সোনারগাঁওয়ে সাড়ে ১৪ হাজার ইয়াবাসহ ব্যবসায়ী আটক

অনলাইন ডেস্ক

সোনারগাঁওয়ে সাড়ে ১৪ হাজার ইয়াবাসহ ব্যবসায়ী আটক

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থেকে ১৪ হাজার ৪৩০ পিস ইয়াবাসহ এক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‍্যাব।

আজ তাকে আটক করা হয়।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ইভ্যালির বিরুদ্ধে এবার যশোরে লিখিত অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক

ইভ্যালির বিরুদ্ধে এবার যশোরে লিখিত অভিযোগ

ইভ্যালির (সিইও) মো. রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনের (প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান) বিরুদ্ধে এবার যশোরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন এক গ্রাহক। শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাতে যশোরের কোতোয়ালি মডেল থানায় জাহাঙ্গীর আলম চঞ্চল নামে ওই গ্রাহক থানায় প্রতারণার অভিযোগ দেন। 

যশোরের কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযোগে জানা যায়, গত ২৯ মে ভোর রাত ৩টার দিকে ইভ্যালি থেকে এক লাখ ৩০ হাজার ১৪০ টাকা দিয়ে ভারতীয় বাজাজ কোম্পানির একটি পালসার মোটরসাইকেল কেনার জন্য টাকা দিয়েছিলেন জাহাঙ্গীর আলম চঞ্চল। টাকা পরিশোধের ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে পণ্যটি ডেলিভারি দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সাড়ে তিন মাস পার হলেও পণ্যটি ডেলিভারি দেওয়া হয়নি। তাদের হটলাইন নম্বরে যোগাযোগ করা হলেও কোনো সমাধান পাওয়া যায়নি। এভাবে দিনের পর দিন প্রতিষ্ঠানটি প্রতারণা করে আসছে।

আরও পড়ুন:


অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

ছাত্রকে যৌন হয়রানি ২৭ বছরের তরুণীর, ২০ বছরের কারাদণ্ড

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


ভুক্তভোগী জাহাঙ্গীর আলম চঞ্চল জানান, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি ডটকমের চমকপ্রদ বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে পণ্য কিনতে ওই প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৩০ হাজার ১৪০ টাকা দিয়েছি। টাকা পরিশোধের সাড়ে তিন মাস হলেও আমার মোটরসাইকেলটি এখনো পাইনি। বিভিন্ন সময় তাদের হটলাইনে ফোন দিলে পণ্যটি দ্রুতই পাঠানো হবে এমন কথা বলা হয়। পরে ফোন দিলে আর রিসিভ করে না। তাই বাধ্য হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি।

যশোরের কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম জানান, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনের (প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান) বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

নির্বাচনী আবহে জমজমাট গ্রামগঞ্জ

অনলাইন ডেস্ক

নির্বাচনী প্রচারে জমে উঠেছে গ্রামগঞ্জ। জমজমাট প্রচার ও গণসংযোগ চলছে গ্রামগঞ্জ ও হাটবাজারে। নির্বাচনী প্রচারণায় মুখর চায়ের আড্ডা। করোনা মহামারীর মধ্যেও ভোটারদের বাড়ি বাড়ি ছুটছেন চেয়ারম্যান-মেম্বার প্রার্থীরা। দুই বিভাগের ৬ জেলার ১৬১ ইউপির ভোট সোমবার। আজই শেষ হচ্ছে প্রচারণা।

করোনার ধাক্কা কাটিয়ে আবারো নির্বাচনী আমেজ এখন বেশ কিছু গ্রামীণ জনপদে। ইউনিয়ন আর পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে এখন জমজমাট স্থানীয় রাজনীতির মাঠ।

বিএনপি এই নির্বাচনে অংশ না নিলেও দলীয় প্রতীক নৌকা আর লাঙলের পাশাপাশি রয়েছে বিভিন্ন দলের স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পোস্টার।  দেয়ালে দেয়ালে শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন মার্কার ছবি। সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নিতে চান ভোটাররা।

গণ জমায়েত আর পরস্পর বিরোধী বক্তব্যে সরগরম নির্বাচনী মাঠ। ভোটারদের মন জয় করতে নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন প্রার্থীরা।

দলীয় রাজনীতির বাইরে স্থানীয় সমস্যাগুলোকে চিহ্নিত করে সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে কোথাও কোথাও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। তবে নির্বাচন কর্মকর্তারা বলছেন, সুষ্ঠু নির্বাচনে এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন তারা।

আরও পড়ুন:


সাদা বাঘিনী ‘শুভ্রা’র ঘরে ডোরাকাটা নতুন অতিথি

তেল ও চিনির দাম বাড়ার বিষয়ে যা বললেন বাণিজ্যমন্ত্রী

এবারও গ্রহণযোগ্য পন্থায় নির্বাচন কমিশন গঠন করা হবে: ওবায়দুল কাদের

হতাশায় নিউজিল্যান্ডকে হুমকি দিলেন পিসিবি চেয়ারম্যান রমিজ রাজা


খুলনা বিভাগের খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা এবং চট্টগ্রাম বিভাগের চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও নোয়াখালীর ১৬১ ইউপি ও ৯ পৌরসভায় ভোট গ্রহণ সোমবার। সেই হিসেবে আজই শেষ হচ্ছে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সঠিক নীতিমালায় ই-কমার্স সংকট কেটে যাবে: মসিক মেয়র

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:

সঠিক নীতিমালায় ই-কমার্স সংকট কেটে যাবে: মসিক মেয়র

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) মেয়র ইকরামুল হক টিটু বলেছেন, ‘ই-কমার্স ব্যবসা নিয়ে সম্প্রতি আমাদের যে সংকট তৈরি হয়েছে তা বেশি দিন থাকবে না। কারণ সরকার ই-কমার্সকে টেকসই করতে কাজ করছে। সঠিক নীতি মালার মাধ্যমে এ সংকট কেটে যাবে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দ্রুততম সময়েই ই-কমার্সের গ্রাহক এবং বিক্রেতার জন্য নিরাপদ পরিবেশ গড়ে উঠবে।’

আরও পড়ুন:


অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

ছাত্রকে যৌন হয়রানি ২৭ বছরের তরুণীর, ২০ বছরের কারাদণ্ড

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


আজ শনিবার বেলা ১১টায় ময়মনসিংহ নগরীর অ্যাডভোকেট তারেক স্মৃতি মিলনায়তনে ই-কমার্স ক্লাব ময়মনসিংহ আয়োজিত ইসিএম আনন্দ উৎসব ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হকের পক্ষে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সমর কান্তি বসাক। ময়মনসিংহ ই-কমার্স ক্লাবের গ্রুপ ক্রিয়েটর এবি এম ফজলে রানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন নারী উদ্যোক্তা আইনুন নাহার, সাংবাদিক নিয়ামুল কবির সজল, ময়মনসিংহ ই-কমার্স ক্লাবের অন্যান্য সদস্যবৃন্দসহ প্রমুখ।

 

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

সাদা বাঘিনী ‘শুভ্রা’র ঘরে ডোরাকাটা নতুন অতিথি

নয়ন বড়ুয়া জয়, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় বিরল প্রজাতির সাদা বাঘ শুভ্রার ঘরে হুলদ কালো ডোরাকাটা শাবক।বাচ্চা জন্মের পর বাঘিনি হিংস্র হওয়ায় মানুষের আদরেই বড় হচ্ছে সাদা বাঘের বাচ্চা। 

ছাগলের দুধ খাওয়ায়ে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা চিড়িয়াখানার কিউরেটর শাহাদাতের। বাঘের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় খুশি দর্শনার্থীরা। তবে দর্শনার্থীদের আরো আকর্ষণ বাড়াতে হাতিসহ আরো নানা প্রাণী বাড়ানোর চেষ্টা কর্তৃপক্ষের। 

চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানার বাঘের খাঁচায় একের পর এক শাবকের জন্ম।২০১৬ সালের নভেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় ‘রাজ ও পরী’কে আনা হয়েছিল। ২০১৮ সালের ১৯ জুলাই পরী প্রথম তিনটি বাচ্চা প্রসব করে। তার একদিন পর একটি শাবক মারা যায়। 

বেঁচে থাকা দুটির মধ্যে একটি বিরল সাদা বাঘ। যার নাম রাখা হয় ‘শুভ্রা’। এই শুভ্রা এখন জন্ম দিয়েছে আরেকটি ফুটফুটে ডোরাকাটা শাবক।

তবে নতুন শাবকের জন্মের পর সাদা বাঘিনি হিংস্র প্রকৃতির হওয়ায় বাচ্চাকে মেরে ফেলার ভয়ে ফিডারে ছাগলের দুধ খাওয়ায়ে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করছে চিড়িয়াখানার কিউরেটর শুভ।  

চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় বাঘের সংখ্যা এখন দশটি। বেশি বাঘ থাকায় খুশি দর্শনার্থীরা।শুধু বাঘ নয় হাতিসহ আরো নতুন নতুন প্রানী যুক্ত করার চেষ্টা করছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। তবে সাদা বাঘের শাবক সাদা না হওয়ায় হতাশ চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

বগুড়ায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মোটর শ্রমিক নিহত

অনলাইন ডেস্ক

বগুড়ায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মোটর শ্রমিক নিহত

বগুড়ায় সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত মোটর শ্রমিক ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। নিহত হাসান সরকার (৫০) বগুড়া পৌর এলাকার পালশা সরকার পাড়ার মৃত সামছু সরকারের ছেলে। 

গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে হাসান সরকারকে কুপিয়ে জখম করা হয়। শনিবার সকালে হাসান সরকার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

নিহতের ছেলে জাকির সরকার মৃদুল জানান, তার স্বামী পরিত্যক্তা চাচাতো বোনের সাথে স্থানীয় এক যুবকের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। তাদের আপত্তিকর একটি ছবি একই এলাকার রুপম নামে যুবক হাতে পায়। 

এরপর থেকে ঐ যুবক তার বোনের সঙ্গে সম্পর্ক করতে চায়। কিন্তু বোন রাজী না হলে ওই ছবিগুলো বিভিন্ন জনের মোবাইল ফোনে পাঠিয়ে দেয় ঐ যুবক।

মৃদুল আরও বলেন, তার বোন একটি মোবাইল ফোন কোম্পানির শো-রুমে চাকরি করতেন। সেখানেও ছবিগুলো পাঠানো হয়। এতে করে তার বোনের চাকরি চলে যায়। পরে এ বিষয়ে তার বাবা হাসান সরকার স্থানীয় পৌর কাউন্সিলরের কাছে নালিশ করেন। কাউন্সিলর বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার জন্য বলেন।

এদিকে গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ১১টার দিকে ভবেরবাজার এলাকায় মেহেরা পাম্পের সামনে রুপমের সঙ্গে হাসান সরকারের তর্ক বিতর্ক হয়। এরপর হাসান সরকার পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে ধারালো অস্ত্র নিয়ে পিছন থেকে হামলা করে হাসান সরকারের মাথায় এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায় প্রতিপক্ষ। 

স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে পরদিন ঢাকা মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকালে ৯ টায় তিনি মারা যান।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক আব্দুর রশিদ সরকার বলেন, ঘটনার পর থেকেই রুপম পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হচ্ছে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর