বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি হলে শূলে চড়ানো হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি হলে শূলে চড়ানো হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি হলে শূলে চড়ানো হবে।

আগামী ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি নিউইয়র্কের ঐতিহাসিক টাইমস স্কয়ারে বিলবোর্ডে প্রদর্শিত হবে।

এই উপলক্ষ্যে আয়োজকদের ৫০ লাখ টাকা সহায়তা দিয়েছে আনোয়ার গ্রুপ ও বাংলাদেশ ফিনান্স।

আজ (মঙ্গলবার) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন ৫০ লক্ষ্য টাকার প্রতীকী চেক গ্রহণকালে বলেন, টাইমস স্কয়ারে বঙ্গবন্ধুর ছবি প্রদর্শনের জন্য এ অর্থ সহায়তা  খুব ভালো উদ্যোগ। এখানে কোনো চাঁদাবাজি হচ্ছে না। বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি কাম্য নয়। বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি হলে শূলে চড়ানো হবে।

আরও পড়ুন:


মুহিতের করোনা নেগেটিভ, তবে শারীরিক দুর্বলতা আছে

ফের দুই দিনের রিমান্ডে মডেল মৌ

রাঙামাটি পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রে উৎপাদন বৃদ্ধি


news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

সম্প্রীতি বিনষ্টের ষড়যন্ত্র সফল হবে না : জিএম কাদের

অনলাইন ডেস্ক

সম্প্রীতি বিনষ্টের ষড়যন্ত্র সফল হবে না : জিএম কাদের

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য রয়েছে আমাদের। যে কোন ত্যাগের বিনিময়ে আমরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় বদ্ধপরিকর। যারা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টে ষড়যন্ত্র করবে তারা কখনোই সফল হতে পারবে না বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা জনবন্ধু গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

আজ দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এর বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদের নেতৃবৃন্দের সাথে এক মতবিনিময় সভায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এ কথা বলেন।

এসময় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের আরো বলেন, পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন। সকল ধর্মের অধিকার রক্ষায় পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ অনন্য ভূমিকা রেখেছিলেন। 

তিনি বলেন, পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ শুভ জন্মাষ্টমীর দিনটিকে সরকারী ছুটি ঘোষণা করেছিলেন। জাতীয় পার্টির শাসনামলে প্রায় চার যুগ পরে রাজধানীতে জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রা বের হয়। এছাড়া বিভিন্ন পূজা ও উৎসবে নিরাপত্তা ও আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন। পল্লীবন্ধুর হাতে গড়া হিন্দু কল্যাণ ট্রাষ্ট এখন শতকোটি টাকার প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। মন্দির নির্মাণ ও সংস্কারে পল্লীবন্ধু বরাদ্দ রেখেছেন সব সময়। 

এসময় বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ সংখ্যালঘু সুরক্ষা খসড়া আইন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এর হাতে তুলে দেন। বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদের নেতৃবৃন্দ জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। 

আরও পড়ুন:

অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


 

বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ সভাপতি অনুপ কুমার দত্ত, সিলেট সভাপতি দীপক রায়, সাধারণ সম্পাদক সাজন কুমার মিত্র, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুমন কুমার রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক দেবাশীষ মাছা, সিলেট জেলা সমন্বয়ক মলয় তালুকদার, সুনামগঞ্জ জেলা সভাপতি অমর চক্রবর্তী, পিরোজপুর জেলা সদস্য শুভ্রদেব বড়াল। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এটিইউ তাজ রহমান, এডভোকেট মোঃ রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, দফতর সম্পাদক-২ এমএ রাজ্জাক খান। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বিশ্বনেতৃবৃন্দের বিশেষ আমন্ত্রণেই প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে গিয়েছেন : তথ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বনেতৃবৃন্দের বিশেষ আমন্ত্রণেই প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে গিয়েছেন : তথ্যমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে জাতিসংঘ ও বিশ্বনেতৃবৃন্দ বিশেষ আমন্ত্রণে জাতিসংঘে নিয়ে গেছেন বলে  জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড: হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর যে বিশ্বময় ভূমিকা, বাংলাদেশকে যেভাবে তিনি নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন, এমনকি করোনার মধ্যেও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ধরে রেখে দেশকে যেভাবে বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধির স্থানে নিয়েছেন, এসকল গল্প বিশ্বনেতৃবৃন্দ তার কাছে শুনতে চেয়েছেন।

শনিবার দুপুরে মন্ত্রী ঢাকায় তার সরকারি বাসভবন থেকে সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর থানা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তৃতাশেষে প্রধানমন্ত্রীর জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে যোগদান বিষয়ে বিএনপির সাম্প্রতিক মন্তব্য নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন।  

তথ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়নে বিশ্বনেতৃবৃন্দের প্রশংসা বিএনপি'র সহ্য হচ্ছে না বলেই তারা সমালোচনা করছে। প্রধানমন্ত্রীর বেশিরভাগ সফরসঙ্গীই যে নিজ খরচে গেছেন, সেটা রিজভী আহমেদ সাহেবের জানা উচিত ছিল, অথবা তিনি জেনেও না জানার ভান করছেন।

এর আগে সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, যেভাবে তাদের একেকজন বক্তব্য দিচ্ছেন, তাতে বিএনপি'র সিরিজ বৈঠকের ফলাফল শূণ্য বলে মনে হচ্ছে। জনবিচ্ছিন্ন বিএনপি সিরিজ বৈঠক করে কোনো দিশা-কূল-কিনারা পায় নি, কিন্তু তারা ষড়যন্ত্রের মধ্যেই লিপ্ত, উল্লেখ করেন হাছান মাহমুদ। 

আরও পড়ুন:

অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


 

এনায়েতপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ মোঃ বজলুর রশীদের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক ডা: রোকেয়া সুলতানা, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নূরুল ইসলাম ঠান্ডু, অধ্যাপক মেরিনা জাহান কবিতা, আব্দুল আওয়াল শামীম, সিরাজগঞ্জ ৫ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল মমিন মন্ডল প্রমুখ বক্তৃতা করেন। 

সকালে সম্মেলন উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব এড. কে এম হোসেন আলী হাসান এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ তালুকদার প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন।  

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

উপজেলা প্রশ্নে হাইকোর্টের নির্দেশনা ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী রায়: আ স ম রব

অনলাইন ডেস্ক

উপজেলা প্রশ্নে হাইকোর্টের নির্দেশনা ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী রায়: আ স ম রব

উপজেলা পরিষদের কার্যালয় নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় না হয়ে উপজেলা পরিষদ কার্যালয়, ১৭ বিভাগের কাজ চেয়ারম্যানের অনুমোদনক্রমে ও বিধি অনুসারে করার জন্য নির্দেশসহ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা দুটোকে 'ঐতিহাসিক' ও 'সুদূরপ্রসারী' আখ্যায়িত করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি সভাপতি আসম আবদুর রব গণমাধ্যমে নিম্নোক্ত বিবৃতি প্রদান করেছেন।

সম্প্রতি উপজেলা পরিষদ প্রশ্নে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের দুটো নির্দেশনা গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানের উপর আমলাতন্ত্রের কর্তৃত্বের বিরুদ্ধে যুগান্তকারী এবং ঐতিহাসিক। এ রায় খুবই তাৎপর্যপূর্ণ যা স্বশাসিত স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠার প্রশ্নে সুদুরপ্রসারি ভূমিকা রাখবে। 

এ রায় দ্রুত বাস্তবায়নের মাধ্যমেই প্রজাতন্ত্রের নাগরিকদের 'স্ব-শাসিত স্থানীয় সংস্থা' প্রতিষ্ঠার ঐতিহাসিক অনিবার্যতাকে স্বীকৃতি দিয়ে জনগণের ক্ষমতায়নকে আরো ব্যপক ও বিস্তৃত করার সুযোগ সৃষ্টি করবে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে নিরাপত্তা দেয়া এবং উপজেলা পরিষদের অধীনে ন্যস্ত সব দপ্তরের কার্যক্রম পরিষদের চেয়ারম্যানের অনুমোদনক্রমে ও বিধি অনুসারে করার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতি নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আদালতের এই নির্দেশ উপজেলা পরিষদের উপর নির্বাহী কর্মকর্তাদের একচেটিয়া ক্ষমতা প্রয়োগ এবং খবরদারির অবসান ঘটাবে। এতে প্রশাসনের উপজেলা পর্যায়ে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মাধ্যমে জনগণের কার্যকর অংশগ্রহণ নিশ্চিত হবে। অন্যদিকে হাইকোর্ট ‘নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়’ এর পরিবর্তে ’উপজেলা পরিষদ কার্যালয়’ লেখার নির্দেশ দিয়েছেন, যা উপজেলা পর্যায়ে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থায় জনগণের নিরঙ্কুশ কর্তৃত্ব নিশ্চিত করবে।


আরও পড়ুন

ইভ্যালির বিরুদ্ধে প্রতিযোগিতা কমিশনের মামলা

অভিজাত এলাকায় প্রবেশ করতে গুনতে হবে ট্যাক্স: মেয়র আতিক

নতুন মন্ত্রিসভা ঘোষণা করেছে দুবাই শাসক


উপজেলা পরিষদে সকল শ্রম, কর্ম ও পেশার প্রতিনিধিত্বসহ একে আরো গণমুখী করাও এখন সময়ের দাবি। শুধু তাই নয়, দেশে দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট পার্লামেন্ট প্রবর্তন করে উপজেলা চেয়ারম্যানগণের প্রতিনিধিত্ব অন্তর্ভুক্ত করা না হলে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা নিয়ে ছিনিমিনি খেলা বন্ধ হবে না। 

আসম আবদুর রব বিবৃতিতে বলেন হাইকোর্টের এই ঐতিহাসিক ও তাৎপর্যপূর্ণ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল না করে এবং আদেশের বাস্তবায়ন ঝুলিয়ে না রেখে দ্রুত রায় বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরকারকে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। এটাই হবে প্রজাতন্ত্রের জনগণ ও সংবিধানের প্রতি সরকারের আনুগত্য প্রমাণের বড় পদক্ষেপ।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

দেশ এখন রাজনীতিবিদেরা পরিচালনা করছেন না: ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক

দেশ এখন রাজনীতিবিদেরা পরিচালনা করছেন না: ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশ এখন রাজনীতিবিদেরা পরিচালনা করছেন না। একজন রাজনীতিবিদকে সিকিউরিটি হিসেবে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছে। তাকে দিয়ে গণতন্ত্রবিরোধী সব কাজগুলো করিয়ে নেওয়া হচ্ছে। তারা রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠানগুলোকে সুপরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করে দিয়েছে।

আজ জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) বার্ষিক সাধারণ সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা একটি ভয়াবহ দুঃসময় অতিক্রম করছি। আজ একটি সরকার জবরদখল করে বসে আছে। যারা আমাদের ৫০ বছরের সব অর্জনকে ধ্বংস করে দিয়েছে। এই দুঃসময় শুধু সংবাদমাধ্যমের নয়, এই দুঃসময় শুধু বিএনপির নয়, এই দুঃসময় পুরো জাতির জন্য।

আরও পড়ুন:


ডিসেম্বরেই চালু হবে ৫জি নেটওয়ার্ক: মোস্তাফা জব্বার

দেশে বিনিয়োগ করুন: প্রধানমন্ত্রী

যানজট নিরসনের উদ্যোগ আটকে থাকে মহাপরিকল্পনার নথিতেই

মক্কা-মদিনার মসজিদে কাজ করবেন নারীরা


তিনি বলেন, একটি মুক্ত সমাজ, দেশ ও গণতন্ত্রের জন্য আমরা ১৯৭১ সালে যুদ্ধ করেছিলাম। আওয়ামী লীগ আমাদের সেই আশা-আকাঙ্ক্ষাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। তারা এর আগেও বাকশাল গঠন করেছিল এবং এখনও গণতন্ত্রের মুখোশ পড়ে বিভিন্ন আঙ্গিকে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে আমাদের সব অধিকারগুলোকে কেড়ে নিয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, নির্বাচন কমিশন সম্পূর্ণভাবে একটি আজ্ঞাবহ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। আজ আবার শোনা যাচ্ছে, নতুন করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হবে। কেউ বলছে, এটার জন্য একটি আইন করা দরকার। কিন্তু আইনটা করবে কে? সংসদে তো আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্যকিছু নেই। যারা এদেশে গণতন্ত্রকে হরণ করে এদেশের মানুষের অধিকারগুলো কেড়ে নিয়েছে, তারাই আজ এই আইনটি করবে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ফ্যাসিবাদের সঙ্গে মুক্ত গণতন্ত্র ও মুক্ত গণমাধ্যম কখনও যায় না। ফ্যাঁসিবাদ মানেই হলো ভয়ভীতি, ত্রাস সৃষ্টি করে মানুষের অধিকারগুলোকে কেড়ে নেওয়া। গুম, খুন ও নির্যাতনের মাধ্যমে অস্ত্রের মুখে টিকে থাকা। যে কৌশল আজ আওয়ামী লীগ বেছে নিয়েছে।

ডিইউজে সভাপতি কাদের গনি চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, বিএফইউজের সভাপতি এম আব্দুল্লাহ, মহাসচিব নুরুল আমিন রোকন, বিএফইউজের সাবেক মহাসচিব এম এ আজিজ,প্রেসক্লাবের সভাপতি ইলিয়াস খান, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, ডিইউজের সাবেক সভাপতি কবি আব্দুল হাই শিকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

অভিজাত এলাকায় প্রবেশ করতে গুনতে হবে ট্যাক্স: মেয়র আতিক

অনলাইন ডেস্ক

অভিজাত এলাকায় প্রবেশ করতে গুনতে হবে ট্যাক্স: মেয়র আতিক

অভিজাত এলাকায় গাড়ি প্রবেশে দিতে হবে অতিরিক্ত ট্যাক্স। রাজধানীর গুলশান, বনানীর মত এলাকার জন্য এমন পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

রাজধানীর রাস্তায় দুঃসহ যানজটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর ফুটপাত যেন হরেক রকম পণ্য সাজানোর জায়গা। ঢাকার রাস্তার অবস্থা যখন এমন তখন নতুন এক পরিকল্পনার কথা জানান উত্তর সিটি মেয়র।

মেয়র বলছেন, অতিরিক্ত ব্যক্তিগত গাড়ি আর ফুটপাত দখলে থাকায় রাজধানীর যানজট কমানো যাচ্ছে না। খুব শিগগির গুলশান- বনানীর মত অভিজাত এলাকায় অতিরিক্ত ট্যাক্স দিয়ে গাড়ি চলাচল করতে দেওয়া হবে। এছাড়া ফুটপাত নিয়ে পুলিশ, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক কর্মীরা একে অপরের দোষারোপের কারণেই তা দখলমুক্ত করা যাচ্ছে না।
 
মেয়র  বলেন, গুলশানের দিকে গেলে শুধু গাড়ি, এক একটি পরিবারের বাড়ির কর্তা, স্ত্রী, ছেলে- মেয়ের আলাদা গাড়ি। কিন্তু বিদেশে আমরা দেখেছি বিভিন্ন গাড়ি যখন যাবে তখন ট্যাক্স দিয়ে যাবে। তাই এরইমধ্যে আমরা পরিকল্পনা করেছি  গুলশান- বারিধারা অভিজাত এলাকায় যখন কোনো গাড়ি ঢুকবে রাস্তার ট্যাক্স দিয়ে ঢুকতে হবে।  
 
পরে খিলাগাঁওয়ে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশ নেন মেয়র। এসময় নির্মাণাধীন ভবন ও বিভিন্ন বাসাবাড়ির ছাদে অভিযান চালানো হয়।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর