যুবলীগ থেকে অব্যাহতির বিষয়ে যা বললেন ব্যারিস্টার সুমন

অনলাইন ডেস্ক

যুবলীগ থেকে অব্যাহতির বিষয়ে যা বললেন ব্যারিস্টার সুমন

যুবলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে আলোচিত আইনজীবী ও যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাবেক প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনকে। সংগঠন থেকে অব্যাহতির বিষয়ে জানতে চাইলে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, যুবলীগ থেকে এখনও কোন চিঠি পাইনি। অব্যাহতির চিঠি পেলে জাবাব দেব।

শনিবার (৭ আগস্ট) রাতে যুবলীগ থেকে অব্যাহতির কারণ জানতে চাইলে গণমাধ্যমকে তিনি এসব কথা বলেন।

ব্যারিস্টার সুমন আরও বলেন, যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ তাকে কমিটিতে নিয়েছেন। তিনি যদি মনে করেন আমাকে বাদ দিলে দলের ভালো হবে, তাহলে সাংগঠনিক এ সিদ্ধান্ত মেনে নেব। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে আজীবন দলের ভালোর জন্য কাজ করে যাওয়ার আশাবাদও ব্যক্ত করেন ব্যারিস্টার সুমন।

জয়বাংলা স্লোগান নিয়ে অযাচিত কিছু বলেননি বলে দাবি করে ব্যারিস্টার সুমন জানান, থানার একজন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার জয় বাংলা স্লোগান দেওয়া ঠিক হয়নি বলে ফেসবুক লাইভ করেছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন


বিলাসবহুল গাড়িতে একে-৪৭ নিয়ে মহড়া দেয়া তরুণীর খোঁজে পুলিশ

প্রকাশ্যে তরুণ নেতাকে গুলি করে হত্যা, ভয়াবহ দৃশ্য সিসিটিভিতে ধরা

আবারও কুয়াকাটা সৈকতে মৃত ডলফিন

সূরা বাকারা: আয়াত ২০-২২, দুনিয়ায় মুনাফিকের শাস্তি


কী কারণে যুবলীগের পদ হারালেন ব্যারিস্টার সুমন

শহীদ শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে শরীয়তপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের একটি দলীয় কর্মসূচিতে গত ৪ আগস্ট রাত ১২টা ১ মিনিটে স্লোগান দিয়েছিলেন সদরের পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তার হোসেন। ওই স্লোগানের ২৭ সেকেন্ডের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। প্রকাশ্যে রাজনৈতিক প্রোগ্রামে অংশ নিয়ে স্লোগান দিয়ে সরকারি বিধিমালা ১৯৭৯ লঙ্ঘন করেছেন এমন কথাও বলেন কেউ কেউ। যুবলীগ নেতা ব্যারিস্টার সুমন এ ঘটনায় সবচেয়ে বেশি সমালোচনা করেন। যে কারণে তাকে যুবলীগের পদ থেকে অব্যাহতি পেতে হলো।

৬ আগস্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লাইভে এসে ওসির ওই স্লোগানের নিন্দা জানান যুবলীগ নেতা ব্যারিস্টার সুমন। আওয়ামী লীগের দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে রাজনৈতিক স্লোগান ও পুষ্পস্তবক অর্পণ করা শরীয়তপুরের পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তার হোসেনের তীব্র সমালোচনা করে তার বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানান তিনি।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

উপজেলা প্রশ্নে হাইকোর্টের নির্দেশনা ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী রায়: আ স ম রব

অনলাইন ডেস্ক

উপজেলা প্রশ্নে হাইকোর্টের নির্দেশনা ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী রায়: আ স ম রব

উপজেলা পরিষদের কার্যালয় নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় না হয়ে উপজেলা পরিষদ কার্যালয়, ১৭ বিভাগের কাজ চেয়ারম্যানের অনুমোদনক্রমে ও বিধি অনুসারে করার জন্য নির্দেশসহ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা দুটোকে 'ঐতিহাসিক' ও 'সুদূরপ্রসারী' আখ্যায়িত করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি সভাপতি আসম আবদুর রব গণমাধ্যমে নিম্নোক্ত বিবৃতি প্রদান করেছেন।

সম্প্রতি উপজেলা পরিষদ প্রশ্নে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের দুটো নির্দেশনা গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানের উপর আমলাতন্ত্রের কর্তৃত্বের বিরুদ্ধে যুগান্তকারী এবং ঐতিহাসিক। এ রায় খুবই তাৎপর্যপূর্ণ যা স্বশাসিত স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠার প্রশ্নে সুদুরপ্রসারি ভূমিকা রাখবে। 

এ রায় দ্রুত বাস্তবায়নের মাধ্যমেই প্রজাতন্ত্রের নাগরিকদের 'স্ব-শাসিত স্থানীয় সংস্থা' প্রতিষ্ঠার ঐতিহাসিক অনিবার্যতাকে স্বীকৃতি দিয়ে জনগণের ক্ষমতায়নকে আরো ব্যপক ও বিস্তৃত করার সুযোগ সৃষ্টি করবে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে নিরাপত্তা দেয়া এবং উপজেলা পরিষদের অধীনে ন্যস্ত সব দপ্তরের কার্যক্রম পরিষদের চেয়ারম্যানের অনুমোদনক্রমে ও বিধি অনুসারে করার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতি নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আদালতের এই নির্দেশ উপজেলা পরিষদের উপর নির্বাহী কর্মকর্তাদের একচেটিয়া ক্ষমতা প্রয়োগ এবং খবরদারির অবসান ঘটাবে। এতে প্রশাসনের উপজেলা পর্যায়ে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মাধ্যমে জনগণের কার্যকর অংশগ্রহণ নিশ্চিত হবে। অন্যদিকে হাইকোর্ট ‘নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়’ এর পরিবর্তে ’উপজেলা পরিষদ কার্যালয়’ লেখার নির্দেশ দিয়েছেন, যা উপজেলা পর্যায়ে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থায় জনগণের নিরঙ্কুশ কর্তৃত্ব নিশ্চিত করবে।


আরও পড়ুন

ইভ্যালির বিরুদ্ধে প্রতিযোগিতা কমিশনের মামলা

অভিজাত এলাকায় প্রবেশ করতে গুনতে হবে ট্যাক্স: মেয়র আতিক

নতুন মন্ত্রিসভা ঘোষণা করেছে দুবাই শাসক


উপজেলা পরিষদে সকল শ্রম, কর্ম ও পেশার প্রতিনিধিত্বসহ একে আরো গণমুখী করাও এখন সময়ের দাবি। শুধু তাই নয়, দেশে দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট পার্লামেন্ট প্রবর্তন করে উপজেলা চেয়ারম্যানগণের প্রতিনিধিত্ব অন্তর্ভুক্ত করা না হলে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা নিয়ে ছিনিমিনি খেলা বন্ধ হবে না। 

আসম আবদুর রব বিবৃতিতে বলেন হাইকোর্টের এই ঐতিহাসিক ও তাৎপর্যপূর্ণ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল না করে এবং আদেশের বাস্তবায়ন ঝুলিয়ে না রেখে দ্রুত রায় বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরকারকে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। এটাই হবে প্রজাতন্ত্রের জনগণ ও সংবিধানের প্রতি সরকারের আনুগত্য প্রমাণের বড় পদক্ষেপ।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

দেশ এখন রাজনীতিবিদেরা পরিচালনা করছেন না: ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক

দেশ এখন রাজনীতিবিদেরা পরিচালনা করছেন না: ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশ এখন রাজনীতিবিদেরা পরিচালনা করছেন না। একজন রাজনীতিবিদকে সিকিউরিটি হিসেবে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছে। তাকে দিয়ে গণতন্ত্রবিরোধী সব কাজগুলো করিয়ে নেওয়া হচ্ছে। তারা রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠানগুলোকে সুপরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করে দিয়েছে।

আজ জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) বার্ষিক সাধারণ সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা একটি ভয়াবহ দুঃসময় অতিক্রম করছি। আজ একটি সরকার জবরদখল করে বসে আছে। যারা আমাদের ৫০ বছরের সব অর্জনকে ধ্বংস করে দিয়েছে। এই দুঃসময় শুধু সংবাদমাধ্যমের নয়, এই দুঃসময় শুধু বিএনপির নয়, এই দুঃসময় পুরো জাতির জন্য।

আরও পড়ুন:


ডিসেম্বরেই চালু হবে ৫জি নেটওয়ার্ক: মোস্তাফা জব্বার

দেশে বিনিয়োগ করুন: প্রধানমন্ত্রী

যানজট নিরসনের উদ্যোগ আটকে থাকে মহাপরিকল্পনার নথিতেই

মক্কা-মদিনার মসজিদে কাজ করবেন নারীরা


তিনি বলেন, একটি মুক্ত সমাজ, দেশ ও গণতন্ত্রের জন্য আমরা ১৯৭১ সালে যুদ্ধ করেছিলাম। আওয়ামী লীগ আমাদের সেই আশা-আকাঙ্ক্ষাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। তারা এর আগেও বাকশাল গঠন করেছিল এবং এখনও গণতন্ত্রের মুখোশ পড়ে বিভিন্ন আঙ্গিকে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে আমাদের সব অধিকারগুলোকে কেড়ে নিয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, নির্বাচন কমিশন সম্পূর্ণভাবে একটি আজ্ঞাবহ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। আজ আবার শোনা যাচ্ছে, নতুন করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হবে। কেউ বলছে, এটার জন্য একটি আইন করা দরকার। কিন্তু আইনটা করবে কে? সংসদে তো আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্যকিছু নেই। যারা এদেশে গণতন্ত্রকে হরণ করে এদেশের মানুষের অধিকারগুলো কেড়ে নিয়েছে, তারাই আজ এই আইনটি করবে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ফ্যাসিবাদের সঙ্গে মুক্ত গণতন্ত্র ও মুক্ত গণমাধ্যম কখনও যায় না। ফ্যাঁসিবাদ মানেই হলো ভয়ভীতি, ত্রাস সৃষ্টি করে মানুষের অধিকারগুলোকে কেড়ে নেওয়া। গুম, খুন ও নির্যাতনের মাধ্যমে অস্ত্রের মুখে টিকে থাকা। যে কৌশল আজ আওয়ামী লীগ বেছে নিয়েছে।

ডিইউজে সভাপতি কাদের গনি চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, বিএফইউজের সভাপতি এম আব্দুল্লাহ, মহাসচিব নুরুল আমিন রোকন, বিএফইউজের সাবেক মহাসচিব এম এ আজিজ,প্রেসক্লাবের সভাপতি ইলিয়াস খান, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, ডিইউজের সাবেক সভাপতি কবি আব্দুল হাই শিকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

অভিজাত এলাকায় প্রবেশ করতে গুনতে হবে ট্যাক্স: মেয়র আতিক

অনলাইন ডেস্ক

অভিজাত এলাকায় প্রবেশ করতে গুনতে হবে ট্যাক্স: মেয়র আতিক

অভিজাত এলাকায় গাড়ি প্রবেশে দিতে হবে অতিরিক্ত ট্যাক্স। রাজধানীর গুলশান, বনানীর মত এলাকার জন্য এমন পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

রাজধানীর রাস্তায় দুঃসহ যানজটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর ফুটপাত যেন হরেক রকম পণ্য সাজানোর জায়গা। ঢাকার রাস্তার অবস্থা যখন এমন তখন নতুন এক পরিকল্পনার কথা জানান উত্তর সিটি মেয়র।

মেয়র বলছেন, অতিরিক্ত ব্যক্তিগত গাড়ি আর ফুটপাত দখলে থাকায় রাজধানীর যানজট কমানো যাচ্ছে না। খুব শিগগির গুলশান- বনানীর মত অভিজাত এলাকায় অতিরিক্ত ট্যাক্স দিয়ে গাড়ি চলাচল করতে দেওয়া হবে। এছাড়া ফুটপাত নিয়ে পুলিশ, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক কর্মীরা একে অপরের দোষারোপের কারণেই তা দখলমুক্ত করা যাচ্ছে না।
 
মেয়র  বলেন, গুলশানের দিকে গেলে শুধু গাড়ি, এক একটি পরিবারের বাড়ির কর্তা, স্ত্রী, ছেলে- মেয়ের আলাদা গাড়ি। কিন্তু বিদেশে আমরা দেখেছি বিভিন্ন গাড়ি যখন যাবে তখন ট্যাক্স দিয়ে যাবে। তাই এরইমধ্যে আমরা পরিকল্পনা করেছি  গুলশান- বারিধারা অভিজাত এলাকায় যখন কোনো গাড়ি ঢুকবে রাস্তার ট্যাক্স দিয়ে ঢুকতে হবে।  
 
পরে খিলাগাঁওয়ে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশ নেন মেয়র। এসময় নির্মাণাধীন ভবন ও বিভিন্ন বাসাবাড়ির ছাদে অভিযান চালানো হয়।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

পরিবেশ রক্ষায় ঐক্যবদ্ধতা পৃথিবীকে বাঁচাবে : তথ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

পরিবেশ রক্ষায় ঐক্যবদ্ধতা পৃথিবীকে বাঁচাবে :  তথ্যমন্ত্রী

পরিবেশ রক্ষায় ঐক্যবদ্ধতা পৃথিবীকে আরো বেশি দিন বাঁচিয়ে রাখতে সহায়ক হবে বলেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং পরিবেশ গবেষক ড. হাছান মাহমুদ। 

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর র‍্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনে রোটারি ইন্টারন্যাশনাল এবং ট্রিপল নাইন গ্লোবাল সংস্থা দু'টির যৌথ আয়োজনে ফ্রেন্ডস অভ আর্থ এবং মিস আর্থ বাংলাদেশ দু'টি পরিবেশবান্ধবতা সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন। 

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মানব সম্প্রদায়ের একমাত্র ধারক এই পৃথিবী গ্রহকে বাঁচিয়ে রাখতে তার প্রকৃতি ও পরিবেশ রক্ষার বিকল্প নেই। এই কাজে প্রয়োজন সকলের সম্মিলিত উদ্যোগ। 

তিনি বলেন, উন্নয়নশীল বিশ্বে নারীরা সরাসরি প্রকৃতি ও পরিবেশের সাথে সম্পৃক্ত। পরিবেশের ক্ষতিতে তারা সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হন। তাই এক্ষেত্রে নারীদের সচেতনভাবে এগিয়ে আসার  বিকল্প নেই। 

রোটারি ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর মোতাসিম বিল্লাহ ফারুকীর সভাপতিত্বে মিস আর্থ বাংলাদেশ এর ন্যাশনাল ডিরেক্টর নায়লা বারী ও প্রধান উপদেষ্টা নোমান রবিনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পরিবেশ গবেষক ড. এ আতিক রহমান। 


সিলেটে বাসার ছাদ থেকে আপন দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

ক্ষমতায় থাকছেন ট্রুডো, তবে গঠন করতে হবে সংখ্যালঘু সরকার

মিডিয়া ভুয়া খবর ছড়িয়েছে: বাপ্পী লাহিড়ি


অনুষ্ঠানে পাটের আঁশ থেকে পলিথিনের বিকল্প আবিস্কারক ড. মোবারক আহমেদ খান, প্রকৃতি ও জীবন সংগঠনের কর্ণধার আব্দুল মুকিত মজুমদার, আবদুল্লাহ আবু সাঈদ,   রোটারি ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর মোতাসিম বিল্লাহ ফারুকী, পরিবেশরক্ষা সংগঠক নায়লা বারী এবং ড. এস আই খানকে ফ্রেন্ডস অভ নেচার এবং উম্মে জমিলাতুন নাইমাকে প্রথম মিস আর্থ বাংলাদেশ সম্মানে ভূষিত করেন অতিথি ও আয়োজকবৃন্দ। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

ইসিতে সরকারের একটা ‘শয়তান’ থাকলে সেখানে ফেরেস্তাও অসহায়!

অনলাইন ডেস্ক

ইসিতে সরকারের একটা ‘শয়তান’ থাকলে সেখানে ফেরেস্তাও অসহায়!

দেশে এখন প্রয়োজন একটাই দাবী শেখ হাসিনা সরকারের পতন। এটার মধ্যে অন্য কোনো মসলা না লাগানো ভালো বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

শুক্রবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় এই মন্তব্য করেন তিনি।ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ের মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম দলের উদ্যোগে ‘নির্দলীয় সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবি’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা হয়।

নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন সম্পর্কে এই বিএনপি নেতা বলেন, নির্বাচন কমিশন। পাঁচটি ফেরেস্তা দিয়ে যদি একটা নির্বাচন কমিশন হয়। আর সরকারে যদি একটা ‘শয়তান’ থাকে তাহলে ফেরেস্তাও অসহায়, কিছু করার নাই। সুতরাং নির্বাচন কমিশন কী হবে না হবে- এই তর্কে সময় দেওয়ার প্রয়োজন নাই।

বিএনপির এই নেতা বলেন,দেশে এত সমস্যা, সব সমস্যা নিয়ে কথা না বলে যেই সমস্যা সমাধানের যে অন্তরায় তাকে যদি আমরা পদত্যাগ করাতে পারি, তাকে যদি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা থেকে সরাতে পারি, তাহলে জনগণই সব সমস্যা সমাধানের পথ তৈরি করবে। সুতরাং আমাদের সব চিন্তা-চেতনা-সামর্থ্য একত্রিত করে আমরা একদফায় থাকি। অন্য কোনো দাবি, অন্য কোনো দফা নয়।

সরকারপ্রধান শেখ হাসিনার উদ্দেশে তিনি বলেন, জোর করে ক্ষমতায় থাকা যায়, কিন্তু ক্ষমতা থেকে যাওয়ার পথটা যদি সুন্দর না হয় পরিণতি ভয়াবহ হয়। অনেক কিছু করছেন। আপনি যদি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করে আহ্বান করেন গণতন্ত্রের পথে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের, তাহলে আপনার বিরুদ্ধে খ্যাপা মানুষগুলো কিছু সময়ের জন্য হলেও শান্ত হবে। কারণ বাংলাদেশের মানুষ ক্ষমা করতে পারে, তারা খুব একটা এক্সট্রিম না।


সিলেটে বাসার ছাদ থেকে আপন দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

ক্ষমতায় থাকছেন ট্রুডো, তবে গঠন করতে হবে সংখ্যালঘু সরকার

মিডিয়া ভুয়া খবর ছড়িয়েছে: বাপ্পী লাহিড়ি


 

গয়েশ্বর বলেন, দীর্ঘ দিনের লড়াইয়ে যে কষ্ট আছে আমাদের সেটা যার জন্য লড়াই করছি, সেই কাজ যদি আপনি এগিয়ে দেন, তাহলে আমাদের রুষ্ট মনোভাবটা পরবর্তী পর্যায়ে প্রতিফলিত নাও হতে পারে। সেটাই হলো সবচেয়ে উত্তম পথ।

সংগঠনের সভাপতি জনি হোসেন সরকারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, ছাত্র দলের সদ্য কারামুক্ত ছাত্রদলের সাবেক নেতা ইসহাক সরকার, কৃষক দলের সাবেক নেতা রাকিকুল ইসলাম রিপন প্রমুখ নেতারা বক্তব্য দেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর