করোনার থাবায় এক বছর পেছালো মেট্রোরেলের টার্গেট

প্লাবন রহমান

করোনায় থাবায় পেছালো মেট্রোরেলের টার্গেট। চলতি বছরের ডিসেম্বরে মেট্রো চালুর কথা থাকলেও তা সম্ভব হচ্ছে না। সেই জায়গায় ২০২২ সালের ডিসেম্বরে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেল চালু হবে বলে জানিয়েছেন প্রকল্পের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। 

তবে-মতিঝিল পর্যন্ত কবে চালু করা যাবে যে বিষয়ে নিশ্চিত করে বলতে পারছে না কর্তৃপক্ষ। মেট্রোরেলের আগাঁরগাও স্টেশন। রাস্তার অংশের কাজ শেষে এখন ভায়াডাক্টের উপরই বেশিরভাগ কর্মযজ্ঞ। করোনার পরিস্থিতির মধ্যেও থেমে নেই প্রকল্পের কাজ।

উত্তরা থেকে আগারগাও হয়ে মতিঝিল পর্যন্ত পুরো পথে এমনই দৃশ্যমান মেট্রোরেল প্রকল্প। জুন মাস পর্যন্ত প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৬৮ ভাগ। তবে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত পূর্ত কাজ এগিয়েছে ৮৭ দশমিক ৮০ ভাগ। 

আসছে ডিসেম্বরের মধ্যে আগারগাঁও অংশের কাজ শেষের লক্ষ্য থাকলেও করোনার কারণে সেই লক্ষ্য এখন ২০২২ সালের ডিসেম্বর।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে মেট্রো প্রকল্পের কাজ। এরইমধ্যে দেশি-বিদেশি বেশিরভাগ কর্মীকে দেয়া হয়েছে করোনার দুই-ডোজ ভ্যাকসিন। এরপরও সবমিলিয়ে প্রকল্পে করোনা আক্রান্ত প্রায় ৮০০ জন।

উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১.৭৩ কিলোমিটার ভায়াডাক্টের ওপর বসে গেছে রেলট্র্যাক। প্রথম পর্যায়ের ৯টি স্টেশনও দৃশ্যমান। দেশে চলে এসেছে ৪টি মেট্রোরেলের ২৪ সেট কোচ। আগামী সেপ্টেম্বর নাগাদ আরও পাঁচটি মেট্রোরেল জাপান থেকে আসার কথা।

আরও পড়ুন:


করোনায় আক্রান্ত কনডেম সেলের ফাঁসির আসামি

টিকা নিলে কমে মৃত্যু ঝুঁকি: আইইডিসিআর

করোনা: কুষ্টিয়ায় একদিনে ৯ জনের মৃত্যু

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রয়োগ শুরু


সবমিলিয়ে এজন্য-করোনা পরিস্থিতির ওপরই আবারও নির্ভর করতে হচ্ছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষকে। তবে এখন টিকা কার্যক্রম গতিশীল হওয়ায় আগামী ডিসেম্বরে আগারগাঁও পর্যন্ত চালুর ব্যাপারে জোর আশাবাদী প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

নগরে এসছে শরৎকাল

রিশাদ হাসান

নগরে এসছে শরৎকাল

নগরে এসছে শরৎকাল। সাদা মেঘের ভেলা আর শুভ্র কাশফুলের অনিন্দ্য সৌন্দর্যের কাব্যে-গানে, নগরবাসী খুঁজে নেয়; এক চিলতে সুখ। প্রকৃতির পালাবদলের মাঝে ঋতুরানী শরৎকালকে যেন আলাদা করেই দেখেন সবাই। লিলুয়া বাতাস বা উষ্ণতা, তার মাঝেও যেন এক উৎসব মুখর আনন্দ।

শরতের শারদ সম্ভার সূর্য অরূণ আলোয় জানান দিচ্ছে, প্রকৃতিতে এই সময়টা শুধুই ঋতুরানীর। তাইতো নাগরিক মন চঞ্চল হয়ে উঠতে চায় প্রভাত বেলায়।

শুভ্র কাশফুলে অনেক স্বপ্ন প্রবণ হয়ে উঠতে ইচ্ছে করা সময়টায় কিছুটা সুখ বার্তা নিয়ে আসে নীল আকাশের কার্নিশে ভেসে বেড়ানো পেঁজা মেঘ। জানান দেয় এই শরৎ কবি ও কবিতার।

কালিদাসের মেঘদূতের মত নারীর কাছে মোহনীয় হয়ে ওঠে শরৎ। কখনও কাঁশফুল ছুঁয়ে বা তার উপর শাড়ির ঢেউ তুলে রাবীন্দ্রিক ভঙ্গিমায় হেটে চলা, অথবা জয়নুলের ক্যানভাসে কল্পনার বেসাতী ছুঁয়ে যাওয়ায় চেষ্টা চলে দিনভর।

চর্যাপদ থেকে আধুনিক সমাজ সবখানেই শরৎ ছিলো কবির কবিতায়। নাগরিক জীবনেও তার ব্যাতিক্রম নয়। তরুণ কবিরাও লেখেন শরৎ বন্দনা।

আরও পড়ুন


সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’, দেশে ভারী বৃষ্টির আভাস

অবসান ঘটতে যাচ্ছে আঙ্গেলা ম্যার্কেলের

শিশু সন্তানকে জবাই করে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা, আটক মা


ভুলে যাওয়া গানের কলির মত অনেকের সময়টা কাটে নদীর পাশে। গিটারের টিউন পাল্টে যায় যেন অনায়েসে। গায়ক আওড়াতে থাকেন চিরচেনা সেই সুর।

প্রকৃতির এত উপকরণের মাঝে অনেকে খুঁজে নেন এক চিলতে সুখ, যা কখনও ফ্রেমবন্দী হয়, আবার কখনও ভাগাভাগি হয় প্রিয়জন বা পরিবারের সঙ্গে। 

news24bd.tv রিমু

পরবর্তী খবর

সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

সুকন্যা আমীর

সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

পৃথিবীর পাঠশালার অন্যতম এক ছাত্র ছিলেন সৈয়দ শামসুল হক। তাঁর লেখনীর অন্যতম বিষয়বস্তুই ছিলো মানুষ। দীর্ঘ সাহিত্য জীবনে তিনি তাঁর সৃজনশীলতার স্বাক্ষর রেখে গেছেন কবিতা, গল্প, উপন্যাস নাটকে। তাঁর পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকীতে নিউজ টোয়েন্টিফোরের শ্রদ্ধা।

ভবিষ্যতের লক্ষ্য তিনি ঠিক করেছিলেন কৈশোরেই। অকপটে বাবাকেও জানিয়েছিলেন সে কথা। সেই জেদের প্রমাণ মেলে তাঁর লেখনীতে। তিনি সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক। কবিতা, গল্প, উপন্যাস, নাটক, প্রবন্ধ, কিংবা অনুবাদে তিনি বাংলা সাহিত্যকে করেছেন সমৃদ্ধ। সৃজনশীলতার ক্ষেত্রে স্বৈরতন্ত্র জায়েজ কথাটি, তাঁরই মুখে মানায়।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান বলেন, 'শামসুল হক কবিতাকে অবলম্বন করে কাব্যভাষায় নাটক লিখেছিলেন। এর আগে অন্য কেউ তা করে নি।'

তিনি আরও বলেন, সৈয়দ শামসুল হকের তুলনা কেবল তিনিই। বিশ্ব সাহিত্যের সাথে তার একটা ভালো যোগাযোগ ছিলো বলেও জানান আতাউর রহমান। 

আরও পড়ুন


বজ্রপাত থেকে বাঁচতে ৩০০ কোটি টাকার প্রকল্প, ২৩ জেলায় এক হাজার ছাউনি

আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’, দেশে ভারী বৃষ্টির আভাস

অবসান ঘটতে যাচ্ছে আঙ্গেলা ম্যার্কেলের

শিশু সন্তানকে জবাই করে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা, আটক মা


সব্যসাচীর লেখনীর মূল উপজীব্যই ছিলো মানুষ। আর মৃত্যুর আগ পর্যন্ত নিতে চেয়েছিলেন শিল্পের স্বাদ। 

সৈয়দ হকের প্রথম প্রকাশিত উপন্যাস দেয়ালের দেশ। গণনায়ক, ঈর্ষা, নীল দংশন কিংবা হ্যামলেটের অনুবাদ এই বইগুলো আজও পাঠকের হাতে।  

সাহিত্যের এই বাজিকরের জন্ম ১৯৩৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর জীবনের পাঠ চুকিয়ে আলিঙ্গন করেন মৃত্যুকে। তবুও পরাণের গহীন ভিতর বাস করবেন তিনি।

news24bd.tv রিমু 

পরবর্তী খবর

দখল দূষণে মৃত দেশের অর্ধেক নদী, বিপন্ন হচ্ছে পরিবেশ

অনলাইন ডেস্ক

নদীমাতৃক বাংলাদেশে ভালো নেই নদ-নদী। মানুষের দখল আর আবর্জনার দূষণে বেশিরভাগ নদীর বেহাল অবস্থা। দক্ষিণের জেলাগুলোর অর্থনৈতিক শক্তির প্রধান অনুষঙ্গ নদী হলেও, সেখানে নানাভাবে নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ। উত্তরের নদীগুলোর ব্যাপ্তিও ধীরে ধীরে কমছে। দূষণে খারাপ অবস্থা রাজধানীর আশপাশে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের হিসেবে বরিশাল বিভাগে নদীর সংখ্যা অর্ধশতাধিক। তবে এই সংখ্যা কমে গেছে গেল দুই থেকে তিন দশকে। সন্ধ্যা, সুগন্ধা, আড়িয়াল খাঁ, ধানসিড়িসহ বেশ কয়েকটি নদীর বিভিন্ন শাখা নদী প্রায় মরে গেছে। বড় নদীগুলোয় চর জেগে সংকুচিত হচ্ছে। এতে এই অঞ্চলের পরিবেশের ওপর প্রভাব পড়ছে বলে জানান পরিবেশবাদীরা।

রাজশাহীর পদ্মা একসময় পরিচিত ছিলো তার ভয়াল রূপের জন্য। এখন পদ্মার বুকে জেগে থাকা চর দেখলে নদীর করুণ দশার কথাই মনে আসে আগে। এছাড়া মানুষ সৃষ্ট আবর্জনার জন্য দূষিত হচ্ছে পানি। মাছসহ অন্যান্য জলজ প্রাণির জন্য যা ক্ষতিকর।

দূষণ রোধের জন্য ট্যানারি শিল্প রাজধানীর হাজারীবাগ থেকে সরিয়ে সাভারের তেতুলঝোড়ায় নেয়া হয়। কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন। ট্যানারির বর্জ্যে ধলেশ্বরী মারাত্মক দূষণের শিকার।

আরও পড়ুন:


বিমানবন্দরে শুরু আরটি-পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম

নির্মাণশৈলী ও রাতে নৈসর্গিক দৃশ্য দেখতে পায়রা সেতুতে পর্যটকদের ভিড়

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

জাপার ফিরোজ রশীদের বিরুদ্ধে সম্পত্তি দখলের অভিযোগ, হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত


নদী ও এর আশপাশে সম্পত্তি সরকারের। এগুলোর দখল হয় প্রকাশ্যে। নদী দখল নিয়ে নানা মহলে সচেতনতার কথা বলা হলেও, এটি কমছে না। সংশ্লিষ্ট সচেতন মহল এজন্য দখলকারীদের সঙ্গে সরকারী কর্মকর্তাদেরও দায়ী করেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার আগে অবশ্যই পরিষ্কারের পরামর্শ

অন্তরা বিশ্বাস:

ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার আগে অবশ্যই পরিষ্কার করার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। বিশেষ করে আবাসিক হল এবং ক্যাম্পাসের ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার করার আহবান তাদের। তবে শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট সবাইকেই সচেতন থাকবার পরামর্শ দেন তারা। 

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আল-আমিন লেবু গেল নয় সেপ্টেম্বর মারা যান। একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক সাঈদা নাসরিন বাবলিও ডেঙ্গুজ্বরে মারা যান সাত জুলাই। ২০ আগস্ট ডেঙ্গু কেড়ে নেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষার্থীর প্রাণ। 

রও পড়ুন:


কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

বিয়ের আগেই পাত্রের মাকে নিয়ে পালিয়ে গেল পাত্রীর বাবা!

বিশ্বকাপের আগে কোহলিকে স্বস্তি দিলেন অশ্বিন

ইংরেজি শেখার জন্য বিয়ে করেছিলেন শেবাগ-যুবরাজ-হরভজন!!


সরকারি বেসকারি অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষক এরইমধ্যে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন। করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘ দেড় বছর পর খুলতে যাচ্ছে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। বিশ্ববিদ্যালয় খোলার আগে ডেঙ্গুরোধে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করার পরামর্শ সংশ্লিষ্টদের।

এ বছর ডেন থ্রি ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন অধিকাংশ ডেঙ্গু রোগী। ডেঙ্গুর ভয়াবহতাও বেশি। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরও সচেতন থাকার পরামর্শ চিকিৎসকদের।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী সারাবিশ্বে প্রতি বছর ১০ কোটি থেকে ৪০ কোটি পর্যন্ত মানুষ ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়। আর মারা যায় সাত লাখের বেশি মানুষ। ২০১৯ সালে দেশে ডেঙ্গু মারাত্মক আকার ধারণ করে। ২০২০ সালে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ছিল। এবছর ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশের জলসীমায় জাহাজে চুরি ও দস্যুতা বন্ধ হয়েছে

মৌ খন্দকার

বাংলাদেশের জলসীমায় জাহাজে চুরি ও দস্যুতা বন্ধ হয়েছে বলে দাবি বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের। তাদের মতে কোস্ট গার্ড সদস্যদের দীর্ঘ প্রচেষ্টায় জলদস্যূ দমনে গেল পাঁচ বছর ধরে সফল। এ ধারা ধরে রাখতে নানা উদ্যোগও নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। 

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির স্বর্ণদ্বার চট্টগ্রাম বন্দর। পণ্য আমদানি-রপ্তানির বেশিরভাগই হয় দেশের প্রধান এই সমুদ্রবন্দর দিয়ে। এজন্য চট্টগ্রাম বন্দরকে নিরাপদ রাখা জরুরী। দিন রাত চব্বিশ ঘণ্টা খেটে গুরুত্বপূর্ণ এ দায়িত্ব পালন করছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড।

রও পড়ুন:


কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

বিয়ের আগেই পাত্রের মাকে নিয়ে পালিয়ে গেল পাত্রীর বাবা!

বিশ্বকাপের আগে কোহলিকে স্বস্তি দিলেন অশ্বিন

ইংরেজি শেখার জন্য বিয়ে করেছিলেন শেবাগ-যুবরাজ-হরভজন!!


কয়েক বছর আগেও দেশের জলসীমায় বাণিজ্যিক জাহাজে চুরি-ডাকাতির মতো অপ্রীতিকর ঘটনা ছিল নিয়মিত। জলদস্যুতা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম ব্যুরো, আইএমবি চট্টগ্রাম বন্দরকে তখন উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ বন্দর হিসেবে তালিকাভুক্ত করে। বহির্বিশ্বে ক্ষুন্ন হয় এ বন্দরের ভাবমূর্তি।

২০১৬ থেকে দস্যূতা বন্ধে সাঁড়াসি অভিযান নামে কোস্টগার্ড। তাদের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় বন্ধ হয় চুরি ও দস্যুতা। এরপর থেকে ধীরে ধীরে বিদেশী জাহাজগুলোর বাংলাদেশে আসার ক্ষেত্রে আগ্রহ বাড়তে থাকে বলে জানান চট্টগ্রাম পূর্ব জোনের জোনাল কমান্ডার।

দস্যুতা নিধনে কোস্ট গার্ডের টহল টিমের সংখ্যা বাড়ানো, গোয়েন্দা নজরদারি, রাতে জলযান চলাচলে নিয়ন্ত্রণ আনাসহ বিভিন্ন ধরণের কার্যক্রম হতে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এজন্য চট্টগ্রাম বন্দরের জলসীমাকে এখন পুরোপুরি নিরাপদ বলে মনে করছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড।   

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর