বিশ্বের সাইবার সিকিউরিটির জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি যুক্তরাষ্ট্র: চীন

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বের সাইবার সিকিউরিটির জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি যুক্তরাষ্ট্র: চীন

সারাবিশ্বের সাইবার সিকিউরিটির জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে সবচেয়ে বড় হুমকি বলে অভিহিত করেছে চীন। মার্কিন কোম্পানি মাইক্রোসফটের এক্সচেঞ্জ ইমেইল সার্ভারে হামলার জন্য বেইজিংকে অভিযুক্ত করার এক সপ্তাহ পর চীন এই বক্তব্য দিল।

চীনা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কর্নেল উ কিয়ান গতকাল বৃহস্পতিবার বলেন, যুক্তরাষ্ট্র হচ্ছে হ্যাকিং এবং গোপন তথ্য চুরির সাম্রাজ্য, তারাই বিশ্বের সাইবার সিকিউরিটি জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি।

কর্নেল উ বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার, কোম্পানি এবং ব্যক্তিত্বের ওপর বহু বছর ধরে আমেরিকা ব্যাপকভিত্তিক সাইবার গোয়েন্দাবৃত্তি চালিয়ে আসছে। মার্কিনিদের এই সাইবার বলদর্পিতার বিরুদ্ধে বিশ্বসম্প্রদায়কে রুখে দাঁড়ানোর জন্য তিনি আহ্বান জানান।

আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থা সম্প্রতি অভিযোগ করেছে যে, ইউরোপের দেশ ডেনমার্ক, জার্মানি, সুইডেন, নরওয়ে এবং ফ্রান্সের রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের উপর চীন গোয়েন্দাবৃত্তি চালিয়েছে। সূত্র: পার্সটুডে।

news24bd.tv এসএম

আরও পড়ুন


বাড়িতে ডেকে নিয়ে দুই স্কুলছাত্রী ধর্ষণ করল তাদেরই দুই সহপাঠী

ঝিনাইদহে নামাজে ইকামত দেয়া নিয়ে সংঘর্ষে নিহত এক, আহত ৫

চাকরি দেবে প্লান ইন্টারন্যাশনাল, বেতন প্রায় ৫০ হাজার টাকা

বগুড়ার গাবতলীতে ৩০০ পরিবারের মাঝে বসুন্ধরা গ্রুপের ত্রাণ বিতরণ


 

পরবর্তী খবর

১ রুপির কয়েন ১০ কোটি!

অনলাইন ডেস্ক

১ রুপির কয়েন ১০ কোটি!

১৩৬ বছরের পুরোনো একটি কয়েন অনলাইন নিলামে ১০ কোটি রুপিতে বিক্রি হয়েছে। এটি হয়েছে প্রতিবেশি দেশ ভারতে। শত বছরেরও বেশি এই কয়েনটি পরিধিতে ভারতের বর্তমান ১ রুপির কয়েনের চেয়ে কিছুটা বড়। এর এক পিঠে খোদাই করা আছে ইংল্যান্ডের রানি ভিক্টোরিয়ার ছবি, অপর পিঠে ইংরেজী অক্ষরে লেখা ‘ওয়ান রুপি ইন্ডিয়া ১৮৮৫। আনন্দবাজার পত্রিকার সূত্রে এই তথ্য জানা যায়।

তবে অ্যান্টিক এই কয়েনটির ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ের নাম গোপন রাখা হয়েছে।  জানা যায়, ইন্টারনেটের একটি পুরনো মুদ্রা কেনা-বেচার সাইটে কয়েনের ছবি পোস্ট করেছিলেন এক সংগ্রাহক। এরপরই কয়েনটি কেনার জন্য হুড়োহুড়ি পড়ে যায় সংগ্রাহকদের মধ্যে। 

প্রাচীন মুদ্রা বিশারদদের ধারণা, ভারতে ব্রিটিশ শাসনামলে ১৮৮৫ সালে মুম্বাইয়ে তৈরি করা হয়েছিল এই কয়েনটি। তার ৯ বছর আগেই ভারতীয় মুদ্রায় সামান্য পরিবর্তন এসেছিল। ব্রিটিশশাসিত ভারতের মুদ্রায় রানি ভিক্টোরিয়ার বদলে লেখা শুরু হয়েছিল সম্রাজ্ঞী ভিক্টোরিয়া বা ‘ভিক্টোরিয়া এমপ্রেস’। নিলামে ওঠা কয়েনটি সেই সময়কালের।

এর আগে গত জুন মাসে যুক্তরাষ্ট্রের ১৯৩৩ সালের একটি কয়েন এক কোটি ৮৯ লক্ষ ডলারে বিক্রি হয়েছিল। ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ১৩৮ কোটি রুপির সমান।


আরও পডুন

ভরা মৌসুমেও দেখা মিলছে না ইলিশের

যে দেশে সর্বনিম্ন বেকারত্বের রেকর্ড

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!


news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

চার অপেশাদার নভোচারীকে নিয়ে পৃথিবীতে ফিরলো রকেট (ভিডিও)

ডেস্ক রিপোর্ট

মহাকাশও এখন বেড়াবার জন্য উন্মুক্ত। আর এই সুযোগটি করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ধনাঢ্য ব্যবসায়ী এলন মাস্কের স্পেস এক্স এবং জেফ বেজোসের ব্লু অরিজিন। কিছুদিন আগেই তিন নভোচারীকে সঙ্গে নিয়ে ১০ মিনিটের জন্য মহাকাশে বেড়িয়ে এসেছেন বেজোস। আর এবার চার অপেশাদার নভোচারী স্পেস এক্সের রকেটে করে মহাকাশে তিন দিন কাটিয়ে শনিবার পৃথিবীর বুকে নিরাপদে ফিরে এসেছেন। বিবিসি ও রয়টার্সের এর প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া যায়।

প্রথমবারের মতো চার অপেশাদার ব্যক্তি পৃথিবীর বাইরে মহাকাশে গিয়ে ঘুরে এলেন। বুধবার ফ্লোরিডার স্পেস এক্স এর ফ্যালকন-নাইন রকেটে করে মহাকাশের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। এই চার নভোচারীকে বলা হচ্ছে ইনসপিরেশন-ফোর নামে। আর এই টিমের নেতৃত্ব দিয়েছেন ই-কমার্স কোম্পানি শিফট-ফোর পেমেন্ট ইঙ্ক এর নির্বাহী মার্কিন ধনকুবের জেরেড ইসাকম্যান।


আরও পডুন

ভরা মৌসুমেও দেখা মিলছে না ইলিশের

যে দেশে সর্বনিম্ন বেকারত্বের রেকর্ড

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!


তার দলে রয়েছেন নাসার একজন সাবেক ভূতত্ত্ববিজ্ঞানী, একজন চিকিৎসক, বিমান বাহিনীর অভিজ্ঞ প্রকৌশলী। এই মিশনে অংশ নিতে জেরেড ইসাকম্যানকে তার সতীর্থ ব্যবসায়ী এবং স্পেস এক্সের মালিক এলন মাস্ককে দিতে হয়েছে আনুমানিক ২০ কোটি ডলার। যদিও টাকার অঙ্কটা এখনো কেউই আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেননি। শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় আটলান্টিক মহাসাগরে ক্যাপসুলে করে নিরাপদে নেমে নভোচারীরা। তাদের শুভেচ্ছা জানিয়ে তাৎক্ষনিকভাবে টুইট করেন এলন মাস্ক। এটি ছিলো স্পেস এক্সের পক্ষ থেকে মানুষকে মহাকাশে পাঠানোর তৃতীয় মিশন। যা মহাকাশ-পযটনের জন্য একটি মাইলফলক।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

কারাগার থেকে পালানো ফিলিস্তিনি বন্দী গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

কারাগার থেকে পালানো ফিলিস্তিনি বন্দী গ্রেপ্তার

ইসরায়েলের গিলবোয়া কারাগার থেকে পালানো ফিলিস্তিনি বন্দীদের মধ্যে পলাতক থাকা সর্বশেষ দুই জনকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ রবিবার অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড পশ্চিম তীরের জেনিন থেকে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী, অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা সংস্থা শিনবেত ও পুলিশের যৌথ অভিযানে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।  ইসরাইলি সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র আভিখায়ি আদরায়ি এক টুইট বার্তায় এ তথ্য জানান। আলজাজিরার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়।

টুইটারে তিনি বলেন, 'দুই নাশকতাকারী, নায়েফ কামামজি ও মুনাদেল ইয়াকুব আনফিয়াত জেনিনে তাদের লুকিয়ে থাকা বাড়ি সেনাবাহিনী ও পুলিশ ঘেরাও করার পর আত্মসমর্পণ করেছে।' আভিখায়ি আদরায়ি বলেন, সেনাবাহিনী ও পুলিশের সদস্যরা বাড়ির চারপাশে ঘেরাও করে নায়েফ ও মুনাদেলের বের হয়ে না আসা পর্যন্ত গুলি করতে থাকে। পরে তারা নিরস্ত্র অবস্থায় বের হয়ে এলে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

টুইট বার্তায় দুই বন্দীর ছবিও প্রকাশ করেন আভিখায়ি আদরায়ি। কারাগার পালানো ফিলিস্তিনি বন্দীদের আইনজীবীদের ভাষ্য অনুযায়ী, বন্দীরা গত বছরের ডিসেম্বর থেকে নিজেদের কারাগারের সিঙ্কের নিচে একটি সুড়ঙ্গ খনন শুরু করে। এই কাজে তারা চামচ, প্লেট এমনকি কেতলির হাতলও ব্যবহার করে।

পালিয়ে যাওয়া এই ছয় বন্দী হলেন, ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন ইসলামি জিহাদের সদস্য মাহমুদ আবদুল্লাহ আল-আরিদা, মোহাম্মদ কাসিম আল-আরিদা, ইয়াকুব মোহাম্মদ কাদরি, আয়হাম নায়েফ কামামজি, মুনাদিল ইয়াকুব আনফিয়াত ও ফিলিস্তিনি রাজনৈতিক দল ফাতাহ আন্দোলনের সামরিক শাখা আল-আকসা শহীদ ব্রিগেডের নেতা যাকারিয়া জুবাইদি।


আরও পডুন

যে দেশে সর্বনিম্ন বেকারত্বের রেকর্ড

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!

আদালতের দ্বারস্থ জেমস


এর আগে ২০০৬ সালে গাজা-ইসরায়েল সীমান্তে দায়িত্বরত ইসরায়েলি সৈন্য গিলাদ শালিতকে অপহরণ করেন ইজ্জুদ্দিন আল-কাসসাম ব্রিগেডের সদস্যরা। গিলাদ শালিতের মুক্তির জন্য হামাসের সঙ্গে দীর্ঘ পাঁচ বছরের দর কষাকষির পর ২০১১ সালে এক হাজার ২৭ ফিলিস্তিনি বন্দীর বিনিময়ে গিলাদ শালিতকে মুক্তি দেওয়া হয়।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

বাবা-ছেলেকে একসঙ্গে ছাদ থেকে ছুঁড়ে ফেলল যুবক!

অনলাইন ডেস্ক

বাবা-ছেলেকে একসঙ্গে ছাদ থেকে ছুঁড়ে ফেলল যুবক!

বাড়ির ছাদে ঘুড়ি ওড়াচ্ছিলেন বাবা ও ছেলে। খেলা নিয়ে পাশের বাড়ির সঙ্গে অল্পস্বল্প কথা-কাটাকাটিও চলছিল। সেই সময়েই ছাদে উঠে আসে প্রতিবেশী এক যুবক। নেশাগ্রস্ত ওই যুবক দাবি করে, কোনও ঝগড়া নয়। চুপ করে থাকতে হবে। কিন্তু তার কথা না শোনায় বাবা ও ছেলেকে চারতলা বাড়ির ছাদ থেকে এক রকম ছুড়েই নীচে ফেলে দেয় ওই যুবক।

বিশ্বকর্মা পূজার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের বরাহনগরে। আজ রোববার এ খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা।


আরও পডুন

যে দেশে সর্বনিম্ন বেকারত্বের রেকর্ড

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!

আদালতের দ্বারস্থ জেমস


খবর অনুযায়ী, প্রাণে বেঁচে গেলেও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুরুতর আঘাত পেয়েছেন বাবা শুকদেব হালদার (৪৮) ও ছেলে সুশান্ত হালদার (২৫)। এর পরে রাতেই অজিত রাজবংশী নামে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করেছে বরাহনগর থানার পুলিশ।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

যে দেশে বেকারত্বের রেকর্ড সর্বনিম্ন

অনলাইন ডেস্ক

যে দেশে বেকারত্বের রেকর্ড সর্বনিম্ন

প্রথমবারের মতো দক্ষিণ কোরিয়ার সমন্বিত বেকারত্বের হার নেমে দাঁড়িয়েছে মাত্র ২ দশমিক ৮ শতাংশে। স্ট্যাটিসটিকস কোরিয়ার প্রকাশিত এক তথ্যে গতকাল শনিবার এ তথ্য জানা যায়।

১৯৯৯ সালের পর থেকে এটিই দেশটির জন্য সর্বনিম্ন বেকারত্বের হারের রেকর্ড। দেশটিতে টানা তিন মাস বেকারত্বের হার নিম্নগামী অবস্থায় রয়েছে। ব্যাংক অব কোরিয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, চলতি বছর শেষে দেশটিতে বেকারত্বের হার দাঁড়াবে ৩ দশমিক ৯ শতাংশ। আগামী বছরের জন্য বেকারত্বের হার নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ। রয়টার্স এর প্রতিবেদনে এ তথ্য পাওয়া যায়।

বর্তমানে চাকরিজীবীর সংখ্যা বেড়েছে ৫ লাখ ১৮ হাজারের মতো। তবে করোনা মহামারি থেকে দেশটির অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানোয় এমনটা ঘটেছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। যদিও মূল উৎপাদন খাতগুলোতে এখনো শ্রমিক সংকট রয়েছে বলে প্রকাশিত এক তথ্যে দেখা যায়।


আরও পডুন

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!

আদালতের দ্বারস্থ জেমস


গত বছরের তুলনায় জুলাইয়ে বিভিন্ন খাতে ৫ লাখ ৪২ হাজার কর্মসংস্থান যুক্ত হওয়ার পর এ উন্নতি দেখা দিয়েছে। নতুন সৃষ্ট এসব কর্মসংস্থানের অধিকাংশই হয়েছে স্বাস্থ্যসেবা, সামাজিক পরিষেবা, নির্মাণ, পরিবহন এবং গুদামজাতকরণ খাতে। স্ট্যাটিসটিকস কোরিয়ার প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমনটা দেখা যায়।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর