চিনি-ময়দা-ডালডা-চিটাগুড় মিশিয়ে ভেজাল গুড় তৈরিতে ধরা ২
চিনি-ময়দা-ডালডা-চিটাগুড় মিশিয়ে ভেজাল গুড় তৈরিতে ধরা ২

চিনি-ময়দা-ডালডা-চিটাগুড় মিশিয়ে ভেজাল গুড় তৈরিতে ধরা ২

Other

শেরপুরে ভেজাল গুড়ের কারখানায় অভিযান চালিয়ে দুই ভেজাল গুড় ব্যবসায়ীকে তিন মাস করে কারাদণ্ড ও দেড় লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাস করে কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

৪ আগস্ট বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার কামারেরচর ইউনিয়নের সাহাব্দীরচর দশানীপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ সাজা দেওয়া হয়।

সাজাপ্রাপ্তরা হচ্ছে স্থানীয় মো. হাতেম আলীর ছেলে মো. সাজল (৪০) ও মো. ঈমান আলীর ছেলে মো. আব্বাস উদ্দিন (৪৪)। পরে তাদের সাজা পরোয়ানামূলে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার কামারেরচর ইউনিয়নের সাহাব্দীরচর দশানীপাড়া এলাকায় দুটি কারখানায় দীর্ঘদিন থেকে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে আখ ছাড়া শুধু চিনি, ময়দা, ডালডা, চিটাগুড় ও কেমিকেল মিশিয়ে ভেজাল গুড় তৈরিসহ বাজারজাত করে আসছিলেন সাজল ও আব্বাস উদ্দিন। পরে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআইয়ের গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আসিফ রহমানের নেতৃত্বে বুধবার দুপুরে ওই দুটি কারখানায় অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় ভেজাল গুড় তৈরি করে বাজারজাত করার দায়ে সাজলকে তিন মাসের জেল ও এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাসের জেল এবং আব্বাস উদ্দিনকে তিন মাসের জেল ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাসের জেল প্রদান করা হয়। সেইসাথে ভেজাল গুড় ও কেমিকেলগুলো ধ্বংস করা হয়। তবে সাজাপ্রাপ্ত দুই ব্যক্তি জরিমানার টাকা পরিশোধ করেননি। অভিযানকালে এনএসআইয়ের ঊ র্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আসিফ রহমান জানান, জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আরও পড়ুন:

যতক্ষণ না পুলিশ আসবে, মিডিয়া আসবে লাইভ চলবে: পরীমনি

আবারও মুখোমুখি ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা

একসঙ্গে দুই ছেলে ও দুই মেয়ের জন্ম

দরজা খুলল পরীমনি

news24bd.tv তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর