তালেবানের হাত থেকে বাঁচতে ভারতে আসেন সালমানের নায়িকা
তালেবানের হাত থেকে বাঁচতে ভারতে আসেন সালমানের নায়িকা

তালেবানের হাত থেকে বাঁচতে ভারতে আসেন সালমানের নায়িকা

অনলাইন ডেস্ক

সম্প্রতি তালেবান যোদ্ধারা যে ভাবে আফিগানিস্তান অধিগ্রহণ করল, ২০ বছর আগেও একই চেহারা দেখেছিলেন আফগানরা। তালেবানের ভয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়েছিলেন হাজার হাজার মানুষ। সেই মানুষের ভিড়ে ছিলেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের  সহ-অভিনেত্রী ওয়ারিনা হোসেন। 'দাবাং-৩'এর অভিনেত্রীর ভয়, মহিলাদের এখন শুধু প্রজননের যন্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হবে।

সেটা তিনি কোনও দিনও চান না। ওয়ারিনার আক্ষেপ, গত ২০ বছর ধরে তিল তিল করে সে দেশ উন্নতির মুখ দেখছিল, কিন্তু এখন সেই সমস্ত প্রচেষ্টা শেষ হয়ে গেল।  

কাবুল-সহ প্রায় গোটা আফগানিস্তানকে ফের তালেবানের কবলে যেতে দেখে সেই আতঙ্ক ঘিরে ধরেছে তাকে। মনে পড়ছে ২০ বছর আগের কথা। এক সাক্ষাৎকারে  এসব কথা জানালেন  সালমানের নায়িকা ওয়ারিনা।

জানান, ২০ বছর আগে তালেবানের হাত থেকে বাঁচতে ওয়ারিনার গোটা পরিবার সে দেশ ছেড়ে পালিয়ে আসেন ভারতে। তারপর থেকে এই দেশকেই নিজের দেশ হিসেবে ভালবাসেন ওয়ারিনা। কিন্তু আফগানিস্তানের কথা মনে পড়ে তার। সপরিবার বনভোজন করার দিনগুলি ভেসে ওঠে তার চোখের সামনে। কাবুলের মনোরম বসন্তে কত সুন্দর সময় কাটাতেন তারা! ওয়ারিনা সেই দিনগুলির সঙ্গে এখনকার সময়কে তুলনা করে বললেন, 'এখন সে দেশে শুধু শোষণ এবং অত্যাচারের বাতাস বইছে। আগের মত‌ সুন্দর আফগানিস্তান বোধহয় আর ফিরবে না। '

আরও পড়ুন


আশরাফ গনিকে ক্ষমা ঘোষণা করেছে তালেবান

খিচুড়ি কম দেওয়ায় আওয়ামী লীগ কর্মীকে হত্যা, আটক ২

বিশ্বে করোনা সংক্রমণ কমেছে


ওয়ারিনা এখন সে দেশের জনসাধারণের কথা ভেবে আতঙ্কিত। বললেন, 'ফের শরণার্থীর সংখ্যা বাড়বে। আমি জানি, এত মানুষকে জায়গা দেওয়া সম্ভব নয় কোনও দেশের পক্ষেই। কিন্তু তাও আমি অনুরোধ করব সমস্ত রাষ্ট্রনেতাকে, এই কঠিন সময়ে আফগানদের পাশে দাঁড়ান। আমি চাই না আফগান মহিলারা নিজেদের দেশেই দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হয়ে বসবাস করুন। আমি সৌভাগ্যবান যে ভারত সে সময়ে আমাকে ও আমার পরিবারকে গ্রহণ করেছিল। '

news24bd.tv রিমু