দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলায় নিহতদের স্মরণে পটিয়ায় দোয়া মাহফিল

অনলাইন ডেস্ক

দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলায় নিহতদের স্মরণে পটিয়ায় দোয়া মাহফিল

পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট দেশব্যাপী ঘৃণ্য ও নারকীয় সিরিজ বোমা হামলায় নিহতদের স্মরণে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পটিয়া উপজেলা জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ বদিউল আলম।

তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী তার ছেলে তারেক রহমান এদেশীয় পাকিস্তানি দোসরদের নিয়ে একটি সন্ত্রাসবাদের সরকার কায়েম করতে চেয়েছিল। তারা ইসলামী স্টেট এর আদলে বাংলাদেশকে পরিচালিত করতে উগ্র সন্ত্রাসবাদীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে জেএমবি, হরকাতুল জিহাদ সহ জঙ্গিদের বিভিন্নভাবে প্রতিষ্ঠা হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছিল।

‘হওয়া ভবন ছিল এসব জঙ্গি কার্যক্রমের অঘোষিত হেডকোয়াটার। জঙ্গি গডফাদার তারেক জিয়া অবৈধ অর্থায়ন অস্ত্রের যোগান দিয়ে বাংলা ভাই,শায়াখ আবদুর রহমান সহ মৌলবাদী জঙ্গিদের এইদেশে জঙ্গিবাদ কায়েম করতে চেয়েছিল।’

‘দেশকে একটি অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার নীলনকশা হিসেবে ১৭ আগস্ট সারা দেশে একযোগে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনা ঘটানো হয়েছিল। পূণ্যভূমি সিলেটে ব্রিটিশ রাষ্ট্র দূত আনোয়ার চৌধুরী কে টার্গেট করে ও হামলা করা হয়েছিল। সমগ্র দেশকে একযোগে কাঁপিয়ে দিয়ে দেশের মানুষের মনে ভীতি তৈরি করে তারা জঙ্গিবাদের নীলনকশা সফল করতে মরিয়া ছিল। তখন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা। ২০০৮ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে এই জঙ্গি ও তাদের মদদ দাতাদের বিচারের আওতায় আনা হয়েছে। জঙ্গি দমমে সরকারের সফল অভিযান চলমান আছে। আমাদের সকলকে এই জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সজাগ থাকতে হবে।’

বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলায় জঙ্গিবাদের ঠাঁই হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলায় নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। যারা তাদের আপনজন হারিয়েছিলেন তাদের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।

পটিয়া উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ন-আহবায়ক জমির উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ৬০ দশকের ছাত্রনেতা, মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক মো. আহমদ নুর, পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব শাহজাহান চৌধুরী, পটিয়া উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের আহবায়ক সাইফুল ইসলাম, শ্রমিকলীগ নেতা জামশেদ আলম, খোরশেদ আলম, মো. জফুর, আওয়ামী লীগ নেতা ফজল দৌলতী, কাজী মামুন, রনি বড়ুয়া, নজরুল ইসলাম, যুবলীগ নেতা লিটন বড়ুয়া, সুজন বড়ুয়া, তৌহিদুল আলম জুয়েল, উজ্জ্বল ঘোষ, সাইফুল ইসলাম জুয়েল, বাদশা মিয়া, জেলা ছাত্রলীগ নেতা হুমায়ুন কাউসার আসাদ, সাজ্জাদ হোসাইন, মিসবাহউল করিম ইরাজ, মো. রুবেল, মো. আসিফ, মো. ইজতিয়াক প্রমুখ।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পাঁচ বছরের শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যা, ৩ মাদকসেবী আটক

অনলাইন ডেস্ক

পাঁচ বছরের শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যা, ৩ মাদকসেবী আটক

নারায়ণগঞ্জে পাঁচ বছর বয়সী এক শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের পুরিন্দা বড়বাড়ি এলাকায় এই হত্যাকাণ্ড ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ স্থানীয় তিন মাদকসেবীকে আটক করেছে পুলিশ।

এলাকাবাসী জানান, ফল বিক্রেতা রমজান আলী ও গার্মেন্টস কর্মী সাবিনা বেগমের একমাত্র কন্যা লিজা আক্তার বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে বাড়ির সামনে খেলা করছিল। এ সময় এলাকার কয়েকজন চিহ্নিত মাদকসেবী শিশুটিকে আইসক্রিম খাওয়ানোর কথা বলে সেখান থেকে ডেকে নিয়ে নান্নু মিয়ার বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর থেকে শিশুটি নিখোঁজ ছিল। পরে শিশুটিকে না পেয়ে স্বজনরাসহ এলাকাবাসী বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেন।

দুপুর ২টার সময় নান্নু মিয়ার বাড়ির ভাড়াটেদের ঘরের জানালা দিয়ে খাটের নিচে কাঁথা মোড়ানো অবস্থায় একটি শিশুর রক্তাক্ত মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী থানা পুলিশকে জানায়। তবে ঘরের দরজার বাইরে তালা লাগানো ছিল।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দরজা ভেঙে শিশু লিজার লাশ উদ্ধার করে। এ সময় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ওই ঘরের বাসিন্দা সামাদ, শিমুল ও সোহেল নামের তিন মাদকসেবীকে ধরে গণপিটুনি দিলে পুলিশ তাদের আটক করে।

আড়াইহাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জোবায়ের হোসেন জানান, এ ঘটনায় পুলিশের একাধিক টিম তদন্ত করছে। সন্দেহভাজন তিনজনকে আটক করে থানায় নেওয়া হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ছাড়া নিহত শিশুটির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদরের জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রও পড়ুন:

প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী!

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

শুক্রবার রাজধানীর যেসব মার্কেট ও দর্শনীয় স্থান বন্ধ থাকবে

মাদাগাস্কারে গরু চুরি নিয়ে সংঘর্ষে ৪৬ জন নিহত


জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিল্লাল হোসেন বলেন, আটককৃতরা মাদকসেবী বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধারণা করা হচ্ছে, শিশুটিকে ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডে এরা জড়িত থাকতে পারে। এ ঘটনায় আটককৃতদের আসামি করে মামলার প্রক্রিয়া চলছে। আরও কেউ জড়িত থাকলে তাদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানান তিনি।

এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় থানা পুলিশের পাশাপাশি আলাদাভাবে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পিবিআইএর জেলা শাখার একটি বিশেষ দল। ইতোমধ্যে তারা ঘটনাস্থল থেকে বেশ কিছু আলামতও জব্দ করেছে।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

ফুটবলে ক্যারিশমা দেখিয়ে অষ্টমবারের মতো গিনেস বুকে বাংলাদেশের ফয়সাল

অনলাইন ডেস্ক


ফুটবলে ক্যারিশমা দেখিয়ে অষ্টমবারের মতো গিনেস বুকে বাংলাদেশের ফয়সাল

বল হাতে ক্যারিশমা দেখিয়ে সপ্তম ও অষ্টমবারে মতো ওয়ার্ল্ড গিনেস বুকে নাম লেখালেন মাগুরার ছেলে মাহমুদুল হাসান ফয়সাল।৩০ সেকেন্ডে ৬৬ বার ও ৩০ সেকেন্ডে ৬৮ বার হাতে ফুটবল ঘুরিয়ে দুইটি রেকর্ড গড়েন ১৯ বছর বয়সী এই তরুণ। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ওয়ার্ল্ড গিনেজ বুক কর্তৃপক্ষের দেওয়া সনদটি হাতে পেয়েছেন তিনি।

ফয়সান মাগুরা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে লেখাপড়া করছেন। তার বাড়ি সদর উপজেলার হাজিপুর গ্রামে। 

ফয়সাল জানান, ছোটবেলা থেকেই খেলাধুলা তার প্রিয়। ইচ্ছে ছিল ক্রিকেটার হওয়ার। কিন্তু নানা প্রতিবন্ধকতায় তা আর হয়ে ওঠেনি। এরপর শুরু করেন ফুটবল খেলা। খেলতে খেলতেই তিনি ফুটবল নিয়ে নানা এক্সপেরিমেন্ট শুরু করেন। তখনই মাথায় আসে বিভিন্ন কৌশল রপ্ত করে রেকর্ড গড়ার।

তিনি বলেন, আমার নানা-নানিসহ পরিবারের সবাই আমাকে সহযোগিতা করেছেন। আমার স্বপ্ন, এ রকম ২৫টি সার্টিফিকেট নিয়ে সবার সামনে হাজির হওয়ার। পুরো বিশ্বের কাছে নিজের গ্রাম, জেলা সর্বোপরি বাংলাদেশের লাল সবুজের পতাকাকে তুলে ধরা। আমার এখন একটি মাত্র ইচ্ছা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত করা।

মাগুরা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন বলেন, ফয়সালের সপ্তম ও অষ্টম রেকর্ড আমাদের গর্বিত করেছে। ভবিষ্যতে ওকে যেকোনো ধরনের সহযোগিতা দিতে আমরা প্রস্তুত।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক

ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

নিজ বাড়িতে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা করেছেন। নিহত শিক্ষার্থী ইমরুল কায়েসের বাড়ি যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গঙ্গানন্দপুর গ্রামে। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাত ৩টার দিকে আত্মহত্যা করেন।

কায়েস রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। বাবা শহীদুল্লাহ ও মা একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। তিন ভাই-বোনের মধ্যে দ্বিতীয় কায়েস। 

আরিয়ান নামে কায়েসের এক সহপাঠী জানায়, বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে রুমের দরজা বন্ধ করে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে কায়েস। ঘটনার কিছু দিন আগে মায়ের কাছে মোটরসাইকেল কিনতে চেয়েছিল। মোটরসাইকেলও কিনে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ঘটনার আগে একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা কিনতে চায়। কিন্তু মধ্যরাতে ক্যামেরা কিনতে যাওয়া যাবে না বলে মা তাকে বোঝানোর চেষ্টা করে। এরপর সে রুমের দরজা বন্ধ করে গলায় ফাঁস দেয়। পরে রুমের দরজা ভেঙে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

তার সহপাঠীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কায়েস মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিল। পুনর্বাসন কেন্দ্রেও ছিল কিছু দিন। এর মধ্যে বিভাগের ভর্তি কার্যক্রম শুরু হলে সহপাঠীদের সঙ্গে কথা বলে ভর্তিও হয়েছে।

রও পড়ুন:

প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী!

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

শুক্রবার রাজধানীর যেসব মার্কেট ও দর্শনীয় স্থান বন্ধ থাকবে

মাদাগাস্কারে গরু চুরি নিয়ে সংঘর্ষে ৪৬ জন নিহত


এদিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ইমরুলের টাইমলাইনে কয়েক দিন ধরে হতাশা আর আত্মহত্যা নিয়ে পোস্ট করতে দেখা যাচ্ছিল। ব্যর্থতা আত্মহত্যার মূল এবং পরিচিত কয়েকজনের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি পোস্ট করছিলেন। সেই ছবিতেও হতাশামূলক ক্যাপশন দিতে দেখা গেছে। 

এ বিষয়ে জানতে যশোরের ঝিকরগাছা থানায় একাধিকবার ফোন করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

গুলশান লেকে ভেসে উঠলো নিখোঁজ তরুণীর মরদেহ

অনলাইন ডেস্ক

গুলশান লেকে ভেসে উঠলো নিখোঁজ তরুণীর মরদেহ

রাজধানীর গুলশান লেকে নৌকাডুবির ঘটনায় সেলিনা আক্তার নামে এক তরুণীর মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজের প্রায় ১৩ ঘণ্টা পর লেকের পানিতে ভেসে উঠলে সেলিনা আক্তারের লাশ উদ্ধার করা হয়। 

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে যাত্রীবাহী নৌকাটি গুলশান লেকে ডুবে যায়। এই ঘটনার পর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল সেলিনাকে উদ্ধারের চেষ্টা চালায় ফায়ার সার্ভিস। এরপর সন্ধান না পেয়ে উদ্ধার কাজ স্থগিত রাখে ফায়ার সার্ভিস। পরে রাত ১০টার দিকে লেকের পানিতে ওই তরুণীর লাশ ভেসে ওঠে। 

সেলানা বনানীর একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কর্মী ছিলেন। সকালে তিনি কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন। 

স্থানীয় এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কড়াইল বস্তির পূর্ব পাশের ঘাট থেকে বৃহস্পতিবার সকালে ১৪ জন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি গুলশান-১ ও ২–এর মাঝামাঝি ৩৩ নম্বর রোডের ঘাটে যাচ্ছিল। লেকের মাঝামাঝি নৌকাটি ডুবে যায়। নৌকাটি ডুবে যাওয়ার সময় মাঝিসহ বাকিরা সাঁতরে পাড়ে উঠলেও সেলিনা উঠতে পারেননি।

রও পড়ুন:

প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী!

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

শুক্রবার রাজধানীর যেসব মার্কেট ও দর্শনীয় স্থান বন্ধ থাকবে

মাদাগাস্কারে গরু চুরি নিয়ে সংঘর্ষে ৪৬ জন নিহত


ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কর্তব্যরত কর্মকর্তা দেওয়ান আজাদ গণমাধ্যমকে জানান, নৌকাডুবির খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে সন্ধ্যা পর্যন্ত নিখোঁজ তরুণীকে উদ্ধারের চেষ্টায় তল্লাশি চালায়। কিন্তু ওই তরুণীর সন্ধান পায়নি তারা। শুক্রবার সকাল থেকে আবার তল্লাশি শুরু হওয়ার কথা ছিল বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

গুলশান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, নিখোঁজ সেলিনা কড়াইল বস্তিতে থাকতেন। পুলিশের পক্ষ থেকে ওই ঘাটে ছোট নৌকায় ঝুঁকি নিয়ে লেক পারাপারে বাধা দেওয়া হতো। কিন্তু আজ (বৃহস্পতিবার) পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে নৌকাটি যাত্রী নিয়ে ছেড়ে আসে। 

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

ডাকাতের হামলা, ট্রেনের ছাদ থেকে দুই লাশ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

ডাকাতের হামলা, ট্রেনের ছাদ থেকে দুই লাশ উদ্ধার

ঢাকা-জামালপুর কমিউটার ট্রেনে ডাকাতের হামলায় দুজন নিহত ও একজন গুরুতর আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার পর দেওয়ানগঞ্জগামী ট্রেনটি জামালপুর পৌঁছালে ছাদে রক্তাক্ত অবস্থায় তিন জনকে উদ্ধার করে জামালপুর জিআরপি থানা পুলিশ।

নিহতদের মধ্যে একজনের পরিচয় জানা গেছে। তিনি হলেন জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার মিতালী এলাকার মো. ওয়াহিদের ছেলে মো. নাহিদ (৪০)। নিহত অন্য পুরুষ ব্যক্তির বয়স আনুমানিক ৪০ বছর। লাশ দুটি জামালপুর সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। আহত রুবেল (২২) ইসলামপুর উপজেলার মাঝপাড়া গ্রামের হীরু মিয়ার ছেলে।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে রুবেল সাংবাদিকদের বলেন, গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশন থেকে পাঁচজনের একটি যুবক দল ট্রেনের ছাদে ওঠে। এক পর্যায়ে তারা দুই ব্যক্তির মুঠোফোন ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। বাধা দিলে দুর্বৃত্তরা ওই দুজনকে ছুরিকাঘাত করে। পরে ওই পাঁচ দুর্বৃত্ত ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশনে নেমে যায়।

রেলওয়ে পুলিশের সার্কেল ইন্সপেক্টর (ময়মনসিংহ) গুলজার হোসেন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ট্রেনটি জামালপুরে এলে ছাদ থেকে রক্ত পড়তে দেখে ভেতরে থাকা কয়েকজন যাত্রী পুলিশ এবং গার্ডকে জানায়। এরপর ছাদে উঠে তিনজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় পেয়ে জামালপুর সদর হাসপাতালে নিলে দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

রও পড়ুন:

প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী!

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

সংসার ভাঙার খুশিতে ডিভোর্স পার্টি!


কমলাপুর থেকে ট্রেনের ছাদে ওঠা ফারুক নামের এক যাত্রী জামালপুরে সাংবাদিকদের বলেন, গফরগাঁও রেলস্টেশন ছাড়ার পর ট্রেনের ছাদের যাত্রীরা ডাকাত দলের কবলে পড়েন। চার-পাঁচ জনের ডাকাত দলটি নাহিদসহ (পরে নিহত) অনেক যাত্রীর কাছ থেকে মানিব্যাগ ও মোবাইল ফোন নিয়ে ট্রেনের ইঞ্জিনের দিকে চলে যায়।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর