কুষ্টিয়া-হরিপুর সেতুর প্রতিরক্ষা বাঁধে আবার ভাঙন
কুষ্টিয়া-হরিপুর সেতুর প্রতিরক্ষা বাঁধে আবার ভাঙন

কুষ্টিয়া-হরিপুর সেতুর প্রতিরক্ষা বাঁধে আবার ভাঙন

Other

সময়মতো ধস মেরামত না করায় একের পর এক ভাঙনের মুখে পড়ছে কুষ্টিয়া-হরিপুর সেতুর প্রতিরক্ষা বাঁধ। বুধবার রাতে আরেক দফায় ভেসে গেছে বাঁধের অন্তত ১৫ মিটার অংশ।  

এবার জনপদের দিকে ৫ থেকে ৭মিটার পাড়ও ভেঙ্গে গেছে। গত ১৫ আগস্ট ভোর বেলায় প্রতিরক্ষা বাধের ৪০ মিটার অংশের ব্লক বাঁধ ভেঙ্গে নদীতে চলে যায়।

 

এরপর দেরীতে বালুর বস্তা ফেলা শুরু করায় ভাঙন নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি পানি উন্নয়ন বোর্ড। গত বছরের অক্টোবর মাসে বাঁধের এসব পয়েন্টের ব্লক ধসে যায়। এরপর পুরো শুষ্ক মৌসুমে তার মেরামত করতে পারেনি সেতু ও বাঁধের তত্ত্বাবধানকারী প্রতিষ্ঠান এলজিইডি।  

কুষ্টিয়া শহরের সঙ্গে হরিপুর ইউনিয়নকে যুক্ত করেছে শেখ রাসেল কুষ্টিয়া-হরিপুর সংযোগ সেতু। ২০১৭ সালে গড়াই নদীর ওপর শতকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই সেতু উদ্বোধন করা হয়।  

গত ১৫ আগস্ট বড় আকারের ভাঙন দেখা দেয়ার পর দুই দিনেও প্রতিরোধের কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। ১৭ আগস্ট কিছু বালুর বস্তা ফেলে পানি উন্নয়ন বোর্ড। এরপর বুধবার আরও বালুর বস্তা ফেলা হয়। পানি উন্নয়ন বোর্ড দুই দিনে ১ হাজার ৬০০ বস্তা ফেলে। বুধবার বিকেলেও দুইটি ট্রলিতে করে এনে বস্তা ফেলতে দেখা গেছে। কিন্তু তা ছিল অপ্রতুল, পানির লেভেলের উপরে উঠতে পারেনি।  

অন্যদিকে প্রতিনিয়ত পানির চাপ বাড়তে থাকায় সন্ধ্যার পরে ভাঙনের দুই পাশ থেকে ব্লক বাঁধ ধসে নদীতে চলে যেতে থাকে। ভাঙন বড় হতে থাকে জনপদের দিকে। এরই মধ্যে মো. সামসুল ও মোজাম্মেলের দুটি বাড়ি নদীতে চলে গেছে। তীরবর্তী বাসিন্দারা তাদের বাড়ির অংশ খুলে ও মালামাল দ্রুত অন্যত্র সরিয়ে নিয়েছে। তারা আতঙ্কে রাত কাটাচ্ছে। ভাঙনস্থলের ১২০ মিটারের মধ্যেই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় অবস্থান করছে।  

স্থানীয় বাসিন্দা মো. ইসলাম বলেন, সব সময়ই অবহেলা করা হয়েছে। গত অক্টোবরে যখন ধস হয়েছিল। তখন তা ছোট ছিল। কিছু টাকা খরচ করে মেরামত করলেই ঝুকি কমে যেত। কিন্তু এরপর গত রোববার যখন বড় আকারের ভাঙন হলো তখনও বালুর বস্তা ফেলে প্রতিরোধে দেরী করা হলো। এভাবে অবহেলা করতে থাকলে এখানকার কোন বাড়িঘরই আর থাকবে না। সব নদীতে যাবে।  

পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো, আব্দুল হামিদ বলেছেন, পদ্মা এবং গড়াই উভয় নদীতেই পানি বাড়ছে। বিপদসীমার কাছে চলে এসেছে। তিনি বলেন, নদী ভাঙন ও বন্যা প্রতিরোধে উপযুক্ত উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।  

আরও পড়ুন:


ফজরের ওয়াক্তে ঘুম থেকে জেগে ওঠার আমল ও দোয়া

পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে পালাল ধর্ষণ মামলার দুই আসামি

আফগানিস্তান: পলাতক আশরাফ গনিকে আশ্রয় দিয়েছে আরব আমিরাত

বেগমগঞ্জে গৃহবধূকে ধর্ষণ মামলায় বাদীর স্বাক্ষ গ্রহণ


NEWS24.TV / কামরুল