সকাল থেকেই চলছে সবকিছু
সকাল থেকেই চলছে সবকিছু

সকাল থেকেই চলছে সবকিছু

অনলাইন ডেস্ক

টানা ১৯ দিন পর শিথিল হলো কঠোর বিধিনিষেধ। জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে দেওয়া হয়েছে সবকিছু। তবে সবকিছু খুলে দেয়া হলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধই থাকছে। এছাড়া বন্ধ থাকছে পর্যটনকেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদনকেন্দ্র।

বুধবার (১১ আগস্ট) সকাল থেকেই চলছে সরকারি-বেসরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত সকল অফিস-আদালত। সড়কে চলছে সকল প্রকার যানবাহন। নৌপথে চলছে লঞ্চ-স্টিমারসহ সকল প্রকার নৌযান। চলছে রেল-বিমানও। শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়া হয়েছে আগেই।

কথা হচ্ছিলো বেসরকারি চাকরিজীবী মোহাম্মদ হাসানের সঙ্গে। তিনি বলেন, বহু দিন পর বাস চালু হওয়ায় একটু স্বস্তি পেলাম। এই কয়দিন বেশ ঝামেলা পোহাতে হয়েছে। আর পারছিলাম না। তবে করোনার জন্য ভয়ও লাগছে। কিন্তু কি করবো এখন সচেতনতা ছাড়া আর কোনো পথও খোলা নেই।

পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলেন ৬০ ঊর্ধ্ব মোহাম্মদ সেলিম। আগ বাড়িয়ে এসে তিনি বলেন, ভাই গাড়ি-ঘোড়া বন্ধ থাকলে আমরা যারা অল্প আয়ের মানুষ আমাদের কষ্টের সীমা থাকে না। সরকার আজকে থেকে গণপরিবহন চালু রাখার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমরা সাধারণ মানুষ এটাকে শতভাগ সমর্থন জানাই। তবে করোনার কথা ভুললে চলবে না। তাই সচেতন হওয়াটা সবচেয়ে বেশি জরুরি। এই বিষয়টা আমাদের সবাইকে মাথায় রাখতে হবে।

আরও পড়ুন:


যে বিষয়ে কথা বলতে ইসরাইল সফরে গেলেন সিআইএ প্রধান

নব্য জেএমবির বোমা প্রস্তুতকারক আটক

মুমিনের মৃত্যুকষ্ট কেন হয়?


প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী শপিং মল-মার্কেট-দোকানপাট সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে খোলা রাখা যাবে। সব ধরনের শিল্প-কলকারখানা চালু থাকবে। খাবারের দোকান, হোটেল-রেস্তোরাঁয় অর্ধেক আসন খালি রেখে সকাল ৮টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। তবে সব ক্ষেত্রে মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করার পাশাপাশি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর প্রণীত স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।

করোনার সংক্রমণ রোধে গত ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ১৪ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি করে সরকার। সে বিধিনিষেধের মেয়াদ ৫ আগস্ট রাত ১২টায় শেষ হয়। পরে তা গতকাল পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

news24bd.tv নাজিম