কুড়িগ্রামে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণায় যুবক আটক

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:

কুড়িগ্রামে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণায় যুবক আটক

মোবাইল ফোনে কখনও পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, কখনও থানার ওসি, কখনও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আবার কখনো জনপ্রতিনিধি পরিচয়ে পুলিশের উপর প্রভাব খাটানো এবং সাধারণ মানুষকে ভয় দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে আতানুর রহমান নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। 

বৃস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার কচাকাটা থানার কেদার ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর মন্ডলের বাজার থেকে তাকে আটক করে কচকাটা থানা পুলিশ। 

এ সময় তার কাছ থেকে ২টি মোবাইল ফোন ও ৩টি সিমকার্ড উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া মোবাইলে পর্ণগ্রাফীর অস্তিত্বও মিলেছে। আটক যুবক একই এলাকার কেদার ইউনিয়নের চর বিঞ্চুপুর গ্রামের আমির আলীর পূত্র।

প্রতারক আতানুর রহমান কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার কচাকাটা থানার কেদার ইউনিয়নের চর বিষ্ণুপুর গ্রামের আমির আলীর সন্তান।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আতানুর দীর্ঘদিন থেকে পুলিশের কর্মকর্তা সেজে দেশের বিভিন্ন থানার অফিসারদের ফোন দিয়ে বিভ্রান্ত করে প্রভাব খাটাতো। কখনো এসআই সেজে ফোনে ভয়ভীতি দেখিয়ে জন সাধারণের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিত। কখনো জনপ্রতিনিধি সেজে পুলিশের উপর প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করতো। 

পুলিশ আরও জানান, আতানুর গত ডিসেম্বর মাসে কচাকাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাবুব আলমের মোবাইলে ফোন দিয়ে উপজেলার বেরুবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পরিচয় দিয়ে প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করে। সে সময় দুটি ফোন নম্বর ব্যবহার করা হয়েছিল। পরে ওই দুটি নম্বরের বিপরিতে একটি জিডি করেন ওসি। আটক আতানুরের কাছে পাওয়া তিনটি সিমের মধ্যে একটির নম্বরের সাথে জিডি করা মোবাইল নম্বরের মিল পাওয়া গেছে।

এছাড়া আতানুর সম্প্রতি কচাকাটা থানার এক এসআইয়ের পরিচয়ে ফোনে কচাকাটা বাজারের এক ব্যবসায়ীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫হাজার টাকা এবং একটি জিডির তদন্তকারী কর্মকর্তা সেজে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একজনের কাছ থেকে ২ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।

কচাকাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাবুব আলম জানান, আতানুরের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া মোবাইল ফোনের কল রেকর্ড থেকে জানা যায়, সে দেশের বিভিন্ন থানায় ফোন দিয়ে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করেছে এবং জনসাধারণকেও প্রতারণার প্রমাণ মিলেছে। 

তাছাড়া গত ডিসেম্বর মাসে দুটি নম্বর আমাকে ফোন দিয়ে চেয়াম্যান পরিচয়ে প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করেছে। তিনি আরও জানান, আতানুরের বিরুদ্ধে একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এবং একটি মোবাইল ফোনে পর্ণগ্রাফী রাখার অপরাধসহ দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন:


ক্যাম্পে নিয়ে বাংলাদেশি নারীকে ধর্ষণ, বিএসএফ সদস্য গ্রেপ্তার

ফরিদপুরে আজও ১৪ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১২৫

বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ও সংক্রমণ বেড়েছে

সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে পিকনিক স্পটে নিয়ে ৫ বন্ধু মিলে ধর্ষণ


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

৬০ হাজার টাকা দিয়েও আশ্রয়ণের ঘর পেলনা আলিয়ারা

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

৬০ হাজার টাকা দিয়েও আশ্রয়ণের ঘর পেলনা আলিয়ারা

"মোর গরুলাও গেল, বাড়িও গেল, এলা স্যারের হুমকির তানে এলাকায় থাকিবাউ পারু না। মোর আর থাকার কোনো জায়গা নাই।" এভাবেই সাংবাদিকদের কাছে এসে প্রলাপ গাইতে থাকে আলিয়ারা খাতুন (২৫)।

আজ সাংবাদিক খুঁজতে শহরের কলেজপাড়ায় ঠাকুরগাঁও রিপোটার্স ইউনিটি কার্যালয় এসে সাংবাদিকের কাছে ইউএনও ও তার শ্যালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী সেই নারী।

এলাকাবাসীর তথ্যমতে, ঠাকুরগাঁও হরিপুর উপজেলার স্বামী পরিত্যক্তা অসহায় মহিলা আলিয়া (২৫)। নিজের ০২ টি গরুই ছিল তার সম্বল। তবে তিনি চাচ্ছিলেন মাথা গোজার একটি নিশ্চিত ঠিকানা। 

সেই আশাতেই নিজের শেষ সম্বল বিক্রি করে সে। গরু বিক্রির ৬০ হাজার টাকা হরিপুর ইউএনওর শ্যালককে দিয়ে তিনি আশ্রয়ণ প্রকল্পের একটি ঘরে উঠেন। তবে উঠার ০৪ মাস পর তাকে বের করে দেওয়া হয়।

আলিয়ারা খাতুন সাংবাদিকদের জানান, হরিপুরের জীবনপুর কুশলগাঁও এলাকার ইয়াসিন আলীর মেয়ে আলিয়ারা খাতুন প্রায় ২ বছর পূর্বে ১ সন্তান নিয়ে স্বামী পরিত্যক্ত হয়ে দুলাভাই নঈমউদ্দীনের সরকারি খাস জমিতে নির্মিত বসতবাড়ির আশ্রয় গ্রহণ করে।  

ভূমিহীনদের জন্য আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর দেওয়া হবে জানার পর আলিয়ারা তদবির শুরু করেন। আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর নির্মাণের তদারককারী তরিকুল ও উপজেলা ভূমি অফিসের কর্মচারী মানিক এর কথামত সে নিজের গাভী বিক্রি করে ইউএনওর শ্যালক তানভীন হাসানকে সরাসরি ৬০ (ষাট) হাজার টাকা প্রদান করে।

পরে তারা আলিয়ারাকে তারবাগান এলাকায় অবস্থিত আশ্রয়ন প্রকল্পের ২ নং ঘরটির দখল বুঝিয়ে দেয়। সেই ঘরে তিনি প্রায় চার মাস যাবৎ সন্তান সহ বসবাস করছিলেন। পরবর্তীতে তরিকুল ও মানিক আলিয়ারার কাছে পুনরায় ২০ (বিশ) হাজার টাকা দাবি করে এবং টাকা না দিলে ঘর থেকে বের করে দিবে বলে হুমকি দেয়। টাকা দিতে না পারায় তারা আলিয়ারাকে গত ০১/০৯/২০২১ ইং তারিখে ঘর থেকে বের করে দেয়।

এসব বিষয়ে আলিয়ারা ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক বরাবরে গত ৫ তারিখে একটি লিখিত অভিযোগ করে। সেটা জানার পর ১৩ তারিখ দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে হরিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল করিম তাকে কৌশলে কার্যালয়ে ডাকে। সেখানে ইউএনও আলিয়ারাকে পুলিশ ও তার কার্যালয়ের কর্মচারী দ্বারা মানসিক ও শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে এবং হুমিকি দেয় যে, তাদের মত করে জবানবন্দি না দিলে বড় ধরনের ক্ষতি করবে। 

সে সময় জোরপূর্বক আলিয়ারার কাছে তাদের মতো করে স্বীকারোক্তিমূলক ভিডিও ধারণ করে এবং সাদা কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে নেয়। তাই নিরাপত্তাহীনতার কারণে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয়ভাবে নিরাপত্তার জন্য সাংবাদিকদের কাছে সাহায্য চান আলিয়া।

ইউএনওর শ্যালক তানভিন হাসানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই বিষয়ে কিছু বলতে অস্বীকৃতি জানান।

হরিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আব্দুল করিম বলেন, সেই মহিলা অনেক খারাপ ও মিথ্যে কথা বলে। তাকে শারীরিক নির্যাতন করা হয়নি। আর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরে টাকা লেনদেনের কোন সুযোগ নেই। তার কোন ভিডিও রেকর্ড করা হয় নাই।

উল্লেখ্য, এর আগেও হরিপুর উপজেলায় টাকার বিনিময়ে আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর বরাদ্ধের অনেক অনিয়মের নিউজ প্রকাশিত হয়। এছাড়াও হরিপুরে আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর নিম্নমানের তৈরি হওয়ায় ঘরে ফাটল দেখা দেয়। ঘর বরাদ্ধে ইউএনওর শ্যালকের টাকা লেনদেনের বিষয়টিও নিউজে প্রকাশিত হয়।

আরও পড়ুন:


আইএস বধূ শামীমা বাংলাদেশে নয়, ফিরতে চান ব্রিটেনে

করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আবারও ১০ হাজারের কাছাকাছি মৃত্যু

রদ্রিগোর গোলে ইন্টার মিলানকে হারাল রিয়াল মাদ্রিদ

চট্টগ্রামের উপকূলে মিলল তিনটি মৃত ডলফিন!


NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

রাজধানীতে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার ৫৭

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীতে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার ৫৭

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৫৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। 

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

ডিএমপি জানায়, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের নিয়মিত মাদক বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে ১৫ই সেপ্টেম্বর বুধবার সকাল ছয়টা থেকে আজ সকাল পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তারসহ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারের সময় তাদের কাছ থেকে ৭ হাজার ৫৫৫ পিস ইয়াবা, ১২১ গ্রাম ১৭০ পুরিয়া হেরোইন, ৪ কেজি ১০০ গ্রাম গাঁজা ও ২৭ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারমূলে জব্দ করা হয়। 

গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৪০টি মামলা রুজু হয়েছে।

আরও পড়ুন:


আইএস বধূ শামীমা বাংলাদেশে নয়, ফিরতে চান ব্রিটেনে

করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আবারও ১০ হাজারের কাছাকাছি মৃত্যু

রদ্রিগোর গোলে ইন্টার মিলানকে হারাল রিয়াল মাদ্রিদ

চট্টগ্রামের উপকূলে মিলল তিনটি মৃত ডলফিন!


NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

মমেকের করোনা ইউনিটে আরও ৪ জনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

মমেকের করোনা ইউনিটে আরও ৪ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ২ জন করোনা শনাক্ত হয়ে এবং ২ জন উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। 

আজ বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ফোকাল পার্সন ডা. মহিউদ্দিন খান মুন।

তিনি বলেন, গত ২৪ ঘন্টায় মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বৃহম্পতিবার সকাল ৮টার মধ্যে ৪ জন মারা গেছেন। 

তারা হলেন- ময়মনসিংহ ভালুকার বাসিন্দা আব্দুল বারী (৭৫) ও টাঙ্গাইল ধনবাড়ির গোলাম মোস্তফা (৬০)। 

এ সময় করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান ২জন। তারা হলেন- ময়মনসিংহ সদরের নজিরন নেসা (৭০) এবং নেত্রকোনা পূর্বধলার জোবেদা (৯০)।

 

পরবর্তী খবর

মমেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪

অনলাইন ডেস্ক

মমেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪

গত ২৪ ঘণ্টায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে, করোনায় দুই জন ও উপসর্গ নিয়ে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার সকালে মমেক হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন, ময়মনসিংহ ভালুকা আব্দুল বারী (৭৫) ও টাঙ্গাইল ধনবাড়ি উপজেলার গোলাম মোস্তফা (৬০)। এছাড়া ময়মনসিংহ সদরের নজিরন নেছা (৭০) এবং নেত্রকোনা পূর্বধলা উপজেলার জোবেদা বেগম (৯০) করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান।

ডা. মহিউদ্দিন খান জানান, করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে নতুন ৮ জন ভর্তিসহ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ১০৪ জন রোগী ভর্তি আছেন। এদের মধ্যে আইসিউতে ৬ জন চিকিৎসাধীন আছেন। এছাড়াও সুস্থ হয়ে ১৩ জন হাসপাতাল ছেড়ে গেছেন।

এদিকে সিভিল সার্জন নজরুল ইসলাম জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৫৯টি নমুনা পরীক্ষায় ৩৯ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৮৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত জেলায় মোট আক্রান্ত ২১ হাজার ৬৭৫ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২০ হাজার ৩১১ জন।

আরও পড়ুন: 


বাংলাদেশি মিথিলার প্রশংসা করলেন বলিউড নির্মাতা!

ঢাকার যেসব এলাকায় মার্কেট-দোকানপাট বন্ধ থাকবে

ইউয়েফা চ্যাস্পিয়ন্স লিগে প্রথম ম্যাচেই হোঁচট খেল মেসি-নেইমাররা

মন্ত্রিসভায় বড় ধরনের রদবদল করলেন বরিস জনসন


উল্লেখ্য, চলতি সেপ্টেম্বর মাসে মমেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে ৬৬ জন মারা গেছেন। গত জুলাই ও আগস্ট মাসে ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনা ও উপসর্গে মৃত্যু হয়েছ ৯০১ জনের। 

news24bd.tv রিমু    

পরবর্তী খবর

বান্দরবানে ঝিরিতে ভেসে যাওয়া মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

বান্দরবানে ঝিরিতে ভেসে যাওয়া মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

ফাইল ছবি

বান্দরবান সদর উপজেলার ৩ নং সদর ইউনিয়নে জুম থেকে ফেরার পথে একটি পাহাড়ি ঝিরিতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনায় এখনও নিখোঁজ রয়েছেন আরেক সন্তান।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল পৌনে আটটার দিকে চিম্বুক এলাকার লাইমিপাড়া থেকে স্থানীয় এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে।

বান্দরবানের সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য জগদীশ ত্রিপুরা বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। এসময় তিনি বলেন, আমরা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিয়েছি, তারা ঘটনাস্থলে আসছে।

আরও পড়ুন


চাকরির কথা বলে ফাঁকা বাড়িতে ডেকে ৮ জন মিলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

বান্দরবানে পাহাড়ি ঝিরিতে ভেসে গিয়ে ২ সন্তানসহ মা নিখোঁজ

করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আবারও ১০ হাজারের কাছাকাছি মৃত্যু

রদ্রিগোর গোলে ইন্টার মিলানকে হারাল রিয়াল মাদ্রিদ


সন্ধান পাওয়া মারা যাওয়া দুজন হলেন - মা কৃষ্ণাতি ত্রিপুরা (৪৪) ও মেয়ে বিনিতা ত্রিপুরা (১৩)। আর এখনো নিখোঁজ ছেলে প্রদীপ ত্রিপুরা (৮)। 

এর আগে বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে জুমের কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে কৃষ্ণাতি ত্রিপুরা তার মেয়ে ও ছেলেকে নিয়ে রাঙ্গাঝিরিতে গোসল করতে নামেন। এ সময় হঠাৎ প্রবল বৃষ্টি শুরু হয়। একপর্যায়ে প্রবল স্রোতে তিনজনই ভেসে গিয়ে নিখোঁজ হন।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর