ছোট্ট একটি পুনর্বাসন উদ্যোগ

বদলে দিচ্ছে চৌরখুলির ভিক্ষুক ও দিন মজুরদের জীবন

গোপালগঞ্জ থেকে ফিরে রিশাদ হাসান, ছবি তুলেছেন শেখ জালাল:

চৌরখুলি, যে গ্রামে বংশানুগত ভাবে কেউ ভিক্ষুক কেউবা দিন মজুর। ১৯৭১ সালে মুক্তি যুদ্ধের পর যুদ্ধাহত, বাস্তুহারা, অসহায় মানুষদের আবাসস্থল এটি। তবে পালটে যেতে শুরু করেছে তাদের জীবন। সেখানকার ইউএনও ও চেয়ারম্যানের উদ্যোগে গড়ে তোলা হয়েছে একটি ভিক্ষুক পুনঃ বাসন কেন্দ্র।  

গোপালগঞ্জের কুশলা ইউনিয়নের চৌরখুলি গ্রাম। স্বাধীনতার পর এই গ্রামে বসতি গড়ে ওঠে যুদ্ধাহত, বাস্তুহারা ও অসহায় মানুষের। দারিদ্রতা আর ক্ষুধা যেখানে নিত্য সঙ্গী সেখানে কর্মহীন এইসব মানুষের প্রধান পেশা হয়ে ওঠে ভিক্ষাবৃত্তি। পাশাপাশি অনেকেই যোগদেন দিনমজুরিতে।

এইসব মানুষের জীবন যাত্রায় পরিবর্তন এনেছে অবলম্বন প্যাকেজিং প্রজেক্ট। এক কথায় অবলম্বন একটি ভিক্ষুক পুনঃবাসন কেন্দ্র। অবলম্বন নামের এই পুনঃবাসন কেন্দ্রে এই মুহুর্তে পুনঃবাসন করা হয়েছে ৪৩ জন ভিক্ষুকের। তারা জানান তাদের দিন বদলের গল্প।

প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলার পেছনের কারিগর কুশলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের। তিনি জানান এখন স্বল্প পরিসরে কিছু পুনঃবাসন হলেও আরও বড় পরিসরে করার চেষ্টা চলছে।

কোটালিপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, এমন উদ্যোগের ফলে খুধা ও দারিদ্র্য মুক্তির পাশাপাশি দেশে বাড়বে স্বনির্ভরতা। যদিও ছোট্ট একটি প্রকল্প অবলম্বন, তবে বাস্তবে তা প্রায় অর্ধশত মানুষের দিন বদলের কথা বলে, বলে বাধাহীন ভাবে সামনে এগিয়ে যাওয়ার গল্প।

আরও পড়ুন


রাজশাহী মেডিকেলে করোনায় মৃত্যু আরও ১৩

নওগাঁয় নেসকোর কন্ট্রোল রুমে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

অবশেষে মেসিকে স্বাগত জানালেন এমবাপ্পে

পরীমণির পক্ষে দাঁড়িয়েছেন দেশের ১৭ বিশিষ্ট নাগরিক


NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণে ওয়ার্ড-থানা সম্মেলন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ

তৌফিক মাহমুদ মুন্না

অবশেষে ইউনিট ওয়ার্ড থানা সম্মেলন করতে যাচ্ছে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। ব্যাপক সাংগঠনিক দুর্বলতা থাকা এই দুই ইউনিটে সম্মেলনের মাধ্যমেই কমিটি গঠন হবে বলছেন দলের সিনিয়র নেতারা। 

কোন বিতর্কিত, অনুপ্রবেশকারী যেন কমিটিতে আসতে না পারে তা কড়া মনিটরিং করবেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা।

২০১৯ সালের ৪ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয় ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলন। তার এক বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি হলেও আজ অবধি গঠিত হয়নি কোন ইউনিট ওয়ার্ড কিংবা থানা কমিটি। বিভিন্ন আলোচনা এবং বর্ধিত সভায় দুই ইউনিটেরই ব্যাপক সমালোচনা করেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। উঠে আসে পদবাণিজ্য এবং সাংগঠনিক দুর্বলতার বিষয়।

আরও পড়ুন:


ডিসেম্বরেই চালু হবে ৫জি নেটওয়ার্ক: মোস্তাফা জব্বার

দেশে বিনিয়োগ করুন: প্রধানমন্ত্রী

যানজট নিরসনের উদ্যোগ আটকে থাকে মহাপরিকল্পনার নথিতেই

মক্কা-মদিনার মসজিদে কাজ করবেন নারীরা


দেরিতে হলেও এবার কমিটি গঠন করতে যাচ্ছে দুই ইউনিটই। কেন্দ্রের স্পষ্ট নির্দেশনা, সম্মেলন করেই কমিটি গঠন করতে হবে। কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে কড়া মনিটরিং করবে দায়িত্বপ্রাপ্ত কমিটি। কোন বিতর্কিত, অনুপ্রবেশকারী যেন কমিটিতে আসতে না পারে সেজন্য কড়া নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগকে দলের ত্যাগী ও দুর্দিনের নেতাকর্মীকে ডেকে এনে কমিটিতে অন্তর্ভূক্ত করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

যানজট নিরসনের উদ্যোগ আটকে থাকে মহাপরিকল্পনার নথিতেই

ফখরুল ইসলাম

অবৈধ দখলে রাজধানীর ৫৭২ কিলোমিটার সড়ক ও ১০৮ কিলোমিটার ফুটপাত। এই তথ্য সিটি কর্পোরেশনের। এমন অবস্থার মধ্যেও পার্কিং সংকট, সড়কজুড়ে বিধি লংঘনের ছড়াছড়িতে যান আর জনজটে নাকাল ঢাকা। সড়কে আছে বাস থেকে ঘোড়ার গাড়ি সবই। সমাধান কোথায়? 

ঢাকায় বাস করা স্থায়ী মানুষের সাথে প্রতিদিনই গড়ে যুক্ত হচ্ছে ১৭শ মানুষ। ২০১৬ এর পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসেবেই এই মেগা শহরের বাসিন্দা এখন ১ কোটি ৭০ লাখ।

কাজের তাগিদে বের হলেই এই শহরে, বিপুল সংখ্যক মানুষ এখন প্রায়শই থমকে যান রাস্তা, ফুটপাত অথবা গাড়িতে। যান কিংবা জনজটে স্থবির হয়ে পড়ে তাদের কর্মঘণ্টা।

রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের এক খসড়া জরিপে প্রতিদিন যাতায়াতের ট্রিপ সাড়ে ৩ কোটি। এরমধ্যে ১৭.৭ শতাংশ পথচারী। বাকিরা যাতায়াত করেন কোনো না কেনো যানবাহনে। 

সিটি কর্পোরেশনের তথ্য হচ্ছে নগরীর ১৬৩ কিলোমিটার ফুটপাতের ১০৮ কিলোমিটারই অবৈধ দখলে। দখলে আছে মোট ২ হাজার ২৮৯ কিলোমিটারে সড়কের ৫৭২ কিলোমিটারই।

নগরীর ২১০ কিলোমিটার প্রধান সড়কে পার্কিং ব্যবস্থা খুবই নগণ্য। এরমধ্যেও ৩০ ভাগ প্রধান সড়কে রয়েছে অবৈধ পার্কিং ও হকারদের আধিপত্য।

বেশকিছু সড়কে বাস-প্রাইভেট কারের সঙ্গে ধীরগতির রিক্সা, ঠেলাগাড়ি এমনকি ঘোড়ার গাড়িরও দেখা মেলে। আগেই যেতে হবে, তাই ফুটওভারব্রীজ রেখেও আইন ভাঙছেন পথচারী।

যানজট নিরসনে যুগের পর যুগ উদ্যোগ আসে যায়, কার্যকরের অভাবে সেগুলো আটকে থাকে মহাপরিকল্পনার নথিতেই। তবে এরইমধ্যে বিভাগীয় পর্যায়ে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা ও শহরকে বিকেন্দ্রীকরণের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে স্বস্তি ফিরবে নগরজীবনে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

অনিয়মে ঠাঁসা ঢাকা ডেন্টাল কলেজ

পরীক্ষার জন্য রোগীদের পাঠানো হয় প্রাইভেট ল্যাবে

তালুকদার বিপ্লব

মিরপুরে ঢাকা ডেন্টাল কলেজ সরকারি হাসপাতাল। রোগীর সেবা থেকে শুরু করে মেডিকেল পরীক্ষা-নিরীক্ষা সব জায়গায়ই অব্যবস্থাপনা-অনিয়ম আর দুর্নীতি। 

শিফট শেষ না হতেই কর্মকর্তা-কর্মচারী ও টেকনিশিয়ানদের চলে যাওয়া এবং রোগীদের পরীক্ষার হন্য প্রাইভেট ল্যাবে পাঠানোসহ নানা অপকর্মের অভিযোগ এ হাসপাতালটির বিরুদ্ধে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন হাপতাল পরিচালক।

নানা অনিয়ম, স্বেচ্ছাচারিতা ও অব্যবস্থাপনায় চলছে রাজধানীর মিরপুর ডেন্টাল কলেজ হাসপাতা। 

অভিযোগ রয়েছে, ডেন্টাল হাসপাতালে কিছু চিকিৎসক, কর্মকর্তা কর্মচারী প্রাইভেট ডেন্টাল ল্যাব থেকে বিশেষ সুবিধা নেয়ার বিনিময়ে রোগীদের এক্সরে করতে বাইরে পাঠিয়ে দেন।

রও পড়ুন:


জন্মদিনে সৃজিতের কাছে কী চাইলেন মিথিলা?

বায়ু দূষণের তালিকায় বাংলাদেশ প্রথম, ঢাকা তৃতীয়

৪৫ মিনিট পর হাসপাতালে অলৌকিকভাবে বেঁচে উঠলেন নারী!

গাড়ি সাইড দেয়ায় ব্যবসায়ীকে মারধর করলেন এমপি রিমন!


অভিযোগের সত্যতা মেলে সরজমিনে। গেল মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এক্সরে বিভাগের সামনে রোগিদের দীর্ঘ অপেক্ষা। শিফট শেষ না হতে খালি পড়ে আছে এক্সরে টিকিট কাউন্টার। এছাড়া এক্সরে বিভাগে নেই কোন চিকিৎসক - টেকনেশিয়ান।

হাসপাতালে এক্সরের ব্যবস্থা রয়েছে, কিন্তু বিভিন্ন বাহানায় রোগীদের প্রাইভেট ডেন্টাল ল্যাবে পাঠানোর অভিযোগ রয়েছে এ হাসপাতালের বিরুদ্ধে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আইন অমান্য করে ঢাকা ডেন্টাল হাসপাতাল ঘিরে গড়ে উঠেছে প্রায় ডজন খানেক ক্লিনিক ও ডেন্টাল ল্যাব। অনিয়মের অভিযোগ স্বীকার করেছেন ঢাকা ডেন্টাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক।

প্রফেসর ডা. মো. বোরহানউদ্দিন হাওলাদার, পরিচালক ঢাকা ডেন্টাল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। তবে রোগী ও স্বজনদের প্রশ্ন, অনিয়মে জড়িতরা কিসের বিনিময়ে পার পেয়ে যাচ্ছেন।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

অসময়ে মাচায় তরমুজ চাষ

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

অসময়ে বাণিজ্যিকভাবে মাচায় তরমুজ চাষ করে সফলতা পেয়েছেন ঠাকুরগাঁওয়ের কৃষকরা। বাজারে এই তরমুজের দর চড়া থাকায় লাভবান হচ্ছেন তারা। স্বল্প খরচে লাভ বেশি হওয়ায় এ তরমুজ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন অনেকে।

ঠাকুরগাঁও পীরগঞ্জ উপজেলায় মাচায় অসময়ের তরমুজ চাষ করছে এ অঞ্চলের কৃষকরা।  আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ফলনও বেশ ভালো হয়েছে।

কৃষকরা জানান, মাচার এই তরমুজ প্রতিটি ৩-৪ কেজি ওজনের হয়। লাল ও হলুদ বর্ণের এ তরমুজগুলো দেখতে যেমন সুন্দর, খেতেও অনেক সুস্বাদু। আর অসময়ে এই তরমুজের বাজার দরও বেশ চড়া থাকে।

স্বল্প খরচে লাভ বেশি হওয়ায় এই তরমুজ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন অনেকে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, নতুন জাতের এই তরমুজ চাষ প্রসারের লক্ষ্যে মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের সব ধরনের সহায়তা করছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ।

নতুন প্রযুক্তিতে অসময়ে তরমুজ চাষ একটি অসাধারণ উদ্যোগ। আর এভাবেই কৃষি এগিয়ে যাচ্ছে ও কৃষকরা স্বাবলম্বী হচ্ছে বলে মনে করেন তারা।

আরও পড়ুন:


টাকার অভাবে বাঁচানো গেল না শরীরের বাইরে হৃৎপিণ্ড নিয়ে জন্মানো শিশুটিকে

কিশোরীকে স্বামীর ঘরে ঢুকিয়ে দরজা বন্ধ করে বাইরে পাহারা দেয় স্ত্রী

গাড়িচাপা দেওয়া ইসরাইলি ২ পুলিশের অবস্থা আশঙ্কাজনক

এই হচ্ছে বিএনপি, আর সব দোষ আওয়ামী লীগের?


news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ভাসানটেকে ফুটপাত ও রাস্তা অবৈধ দখলে, যানজট নিত্যসঙ্গী

তালুকদার বিপ্লব

ভাসানটেকে ফুটপাত ও রাস্তা অবৈধ দখলে, যানজট নিত্যসঙ্গী

রাজধানীর মিরপুর ১৪ ভাসানটেক সড়ক। ২০১৯ সালে প্রায় ২০ কোটি টাকা ব্যয়ে ১২০ ফিট এই রাস্তা ফুটপাতসহ নির্মাণ করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। নির্মাণের পর পরই এই সড়কের অন্তত ৮০ শতাংশ ফুটপাত অবৈধ দখলে চলে গেছে। শুধু তাই নয়, কোথাও কোথাও ফুটপাত ছাড়িয়ে সড়কের ৭০ শতাংশ দখল করেছে অবৈধ দখলদাররা। ফলে সকাল কি সন্ধ্যা সবসময় যানজট লেগেই থাকে এই সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে। কিন্তু এসব অনিয়মের দায় নিতে নারাজ স্থানীয় প্রশাসন এবং জনপ্রতিনিধিরা।

রাজধানীর  মিরপুর ১৪ নম্বর টু ভাসানটেক বাজার সড়ক। হরেক রকম দোকান, গাড়ির গ্যারেজ দেখে বোঝার উপায় নেই, এটি ১২০ ফিট কোন সড়ক। অভিযোগ আছে ২০১৯ সালে ফুটপাতসহ এই রাস্তাটি সংষ্কার হওয়ার পর থেকে এটি অবৈধ দখলদারদের কবলে।

প্রায় দেড় কিলোমিটার রাস্তার উভয় পাশে গাড়ির স্ট্যান্ড, নির্মাণসামগ্রীর পুরাতন মালামালের দোকান। কাচাঁবাজার এবং ভাসমান হকাররা ফুটপাতের ৮০ শতাংশ দখলে রেখেছে।

এমনকি কোথাও কোথাও আবার ফুটপাত ছাড়িয়ে সড়কের প্রায় ৭০ শতাংশ গিলে খেয়েছে অবৈধ দখলদাররা। এছাড়া ভাসানটেক বাজার রাস্তায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার দাপটে এখানে তীব্র যানজট ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হচ্ছে প্রতিদিন। জানা যায় এসব দখল-বেদখল নিয়ে হয় লাখ লাখ টাকার চাঁদাবাজি।

আরও পড়ুন


ই-ভ্যালির প্রতারণায় আস্থা সংকটে গোটা ই-কমার্স খাত

বাংলাদেশ বিদেশি বিনিয়োগের নিরাপদ স্থান: প্রধানমন্ত্রী

অসময়ে বাণিজ্যিকভাবে মাচায় তরমুজ চাষ, লাভের আশায় কৃষক

সৌন্দর্যে ভরা সুনামগঞ্জের সব হাওড়গুলো পর্যটকে মুখরিত


ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সালেক মোল্লাহ জানান, আমরা থানা-পুলিশকেও জানিয়েছি। তারাও কিছু করতে পারে না। আসলে ফুটপাতে বসা এরা কোথা থেকে ইন্ধন পায় জানি না। শুনেছি দলীয় লোকজনই নাকি তাদের বসায়।

দখলদারিত্বের কথা স্বীকার করে এর স্থায়ী সমাধান চান বলে জানায় সিটি কপোরেশন। অঞ্চল ২ এর নির্বাহী কর্মকর্তা এ এস এম সফিউল আজম জানান, প্রতিদিনই পুলিশ নিয়ে টহল দেয়া হয়। কিন্তু এদের আটকানো যাচ্ছে না।

ভুক্তভোগিদের দাবি, দখলবাজদের যারা সুযোগ করে দিচ্ছে, তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হোক। দখলদারদের উৎখাত করে নির্বিঘ্নে চলাচলের জন্য ফুটপাত-রাস্তা উন্মুক্ত করে দেওয়া হোক।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর