো একটি সিস্টেম চলতে পারে না। পুলিশের এই স্বেচ্ছাচারী মামলা যতদিন বন্ধ না হবে ততদিন আমি প্রতিবাদ চালিয়ে যাব।’

‘এখন চাইলে ১০টি মোটরসাইকেল নিতে পারি’ জানিয়ে শওকত আলম বলেন, ‘অনেক মানুষ আমাকে মোটরসাইকেল দিতে চাচ্ছে, আমি চাইলে ১০টি মোটরসাইকেল নিতে পারব। তারা সবাই উপহারের কথা বলছে, কিন্তু সিস্টেম বদলানো নিয়ে কেউ কোনো কথা বলে না।’

‘আমি তাদের কাছ থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে রাস্তায় নামলে কালকে আবারও একইভাবে মামলা দেওয়া হবে। দিনের পর দিন এভাবে চলতে থাকবে। তাহলে কোনো সমাধান তো আসল না। আমি মোটরসাইকেল চাই না, একটি সিস্টেমের পরিবর্তন চাই, যাতে কেউ হয়রানি না হয়।’

রাইড শেয়ারিং অ্যাপস ভিত্তিক কোম্পানিগুলোর সমালোচনা করে শওকত আলম সোহেল বলেন, 'আমার রাগ পুলিশের ওপর না, রাগ রাইড শেয়ারিং অ্যাপের ওপর। অ্যাপ ব্যবহার করে যা আয় করি তার বেশিরভাগই তারা নিয়ে যায়।'

তিনি বলেন, 'আমি পেটের দায়ে রাইড শেয়ারিং করি। কিন্তু যা আয় করি তা যদি মামলার জরিমানা হিসেবে দেই, তাহলে সব কাগজপত্র ঠিক রেখে লাভ কি। তাই রাগ থেকে মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দিয়েছি।'

এদিকে ময়মনসিংহের আনসারুল হক নামে একজন স্কুল শিক্ষক সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে ভুক্তভোগী শওকত আলমকে একটি মোটরসাইকেল উপহার দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন।

তবে আনসারুল হক দাবি করেন, ‘শওকত আলমের সাথে আমাদের কথা হয়েছে। তিনি আমাদের উপহার গ্রহণ করবেন। কিন্তু তিনিও একইভাবে সিস্টেমের পরিবর্তনের কথা আমাদের জানিয়েছেন। বলেছেন, আমি মোটরসাইকেল নিলে মানুষ বলবে আমি একটি পাওয়ার জন্য পুড়িয়ে দিয়েছি। কিন্তু আমি সিস্টেম বদলাতে ক্ষোভ থেকেই এটা করেছি। তাই শুরুতে তিনি উপহার নিতে চাননি। পরে, অনেক বুঝানোর পর তিনি রাজি হয়েছেন।’ তার জন্য মোটরসাইকেল কেনা হয়ে গেছে বলেও জানান এই শিক্ষক।

পরবর্তী খবর

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া স্থগিত

অনলাইন ডেস্ক

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া স্থগিত

সারা দেশে অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া আপাতত স্থগিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। মঙ্গলবার ( ২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় গণমাধ্যমকে তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মোস্তফা জব্বার বলেন, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী আজকেই শেষ দিন ছিল অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টালগুলো বন্ধের জন্য। তবে বিটিআরসি'র তালিকা ধরে নিউজ পোর্টালগুলো বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিলো যেখানে বেশকিছু ত্রুটি আছে।

আরও পড়ুন:


দুই মেয়েসহ মা নিখোঁজ উৎকন্ঠায় পরিবার

রশি দিয়ে বাধা প্রতিবন্ধী শহিদের বন্দী জীবন

বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ক্রিকেটার রিদু নিহত

স্কুল খোলার পর যেভাবে চলবে প্রাথমিকের ক্লাস!


 

তাই আপাতত অনিবন্ধিত নিউজপোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু

অনলাইন ডেস্ক

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু

সারা দেশে অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের জন্য তো হাইকোর্টের রায় রয়েছে। এগুলো আমাদের ফলোআপ করতে হবে। সেই রায় অনুপাতে আমরা তালিকা তৈরি করে যেগুলো নিবন্ধনহীন সেগুলো বন্ধ করছি।

মন্ত্রী আরও বলেন, তবে এই বন্ধ প্রক্রিয়ায় যদি কোনো ভুল হয়, ভুলে যদি কোনো পোর্টাল বন্ধ করা হয় তাহলে সংশ্লিষ্ট পোর্টাল কর্তৃপক্ষ বিটিআরসির সঙ্গে যোগাযোগ করে নিবন্ধনের তথ্য প্রমাণ দিলে সেসব সাইট খুলে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন:


দুই মেয়েসহ মা নিখোঁজ উৎকন্ঠায় পরিবার

রশি দিয়ে বাধা প্রতিবন্ধী শহিদের বন্দী জীবন

বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ক্রিকেটার রিদু নিহত

স্কুল খোলার পর যেভাবে চলবে প্রাথমিকের ক্লাস!


 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার বলেন, অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টালগুলো বন্ধ করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর