মৃত্যুর যন্ত্রণা মুক্ত থাকার মাধ্যম সূরা ইয়াসিন
মৃত্যুর যন্ত্রণা মুক্ত থাকার মাধ্যম সূরা ইয়াসিন

মৃত্যুর যন্ত্রণা মুক্ত থাকার মাধ্যম সূরা ইয়াসিন

অনলাইন ডেস্ক

পবিত্র কোরআনুল কারিমের ৩৬তম সূরা হল সূরা ইয়াসিন। এই সূরাকে কুরআনের হৃদয় বলা হয়েছে। সূরাটিতে রয়েছে ৮৩টি আয়াত, পাঁচটি রুকু এবং ৭টি মুবিন। সূরা ইয়াসিনের ফজিলত সম্পর্কে হাদিসের অনেক বর্ণনা রয়েছে।

এ সূরা নিয়মিত তেলাওয়াত ও আমলের রয়েছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত।

মৃত্যুর যন্ত্রণা মুক্ত থাকার মাধ্যম সূরা ইয়াসিন

তাফসিরে জালালাইনের হাশিয়ায় এসেছে, ‘যদি কোনো মুসলমানের মৃত্যুর সময় হয়, আর সে সময় তার পাশে কেউ সূরা ইয়াসিন পাঠ করে, তবে বেহেশত থেকে রেদওয়ান ফেরেশতা জান্নাতের সুসংবাদ না দেয়া পর্যন্ত রূহ কবজকারী ফেরেশতা (মালাকুল মাউত) ওই ব্যক্তির রূহ কবজ করেন না। রূহ কবজের সঙ্গে সঙ্গে ওই ব্যক্তির অবস্থান হয় রাইয়্যান নামক জান্নাতে।  

হজরত আবু যর রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, ‘আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছে শুনেছি, তিনি বলেছেন, ‘মৃত্যুশয্যা ব্যক্তির কাছে সূরা ইয়াসিন পাঠ করলে তার মৃত্যু যন্ত্রণা সহজ হয়ে যায়। (মাজহারি)

হযরত ইবনে ইয়াসার রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, ‘রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘এটা (সূরা ইয়াসিন) তোমাদের মুমূর্ষু (মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে) ব্যক্তিদের কাছে পাঠ কর। ’ (আবু দাউদ, নাসাঈ, ইবনে মাজাহ, মুসনাদে আহমাদ)

সুতরাং মুমিন মুসলমানের উচিত প্রতিদিন সকালে অন্তত একবার এ সূরাটি তেলাওয়াত করা। কেননা এ সূরার তেলাওয়াতকারীকে ইহকাল ও পরকালে ব্যাপক কল্যাণ ও শান্তি দান করা হবে।

আরও পড়ুন


এবার পানশির উপত্যকা দখলে অগ্রসর হচ্ছে তালেবান

রামেক করোনা ওয়ার্ডে আরও ৯ জনের মৃত্যু

গাজা উপত্যকায় হামাসকে লক্ষ্য বোমা হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে চাকরির সুযোগ


অন্য এক বর্ণনায় এসেছে, ‘এ সূরা কেয়ামতের দিন অধিক সংখ্যক মানুষের জন্য সুপারিশকারী হবে আর আল্লাহ তাআলা তা অবশ্যই কবুল করবেন।

মহান আল্লাহ তাআলা সকল মুসলিম মুমিনকে নেক আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

news24bd.tv রিমু