বিশ্বাসঘাতকদেরও মুখোশ উন্মোচনের দাবি নানকের

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বাসঘাতকদেরও মুখোশ উন্মোচনের দাবি নানকের

১৫ আগস্টের হত্যাকান্ডে নেপথ্যে থেকে যারা কলকাঠি নেড়েছে তাদের আজ পর্যন্ত মুখোশ উন্মোচন করা হয়নি বলেই ১/১১ অঘটনের ঘটনের সময়ও শেখ হাসিনার সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতারা বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। তাদেরকেও আমরা চিহ্নিত করতে পারিনি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য  অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।

শনিবার (১৪ আগস্ট) দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে মহিলা শ্রমিক লীগের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

১৫ আগস্ট হত্যাকান্ডের প্রেক্ষাপট তুলে বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের পরবর্তী বাংলাদেশে প্রতিরোধ-প্রতিবাদের ডাকের অভাব ছিল সেই প্রসঙ্গ তুলে ধরেন নানক। 

তিনি বলেন, আমরা যখন ঘুরে বেড়িয়েছি চাতক পাখির মতো। এই হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ-প্রতিরোধের আহ্বানের প্রত্যাশায়। তখন প্রতিবাদের আহ্বান আসেনি। অনেক কথা বলার সময় এখনো আসেনি। তাই অনেক কথা বলা যাবে না।

নানক বলেন, সেদিন কে যে কাক আর কে কোকিল? কে আমাদের পক্ষে আর কে আমাদের বিপক্ষে? খুনী মোশতাক যখন বঙ্গবভনে সংসদ সদস্যদের ডাকল আমরা এমপিদের বাড়িতে বাড়িতে চিঠি নিয়ে গিয়ে হুমকি দিয়েছি। বঙ্গভবনে মোশতাকের ওই সংসদীয় সভায় উপস্থিত হওয়া যাবে না। তারপরও কিন্তু অনেকেই সেই সভায় অংশগ্রহণ করেছেন। বিভ্রান্ত করা হল দেশের মানুষকে। বিভ্রান্ত করা হল বিশ্ববাসীকে।

সেই প্রেক্ষাপটের কথা তুলে সভাপতিমন্ডলীর এই সদস্য বলেন, বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রিসভার দুই তৃতীয়াংশ মন্ত্রী সেদিন খন্দকার মোশতাকের মন্ত্রিসভার সদস্য হিসাবে শপথ গ্রহণ করলেন। সেদিন সেনাবাহিনী প্রধান, বিমানবাহিনীর প্রধান, নৌবাহিনীর প্রধান পুলিশের আইজি বাংলাদেশ বেতারে গিয়ে সেই সরকারের প্রতি আস্থা জানিয়েছিল। একথা কিন্তু আমরা ভুলি নাই।

সাবেক এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা একটু প্রতিবাদ চেয়েছিলাম। বাঙালি একটি প্রতিবাদের ডাক চেয়েছিল। বাঙালি একটি প্রতিরোধের দুর্গ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছিল। সেদিন নেতৃত্বের দুর্বলতা, নয় নেতৃত্বের কাপুরুষতা, নয় নেতৃত্বের ভীরুতা, নয় নেতৃত্বের আত্মসমর্পণের কারণে আমরা বঙ্গবন্ধু হত্যার বিরুদ্ধে, ওই খুনী শাহরিয়ার নূর ডালিম রশিদসহ খুনী মোশতাকদের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগরে প্রতিরোধ গড়তে পারিনি।

নানক বলেন, ১৫ আগস্টে দৃশ্যশান যারা খুনী সেই দৃশ্যমান খুনীদেরকে আমরা চিনেছি মাত্র। কিন্তু অদৃশ্যমান যারা পিছন থেকে কলকাঠি নেড়েছে তাদেরকে আজো পর্যন্ত বের করা হয়নি। তাদের মুখোশ উন্মোচন করা হয়নি। তাদের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে। আর তাদের উন্মোচন করি নাই বলে এক/এগারোর অঘটনের ঘটন পটিয়সীদের সময়ও শেখ হাসিনার সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতারা বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, আমরা তাদেরকেও চিহ্নিত করতে পারিনি।

১৫ আগস্টের এই নেপথ্যদের যদি খুঁজতে যাই তাহলে একাত্তরকে খুঁজে বের করতে হবে। একাত্তরকে জানতে হবে। একাত্তরে স্বাধীনতা মুক্তিযুদ্ধচলাকালীন সময় কারা মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতা করেছিল? কারা আওয়ামী লীগের বিরোধীতা করেছে? জিয়াউর রহমানের মতো লোকেরা যারা আইএসআইয়ের অনুচর হিসাবে গোয়েন্দা হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছে। তাদেরকেও আমরা চিহ্নিত করতে পারিনি বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

চিহ্নিত করতে পারি নাই বলেই সবসময় একটি অজগর সাপ, একটি জাতিসাপকে নিয়ে পথ চলেছি। আর সেই জাতিসাপ-অজগর সাপ সময়ের অপেক্ষায় ছিল বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

নানক বলেন, রনাঙ্গণের যুদ্ধের মধ্য দিয়ে যে পাকিস্তানি চীন-মার্কিন শক্তি পরাজিত হল এবং এদেশীয় রাজাকার আলশামস আলবদররা পরাজিত হল আত্মসমপর্ণ করল আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে সেই তাদেরকেও আমরা চিহ্নিত করতে পারিনি। তাই আমরা যারা রাজনীতি করি, আমাদেরকে খুঁজে বের করতে হবে। একাত্তরে কারা পাকিস্তানের সঙ্গে কনফেডারেশন করতে চেয়েছিল? কেন তাদেরকে আমরা চিহ্নিত করতে পারিনি। কেন তাদের বিরুদ্ধে স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে শেখ তাদেরকে চিহ্নিত করে বিচারের কাটগড়ায় দাঁড় করাতে পারিনি? আর পারি নাই বলেই তারাই ১৫ আগস্ট ঘটিয়েছে।

১৫ আগস্টের ঘটনায় নেপথ্যের নাটের গুরু তথা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক নাটের গুরুদেরও মুখোশ উন্মোচন করতে না পারার প্রসঙ্গ তোলেন। 

নানক বলেন, সেই কারণে আমরা শত্রু-মিত্রকে চিহ্নিত করতে ব্যর্থ হয়েছি। আর শত্রু-মিত্রকে যদি চিহ্নিত করতে না পারি তাহলে একসাথে শত্রুকে নিয়ে পথচলা যায় না। জাতিসাপকে নিয়ে একসাথে পথচলা যায় না। তাই জিয়াউর রহমান ১৫ আগস্ট সেনাবাহিনীর উপপ্রধান থাকাকালীন সে তার দায়িত্ব পালন করে নাই।

সেদিন যারা রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করেছিল তারা কিন্তু জয় বাংলা স্লোগানের বদলে বাংলাদেশ জিন্দাবাদ স্লোগান দিয়ে পাকিস্তানি কায়দায়, পাকিস্তানি প্রেতাত্মা হিসাবে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করেছিল বলে দাবি করেন এই আওয়ামী লীগ নেতা।

দেশে ফিরে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দলীয় সভাপতি হিসাবে হাল ধরার প্রসঙ্গ তুলে ধরেন এবং শেখ হাসিনাকে সভাপতি নির্বাচিত করার মধ্য দিয়ে আমাদের সেদিন প্রত্যাশার লাল সূর্য উদিত হয়েছিল বলে দাবি করেন।

আরও পড়ুন:

যতক্ষণ না পুলিশ আসবে, মিডিয়া আসবে লাইভ চলবে: পরীমনি

আবারও মুখোমুখি ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা

একসঙ্গে দুই ছেলে ও দুই মেয়ের জন্ম


 

মহিলা শ্রমিক লীগের সভাপতি সুরাইয়া আক্তারের সভাপতিত্বে সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারি ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, সংগঠনের কার্যকরি সভাপতি শামসুন নাহার এমপি বক্তব্য রাখেন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রহিমা আক্তার সাথী সভা পরিচালনা করেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

দ্বিতীয় দিনও ‍রুদ্ধদ্বার আলোচনা

পেশাজীবীদের সঙ্গে বৈঠক করবে বিএনপি

তৌহিদ শান্ত

আগামী সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি, বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও সাংগঠনিক বিষয়ে মতামত জানতে দলের বিভিন্ন স্তরের নেতাদের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা। দ্বিতীয় দিনের রুদ্ধদ্বার বৈঠক বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানান, পেশাজীবি এবং অন্যদের সঙ্গেও আরো দু-একটি বৈঠক হতে পারে। 

দ্বিতীয় দিনের বৈঠক শুরু হয় বুধবার বিকেল চারটায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে।

অংশ নেন দলের যুগ্মমহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক, সম্পাদক ও সহসম্পাদক পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। এছাড়া শীর্ষনেতাদের মধ্যে ছিলেন বিএনপি মহাসচিব ও স্থায়ী কমিটির বেশ কয়েকজন সদস্য। শেষহয় রাত পৌনে ১২টায়। পরে মহাসচিব জানান সাংগঠনিক ভিত্তি সবল করতেই এই বৈঠক।

মঙ্গলবার শুরু হওয়া এই ধারাবাহিক বৈঠকের অংশ হিসেবে আরো দু-একটি বৈঠক হবে বলেও জানান মির্জা ফখরুল।
আগামী নির্বাচনে দলের অংশগ্রহণ থাকবে কিনা, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন বাস্তবায়নে বাধ্য করতে হলে দলের অবস্থান কি হবে - এসব বিষয় নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয় বলে জানান নেতারা।

আরও পড়ুন:


আইএস বধূ শামীমা বাংলাদেশে নয়, ফিরতে চান ব্রিটেনে

করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আবারও ১০ হাজারের কাছাকাছি মৃত্যু

রদ্রিগোর গোলে ইন্টার মিলানকে হারাল রিয়াল মাদ্রিদ

চট্টগ্রামের উপকূলে মিলল তিনটি মৃত ডলফিন!


NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

আইন আদালতের প্রতি সরকারের কোন হস্তক্ষেপ নেই: ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

আইন আদালতের প্রতি সরকারের কোন হস্তক্ষেপ নেই: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শেখ হাসিনা সরকার দমন-পীড়নে বিশ্বাসী নয়। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলক মামলা কেন দিবে সরকার? দেশের আইন আদালতের প্রতি সরকারের কোনরূপ হস্তক্ষেপ বা চাপ নেই।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকালে মন্ত্রী তাঁর বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এমন দাবি করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নিয়মিত অসত্য বক্তব্য উপস্থাপনকে রেওয়াজে পরিণত করেছে বিএনপি। সরকারের বিরুদ্ধে বিএনপির অভিযোগ কল্পিত এবং বরাবরের মত চর্বিত চর্বন। নিত্যদিন সরকারের বিরুদ্ধে নতুন নতুন অভিযোগ উত্থাপন বিএনপির রোজনামচায় পরিণত হয়েছে।

কোন মামলায় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা আদালতের নির্দেশে গ্রেফতার করলেই সরকারের দোষ, গুরুতর অপরাধীকেও শাস্তির আওতায় আনা যাবে না, এ কোন ধরনের অভিযোগ? ওবায়দুল কাদের জানতে চান - তাহলে কি দেশে বিচার ব্যবস্থা বা আইন আদালত থাকবে না?

বিএনপি বাছ-বিচার না করে ঢালাওভাবে অপরাধীদের পক্ষ নিচ্ছে। অস্ত্র নিয়ে ধরা পড়েছে এমন অপরাধীদের পক্ষে তারা বিবৃতি দিয়ে মুক্তি দাবি করেছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি স্বাভাবিক আইনগত প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। 

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সরকারের অবস্থান হচ্ছে স্পষ্ট, তা হলো সরকার রাজনৈতিক নিপীড়নে বিশ্বাস করে না।সরকারের আচরণে নাকি বিএনপি নেতাদের মনে হয় এদেশ স্বাধীন রাষ্ট্র নয়, মগের মুল্লুক, এমন আজগুবি বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি যখন আগুন সন্ত্রাস চালিয়ে জীবন্ত মানুষ দগ্ধ করেছিলো, গান পাউডার দিয়ে গাড়ি ও ভূমি অফিস পুড়িয়েছিলো, রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছিলো তখন কি মগের মুল্লুক মনে হয় নি?

আরও পড়ুন


বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের ৪০তম জন্মদিন আজ

অনলাইন জুয়ার মাধ্যমে শত শত কোটি টাকা পাচার হচ্ছে বিদেশে

ইভ্যালির এমডি ও চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মামলা

করোনা শুরুর পর প্রথম বিদেশ সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী


আওয়ামী লীগের একুশ হাজার নেতাকর্মী হত্যা করে বিএনপিই দেশকে সন্ত্রাসের জনপদে রূপান্তর করেছিলো উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, কথায় কথায় বিদেশিদের কাছে নালিশ করা কি কোন স্বাধীন দেশের রাজনৈতিক দলকে মানায়? বিএনপির মগের মুল্লুকে রূপান্তর থেকে শেখ হাসিনা সরকার সে অবস্থা থেকে উদ্ধার করে দেশে শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠার জন্য অবিরাম প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। 

রাজনীতিকে রাজনীতিবিদদের কাছে কঠিন করে দেওয়া হবে- এ প্রত্যয় নিয়েতো বিএনপিই দেশের রাজনীতিকে দূষিত করার কাজ শুরু করেছিলো জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, রাজনীতিতে স্বার্থের অনুপ্রবেশ এবং সুবিধাবাদ চর্চা শুরু করেছিলো বিএনপিই।

যাদের রাজনীতি জনগণ নির্ভর নয়,যারা নিজেরা নিজেদের সম্মান রক্ষা করতে জানে না তাদেরকে কে সম্মান করবে? জনগণ যাদের উপর আস্থাশীল নয় তারাই রাজনীতির নামে ক্ষমতা দখলের জন্য সুবিধাবাদ কায়েম করে আর বিএনপি এখন সেটাই করছে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগ তৃণমূল থেকে গড়ে উঠা রাজনৈতিক দল উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, নেতাদের সম্মান আওয়ামী লীগই দিতে জানে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

তারেক জিয়াকে দেশে আসার অনুরোধ তথ্য প্রতিমন্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক

তারেক জিয়াকে দেশে আসার অনুরোধ তথ্য প্রতিমন্ত্রীর

তারেক জিয়াকে বিদেশের মাটিতে বসে আস্ফালন না করে, দেশে ফিরে আসার আহবান জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। 

তিনি বলেন,তারেক রহমানের মদদেই সারাদেশে জঙ্গিবাদের উত্থান হয়।  দেশের টাকা বিদেশে পাচার করার ইতিহাস জাতি ভুলে যায় নাই। এখনও আওয়ামী লীগ সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছেন, ষড়যন্ত্র করে লাভ হবে না। দেশের জনগণ আওয়ামী লীগের সঙ্গে আছে এবং আগামীতেও থাকবে।

সরিষাবাড়ি (জামালপুর)পৌর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগ ও পৌর আওয়ামী লীগে'র নের্তবৃন্দের কাছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান (পোট্রের্ট)  এর ছবি হস্তান্তর কালে এসব কথা বলেন। 

তিনি বলেন, আমি মুখে যা বলি তা কাজে প্রমাণ করি।  

সভায় প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় তারেক রহমান সরকারের ভেতরে আরেকটি ‘সরকার’ তৈরি করেছিল। দেশের সম্পদ লুটপাট করেছিল। এছাড়া আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে শেখ হাসিনাকে প্রধান টার্গেট করে ২০০৪ সালে একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়েছিল।  


বিয়ে ছাড়াই আবারও মা হচ্ছেন কাইলি জেনার

বলিউড পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজের প্রস্তাবে মিমের না!

দেশমাতা, আমাকে কি একটু নিরাপত্তা দিতে পারেন


পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিজানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজুর সঞ্চালনায় সভার বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা, সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ এবং সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য করেন জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবু জাফর শিশা।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আজও রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বিএনপির হাইকমান্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজও রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বিএনপির হাইকমান্ড

ধারাবাহিক বৈঠকের দ্বিতীয় দিনে দলের মধ্য সারির নেতাদের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসেছেন বিএনপির হাইকমান্ড।

গুলশানে চেয়ারপারসনের কাকার্যালয়ে বিকেল ৪টায় এ বৈঠক শুরু হয়েছে।

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে রাজনৈতিক কর্মকৌশল ঠিক করার লক্ষ্যে নেতাদের মতামত জানতে গতকাল থেকে এই ধারাবাহিক বৈঠক শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন: 


সরকারি আটায় রুটি তৈরি করা কারখানায় অভিযান চলছে

বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ফজলুল হক আছপিয়া চলে গেলেন

ঘাস সংগ্রহ করতে নাগর নদী পার হচ্ছিল মৃত দুই নারী

নীলফামারীতে বিমান কোস্টার সার্ভিস উদ্বোধন


প্রথম দিন দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যদের মতামত জেনেছেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।

সাড়ে ৪ ঘণ্টার ওই বৈঠকে ২৮ জন নেতা আগামী নির্বাচন ও দলের করণীয় বিষয়ে মতামত দেন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

নারীর সঙ্গে অশ্লীলতা: আওয়ামী লীগ নেতা চিত্তরঞ্জন বহিষ্কার

অনলাইন ডেস্ক

নারীর সঙ্গে অশ্লীলতা: আওয়ামী লীগ নেতা চিত্তরঞ্জন বহিষ্কার

সম্প্রতি এক নারীর সঙ্গে অশ্লীলতার ভিডিও ভাইরাল হয় রাজধানীর সবুজবাগ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জন দাসের।

সেই ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী মামলা করে চিত্তরঞ্জন দাসের বিরুদ্ধে। পরে মুচলেকা দিয়ে জামিন পান তিনি। এমন ঘটনায় কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জন দাসকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। পাশাপাশি কেন তাকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে না, জানতে চেয়ে নোটিশও দেয়া হয়েছে।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন গণমাধ্যকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, চিঠির জবাব পাওয়ার পর তার বিরুদ্ধে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন


খেলায় অংশ নিতে প্রস্তুত পরীমণি

শীর্ষস্থান ধরে রাখতে পারলেন না সাকিব, দশে মাহমুদুল্লাহ

নিখোঁজ কনস্টেবলের খোঁজ ১ বছরেও দিতে পারলো না পুলিশ

বরিশালে পাথরবোঝাই ট্রাকের ভারে ভেঙে পড়ল বেইলি ব্রিজ


সম্প্রতি নারীর সঙ্গে ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিওতে দেখা যায়, এক তরুণীকে নিজের দিকে ডাকছেন চিত্তরঞ্জন দাস। ওই তরুণীকে কাছে টেনে বারবার তাকে জড়িয়ে ধরছেন।

পরে চিত্তরঞ্জন দাস দাবি করে বলেন, ‘এটি মূলত একটি নাটকের সংলাপ। আমার এলাকার বরদেশ্বরী মন্দিরে চিত্রায়িত। ভিডিওটি খেয়াল করলেই বুঝবেন।’

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর