নির্মাণাধীন ৬৫ শতাংশ ভবন ও ওয়াসার পানির মিটারের গর্তে ২৫ শতাংশ ডেঙ্গুর লার্ভা
নির্মাণাধীন ৬৫ শতাংশ ভবন ও ওয়াসার পানির মিটারের গর্তে ২৫ শতাংশ ডেঙ্গুর লার্ভা

নির্মাণাধীন ৬৫ শতাংশ ভবন ও ওয়াসার পানির মিটারের গর্তে ২৫ শতাংশ ডেঙ্গুর লার্ভা

অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, নির্মাণাধীন ৬৫ শতাংশ ভবনে আর ওয়াসার পানির মিটারের গর্তের মধ্যে ২৫ শতাংশ ডেঙ্গুর লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে । বাকি লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে পরিত্যক্ত জিনিসে।

আজ সোমবার দুপুরে মিরপুরের শাহ আলী মাজার এলাকায় এডিস মশা ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে মশা নিধনে চিরুনি অভিযান পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, এখন ৬৫ শতাংশ নির্মাণাধীন ভবনেই এডিসের লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে আর ২৫ শতাংশ ওয়াসার পানির মিটারের গর্তের মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে।

বাকিগুলো পরিত্যক্ত বিভিন্ন জিনিস যেমন ডাবের খোসা, কমোড, দইয়ের বাটি, ফুলের টবসহ নানা জিনিসে।

মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে যে সব এলাকাকে হট স্পট বলা হচ্ছে ডেঙ্গুর জন্য সেসব স্থানে বেশি ফগিং করা হচ্ছে। তবে জরিমানার ভয়ে যে সব ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি, তারা বাসার ঠিকানা দিচ্ছে না। তাদের ঠিকানা পেলে আমরা সেসব এলাকার আশেপাশে এডিস নিধনে পদক্ষেপ নিতে পারি।

এদিকে এডিস মশা নিধনে কোন সেবা সংস্থার সহযোগিতাও মিলছে না।

এসময় নির্মাণাধীন একটি ভবনে ডেঙ্গুর লার্ভা পাওয়ায় এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয় জানিয়ে তিনি বলেন, সিটি করপোরেশন সাধ্যমতো চেষ্টা করছে ডেঙ্গু নিধনের।

নিজের বাড়ি করি পরিষ্কার এই সামাজিক আন্দোলন গড়ে না তুললে ডেঙ্গু নিধন করা যাবে না। তাই ডেঙ্গু প্রতিহত করতে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।


আরও পড়ুন

রোহিঙ্গাদের ইস্যুতে বিশ্ব ব্যাংকের প্রস্তাব নাকচ

মাত্র ৫ টাকার জন্য অটোচালককে হত্যা!

ইরানের নাগরিকদের আফগানিস্তান ত্যাগের নির্দেশ

টোকিও অলিম্পিকে দ্রুততম মানব মার্সেল জ্যাকবস


news24bd.tv/এমিজান্নাত