মুসলিম নারীকে বিয়ে, সনাতন ধর্মাবলম্বী তিন পরিবার একঘরে

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

মুসলিম নারীকে বিয়ে, সনাতন ধর্মাবলম্বী তিন পরিবার একঘরে

নওগাঁর মান্দায় সনাতন ধর্মাবলম্বী তিন পরিবারকে ৩ মাস ধরে একঘরে করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সমাজপতিদের চাপে মাথা ন্যাড়া করে ঘোল ঢেলে ও পূজা দিয়ে প্রায়শ্চিত্ত করলেও ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর নিস্কৃতি মেলেনি। স্থানীয় মুসলিম ও হিন্দু সম্প্রদায়ের সমাজপতিদের এ সিদ্ধান্তে দুর্বিসহ জীবন যাপন করছে হতদরিদ্র পরিবারগুলো। 

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকা ভাতহন্ডা গ্রামে। অভিযোগ উঠেছে, একঘরে করে রাখা পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলায় ইতোমধ্যে গ্রামের নয়জনকে গুনতে হয়েছে জরিমানা। 
গত ৩ মাস ধরে নেওয়া হয়নি পানি সাপ্লাইয়ের বিলসহ স্থানীয় সমিতির টাকা। যেতে পারছে না কাজেও। গ্রামের মোড়ের দোকান থেকে কিনতে পারছেন না প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। চড়তে দেওয়া হচ্ছে না গ্রামের অটোরিকশা কিংবা চার্জারভ্যানে।
ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর অভিযোগ, সমাজপতিদের দাবিকৃত এক লাখ টাকা না দেওয়ায় সমাজচ্যুত করে রাখা হয়েছে। বাড়িঘর ছেড়ে চলে যাওয়ারও হুমকি দেওয়া হচ্ছে। দুই সম্প্রদায়ের লোকজনদের চাপে তাঁরা দিশোহারা হয়ে পড়েছেন। থানা পুলিশকে জানিয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না। 
ভুক্তভোগী রামকৃষ্ণ প্রামানিক জানান, ছোট ভাই গনেশ চন্দ্র প্রামানিকের ছেলে বিপ্লব প্রামানিক ঢাকার একটি গার্মেন্টসে চাকরি করা কালে মুসলিম সম্প্রদায়ের মেয়ে তানজিলা খাতুনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে তাঁকে বিয়ে করে বাড়ি আনেন। তিনি আরো বলেন, ভাতিজা বিপ্লবও ধর্মান্তরিত হয়ে মুসলমান হওয়ায় সমাজপতিদের চাপের মুখে পড়েন তাঁরা। 
পরে গ্রামের মুসলিম সম্প্রদায়ের মাতবরদের ডেকে তাঁদের হাতে ভাতিজা বিপ্লব (ধর্মান্তরিত নাম আব্দুর রহমান) ও ভাজিতা বউ তানজিলাকে তুলে দেওয়া হয়। পরে গ্রামের লোকজন গ্রামের পূর্বধারে ভাই গনেশের জমিতে বাড়ি করে দেন। এ ঘটনায় নিজ সম্প্রদায়ের লোকজনের চাপে প্রায়শ্চিত্ত করা হয়েছে। 
ভুক্তভোগী গনেশের স্ত্রী মাধবী রানী বলেন, গত ২৫ মার্চ সন্ধ্যায় সিংগা-বালুকা মাদরাসায় আয়োজিত ইসলামী জালসায় যাবার কথা বলে ছেলে বিপ্লব নিজ বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। এরপর থেকে সে নিরুদ্দেশ রয়েছে। ছেলে নিরুদ্দেশ হওয়ার পেছনে আমাদের হাত রয়েছে বলে দোষারোপ করেন উভয় সম্প্রদায়ের লোকজন। এক পর্যায়ে ছেলেকে বের করে দেওয়ার জন্য চরম চাপ সৃষ্টি করা হয়। পরে গ্রামের মর্ডাণ ক্লাব চত্বরে আয়োজিত সালিসে আমাদের তিন পরিবারকে একঘরে করেন সমাজপতিরা। 
তিনি অভিযোগ করে বলেন, গ্রামের আব্দুল জব্বারের ৪ বিঘা ২ কাঠা জমি এক বছরের জন্য ৪০ হাজার টাকায় লিজ নিয়ে বোরো ধানের চাষ করা হয়েছিল। ধান কাটার সময় বাধা দিয়ে ২ বিঘা ১ কাঠা জমির ধান কেটে নিয়ে মাড়াইয়ের পর চেয়ারম্যান (দুর্নীতির দায়ে বরখাস্তকৃত) ব্রজেন সাহা খড় ও ক্লাবে ধান জমা রাখেন সমাজপতিরা। পরে সেগুলো আর ফেরত দেওয়া হয়নি। 
এদিকে একঘরে পরিবারগুলোর লোকজনের সঙ্গে কথা বলায় জরিমানা গুনতে হয়েছে ওই গ্রামের সাইফুল ইসলাম, খোরশেদ আলম, শেফালি বেগম, মনসুর রহমান, ময়মুল ইসলামসহ নয়জনকে।
এদের মধ্যে খোরশেদ আলম বলেন, একঘরে করে দেওয়া শ্রীকৃষ্ণ প্রামানিকের সঙ্গে আমার আত্মীয়তা রয়েছে। শ্রীকৃষ্ণের ছেলে উৎপল প্রামানিক এবারের ঈদে বাড়ি আসেন। গত শনিবার (৩১ জুলাই) উৎপলের স্ত্রী শিলা রানী ঢাকায় যাবার আগে আমার সঙ্গে সাক্ষাত করতে আসেন। তাঁর সঙ্গে কথা বলায় আমার ও আমার স্ত্রী শেফালি বিবির ৭ হাজার টাকা জরিমানা করেছে মাতবররা। 

আরও পড়ুন

বাড়ানো হয়েছে লঞ্চ চলাচলের সময়

এবার পর্নোগ্রাফি শুটিংয়ের অভিযোগে অভিনেত্রী গ্রেপ্তার

সাকিবের সামনে রেকর্ড গড়ার হাতছানি, যেখানে তিনিই হবেন প্রথম

চিত্রনায়িকা একার বিরুদ্ধে হাতিরঝিল থানায় দুই মামলা


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামের একাধিক বাসিন্দা জানান, ৩ মাস ধরে ওই পরিবারগুলোর ওপর যে নির্যাতন চালানো হচ্ছে এটা অমানবিক। এটা মেনে নেওয়া যায় না। এর একটা বিহিত হওয়া দরকার। তিন পরিবারকে একঘরে করে রাখার বিষয়টি অকপটে স্বীকার করেন গ্রামের মডার্ণ ক্লাবের সভাপতি ও সমাজপতি আব্দুল জব্বার। 
তিনি বলেন, দুই সম্প্রদায়ের লোকজনের উপস্থিতিতে ওই পরিবারগুলোকে আটক দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। একঘরে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলার অপরাধে জরিমানার টাকা যেভাবে আদায় করা হচ্ছে সেভাবেই খরচ করা হচ্ছে।

তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুস সাত্তার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এটা অমানবিক। ঘটনাকে কেন্দ্র জরিমানা আদায় কোন নিয়মের মধ্যেই পড়ে না। 
মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান এ বিষয়ে কোনো বক্তব্য দিতে রাজি হননি। তিনি বলেন, বিষয়টি দেখা হচ্ছে। মান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু বাক্কার সিদ্দিক বলেন, ঘটনার তদন্ত করে সত্যতা পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

গাজীপুরে ধর্ষণ মামলায় কারাগারে কনস্টেবল

অনলাইন ডেস্ক


গাজীপুরে ধর্ষণ মামলায় কারাগারে কনস্টেবল

গাজীপুরে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে মনিরুজ্জামান নামের এক কনস্টেবলকে (২৩) আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গ্রেফতার কনস্টেবল মনিরুজ্জামান সিরাজগঞ্জের কাজিপুর থানার বিয়ারা চরপাড়া এলাকার বিল্লাল হোসেনের ছেলে। তিনি আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নে (এপিবিএন) উত্তরায় কর্মরত।

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাতে ওই পুলিশ সদস্যকে আটক করেন স্থানীয়রা। পরে তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ ঘটনায় রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকালে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে জিএমপি কোনাবাড়ী থানায় একটি মামলা করেন।

কোনাবাড়ী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাখাওয়াত ইমতিয়াজ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।  

তিনি বলেন, গত ফেব্রুয়ারি মাসে বিয়ের প্রলোভনে এক আত্মীয়ের বাসায় নিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন মনিরুজ্জামান। পরে বাসায় এসে ওই নারী মাকে সব খুলে বলেন এবং গাজীপুর আদালতে একটি মামলা করেন। শনিবার রাতে মেয়ের বাসায় এসে ধর্ষণ মামলা তুলে নিতে ভয়ভীতি দেখান। মামলা তুলে নিতে অস্বীকৃতি জানালে মনিরুজ্জামান আবার ধর্ষণ করেন।

আরও পড়ুন:


২০৪১ সালের মধ্যে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন লক্ষ্য ৬০ হাজার মেগাওয়াট

খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ল

দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিং মামলায় ডিআইজি পার্থ গোপাল কারাগারে

নতুন লুকে পর্দায় ফিরছেন শুভ!


এ সময় নারীর চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে পুলিশ সদস্যকে আটক করে পুলিশে খবর দেন। পরে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় কোনাবাড়ী পুলিশ। এ ঘটনায় রোববার সকালে ওই নারী বাদী হয়ে মনিরুজ্জামানের নামে আরও একটি মামলা করেন।

তিনি জানান, অভিযুক্ত কনস্টেবলকে বিকেলে আদালতের মাধ্যমে গাজীপুর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

পাটগ্রামে দুই রোহিঙ্গা আটক

অনলাইন ডেস্ক

পাটগ্রামে দুই রোহিঙ্গা আটক

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে নেপাল যাওয়ার পথে দুই রোহিঙ্গাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। আজ দুপুরে উপজেলার দহগ্রাম আঙ্গোরপোতা সীমান্ত পাড়ি দেওয়ার চেষ্টাকালে তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- কক্সবাজারের টেকনাফ এলাকায় মুন্সিপাড়া ২২ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সেতুফা বেগম (১৮) ও আনস (২২)।

পাটগ্রাম থানা ওসি ওমর ফারুক জানান, নেপালে বসবাস করা বড় ভাইয়ের কাছে যেতে রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে বের হয়ে শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাতে লালমনিরহাটের পাটগ্রামে আসেন রোহিঙ্গা আনাস ও সেতুফা বেগম। 

আরও পড়ুন:


২০৪১ সালের মধ্যে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন লক্ষ্য ৬০ হাজার মেগাওয়াট

খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ল

দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিং মামলায় ডিআইজি পার্থ গোপাল কারাগারে

নতুন লুকে পর্দায় ফিরছেন শুভ!


রোববার দুপুরে দালালের মাধ্যমে দহগ্রাম সীমান্ত হয়ে ভারতে প্রবেশের চেষ্টাকালে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) সদস্যরা তাদের মারধর করে বাংলাদেশে ফেরত পাঠায়। পরে দহগ্রামের স্থানীয় লোকজন ওই দু’জনকে আটক করে পাটগ্রাম থানা পুলিশে সোপর্দ করে। তাদের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ফেনী সদরে বিনা ভোটে জয় পেলেন শুসেন

অনলাইন ডেস্ক


ফেনী সদরে বিনা ভোটে জয় পেলেন শুসেন

ফেনী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে একক প্রার্থী হিসেবে বিনা ভোটে জয় পেলেন শুসেন চন্দ্র শীল। তিনি আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এবং ফেনী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী আজ রোববার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নিবাচন কমকর্তা নাসির উদ্দিন বেসরকারিভাবে শুসেন চন্দ্র শীলকে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন:


২০৪১ সালের মধ্যে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন লক্ষ্য ৬০ হাজার মেগাওয়াট

খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ল

দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিং মামলায় ডিআইজি পার্থ গোপাল কারাগারে

নতুন লুকে পর্দায় ফিরছেন শুভ!


এ নির্বাচনে বিএনপিসহ অন্য কোনো রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করেনি এবং অন্য কোনো প্রার্থী মনোনয়নপত্র  জমা দেয়নি। তফসিল অনুযায়ী আগামী ৭ অক্টোবর নির্বাচন হওয়ার কথা ছিলো।

গত ১৩ আগস্ট ফেনী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রহমান মারা যাওয়ায় পদটি শূন্য হয়ে যায়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

বাজিতে হেরে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক

বাজিতে হেরে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

ক্রিকেট খেলায় বাজিতে হেরে ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন সঞ্জিত রাজবংশী (২০)। অনেকেই তার কাছে টাকা পেতেন। কিন্তু তিনি টাকা পরিশোধ করতে পারছিলেন না। মানসিক চাপে শেষমেষ নিজ ঘরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন।

আজ বিকেলে ঢাকার ধামরাই উপজেলার গাঙ্গুটিয়া ইউনিয়নের কাওয়ালীপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সঞ্জিত রাজবংশী ধামরাইয়ের গাংগুটিয়া ইউনিয়নের কাওয়ালিপাড়া গ্রামের বীরেন রাজবংশীর ছোট ছেলে। তিনি পেশায় মাছবিক্রেতা ছিলেন।

আরও পড়ুন:


২০৪১ সালের মধ্যে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন লক্ষ্য ৬০ হাজার মেগাওয়াট

খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ল

দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিং মামলায় ডিআইজি পার্থ গোপাল কারাগারে

নতুন লুকে পর্দায় ফিরছেন শুভ!


ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনির হোসেন বলেন, খবর পেয়ে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে। এখন ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা প্রক্রিয়াধীন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আগামীকাল নোয়াখালীর ১৩ ইউপি ও এক পৌরসভা নির্বাচন

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

আগামীকাল নোয়াখালীর ১৩ ইউপি ও এক পৌরসভা নির্বাচন

আগামীকাল (২০ সেপ্টেম্বর) সোমবার নোয়াখালীর হাতিয়া ও সুবর্ণচর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। একই দিন কবিরহাট উপজেলার কবিরহাট পৌরসভারও নির্বাচন। তবে মেয়র পদে বিনা প্রতিন্দ্বিদ্বতায় জহিরুল হক রায়হান মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় সেখানে শুধুমাত্র কাউন্সিলর পদে নির্বাচন হবে। 

নির্বাচনকে সামনে রেখে রোববার বিকাল থেকে প্রত্যেকটি কেন্দ্রে কেন্দ্র নির্বাচনী সরঞ্জামাদি পৌঁছানো হয়েছে। একই সঙ্গে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীও পৌঁছেছে কেন্দ্রে। 

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সকল প্রকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে প্রশাসন। তবে সুবর্ণচরের চর আমানউল্যাহ ও হাতিয়ার নিঝুম দ্বীপ ও সোনাদিয়া ইউনিয়নের ও চর কিংয়ে একাধিক কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে। এইসকল এলাকার প্রার্থী ও ভোটাররা আতঙ্কে রয়েছে। 

স্ব স্ব নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলার হাতিয়া উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সেখানে ৮৬টি কেন্দ্রে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৫৫৬জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করার কথা রয়েছে। ৭টি ইউনিয়নে মোট চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩৩জন, পুরুষ সদস্য পদে ২৯৩জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৮৮জন প্রতিন্দ্বিদ্বতা করছেন। 

নির্বাচনকে সুষ্ঠু করতে ১৬জন নির্বাহী ম্যাজিস্টেট, ৩ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৬৭৫জন পুলিশ, ১৪৬২জন আনসার, ৬ প্লাটুন কোস্টগার্ড, ২ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাবের ৫টি টিম, মোবাইল ফোর্স ৭টি ও ৩টি স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োগ দেয়া হয়েছে। 

আরও পডুন


যে দেশে সর্বনিম্ন বেকারত্বের রেকর্ড

ইভ্যালির লাখো গ্রাহকের মাথায় হাত!

সালমানকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন শাবনূর!

আদালতের দ্বারস্থ জেমস


এ ছাড়া সুবর্ণচরে ৬টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিন্দ্বিদ্বতা করছে ২৮জন, পুরুষ সদস্য পদে ২০৩ ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৬৬ জন। ৬টি ইউনিয়নে ৫৬টি কেন্দ্রে ১ লাখ ১৯ হাজার ৮১৬জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করার কথা রয়েছে। তবে চরবাটা ইউনিয়নে ইভিএম পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এখানে নিরাপত্তায় ১১জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ২জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৫৫৭জন পুলিশ, ৯৫২ জন আনসার, ৬ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাবের ৮টি টিম, ৬টি মোবাইল ফোর্স ও ২টি স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োগ রয়েছে। 

নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম জানান, দুইটি উপজেলায় ও একটি পৌরসভায় মোট ১৪শত পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব, বিজিবি ও আনসার সহ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ মাঠে থাকবেন। শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট সমাধানের জন্য সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো. রবিউল আলম জানান নির্বাচন সুষ্ঠ করার জন্য সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। কোন ধরনের অনিয়মে ছাড় দেওয়া হবে না। 

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর