লন্ডনে স্থাপিত জাতির জনকের ভাস্কর্যে সালমান এফ রহমান ও ড. গওহর রিজবীর শ্রদ্ধা নিবেদন

অনলাইন ডেস্ক

লন্ডনে স্থাপিত জাতির জনকের ভাস্কর্যে সালমান এফ রহমান ও ড. গওহর রিজবীর শ্রদ্ধা নিবেদন

লন্ডনে স্থাপিত জাতির জনকের ভাস্কর্যে ১৫ই আগস্টের জাতীয় শোক দিবসে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারী শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান ,প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজবী, লন্ডনে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম সহ আওয়ামীলীগ যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহ প্রবাসী নেতৃবন্দ ।

এসময় সালমান এফ রহমান বলেন, লন্ডনে জাতির পিতার এই ভাস্কর্য স্থাপন করে আফসার খান সাদেক  বাংলাদেশকে বহি:বিশ্বে ইতিবাচকভাবে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন। ব্রিনেটের বহুজাতি ও ভাষার মানুষ জাতির জনকের ভাস্কর্য দেখে বাংলাদেশ নামক একটি স্বাধীন দেশ বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুর অবদান এবং বাংলাদেশ সম্পর্কে জানার সহজ সুযোগ পাচ্ছে। অনন্য কাজের জন্য আফসার খান সাদেক কে অনেক ধন্যবাদ।

ড. গওহর রিজবী বললেন, এতো বড় মন আমাদের সাদেকের কল্পনাও করতে পারিনি। এই বিশাল ভাস্কর্য নিজ উদ্দ্যোগে স্থাপন করে বিশ্ব বাঙ্গালীর ঠিকানা করে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমরা অনেক কিছু করতে  পারিনি , প্রবাসী আফসার খান সাদেক  বঙ্গবন্ধু কে হৃদয়ে ধারণ করে প্রমাণ করেছেন বঙ্গবন্ধু কে মারা যায় না। এই রকম কাজ  বাংলাদেশেকে এগিয়ে নিতে বিরাট ভূমিকা রাখবে নি:সন্দেহে।

আরও পড়ুন:


কাবুল দখলের পর ভারতের প্রতি তালেবানের কৃতজ্ঞতা ও হুঁশিয়ারি

ভূমিকম্পে লন্ডভন্ড হাইতি, মৃত বেড়ে ৭০০

আমেরিকার কী ঠ্যাকা পড়েছে আফগানিস্তানে নটখট করার?


 

প্রসঙ্গত পরিবেশ,বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো: শাহাব উদ্দিন এমপি গত ৩০ জুলাই , শুক্রবার বিকেলে ইস্ট লন্ডনের সিডনি স্ট্রিটে  স্থাপিত  বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে মাসব্যাপী ‘কাদো বাঙালি কাদো’ শিরোনামের সিডনি স্ট্রিটস্থ লন্ডন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও বাংলাদেশের স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যের প্রতিষ্ঠাতা আফসার খান সাদেকের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস ও মাসব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্টের সাথে হাইকমিশনারের সৌজন্য সাক্ষাত

অনলাইন ডেস্ক

মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্টের সাথে হাইকমিশনারের  সৌজন্য সাক্ষাত

মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফয়সাল নাসিমের সাথে তার কার্যালয়ে মালদ্বীপস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনার  রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ নাজমুল হাসান এক সৌজন্য সাক্ষাত করেন।

বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর এই সাক্ষাত অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ৪৩ তম বার্ষিকীর দিনে উক্ত আলোচনায় দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়সমূহ স্থান পায়। এবং বাংলাদেশ হতে বিভিন্ন পেশার কর্মী আগমনের বিষয়ে গত ২০১৯ সেপ্টেম্বর মাস হতে আরোপিত নিষেধাজ্ঞা বাতিলের জন্য মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্টের মাধ্যমে মালদ্বীপ সরকারকে অনুরোধ জানান রাষ্ট্রদূত রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ নাজমুল হাসান ।

এছাড়া ও উভয়পক্ষ বিশেষত স্বাস্থ্য সেবা খাতে উচ্চ শিক্ষা এবং বিভিন্ন কারিগরি শিক্ষার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ কর্তৃক মালদ্বীপকে সহায়তা প্রদানের বিষয়ে আলোচনা করেন।  

আরও পড়ুন:

অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


 

আলোচনাকালে ভাইস প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের চীফ এক্সিকিউটিভ এবং অত্র বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব উপস্থিত ছিলেন।  দু, দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও জোরদার হবে বলে  উভয়পক্ষ আশা প্রকাশ করেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

গাজীপুরের শ্রীপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় শ্রমিকদল নেতা নিহত

মোহাম্মদ আল-আমীন, গাজীপুর

গাজীপুরের শ্রীপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় শ্রমিকদল নেতা নিহত

গাজীপুরের শ্রীপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় শেখ ফরিদ নামে শ্রমিকদলের এক নেতা নিহত হয়েছেন।

বিস্তারিত আসছে...

পরবর্তী খবর

পর্তুগাল বাংলা প্রেস ক্লাব ও বাংলাদেশ দূতাবাসের বৈঠক

অনলাইন ডেস্ক

পর্তুগাল বাংলা প্রেস ক্লাব ও বাংলাদেশ দূতাবাসের বৈঠক

পর্তুগালে বাংলাদেশের নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত তারিক আহসানের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও মতবিনিময় করেছেন পর্তুগালের বাংলা গণমাধ্যমে প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন ‘পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাব’ এর নেতারা।  

২১ সেপ্টেম্বর বিকাল ৩টা ৩০ মিনিটে পর্তুগালের লিসবনে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের হলরুমে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

সভায় রাষ্ট্রদূত পর্তুগাল বাংলা প্রেস ক্লাবের সঙ্গে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তার বিভিন্ন কর্মকাণ্ড জীবন বৃত্তান্ত উপস্থাপন করেন এবং তিনি পর্তুগালের সব লেখক-সাংবাদিকদের সমন্বয়ে একটি সুষ্ঠু সুশৃংখল প্রেস ক্লাব গঠনের জন্য সবাইকে অভিবাদন জানান। পর্তুগাল বাংলা প্রেস ক্লাবের সদস্যদের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন ও বাংলাদেশ কমিউনিটির বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে সহযোগিতার জন্য সবার প্রতি ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বক্তারা বলেন, পর্তুগাল বাংলা প্রেস ক্লাব বাংলাদেশের অন্যান্য প্রেস ক্লাবের মতো চিরাচরিত সংগঠন নয়, এটি আরও বেশি দায়িত্বশীল। কারণ ভিন্ন একটি দেশে দেশীয় সাংবাদিকতা চর্চা এবং কমিউনিটি সাংবাদিকতা অনেক চ্যালেঞ্জিং। তথাপি সামাজিক দায়বদ্ধতার দৃষ্টিকোণ থেকেই তাদের এই প্রয়াস।

পর্তুগাল বাংলাদেশ কমিউনিটিতে প্রবাসীদের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা এবং বঞ্চিত মানুষের সহযোগিতা দিতে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্যরা নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। বক্তারা তাদের এই কর্মকাণ্ডে বাংলাদেশ দূতাবাসের সম্পৃক্ততা কামনা করেন এবং একটি সুষ্ঠু সুন্দর বাংলাদেশ কমিউনিটি গঠন করার বিষয়ে তাদের সংকল্প উপস্থাপন করেন।

আরও পড়ুন:

অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


 

সমাপনী পর্বে রাষ্ট্রদূত এবং অনুষ্ঠানে উপস্থিত দ্বিতীয় সচিব আবদুল্লাহ আল রাজী পর্তুগাল বাংলা প্রেস ক্লাবকে দূতাবাসের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়ার আশ্বাস দেন। পরিশেষে রাষ্ট্রদূত প্রবাসী বাংলাদেশিদের কল্যাণে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লবের  কর্মকাণ্ড ও এখানে উপস্থিত হয়ে একটি সুন্দর গঠনমূলক আলোচনার জন্য উপস্থিত সবার প্রতি ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

ঢাকা-নিউইয়র্কে বিমানের ফ্লাইট দ্রুত চালু হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা-নিউইয়র্কে বিমানের ফ্লাইট দ্রুত চালু হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শিগগির ঢাকা থেকে নিউইয়র্কে আবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ফ্লাইট চালু করা যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

সোমবার নিউ ইয়র্কের হোটেল লোটে নিউইয়র্ক প্যালেসে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এই আশার কথা জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী গতকালকে বাংলাদেশ বিমানে নিউইয়র্কে এসেছেন। বাংলাদেশ বিমানে আমরা নিউইয়র্ক থেকে বাংলাদেশে যেতাম বহু বছর আগে। তারপর বিমানটা বন্ধ হয়ে যায়। এখন আমাদের বিমান এখানে এসেছে। আমাদের প্রত্যাশা, যে আগামীতে বাংলাদেশ বিমান নিউইয়র্ক টু ঢাকা এই লাইনটা চালু হবে।


সিলেটে বাসার ছাদ থেকে আপন দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

ক্ষমতায় থাকছেন ট্রুডো, তবে গঠন করতে হবে সংখ্যালঘু সরকার

মিডিয়া ভুয়া খবর ছড়িয়েছে: বাপ্পী লাহিড়ি


তিনি আরও জানান, বহু বছর আগে ঢাকা-নিউইয়র্ক ফ্লাইট ছিল বাংলাদেশ বিমানের। পরে ফ্লাইটটি বন্ধ হয়ে যায়। এখন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) একটি চুক্তি হয়েছে। চুক্তিটি ভালো পর্যায়ে আছে এবং খুব তাড়াতাড়িই ঢাকা-নিউইয়র্ক ফ্লাইট পুনরায় চালু হবে বলে তিনি আশা করেন। 

জাতিসংঘের ৭৬তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরসঙ্গী হিসেবে আছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বঙ্গবন্ধুর নামে জাতিসংঘের বাগানে বেঞ্চ উৎসর্গ

অনলাইন ডেস্ক

বঙ্গবন্ধুর নামে জাতিসংঘের বাগানে বেঞ্চ উৎসর্গ

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে যোগ দিতে গত রোববার নিউইয়র্কে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর সেখানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে জাতিসংঘ সদর দপ্তরের বাগানে একটি ‘হানি লোকাস্ট’ গাছের চারা রোপণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে বঙ্গবন্ধুকে উৎসর্গ করে তার বাণীসংবলিত একটি বেঞ্চও উন্মুক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী।

গতকাল সোমবার স্থানীয় সময় সকালে জাতিসংঘ সদরদপ্তরের উত্তর লনে এ বৃক্ষরোপণ ও বেঞ্চ উন্মুক্ত করেন তিনি।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটি একটি বিশেষ দিন। কারণ আমাদের যুদ্ধ বিজয়ের পর ১৭ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ বাংলাদেশকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল। স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে ১৭ সেপ্টেম্বর স্বীকৃতি পাওয়ার পর পরই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতিসংঘে আসেন এবং ২৫ সেপ্টেম্বর তিনি (বঙ্গবন্ধু) ভাষণ দেন। সেই ভাষণটি তিনি দিয়েছিলেন বাংলা ভাষায়।

শেখ হাসিনা বলেন, একটি চেয়ার উৎসর্গ করা হলো, একটি বৃক্ষরোপণ করা হলো। বৃক্ষ পরিবেশও রক্ষা করে, মানুষকে খাদ্য দেয়, মানুষকে ছায়া দেয় এবং মানুষের জীবনকে রক্ষা করে। আর চেয়ারটার এটিই সবচেয়ে বড় বিষয়— মানুষ এখানে শান্তিতে বসবে, কিছুক্ষণ আরাম করবে ও চিন্তা করবে।

বঙ্গবন্ধুর পররাষ্ট্রনীতির কথা মনে করিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার যে লক্ষ্য ছিল— সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয়। এটিই ছিল বঙ্গবন্ধুর জীবনের লক্ষ্য— সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব রক্ষা করে চলা। কারণ তাতে শান্তি আসবে এবং শান্তির সন্ধানেই তিনি সবসময় ছিলেন, শান্তির জন্যই সংগ্রাম করেছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর