গরীবের বিনা পয়সার মফিজুল ডাক্তার
গরীবের বিনা পয়সার মফিজুল ডাক্তার

গরীবের বিনা পয়সার মফিজুল ডাক্তার

Other

পঞ্চগড়ের তেতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর ইউনিয়নের প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রামে বিনা পয়সায় চিকিৎসা দিয়ে আসছেন পল্লি চিকিৎসক মফিজুল ইসলাম। ওই এলাকার হাজার হাজার দরিদ্র থেকে উচ্চ বিত্ত মানুষের চিকিৎসার ভরসা তিনি। রাত দিন ২৪ ঘন্টা অসুস্থ রোগীর ফোন পেলেই ছুটে আসেন তিনি। চিকিৎসা দেন বিনা পয়সায়।

কারও কাছে তিনি কোন ভিজিট চান না।  

রোগির পরিবারের ইচ্ছে অনুযায়ি যা দেন তাতেই তিনি খুশি। করোনা ভাইরাসের মহামারিতেও জীবন বাজি রেখে তিনি চিকিৎসা দিয়ে চলেছেন গ্রামে গ্রামে। অনেক দিন আগে ৮০র দশকে তিনি কলেরা মহামারিতেও এই এলাকায় চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন। মফিজুল ডাক্তারের বাড়ি ওই ইউনিয়নের গিতাল গজ গ্রামে।

তিনি মৃত বশিরউদ্দিন আহমেদের ছেলে। তিনি গিতালগজ উচ্চবিদ্যালয়ে শিক্ষকতাও করেছেন। বর্তমানে এই এলাকায় ঘরে ঘরে সর্দি, কাশি জ্বর বিরাজ করছে। বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগি। কিন্তু এখনো তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন।

এলাকাবাসি জানান, মফিজুল ডাক্তার শুধু চিকিৎসা সেবাই নয় এলাকার শিক্ষানুরাগি ব্যাক্তি তিনি। তার উদ্যোগে এই এলাকায় তিনটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ডাক্তার মফিজুল দীর্ঘকাল ধরে বিনা পয়সায় চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন। যে কোন সময় ডাকলেই তাকে পাওয়া যায়। ঝড় বৃষ্টি, গভীর রাত উপেক্ষা করে তিনি রোগির বাড়িতে চলে আসেন।  

তারপর অভিজ্ঞতা অনুযায়ি চিকিৎসা দেন। রোগিকে নানা ধরনের পরামর্শ দেন। শুধু এটাই নয় কিভাবে স্বাস্থ্য ভালো রাখা যায় তার পরামর্শও দেন তিনি। প্রায় কয়েকযুগ থেকে তিনি এই সেবা দিয়ে আসছেন। মফিজুল ডাক্তার জানান, ১৯৮০ সালের দিকে তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর আওতায় পল্লি চিকিৎসকের প্রশিক্ষণ নেন তিনি।  

এরপর চিকিৎসা সংক্রান্ত নানা বই-পত্র পড়ে নিজের অভিজ্ঞতাকে শানিত করেন। ৮০’র দশকে কলেরা রোগ মহামারি আকারে দেখা দেয় এই অঞ্চলে। অনেকে মারা যায়। এ সময় তিনি জীবন বাজি রেখে কলেরা রোগিদের বিনাপয়সায় চিকিৎসা সেবা দেন। তিনি বলেন সেইসময় ঘরে ঘরে অভাব ছিল।  

দারিদ্রতার কারণে মানুষ চিকিৎসা নিতে পারতেন না। সেই সময় চোখের সামনে কলেরায় আক্রান্ত মানুষের মৃত্যু দেখেছি। তারপর থেকেই চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছি। এই এলাকাটি অত্যন্ত প্রত্যন্ত এলাকা। হাসপাতাল বা ক্লিনিকে চিকিৎসা নেয়ার মতো এখনো অনেকের সামর্থ্য নাই। তাই পারিশ্রমিক চাই না। যার যার ইচ্ছে মতো দেয়। জ্বর,সর্দি,গ্যাষ্ট্রিক সহ সাধারণ রোগের চিকিৎসা দেন তিনি।  

ডাক্তারপাড়া গ্রামের ছালাম উদ্দিন জানান, অসুস্থতায় আমাদের একমাত্র ভরসা মফিজুল ডাক্তার। যখন খুঁজেছি তখনি পেয়েছি। ছোটবেলা থেকেই দেখে আসছি তিনি গরীব মানুষকে বিনাপয়সায় চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন।  

মাঝিপাড়া মহিলা কলেজের অর্থনিতী বিভাগের সহকারি অধ্যাপক আব্দুল খালেক জানান, তিনি আমাদের গ্রামের গর্ব। তার উদ্দিপনায় আমি উচ্চ শিক্ষা লাভ করেছি। তিনি গরীবের ডাক্তার। একজন সংস্কৃতি পিপাসু মানুষ।

উপজেলা চেয়ারম্যান কাজী মাহমুদুর রহমান ডাবলু জানান, দীর্ঘকাল ধরে ডাক্তার মফিজুল বিনা পয়সায় বাড়িতে বাড়িতে চিকিৎসা প্রদান করেন। ওই এলাকার দরিদ্র মানুষের ভরসার ডাক্তার তিনি।  

আরও পড়ুন


মেয়াদ শেষ হওয়া মোবাইল ডাটা ফেরত দিচ্ছে অপারেটররা

জাপানে এত বেশি ভূমিকম্প কেন হয়?

জাপানে অলিম্পিক আসরের মধ্যেই ভয়াবহ ভূমিকম্প

সাকিব-মোস্তাফিজ আইপিএল খেলতে পারবেন


news24bd.tv / কামরুল